Technology Image

বর্তমান সময়ের সেরা ১০ ট্যাব



প্রযুক্তির অগ্রগতির সাথে সাথে বাজারে যেন নিত্য নতুন এবং আরও শক্তিশালী ট্যাব বেড়েই চলেছে। তবে নতুন এই ট্যাবগুলোর মধ্যেও টিকে রয়েছে আগের কিছু ট্যাব। তাই আজকে আমি একটি ছোট্ট তালিকায় এমন সব ট্যাবলেট সাজিয়েছি যা বর্তমান বাজারে অন্য সব ট্যাবলেট থেকে দাম এবং স্পেসিফিকেশন বিবেচনায় এগিয়েই থাকবে। চলুন, তালিকাটি এবং তালিকায় থাকা ডিভাইসগুলোর সংক্ষিপ্ত রিভিউ দেখে নেয়া যাক।

১. আইপ্যাড এয়ার ২

মূল ফিচার সমূহ:
আইওএস ৮.১
১৫৩৬x২০৪৮ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ৯.৭ ইঞ্চি স্ক্রিন
১.৫ গিগাহার্জ গতি বিশিষ্ট ত্রিপল কোর প্রসেসর
২ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬/৬৪/১২৮ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ৭৩৪০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৮ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
১.২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
স্লিক ডিজাইন
শক্তিশালী স্পেসিফিকেশন

খারাপ দিক সমূহ:
ভলিউম সাইলেন্স সুবিধা নেই
এখন পর্যন্ত প্রযুক্তি বাজারে সেরা ট্যাবলেটের জায়গাটি আইপ্যাড এয়ার ২ ডিভাইসটি দখল করে রেখেছে।
ডিভাইসটি বেশ পাতলা এবং হালকা গড়নের। ডিভাইসটির স্ক্রিন আগের যেকোন অ্যাপল ট্যাবের চাইতে ভালো এবং এতে রয়েছে পূর্বের তুলনায় আরও ভাইব্রেন্ট কালার। এছাড়াও এতে ব্যবহার করা হয়েছে শক্তিশালী এ৮ প্রসেসর এবং ২ গিগাবাইট র‍্যাম যা আপনাকে চমৎকার পারফর্মেন্স প্রদান করবে।
এক কথায়, প্রায় কোন ল্যাক ছাড়া ডিভাইস যদি আপনি ব্যবহার করতে চান তবে এই ডিভাইসটি একটি ভালো পছন্দ হবে বলেই আমি মনে করছি।
মূল্য: ৩৯০.৩৩ ডলার (কিছুটা কম বেশি হতে পারে)।

২. স্যামসাং গ্যালাক্সি ট্যাব এস

মূল ফিচার সমূহ:
অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪.২
১৫৬০x১৬০০ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ১০.৫ ইঞ্চি স্ক্রিন
২.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
৩ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬ অথবা ৩২ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ৭৯০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৮ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
২.১ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
শক্তিশালী ব্যাটারি লাইফ
চমৎকার স্ক্রিন

খারাপ দিক সমূহ:
অন-বোর্ড স্টোরেজের স্বল্পতা
ডিজাইনে পেছনে পড়ে থাকবে
১০.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে ইউনিটের ট্যাবটি ব্রাউজিং, মুভি দেখা, গান শোনা, ডিজাইন করা, ইবুক পড়া - সব ক্ষেত্রেই ভালো সাপোর্ট প্রদান করবে। পাশাপাশি এর রয়েছে শক্তিশালী স্পেসিফিকেশন যা আপনাকে সহজেই ত্রিমাত্রিক গেমের আনন্দ দিতে সক্ষম। তবে বলে রাখা ভালো ডিভাইসটি ৮.৪ ইঞ্চি এবং ১০.৫ ইঞ্চি এই দু আকারেই বাজার থেকে কিনতে পারবেন। কেননা অনেকের আবার খুব বড় আকারের ডিজাইন পছন্দ নয়, তাদের ক্ষেত্রে ৮.৪ ইঞ্চির ভ্যারিয়েন্টটি সহায়ক হবে।
এছাড়াও ট্যাবটির ব্যাটারি লাইফ এক কথায় চমৎকার। অন্তত, অন্যান্য ডিভাইসের মত এই ডিভাইসটিকে চার্জ করা নিয়ে আপনাকে খুব একটা ভাবতে হবেনা।
মূল্য: ৩২৭.৫১ ডলার (কিছুটা কম বেশি হতে পারে)।

