Technology Image

বিজয় বায়ান্ন কী-বোর্ডের সাহায্যে ইন্টারনেটে বাংলা লিখন পদ্ধতি



আমাদের অনেকেরই ইন্টারনেটে বাংলা লিখতে সমস্যা হয়।ইন্টারনেটে বাংলা লেখার জন্য কিছু সফটওয়্যার রয়েছে। যেমন: অভ্র, বিজয় ইত্যাদি।এগুলার অনেক সমস্যা রয়েছে।এই টেকটিউনসেই অনেক টিউনারের যেরকম বানান ভুল সেটা চোখে পড়ার মতই(দয়া করে আমার কথায় কোনো টিউনার ভাই রাগ করবেননা)। অভ্রতে আপনি সব বানান লিখতে পারবেন না,English ও বাংলা একসাথে লিখতে গেলে সমস্যা হয়,যুক্তাক্ষর লিখতে সমস্যা হয়,মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে লিখে এনে পেষ্ট করে দেখলেন যে হাবিজাবি কি সব হয়ে গিয়েছে ইত্যাদি ইত্যাদি।আবার নিকষ কনভার্টার ব্যবহার করে ওয়ার্ড এর ফাইল কে ইউনিকোডে রুপান্তর করে নেয়া যায় তবে এত বেশ কিছু কিছু বানান ভুল রুপান্তর হয় এবং ইংলিশ ও বাংলা একসাথে সমস্যা করে। অনেকে বাংলা লিখতে অভ্র ব্যবহার করেন।অভ্রের লে-আউট আর বিজয়ের লে-আউট সম্পূর্ন আলাদা।বিজয় বহু বহু বছর ধরে দেশের প্রিন্টিং মিডিয়াতে নিয়মিত ব্যবহার হয়ে আসছে এবং সবার কম্পিউটারে বাংলা টাইপের হাতেখড়ি এই বিজয় দিয়েই।যারা নিয়মিত কম্পোজের কাজ করেন দিনে কয়েক’শ থেকে কয়েক হাজার পৃষ্ঠা টাইপ করেন তারা বিজয় ছাড়া আর কিছু ভাবতেই পারেন না।যারা মোটামুটি বাংলা টাইপ করতে জানেন,যাদের টাইপিং এ স্পিড আছে তাদের জন্যই এই টিউন।আর যারা অভ্র ব্যবহার করে ভার্চূয়াল কী-বোর্ডে মাউস দিয়ে ক্লিক করে করে বাংলা বানানের চৌদ্দগুষ্টি উদ্ধার করে সন্তুষ্ট তারা এখনই বেরিয়ে যান।আপনার কাছে বিজয় ব্যবহার করে ঝামেলা ছাড়া নির্ভুল বাংলা লেখার চেয়ে ওই অভ্রতে শম্বুকগতিতে লিখে বাংলা ভাষার চৌদ্দগুষ্টি উদ্ধার করাটাই ভালো মনে হবে। আজ আমরা শিখবো কিভাবে proper configure এর মাধ্যমে নির্ভূলভাবে ইন্টারনেটে বাংলা লিখা যায়। প্রথমে কম্পিউটারে বিজয় বায়ান্ন ইন্সটল করে নিন।উইন্ডোজ সেভেনে বাংলা লিখতে হলে বিজয় বায়ান্ন লাগবে।বিজয় বায়ান্নর বৈধ কপি সম্ভবত 120 টাকা।ইন্সটল করার পর key দিয়ে রেজিষ্টার করে নিন। এরপর উইন্ডোজের control panel এ যেয়ে regional and language এ ক্লিক করুন। যে উইন্ডোটি আসবে তার keyboard and language ট্যাবটিতে ক্লিক করুন।
এরপর change keyboard এ ক্লিক করুন।ক্লিক করার পর যে উইন্ডোটি এসেছে এখানে আপনি installed services এর নিচে আপনার কম্পিউটারে কোন কোন ভাষার কী-বোর্ড এনাবল করা আছে তা দেখতে পাবেন।আমার বাংলা এনাবল করা আছে তাই ইংরেজী কী-বোর্ডের নীচে বাংলা কী-বোর্ড ও দেখতে পাচ্ছেন।



বাংলা কী-বোর্ড এনাবল করতে হলে add বাটনটিতে ক্লিক করুন।



ক্লিক করার পর add input language নামে একটি বক্স আসবে।এই বক্সটিতে স্ক্রল ডাউন করে একটু নীচে নেমে যান তাহলে Bengali(Bangladesh) keyboard দেখতে পাবেন। Bengali তে টিক চিহ্ন দিয়ে ok করুন।



দেখবেন যে আপনার টাক্সবারে বা উপরে ডেক্সটপে language bar টি এনাবল হয়েছে।এই ল্যাঙ্গুয়েজ বারটিকে ক্লিক করলে দেখবেন যে ইংলিশ ও বাংলা লেখার জন্য দুটি আলাদা অপশন (EN ও BN)দেখাচ্ছে।যেটা আপনার দরকার ওটাতে মাউস ক্লিক করবেন বা কী-বোর্ড শটকার্ট (shift+alt. key)চেপেও আপনি ইংলিশ থেকে বাংলা বা বাংলা থেকে ইংলিশ এ যেতে পারবেন।কখন কোন ফরমেটে আছেন তা EN ও BN দেখে বুঝতে পারবেন।





এরপর বিজয় কী-বোর্ডের ইউনিকোড সিলেক্ট(ctrl+alt+v) করুন যাতে আপনি অনলাইনে বাংলা লিখতে পারেন।চিত্রে দেখুন,বিজয় কী-বোর্ডের চার ধরনের কী-বোর্ড লে-আউট রয়েছে।ইন্টারনেটে বাংলা লিখতে হলে আপনাকে Unicode লে-আউট সিলেক্ট করতে হবে।



যদি আপনি নির্ভুল বাংলা লিখতে চান তাহলে অবশ্যই বিজয় কী-বোর্ড Unicode এ ও language bar এ বাংলা(BN) এনাবল থাকতে হবে।



ইন্টারনেটে যেখানে বাংলা লেখতে চান সেখানে মাউস এর কার্সর রেখে ইউনিকোডের জন্য বিজয় এর শটকার্ট (ctrl+alt+v)চাপুন এবং ল্যাঙ্গুয়েজ বার শটকার্ট (shift+alt)। এই নিয়মে আপনি উইন্ডোজ সেভেনে আপনি আপনার পিসির হার্ড ড্রাইভের নাম ও বাংলাতে দিতে পারবেন। একটি কথা এভাবে আপনি ইন্টারনেটে 99% বাংলা বানান ই লেখতে পারবেন।তবে হয়তোবা কদাচিৎ দু-একটা বানান ভুল আসতে পারে।তখন ওই বানানটা আপনি MS WORD এ লিখে কপি করে নিয়ে ওইখানে পেষ্ট করতে পারেন।আর তখন MS WORD এ ও আপনি ল্যঙ্গুয়েজ বার BN এ এবং বিজয় কী-বোর্ড Unicode এ রাখবেন।