"জীবনচর্চা" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

আহসান কবির

১ বছর আগে লিখেছেন

নিঃসঙ্গ নন হ‌ুমায়ূন

তৃষ্ণা পেয়েছে।টেবিলে পানি ভর্তি জগ। ইচ্ছে হয় না বিছানা থেকে নেমে গ্লাশে ঢেলে খাই। বাইরে অপার জোসনা। জানালা খুলে দিলে অপার জোসনায় ভেসে যাবে ঘরটা।ইচ্ছে হয়না জানালাটা খুলি।দুঃখ হয় তাদের জন্য যাদের সঙ্গ আজ আমায় নিঃসঙ্গ করে দেয়! .................... হ‌ুমায়ূন আহমেদ
হুমায়ূন আহমেদ কী নিঃসঙ্গ ছিলেন?তার জীবন যাপনে কিংবা লেখালেখিতে? সম্ভবত এই প্রশ্নটা অমিমাংসিতই থেকে যাবে। তবে কেউ যদি জানতে চায় প্রয়ানের পরে হ‌ুমায়ূন এখন কেমন আছেন,সাহিত্যের কোথায় আছেন বা থাকবেন তাহলে এই প্রশ্নের উত্তরও কী অমিমাংসিত থাকবে? নাকি সেটা মহাকালই নির্নয় করবে?
মানুষ যদি নিঃসঙ্গ হয়ে যায় তবে সেটা কবরে যাবার আগে নয়! হ‌ুমায়ূন আহমেদের এই কথার সূত্র... continue reading

১২২

আহসান কবির

১ বছর আগে লিখেছেন

রক্তের দাগ

প্রিয় দীপন,
হয়তো সত্য কথাই লিখেছেন তিনি। নাজিম হিকমতের ভাষাতেই বলা যায় তোর মৃত্যুর পর আরও একবার সূর্যকে প্রদক্ষিণ করেছে পৃথিবী। পৃথিবীটা যেমন ছিল হয়তো তেমনই আছে, শুধু প্রিয় কিছু মানুষের স্মৃতির ডায়েরিতে ছাড়া আর কোথাও তুই নেই দীপন! তোর বাবা আবুল কাশেম ফজলুল হক স্যার পৃথিবীর সবচেয়ে বড় বেদনার জায়গাতে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন- আমি এই হত্যার (দীপন হত্যার) বিচার চাই না। আইনের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে কিন্তু বিশ্বাস কমে গেছে! স্যারের আশঙ্কাই সত্যি হয়েছে। বছর ঘুরলেও তোর হত্যাকারীরা রয়ে গেছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে!
স্মৃতির ডায়েরিটা খুললে তোর সঙ্গে প্রথম দেখা হওয়ার স্মৃতিটা খুব বেশি মনে পড়ে!
নৌ বাহিনীর চাকরি হারানো এই... continue reading

২২৯

আহসান কবির

২ বছর আগে লিখেছেন

‘বালাম’ ও ‘শ্রাবণী’দের দাম বেড়েছে!

শৈশবে পড়া একটি ছড়া আজও মনে আছে। ছড়াটির প্রথম দুই লাইন ছিল এমন, ‘দাদখানি চাল মসুরির ডাল চিনিপাতা দৈ/দুটি পাকা বেল সরিষার তেল ডিমভরা কই।’ শৈশবে বাজারে গিয়ে আমি দাদখানি চাল খুঁজতাম। কোথাও পাওয়া যেত না। একবার এক চালের আড়ৎদার বলেছিল, খোকা এই নামে কোনও চাল নেই। তুমি যারে ‘দাদখানি’ বলছ, সেটা আসলে দাঁতের সমান লম্বা চাল! (দাদখানি নামের ধান আসলেও আছে)। আমি অবাক হয়েছিলাম এই ভেবে যে, দাঁতের নামে কিংবা দাঁতের মাপেও চাল পাওয়া যায়! পরবর্তী সময়ে অবশ্য এই অবাক হওয়ার ব্যাপারটা আর থাকেনি। কারণ, তখন জেনে গেছি, মানুষের নামেও চালের অথবা চালের নামেও মানুষের নামকরণ করা হয়ে থাকে।
নদী,... continue reading