৩. আইপ্যাড মিনি ৩

মূল ফিচার সমূহ:
আইওএস ৮.১
১৫৩৬x২০৪৮ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ৭.৯ ইঞ্চি স্ক্রিন
১.৩ গিগাহার্জ ডুয়েল কোর প্রসেসর
১ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬/৩২/৬৪ অথবা ১২৮ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ৬৪৭০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৫ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
১.২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
চমৎকার ডিসপ্লে
চমৎকার অপারেটিং সিস্টেম

খারাপ দিক সমূহ:
মিনি ২ ডিভাইসটির সাথে খুব বেশি অমিল নেই
গতবছরের তুলনায় এ বছর কিছুটা ওভার প্রাইসড
ডিভাইসটির সাথে আইপ্যাড মিনি ২ এর চমৎকার মিল রয়েছে! সত্যিই কি চমৎকার, তাই না? না, আমি বরং ডিভাইসটির খারাপ দিক হিসেবেই এটিকে নির্ধারণ করবো।
ডিভাইসটি মূলত এর পূর্বের ভার্সনের একটি নতুন রুপ তবে এর পরেও আমি আমার তালিকার ৩ নম্বরে ডিভাইসটিকে রাখছি কেননা ডিভাইসটি হতে পারে আপনার জন্য চমৎকার একটি ডেইলি ড্রাইভার। আইওএস ৮.১ অপারেটিং সিস্টেম হবার কারণে ডিভাইসটি আপনাকে স্লিক পারফর্মেন্স দিতে সক্ষম।
মূল্য: ৩১৯.০০ ডলার (কিছুটা কম বেশি হতে পারে)।

৪. সনি এক্সপেরিয়া জেড৩ ট্যাবলেট কমপ্যাক্ট

মূল ফিচার সমূহ:
অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪.২
১২০০x১৯২০ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ১০.১ ইঞ্চি স্ক্রিন
২.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
৩ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬ অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ৬০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৮.১ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
২.২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
শক্তিশালী ব্যাটারি লাইফ
খুবই পাতলা এবং হালকা

খারাপ দিক সমূহ:
শার্পনেস কিছুটা কম
তুলনামূলকভাবে মূল্য বেশি
সনির এই ডিভাইসটির নামকরণ কিছুটা অদ্ভুত তবে নাম অদ্ভুত হলেও ডিভাইসটি কিন্তু চমৎকার।
ডিভাইসটিতে শুধু একটি সমস্যাই আছে বলে আমি মনে করি তা হচ্ছে ডিভাইসটির শার্পনেস অন্যান্য ডিভাইসের তুলনায় কিছুটা কম। তবে ব্রাভিয়া টেকনোলজি ব্যবহার করায় আপনার অতটাও খারাপ মনে হবে না এর ওভার অল ডিসপ্লে পারফর্মেন্স।
মূল্য: ৩২৯.০০ ডলার।

৫. আইপ্যাড মিনি ২

মূল ফিচার সমূহ:
আইওএস ৭
১৫৩৬x২০৪৮ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ৭.৯ ইঞ্চি স্ক্রিন
১.৩ গিগাহার্জ ডুয়েল কোর প্রসেসর
১ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬/৩২/৬৪ অথবা ১২৮ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ৬৪৭০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৫ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
১.২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
চমৎকার ডিসপ্লে
চমৎকার ডিজাইন

