Site maintenance is running; thus you cannot login or sign up! We'll be back soon.
Nokkhotro Banner

সাইফুল ইসলাম

২ বছর আগে লিখেছেন

জাতীয় দলের কোচ হতে চেয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি

ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে অন্যতম সেরা অধিনায়ক গাঙ্গুলি বলেন, তিনি কোচ হতে চেয়েছিলেন। সৌরভ এটা এখন ভালোই জানেন , ‘আপনি যা করতে পারেন, আপনার সেটাই করা উচিত। ফলাফল নিয়ে কখনো ভাবা উচিত না। জীবন আপনাকে কোথায় নিয়ে যাবে, তা আমরা কেউ জানি না। ১৯৯৯ সালে অস্ট্রেলিয়া যাই, তখন আমি দলের সহ-অধিনায়কও হতে পারিনি। শচীন ছিল দলের অধিনায়ক, কিন্তু কয়েক মাস পরই আমি ভারতের অধিনায়ক হয়ে যাই।’
২০০৭ সালে ওয়ানডে ছাড়ার পরের বছর টেস্ট ক্রিকেট থেকেও অবসর নেন সৌরভ। ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম সেরা প্রশাসক জগমোহন ডালমিয়ার মৃত্যুর পর সিএবি সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন। অথচ সৌরভ তখন জাতীয় দলের কোচ হতে মরিয়া ছিলেন! সেটি... continue reading

১৩৯

রজত শুভ্র

২ বছর আগে লিখেছেন

তুই

                  
তুই আমার কবিতা হবি?
খাগের কলমে কাল কালি লাগিয়ে ডায়েরির রুক্ষ কাগজে
লাইনের পর লাইন তোকে লিখব।।
তুই আকাশের এককোনে পড়ে থাকা পঞ্চমীর চাঁদ হবি?
মোলায়েম ফ্যাকাসে আলোয় দূর করতে চাইবি
মহাকালের অমানিশা।।
হবি? মেঘের আড়ালে লুকিয়ে থাকা মেঘ বালিকা?
তোর কাদনে বর্ষা নামবে এই নিসর্গে।
বাদল দিনের কদম ফুল হতে তো বাধা নেই?
আসিস তুই একদিন সোনালি ধনের ক্ষেতে ঘন কুয়াশা হয়ে।
শিশিরে হবে তোর সমাপ্তি।।
জানি ,আমার আখির অশ্রু হয়ে
একদিন ঠিকি ঝড়ে পরবি।।
continue reading

১৮৭

আহসান কবির

২ বছর আগে লিখেছেন

রক্তের দাগ

প্রিয় দীপন,
হয়তো সত্য কথাই লিখেছেন তিনি। নাজিম হিকমতের ভাষাতেই বলা যায় তোর মৃত্যুর পর আরও একবার সূর্যকে প্রদক্ষিণ করেছে পৃথিবী। পৃথিবীটা যেমন ছিল হয়তো তেমনই আছে, শুধু প্রিয় কিছু মানুষের স্মৃতির ডায়েরিতে ছাড়া আর কোথাও তুই নেই দীপন! তোর বাবা আবুল কাশেম ফজলুল হক স্যার পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বেদনার জায়গাতে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন- আমি এই হত্যার (দীপন হত্যার) বিচার চাই না। আইনের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে কিন্তু বিশ্বাস কমে গেছে! স্যারের আশঙ্কাই সত্যি হয়েছে। বছর ঘুরলেও তোর হত্যাকারীরা রয়ে গেছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে!
স্মৃতির ডায়েরিটা খুললে তোর সঙ্গে প্রথম দেখা হওয়ার স্মৃতিটা খুব বেশি মনে পড়ে!
নৌ বাহিনীর চাকরি হারানো এই... continue reading