২০৬

রাজীব নূর খান

২ বছর আগে লিখেছেন

কোনোও কোনো দিন এমনও হয়

সময়ঃ মধ্য দুপুর। মধ্য দুপুর সময়টা বড় অদ্ভুত! এই সময় নিজের ছায়াটাকেও খুঁজে পাওয়া যায় না। বুকের মধ্যে যেন কেমন করে! চারপাশে যা দেখা যায় সবই ভালো লাগে। প্রেসক্লাব এর সামনে একলোক রাস্তার পাশে লেবুর সরবত বিক্রি করছে, দোয়েল চত্ত্বরের সামনে দেখলাম- মানুষজন পাগলের মতোন ডাবের পানি খাচ্ছে। গুলশান লিংক রোডের সামনে দেখলাম- পথচারীরা পাগলের মতো গেন্ডারির রস খাচ্ছে। বেশ কড়া রোদ উঠেছে। এইসব রাস্তার খাবার না খেয়েই বা কি করবে!
এই শহরে কেউ কেউ মধ্যদুপুরে একা হাটতে বের হয়। রাস্তার পাশের দোকান থেকে চা খায়- কেক খায়। তারপর আবার হাটতে শুরু করে। সব জাগাতেই দুপুরবেলা মানুষের ভিড়টা একটু... continue reading

৩৩৮

রাজীব নূর খান

২ বছর আগে লিখেছেন

পার্লারের মেয়ে

আমার নাম রোজী। বয়স আঠাশ। আমি ঢাকার নাম করা একটা পার্লারে কাজ করি। আজ আপনাদের পার্লারের সুখ দুঃখের গল্প শোনাবো। আমি এই পার্লারে কাজ করছি প্রায় তিন বছর। আমি ইডেন কলেজ থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে মাস্টার্স করেছি। বিয়ে হলো চার বছর হয়ে গেল। তিন বছর প্রেম করে বিয়ে করেছি। অফিস থেকে রাতে গাড়ি করে বাসায় পৌঁছে দিয়ে আসে। এবং সন্ধ্যায় নাস্তা দেয়। দুপুরের খাবার তো বাসা থেকেই বক্সে করে নিয়ে যাই।
ইদানিং ঢাকা শহরে পার্লারের অভাব নেই। অল-গলি ভরে গেছে। আমি যে পার্লারে কাজ করি, ধরুন সেই পার্লারের নাম- লাসভেগাস। ঢাকা শহরে লাসভেগাসের অনেক গুলো শাখা আছে। আমাদের শাখাতেই সবচেয়ে বেশি... continue reading

৩৪৭

রাজীব নূর খান

২ বছর আগে লিখেছেন

কয়েকটি টুকরো টুকরো গল্প

১। আমার ছেলে-মেয়ে ডাক্তার হবে। আরেকজন বলে আমার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার হবে। এই কথা শুনে আরেকজন বলে- আমার মেয়ে বিজ্ঞানী হবে। আর রফিক সাহেব রেগে-মেগে বললেন আমার ছেলে বড় ব্যবসায়ী হবে। ঠিক আছে, আচ্ছা ভালো কথা আপনাদের ছেলে মেয়ে বড় হয়ে ডাক্তার হবে, ইঞ্জিয়ার হবে, বিজ্ঞানী হবে, ব্যবসায়ী হবে। কিন্তু কথা হলো, তাহলে এই সমাজে কাদের ছেলে মেয়ে জঙ্গি হয়, সন্ত্রাস হয়, দুর্নীতিবাজ হয়? এই সমাজে কি খারাপ লোকজন নেই? অবশ্যই আছে। অনেক আছে। তাদের বাবা-মাও এক সময় আপনাদের মতো বলেছে- আমার ছেলে হেন হবে, তেন হবে। কিন্তু শেষ মেষ জঙ্গি হয়, সন্ত্রাস হয়, চোর হয় নেশা গ্রস্ত হয়। সব... continue reading

৩৩৩

মোঃ রওশানুজ্জামান কানন

২ বছর আগে লিখেছেন

learning

learning gives creativity .Creativity leads to thinking.Thinking leads to knowledge.Kwonledge makes you great. Make yourself valuable ,otherwise you will search for other. No one can teach you ,if you are not interested to learn continue reading