খারাপ দিক সমূহ:
একই স্পেসিফিকেশনের অন্যান্য ডিভাইসগুলো এই ডিভাইসটি থেকে অনেক কম মূল্যে পাওয়া যায়
১ গিগাবাইট র‍্যাম এবং ১.৩ গিগাহার্জ গতি বর্তমান সময়ে খুব একটা ভালো ইম্প্রেশন তৈরি করতে সক্ষম না হলেও ডিভাইসটিকে ডেইলি ড্রাইভার হিসেবে চমৎকার ভাবে মানিয়ে নিতে পারবেন নিজের সাথে।
ডিভাইসটিতে রয়েছে চমৎকার একটি স্ক্রিন যা আপনাকে মুগ্ধ করবে খুব সহজেই তাছাড়া এর ডিজাইনও আপনাকে প্রদান করবে প্রিমিয়াম ফিল।
মূল্য: ২৩৯.০০ ডলার।

৬. সনি এক্সপেরিয়া জেড৪:

মূল ফিচার সমূহ:
অ্যান্ড্রয়েড ৫.০
২৫৬০x১৬০০ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ১০.১ ইঞ্চি স্ক্রিন
অক্টা কোর প্রসেসর
৩ গিগাবাইট র‍্যাম
৩২ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ৬০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৮.১ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
৫.১ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
চমৎকার ডিসপ্লে
নতুন এবং ইম্প্রুভড ডিজাইন

খারাপ দিক সমূহ:
ঝামেলাপূর্ণ ইউজার ইন্টারফেস
মূল্য কিছুটা বেশি
বর্তমানে প্রযুক্তি বাজারে থাকা ট্যাবলেটগুলোর মধ্যে সনির এই ট্যাবলেটটি একটি অন্যতম ভালো ট্যাবলেট এবং এই ডিভাইসটিই একমাত্র আইপ্যাড এয়ার ২ এর সাথে যুদ্ধে নামতে পারে।
ডিভাইসটিতে রয়েছে চমৎকার একটি ডিসপ্লে ইউনিট, হালকা ডিজাইন এবং সনির নিজস্ব কিছু এলিমেন্ট যা আপনাকে একই সাথে পারফর্মেন্স এবং প্রিমিয়াম ফিল দিতে সক্ষম।
সনির এই ট্যাবটি ওয়াটার প্রুফ যা ডিভাইসটিকে করে তুলেছে আরও আকর্ষনীয়, তবে প্রাইসও ডিভাইসটির কিছুটা বেশিই রাখা হয়েছে বলেই আমি মনে করি।
মূল্য: ৪৯৯.৯৯ ডলার।

৭. নেক্সাস ৯

মূল ফিচার সমূহ:
অ্যান্ড্রয়েড ৫.০
১৫৩৬x২০৪৮ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ৮.৯ ইঞ্চি স্ক্রিন
২.৩ গিগাহার্জ ডুয়াল কোর প্রসেসর
২ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬ অথবা ৩২ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ৬৭০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৮ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
১.৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
চমৎকার ৪:৩ অ্যাসপেক্ট রেশিও
অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ

খারাপ দিক সমূহ
মূল্য কিছুটা বেশি
বাজে ডিসপ্লে কোয়ালিটি
আমার তালিকায় রাখা এই ডিভাইসটি কিছুটা অদ্ভুত একটি ডিভাইস, এটি একই সাথে নেক্সাস ৭ এবং নেক্সাস ১০ ডিভাইসের রিপ্লেসমেন্টও বলতে পারেন। তবে পূর্বের ডিভাইসগুলোর মতই স্ক্রিনের আকার রাখা হয়নি এই ডিভাইসটিতে, ব্যবহার করা হয়েছে পরিবর্তিত ৮.৯ ইঞ্চি আকারের একটি ডিসপ্লে প্যানেল।
ডিভাইসটির স্ক্রিন রেশিও ৪:৩ যার ফলে পাওনি ওয়েব ব্রাউজিং এর ক্ষেত্রে ওয়াইডার ভিউ এরিয়া পাবেন তবে মুভি দেখার ক্ষেত্রে বিরক্তিকর কালো বারও আপনাকে দেখতে হবে ভিডিওর উপরে এবং নিচে। এবং ৪:৩ রেশিও না হবার কারণে ডিভাইসটির গ্রিপ কিছুটা কঠিন হবে ব্যবহারের সময়।
মূল্য: ১৯৯.৯৯ ডলার।

