Lifestyle Image

যত্নে রাখুন কাপড়



*শীতের মোটা কাপড়, লেপ-কম্বল ইত্যাদি কড়া রোদে শুকিয়ে প্যাকেটে মুড়ে আলমারিতে সংরক্ষণ করতে হবে।

*ধোয়া কাপড় সারা দিন বারান্দায় রোদে মেলে রাখলে ভাপসা গন্ধটা চলে যায়।

*বেনারসি শাড়ি, সিল্ক শাড়ি, হাফ সিল্ক শাড়িগুলো অনেক দিন ব্যবহার না করলে সাধারণত ভাঁজে ভাঁজে নষ্ট হয়ে যায়। একটা লাঠিতে পেঁচিয়ে রোল করে রাখলে শাড়ির ভাঁজে সাধারণত দাগ পড়ে না। এ ছাড়া কাঠের ফ্রেমে বহর অনুযায়ী আটকে এসব শাড়ি আলমারিতে রাখা যেতে পারে। তাতে শাড়িগুলোতে দাগ হবে না, ফাঙ্গাস পড়বে না। তবে মাঝেমধ্যে এসব পুরোনো শাড়ি রোদে দিতে হবে, তাহলে রং বিবর্ণ হয়ে যাবে না। রোদে দিয়ে বাতাসে মেলে দিতে হবে।

*পুরোনো কাপড়ে দাগ পড়লে, সেই দাগসহ যদি তুলে রাখা হয়, তবে তা তোলা কঠিন। তাই দাগ লাগলে সেটা ধুয়ে পরিষ্কার করে ইস্ত্রি করে রাখতে হবে।

*কাপড়ের আলমারিতে ন্যাপথলিন, এয়ারফ্রেশনার মাঝেমধ্যে দিলে কাপড় থেকে গন্ধ বের হবে না।

*কাপড় সংরক্ষণ করার স্থানে এক কোনায় একটা কাপড়ের পুঁটলিতে নিমপাতা রাখলে পোকার সংক্রমণ থেকে রেহাই পাওয়া যেতে পারে।

*যেকোনো কাপড় ব্যবহারের পর পরই ধুয়ে হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখতে হবে। তারপর সংরক্ষণ করতে হবে।

*বর্ষায় সাধারণত তুলে রাখা কাপড়ে স্যাঁতসেঁতে ভাব চলে আসে। তাই বের করে রোদে দিয়ে নিতে হবে।

প্রথমে কাপড়ের একদিকের ভাঁজে রোদ দিতে হবে। তারপর ভাঁজটা পরিবর্তন করে আরেক পাশ রোদে দিয়ে নিতে হবে। সাধারণত ছয় মাস পর পর সংরক্ষণ করা কাপড় রোদে দেওয়া ভালো।

*কাপড়ে দাগ পড়ে গেলে দাগটা যেন বসে না যেতে পারে, প্রথমেই সে ব্যবস্থা করতে হবে। কাপড়ের যে স্থানে দাগ পড়বে, সেখানে ট্যালকম পাউডার দিলে দাগটা শুষে নেয় পাউডার। এরপর ড্রাই ওয়াশ করে সংরক্ষণ করলে কাপড়ে দাগ পড়তে পারে না।

*জামদানি শাড়িতে অনেক সময় রং নষ্ট হয়ে যায়, দাগ পড়ে যায়। এ জন্য বাসায় পরিষ্কার না করে ড্রাই ওয়াশের জন্য লন্ড্রিতে দেওয়া ভালো।

*পুরোনো কাপড়ে দাগ পড়ে গেলে ভালোভাবে ড্রাই ক্লিনিংয়ের জন্য লন্ড্রিতে দিতে হবে।

*কাপড় ধুয়ে রোদে শুকিয়ে পলি প্যাকেটে করে সংরক্ষণ করা যেতে পারে। কাপড়ের প্যাকেটটা বের করে মাঝেমধ্যে মুছে ফেলতে হবে। তাতে ভেতরের কাপড়টা অনেক দিন ভালো থাকে।