Sports Image

টাইগার বন্দনায় ব্যস্ত ভারত



রক্তাক্ত প্রান্তর নাটকের সেই উক্তিটির কথা মনে আছে? ‘মানুষ মরে গেলে পঁচে যায়, বেঁচে থাকলে বদলায় কারণে অকারণে বদলায়।’ বিখ্যাত নাট্যকার মুনীর চৌধূরীর কথা এবার সত্য বলে প্রমাণিত করল পাশের দেশ ভারত। কদিন আগেই যে দেশ বাংলাদেশকে চূড়ান্তভাবে তাচ্ছিল্য কেরে মহান মুক্তিযুদ্ধকে করেছিলো প্রশ্নবিদ্ধ এবার সেই ভারতই কিনা টাইগারদেরকে ভাসিয়েছে প্রশংসা বৃষ্টিতে!

এবার আসি মূল ঘটনায়। কদিন পরেই বাংলাদেশের মাটিতে শুরু হবে ময়দানি লড়াই। দ্বিপাক্ষিক সে সিরিজকে আরও জমিয়ে তুলতে টিবি সম্প্রচারের দায়িত্ব পাওয়া চ্যানেল স্টার স্পোর্টস বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সময়ের সাফল্যকে অনেক বড় করে দেখিয়েছে। যার আড়ালে রয়েছে ভিন্ন এক কৌশলও। নিজেদের দলের উপর থেকে চাপ কমিয়ে নিতেই প্রতিপক্ষকে বড় দলের মর্যাদায় আসীন করছে তারা।

আথচ এই ভারতই বিশ্বকাপের সময় মওক্যা মওক্যা বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন বানিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে রীতিমত অপমান করেছিল ভারত। কিন্তু আসন্ন ভারত-বাংলাদেশ সফরকে সামনে বাংলাদেশ, এ দেশের ক্রিকেটার ও ক্রিকেটে বাংলাদেশের সফল্য নিয়ে অবাক হওয়ার মত প্রশংসা একটি ভারতীয় বিজ্ঞাপনে।

আর কয়েকদিন পরেই একটি টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে ৭ জুন বাংলাদেশ সফরে আসবে ভারত। এই সিরিজের অফিসিয়াল সম্প্রচার স্বত্ব পেয়েছে ভারতের জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল ‘স্টার স্পোর্টস’। চ্যানেলটির নতুন এই বিজ্ঞাপনে বাংলাদেশকে অন্যভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। সেখানে বাংলাদেশ দলকে পরিচিত করা হয়েছে বেশ সন্মানজনকভাবে।

বিজ্ঞাপনটির ভাষ্য, বাংলাদেশ হলো ‘সেই দল, যারা বিশ্বকাপ থেকে ইংল্যান্ডকে বিদায় করে দিয়েছে। প্রায় বিদায় করে দিয়েছিল ভারতকেও (এ সময় বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচের রুবেলের সেই বিতর্কিত নো বলটিও দেখানো হয়)। টাইগার ক্রিকেটারদের স্তুতি উঠে এসেছে এই বিজ্ঞাপনে। সেই দল, যারা হোয়াইটওয়াশ করেছে পাকিস্তানকে। তৈরি করেছে নতুন ইতিহাস। দক্ষিণ এশিয়া থেকে নতুন এশিয়ান হুমকি, বাংলাদেশ!

প্রতিবেশি দেশ ভারত বাংলাদেশকে এবার যে সন্মান দেখিয়েছে এটা ক্রিকেটে দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের আভাস। কেননা কারো সাথে শত্রুতা নয়, সবার সাথেই আমাদের বন্ধুত্ব হোক এই নীতিতে বিশ্বাস করে বাংলাদেশ।