Technology Image

গুগলের অ্যালফাবেট বনাম বিএমডব্লি\'র অ্যালফাবেট



অ্যালফাবেট কার? এক কথায় এখন সবাই এই প্রশ্নের উত্তর দেবেন অ্যালফাবেট ল্যারি পেজ আর সের্গেই ব্রিনের। কিন্তু সত্যিই কি তাই? উত্তরটি আংশিক সত্য। কারণ জার্মানির খ্যাতনামা গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বিএমডব্লিউ'র একটি কার ফ্লিট কোম্পানী রয়েছে যার নামও অ্যালফাবেট। আর এই বিষয়টি নিয়ে সম্ভাব্য জটিলতার দিকে এগোচ্ছে দুই প্রতিষ্ঠানই।

বিএমডব্লিউর আলফাবেট এক্ষেত্রে এগিয়েই থাকছে। কারণ গুগলের আগেই অ্যালফাবেট প্রতিষ্ঠা করেছে এই জার্মান ব্র্যান্ডটি। Alphabet.com আছে বিএমডব্লিউর দখলেই। আর এই কারণেই ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও এই ডোমেইনটি নিতে পারেনি গুগল। ফলে গুগলের অ্যালফাবেট অনলাইন পরিচয় হিসেবে বেছে নিয়েছে abc.xyz। তবে এখানেও কিন্তু গুগল বেশ পারদর্শিতার পরিচয় দিয়েছে।

এখন কথা হল দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে জটিলতার সম্ভাবনা কতটুকু? তার আগে বলে নেওয়া ভালো, বিএমডব্লিউর একজন মুখপাত্র নিউইয়র্ক টাইমসকে জানিয়েছেন, তাদের হাতে থাকা Alphabet.com গুগলের কাছে অদূর ভবিষ্যৎ কিংবা সুদূর ভবিষ্যৎ, কখনোই বিক্রির সম্ভাবনা নেই। আর এর কারণ হল, বিএমডব্লিউ'র ব্যবসায়িক কার্যক্রমের একটি বড় অংশই হলো অ্যালফাবেট। তিনি আরও জানিয়েছে, বিএমডব্লিউ ইতোমধ্যেই খতিয়ে দেখতে শুরু করেছে গুগল এক্ষেত্রে ট্রেডমার্ক আইনের কোন লঙ্ঘন করেছে কিনা। জটিলতার সম্ভাবনা উঁকি মারতে শুরু করেছে তাহলে?

মজার ব্যাপার হচ্ছে, কেবলমাত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই ১০৩টি প্রতিষ্ঠান আছে যাদের ট্রেডমার্কে কোন না কোনভাবে 'অ্যালফাবেট' রয়েছে। এর মধ্যে ওহিও অঙ্গরাজ্যে ১৯৬৫ সালে চালু হওয়া অ্যালফাবেট ইনকর্পোরেশন নামের একটি ইলেকট্রিক কম্পোনেন্ট নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আছে। মূলত বিভিন্ন গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের জন্য এসব কম্পোনেন্ট তৈরি করে এই অ্যালফাবেট।
তবে এ বিষয়ে গুগল এর আগেই কথা বলেছে। ল্যারি পেজ বলেছেন, অ্যালফাবেট কেবলমাত্র এর অধীনে থাকা প্রতিষ্ঠানগুলোর দেখাশোনার কাজটিই করবে। অ্যালফাবেট নামে কোন পণ্য কিংবা সেবা আসবে না। ফলে গুগল যেভাবে মানুষের মুখে মুখে উচ্চারিত হয়, অ্যালফাবেটের ক্ষেত্রে তেমনটিও হবে না।
তবে যে যাই বলুক, বিশ্বের নামকরা ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে ব্র্যান্ড নাম কিংবা প্যাটেন্ট নিয়ে মামলা মোকদ্দমার ব্যাপারটি বেশ পুরনো। আর এক্ষেত্রেও তেমনটি ঘটে কিনা, সেটিই এখন দেখার বিষয়।