৩৩৪

আহমেদ ইসমাঈল

৩ বছর আগে লিখেছেন

জানেন তো, ঔষুধ ছাড়াও হাই ব্লাড প্রেসার কন্ট্রোল করা যায়

প্রেসার মাপার যন্ত্র হাতে বসে থাকা ডাক্তার আর তার সামনে দুরু দুরু বুক নিয়ে বসে আছেন আপনি। আপনার কপালে হয়তোবা সুক্ষ্ন রেখার মত কিছুটা ঘাম। সামনে বসা ব্যাক্তিটি নিবিড় মনোযোগের সাথে তার যন্ত্রটির প্রেসার নির্ণায়ক কাটাটির দিকে লক্ষ্য রাখছেন। সেই সাথে চেষ্টা করছেন তার স্টেথিসকোপে কিছু শোনার। এক সময় তার কাজ শেষ হলো। সাথে সাথেই আপনার প্রশ্ন, ডাক্তার সাহেব প্রেসারের অবস্থা কি? আগের মতোই নাকি কিছুটা বেড়েছে? গম্ভীর মুখে তিনি জবাব দিলেন, না তেমন কিছুনা। সামান্য বেশি (*১)। ব্যাস। শুরু হলো আপনার টেনশন। বাড়ছে প্রেসার। মানে হৃদপিন্ড থেকে সারা শরীরের দূর থেকে দূরতর প্রান্তে সরু সরু নালীকার ভেতরে দিয়ে... continue reading

৩৯৫

রাজীব নূর খান

৩ বছর আগে লিখেছেন

শিশুকে না বলুন

 
একজন শিশু জন্ম দেয়া কি খুব বেশি প্রয়োজন? একটি ছেলে-মেয়ের বিয়ের পর আত্মীয় স্বজন সবাই বাচ্চার জন্য তাড়া দেয় কেন? বাচ্চা না নিলে সমস্যা কি? এই ঘুনে ধরা সমাজে একটি বাচ্চাকে পৃথিবীতে নিয়ে আসার কোনো মানে হয় না। এই সমাজ, দেশ এবং দেশের মানুষজনতো সহজ সরল সুন্দর নয়। একটা শিশু জন্ম নেয়ার পর থেকে, বড় হতে থাকবে, আর পদে পদে ধাক্কা খাবে। স্কুলে ভর্তি হতে নানান সমস্যা, খাদ্যে সমস্যা, পাড়ায় মহল্লায় সব জাগায় সমস্যা। বড় হবে নেশা করবে, প্রেম করবে, পরকীয়া করবে। শিশুটি বড় হবে হাজার হাজার সমস্যার মধ্যে দিয়ে। শিশুটির পথ মসৃন থাকবে না। পথ থাকবে নানান... continue reading

৫৮১

রাজীব নূর খান

৩ বছর আগে লিখেছেন

আমি বলতে চাই-

কয়েকদিন পর ঈদ। সবার মনে এক আকাশ আনন্দ। 
আমি জানি, আজ বাংলাদেশের সব মানূষ বড় অস্থির আর ব্যাপক চিন্তিত। সমস্যা থাকলে তার সমাধানও আছে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত বুদ্ধিমতি এবং সাহসী। আমার বিশ্বাস তিনি সঠিক সিদ্দান্ত নিবেন এবং দ্রুত সব ঠিক করে দিবেন। অতীতে তার বড় বড় সিদ্দান্তের কথা গুলো আমরা ভুলে যাইনি। 
আমাদের দেশে এই সব ঘটনা কারা ঘটাচ্ছে? তাদের লাভ টা কি? কিছু খারাপ মানূষ পৃথিবীর সব দেশেই আছে। আর এই খারাপ মানূষ গুলোই দেশে-দেশে নানান সমস্যা সৃষ্টি করে। আদিকাল থেকেই এই নিয়ম চলে আসছে। কিছু লোক খারাপ কাজ করে তাদের প্রচুর টাকা নেই বলে আর কিছু লোক... continue reading

৪২৬