২২৯

কাফাশ মুনহামাননা

২ বছর আগে লিখেছেন

প্রিয়তমার সরল রূপমা

হে কার্জন,
তোমার ছায়াতলে কেনো
বারেবারে ফিরে আসি জানো?
আমার প্রিয়তমার খোঁজে।
তার পদচিহ্ন আঁকা রয়েছে তোমার
ধুলোর পরতে পরতে।
হে কার্জন,
তোমার পুকুর ঘাট আমার চিরচেনা।
প্রিয়তমার জলকেলি উৎসবের আনন্দঘন
মুহুর্ত এখনো আমার স্মৃতিগারে উজ্জ্বল।
প্রিয়তমার স্পর্শ পেতে
পুকুর জলে চুমুক দেই পরম আদরে।
ঘাটে বসে জড়িয়ে ধরি আঙিনা
প্রিয়তমাকে ভেবে ভেবে।
হে কার্জন,
জানো কি এতো সুবাস কোথা
থেকে আসে তোমার কাননে?
মেশকে আম্বরের চাইতেও দুর্লভ
আমার প্রিয়তমার খুশবু থেকে।
যেই ঘ্রাণে বিমোহিত হতে
সৃষ্টিকর্তাও অধীর হয়ে অপেক্ষা করে।
ফুলকলিদের অবিরাম নাচানাচি
তারই প্রমাণ স্বরূপ।
হে কার্জন,
তোমার আকাশে ঝলমলে রোদ
আমার প্রিয়তমার একটুকরো হাসির
অাশ্চর্যরকম অলৌকিকতা।
যার রহস্যভেদ
আজো করতে পারি নি আমি।
হে... continue reading

১৪৩

প্রীতীশ বল

২ বছর আগে লিখেছেন

ধ্বংসোন্মুখ আদিবাসী শিক্ষা ও সংস্কৃতি সংরক্ষণ ও বিকাশে নববর্ষের ভাবনা কুমার প্রীতীশ বল

প্রাককথন
সাধারণত বাংলা নববর্ষ আসলে এ জনপদের সচেতনমহল হিসাবে পরিচিত লোকসকল নিজেদের এবং চারপাশের জনগোষ্ঠীর লোকায়ত শিক্ষা ও সংস্কৃতি সংরক্ষণ এবং বিকাশের ভাবনাক্রান্ত হয়ে পড়ে। আমরাও এর বাইরে আসতে না পেরে বহুজাতিক বাংলাদেশে যে ৪৫টি (মতান্তরে ৭৫টি) আদিবাসী জাতিসত্তার লোকসকল বসবাস করে, তাদের রয়েছে বৈচিত্র্যময় ইতিহাস, কৃষ্টি, সংস্কৃতি ও মূল্যবোধ সংরক্ষণ ও বিকাশের ভাবনায় করণীয় নির্ধারণে সচেষ্ট হয়েছি। প্রকৃত সত্য হলো, আমার এবারের নববর্ষের ভাবনা মূলত আদিবাসীদের লোকায়ত শিক্ষা ও সংস্কৃতি সংরক্ষণ এবং বিকাশকে কেন্দ্র করে তাড়িত হয়েছে। কারণ বর্তমানের আকাশ সংস্কৃতির আগ্রাসী থাবায় হারিয়ে যাচ্ছে এসকল বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য। আর তাই আদিবাসী জনগোষ্ঠীর অগ্রসরমান অংশ তাদের সাংস্কৃতিক অস্তিত্ব রক্ষার... continue reading

১৮৪

কাফাশ মুনহামাননা

২ বছর আগে লিখেছেন

ভালবাসার তিনশো পয়ষট্টি দিন

আমার ভালবাসার
তিনশো পয়ষট্টি দিন কাটে
তোমাকেই ঘিরে প্রিয়তমা
হৃদয়ের রঙধনু ঘেরা আকাশে
তোমার অনুভূতি মেলে ডানা
উচ্ছ্বাসের কোলাহল জড়িয়ে।
আমার ভালবাসার গভীরতায়
তোমার মুগ্ধতা যেনো চিরকুমারী লতা
ভোরের আবিরের মতো সদা সজীব
দিন যতো যায়
জ্যামিতিক হারে বাড়ে তার ঘনত্ব
এক জীবনে ফুরোবে না
তোমার প্রতি হৃদয়ের অপরিসীম টান।
আমার ভালবাসার হে স্বত্বাধিকারিনী
তোমাকে পেয়ে পরিপূর্ণ আমার
ষোলআনা জীবনের ষোলকলা। continue reading

