Sports Image

২১০ জন ক্রিকেটারের উপর বিশেষ নজরদারি




বিশ্বকাপ মানেই নতুন রোমাঞ্চ, নতুন বিস্ময়; কিংবা নতুন রেকর্ড বা নতুন নায়ক খুঁজে পাওয়ার মঞ্চ। এসব তো আছেই, এবারের বিশ্বকাপটি হাজির হচ্ছে এক গাদা নিষেধাজ্ঞা নিয়েও। ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে জমজমাট এই আসরে অংশ নেয়া ২১০ জন ক্রিকেটারের উপরই কিছু ‘করতে মানা’র নিয়ম জারি করে দিয়েছে আইসিসি।

নিজেদের মোবাইল নাম্বার জমা দিতে হবে আইসিসির কাছে। একই সাথে কোন নিজস্ব গোপন নাম্বারও ব্যবহার করতে পারবেন না ক্রিকেটাররা। গোয়েন্দারা চাইলে যেকোন সময় কারও ফোনে আড়ি পাততে পারবেন।

টিম হোটেলে বাইরের কাউকে নিয়ে যাওয়া যাবে না। যদি, খুব বেশি প্রয়োজন হয় তাহলে টিম ম্যানেজারের অনুমতি নিতে হবে। এখানেই শেষ নয়। টিম ম্যানেজার আইসিসির অপরাধ দমন ইউনিটের (আকসু) সম্মতি সাপেক্ষেই কেবল বাইরের কাউকে রুমে ঢোকার অনুমতি দিতে পারবেন।

গণমাধ্যমের সাথে কথা বলার ক্ষেত্রেও ক্রিকেটারদের সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। চাইলেই কোন সাংবাদিকের সাথে কথা বলতে পারবেন না কোন ক্রিকেটার।

অপরিচিত কারও সাথে সম্পর্ক গড়ার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্ক থাকতে হবে। নারী বা পুরুষ যে কেউ নানা ভাবে ঘণিষ্ট হওয়ার চেষ্টা করতে পারে। এমনও হতে পারে যে, তারা বাজিকরদের এজেন্ট হিসেবে কাজ করছেন। এই আশঙ্কা দূর করতেই এই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

হোটেলের বাইরে কোথাও যেতে হলে সেটা টিম ম্যানেজার কে কেবল জানিয়ে গেলেই চলবে না, সাথে নিরাপত্তারক্ষীও নিয়ে যেতে হবে। একই সাথে আইসিসির অনুমতিও নেয়া চাই।

মাঠে কোন ভাবেই বলের বিকৃতি ঘটানো চলবে না। অধিনায়ককে এক্ষেত্রে বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে। কোন কিছু ঘটলে তাকেই আগে তলব করা হবে।

বিশ্বকাপ চলাকালীন সময়ে কোন বানিজ্যিক কাজে অংশ নেয়া যাবে না। আইসিসি সাফ জানিয়ে দিয়েছে, এসময় কোন স্পন্সরের সাথে মেলামেশা একদমই বন্ধ রাখতে হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। নতুন কোন বন্ধুর আবেদনে সাড়া না দেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।