১০১

সাইয়িদ রফিকুল হক

২ বছর আগে লিখেছেন

ছোটগল্প: বিকৃত-ব্যবচ্ছেদ

ছোটগল্প:
বিকৃত-ব্যবচ্ছেদ
সাইয়িদ রফিকুল হক
 
তনুশ্রী আপনমনে হাঁটছিলো। এসময় তার অন্য কোনোদিকে খেয়াল ছিল না। তার সমস্ত মনোযোগ এখন হাঁটায়। তাই, সে খুব মনোযোগ দিয়ে হাঁটছে।
আজ তার মনটাও খারাপ। আর সে বাসা থেকে বেরও হয়েছে এই মনখারাপ নিয়ে।
সে বড় রাস্তার মোড়ে এসে দেখলো রাস্তার একপাশে একটা বিরাট জটলা। আর সেখানে লোকজনের সে-কী চিৎকার ও চেঁচামেচি! তার মনে হলো—আজকাল একশ্রেণীর মানুষ হাতের কাছে একটাকিছু পেলে তা-ই নিয়ে অহেতুক হাঁকডাক করতে খুব ভালোবাসে আর এতে উৎসাহী হয়ে ওঠে। কিন্তু  মানুষের হৈচৈ তার একদম ভালো লাগে না। তবুও তাকে এই ভিড়টার পাশ কেটেই যেতে হবে। সে প্রায় চোখ বন্ধ করে লোকের ভিড় অতিক্রম... continue reading

১৮১

কাফাশ মুনহামাননা

২ বছর আগে লিখেছেন

আমার নিয়তি

পরিবর্তিত সমাজ, প্রিয় মানুষগুলো
আমিই শুধু বোকা রয়ে গেলাম
শত বর্ষের পুঞ্জিভূত কষ্টের দাহনে
জ্বলে পুড়ে অঙ্গার মনের নিবাস
যান্ত্রিক জীবনের নিষ্ঠুরতায়
পরিহাসের গান যেনো নিত্যসঙ্গী
দুঃস্বপ্নের কুয়োয় ঘুরে ফিরে নিপতিত
হওয়াই আমার নিয়তি।
তবু ভালো থাকুক কাছের মানুষগুলো
আমি না হয় সমাজের জঞ্জাল হয়েই
বেঁচে থাকলাম। continue reading

১৩৪

সাইয়িদ রফিকুল হক

২ বছর আগে লিখেছেন

গল্প-সমালোচনা: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘একরাত্রি’ গল্পের নায়ক ভাঙ্গা-স্কুলের সেকেন্ড মাস্টার


গল্প-সমালোচনা: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘একরাত্রি’ গল্পের নায়ক ভাঙ্গা-স্কুলের সেকেন্ড মাস্টার
সাইয়িদ রফিকুল হক
 
আমি আমার এই জীবনে যত গল্প পড়ে সাংঘাতিকভাবে বিচলিত ও আলোড়িত হয়েছি তন্মধ্যে নিঃসন্দেহে উল্লেখযোগ্য হলো রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘একরাত্রি’। নানাকারণে গল্পটি আমার মনোযোগ আকর্ষণ করেছে। এটি অদ্ভুত ভালো লাগার একটি গল্প। এখানে, খুব কষ্ট আছে, আফসোস আছে, আর আছে সীমাহীন-দুঃখবোধের মধ্যেও একটুখানি আনন্দের আভাস।
 
গল্পটি পড়ি আর সেকেন্ড-মাস্টারের জন্য উতলা হয়ে উঠি। মানুষের জীবনে কত রকমের বিচিত্র ঘটনা ঘটে থাকে। এর মধ্যে প্রেম-বিরহ-ভালোবাসা আর ভালোলাগাকে কোনোভাবেই আমাদের জীবন থেকে বাদ দেওয়া যাবে না। আমরা না চাইলেও এসব আমাদের জীবনে অহরহ ঘটছে। আর এগুলো আমাদের জীবনযাত্রা থেকে কখনও কোনো বিচ্ছিন্ন... continue reading

১৯২

আহসান কবির

২ বছর আগে লিখেছেন

‘বালাম’ ও ‘শ্রাবণী’দের দাম বেড়েছে!

শৈশবে পড়া একটি ছড়া আজও মনে আছে। ছড়াটির প্রথম দুই লাইন ছিল এমন, ‘দাদখানি চাল মসুরির ডাল চিনিপাতা দৈ/দুটি পাকা বেল সরিষার তেল ডিমভরা কই।’ শৈশবে বাজারে গিয়ে আমি দাদখানি চাল খুঁজতাম। কোথাও পাওয়া যেত না। একবার এক চালের আড়ৎদার বলেছিল, খোকা এই নামে কোনও চাল নেই। তুমি যারে ‘দাদখানি’ বলছ, সেটা আসলে দাঁতের সমান লম্বা চাল! (দাদখানি নামের ধান আসলেও আছে)। আমি অবাক হয়েছিলাম এই ভেবে যে, দাঁতের নামে কিংবা দাঁতের মাপেও চাল পাওয়া যায়! পরবর্তী সময়ে অবশ্য এই অবাক হওয়ার ব্যাপারটা আর থাকেনি। কারণ, তখন জেনে গেছি, মানুষের নামেও চালের অথবা চালের নামেও মানুষের নামকরণ করা হয়ে থাকে।
নদী,... continue reading

২০৬

কাফাশ মুনহামাননা

২ বছর আগে লিখেছেন

ছবির সাথে কথা বলি

প্রায়শই আমি আমার
প্রিয় মানুষটির ছবির সাথে
কথা বলি চুপিচুপি নিভৃতে
ঘন্টার পর ঘন্টা একটানা।
ছবির ভেতর থেকে
চেয়ে থাকে সে অপলক চোখে
আমিও চেয়ে থাকি তার
চোখের ভাষা বুঝতে
মাঝে মাঝে আমার কাণ্ড দেখে সে
খিলখিলিয়ে হাসে
আমি তখন তার হাসির উৎস
খুঁজে ফিরি উৎসুক হৃদয়ের আহবানে।
মন খারাপ হলে
সে আমাকে অনবরত গান শোনায়
তার শ্রুতিমধুর কন্ঠসুরে
কষ্টের কালো মেঘগুলো
নিমিষেই মিলিয়ে যায় অজানায়
নিজেকে আবিষ্কার করি অথৈ সুখের নহরে।
ভালো লাগে তার অনুযোগ, রাগ-অনুরাগ
আর প্রকাশহীন বিশ্বাসের গভীরতা
সেজন্যেই তার আর আমার ভালবাসার
বন্ধন এতো অটুট। continue reading

১৬৫

রব্বানী চৌধুরী

২ বছর আগে লিখেছেন

মুঘোল সম্রাট বাবরের সমাধী কাবুলের “বাগ-এ-বাবর”-এর আড়ালের কথা

 
ছবিটি উইকিপিডিয়া থেকে সংগ্রহিত)
সম্রাট বাবরের অন্তিম ইচ্ছা অনুযায়ী তাঁকে কাবুলে সমাহিত করা হয়, আফগানিস্থানের রাজধানী কাবুলের “ বাগ-এ-বাবর” -এ সম্রাট বাবরের সমাধী অবস্থিত।
বর্তমানের উজবিকাস্থানের আনদিযান নামক স্থানে জন্ম গ্রহন কারী চেঙ্গিস খান ও তৈমুর লঙের উত্তরসূরী জহিরুদ্দিন মুহম্মদ বাবর ১৫২৬ সালে দিল্লীর লোদী বংশীয় সর্বশেষ সুলতান ইব্রাহিম লোদীকে প্রথম পানিপথের যুদ্ধে পরাজিত করে মুঘল সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এবং কাবুল আক্রমণ করে কাবুলের শাসন ভার গ্রহন করেন। । এই সময় তিনি ভারত আক্রমণের পরিকল্পনা করেন। ১৫২৬ সালে পাণিপথের প্রথম যুদ্ধে ইব্রাহিম লোদিকে পরাজিত করে মুঘল সাম্রাজ্যের সূচনা করেন।
যদিও সম্রাট বাবার একটি উল্ল্যেখ সময় কাবুল ও দিল্লিতে... continue reading

২৭৮

এক্সটেন্ডেড ফিজিক্স

২ বছর আগে লিখেছেন

দু:স্বপ্ন

সূর্যের ওপাড়ে যে মেঘ থাকে।
একটা মেঘ, তার উপর
আরেকটা মেঘ।
সে মেঘের স্তূপে ভাসতে ভাসতে-
হঠাৎ
কে যেন ধাক্কা দিয়ে
নিচে ফেলে দেয়।
টের পাই-
প্রচন্ড পালপিটেশন নিয়ে
যখন ঘুম ভাঙ্গে।
স্বপ্ন ধীরে ধীরে দু:স্বপ্ন হয়ে উঠে। continue reading

২১৪

রব্বানী চৌধুরী

২ বছর আগে লিখেছেন

সমাধি রেখায় মুঘল সম্রাজ্য

Timurid dynasty নামে খ্যাত মুঘল সম্রাজ্যের প্রথম সম্রাট বাবরের আমল থেকে শুরু করে শেষ মুঘল সম্রাট বাহাদুর শাহ্ পর্যন্ত মুঘল সম্রাজ্যের সীমানা কতটুকু ছিল তা নিঁখুত ভাবে বলা মুশকিল তবে মোটামুটি ভাবে বলায় সম্রাট বাবর থেকে সম্রাট বাহাদুর শাহ্ এর মুঘল সম্রাজ্যের বিস্তৃতি ছিল আফগানিস্থানের কাবুল থেকে শুরু করে মূলতঃ বর্তমান ভারেতের উত্তর অংশ, পাকিস্থান ও বাংলাদেশ। মুঘল সম্রাটগন ভারতের কাবেরী নদীর দক্ষিন পাশে বর্তমান ভারেতের কেরালা ও তামিল নাডু প্রদেশ ও বাংলাদেশের বর্তমানের তিন পার্বত্য জেলা মুঘল সম্রাজ্যের বা মুঘল ঝান্ডার আওতার বাইরে ছিল।
সমাধি রেখায় মুঘল সম্রাজ্য নামে পোষ্টটিতে মুঘল সম্রাজ্যে তাঁদের সমাধি স্থল দিয়ে মুঘল সম্রাজ্যের... continue reading

৩৮৪

কাফাশ মুনহামাননা

২ বছর আগে লিখেছেন

চুপ থাকা মানুষগুলো

চুপ থাকা মানুষগুলো
বিস্ফোরিত দহনে অত্যোধিক হাসে
বুকের ভেতর দাউ দাউ করে জ্বলা দাবানলে,
যার উৎপত্তি ঘটে প্রিয় মানুষটির
অকল্পিত ছলনায়।
কিছু কিছু মানুষরূপী প্রেতাত্মা
সহজ-সরল হৃদয় ভেঙ্গে
তৃপ্তি অনুভব করে
অবশ্য ভালবাসার অর্থ যদি হয়
ইগলু আইসক্রিম আর ফ্যান্টাসি কিংডম
তবে সব দোষ নিষ্পাপ অন্তরদের।
চুপ থাকা মানুষগুলো তবু
বিসর্জনে আড়াল করে কষ্টের প্রতিমা
সিক্ত-অশ্রুরূপ হাসির বহিঃপ্রকাশে
আর প্রাণ ভরে করে আশীর্বাদ
প্রিয় মানুষটি অন্তত সুখে থাক সবসময়। continue reading

১৭৬
ব্লগের গতিশীল/ট্রেন্ডিং বিভাগসমূহ