৮. এনভিডিয়া শিল্ড ট্যাবলেট

মূল ফিচার সমূহ:
অ্যান্ড্রয়েড ৫.০
১৯২০x১২০০ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ৮ ইঞ্চি স্ক্রিন
২.২ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
২ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ
ব্যাটারি ১৯.৭৫ ওয়াট
৫ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
চমৎকার স্পেসিফিকেশন
ডিসেন্ট প্রাইস

খারাপ দিক সমূহ:
প্রথমদিকে পোর্টেবল ডিভাইস হিসেবে মানিয়ে নিতে আপনার সমস্যা হতে পারে
কনট্রোলারটি খুব একটা ভালো নয়
আপনি যদি গেম খেলার জন্য একটি নতুন ট্যাবলেট কিনতে চান তবে আপনার তালিকায় এই ট্যাবলেটটির থাকা উচিৎ একেবারেই প্রথম দিকে কেননা ডিভাইসটির গেমিং পারফর্মেন্স এক কথায় অসাধারণ।
ডিভাইসটি আইপ্যাডের মত সুন্দর আর স্যামসাং-সনির মত ফিচারে ঠাসা না হলেও গেমিং ডিভাইস হিসেবে তাদের উপরে না থাকলেও একই কাতারে থেকে যাবে অনায়াসেই।
মূল্য: ২৩৯.৯৯ ডলার।

৯. লেনোভো ইয়োগা ১০ এইচডি+

মূল ফিচার সমূহ:
অ্যান্ড্রয়েড ৪.৩
১২০০x১৯২০ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ১০.১ ইঞ্চি স্ক্রিন
১.৬ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
২ গিগাবাইট র‍্যাম
১৬ অথবা ৩২ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ (ভ্যারিয়েন্ট অনুযায়ী)
ব্যাটারি ৯০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৮ মেগাপিক্সেল রেয়ার ক্যামেরা
১.৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
চমৎকার ব্যাটারি লাইফ
ভালো মানের স্ক্রিন

খারাপ দিক সমূহ:
কিছুটা বড় এবং ভারী
ব্যাটারি সিলিন্ডারটি মাঝে মাঝে বিরক্তিকর
চমৎকার ডিজাইনের এই ট্যাবটির ব্যাটারি সিলিন্ডারের অংশটি শুয়ে থেকে মুভি দেখার জন্য ভালো সাপোর্ট দিলেও মাঝে মাঝে তা কিছুটা বিরক্তির কারণ হতে পারে।
ডিভাইসটির শার্পনেস আইপ্যাড এয়ার ২ বা স্যামসাং গ্যালাক্সি ট্যাব এস ডিভাইসগুলোর মত না হলেও এটি কোন অংশেই খারাপ নয় এবং ব্রাইটনেস ভালো হওয়ায় শার্পনেসের এই হালকা ল্যাকটি আপনার কাছে কোন সমস্যার কারণ হবেনা বলেই আমি আশা করছি।
মূল্য: ২৫০.৫৬ ডলার

১০. স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট প্রো ১২.২

মূল ফিচার সমূহ:
অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট
২৫৬০x১৬০০ রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ১২.২ ইঞ্চি স্ক্রিন
২.৩ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
৩ গিগাবাইট র‍্যাম
৩২ অথবা ৬৪ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ (ভ্যারিয়েন্ট অনুযায়ী)
ব্যাটারি ৯,৫০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার
৮ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা

ভালো দিক সমূহ:
বড় এবং উজ্জ্বল স্ক্রিন
ইম্প্রুভড স্যামসাং ইউআই

খারাপ দিক সমূহ:
বাজে বিল্ড কোয়ালিটি
কিছুটা বড় আকারের ট্যাব
স্যামসাংয়ের এই ডিভাইসটিতে উচ্চ গতি সম্পন্ন প্রসেসর এবং ৩ গিগাবাইট র‍্যাম থাকার কারণে স্মার্টফোনটি সুপারিয়র পারফর্মেন্স দেয় সহজেই। পাশাপাশি বড় আকারের এবং উজ্জ্বল স্ক্রিন হওয়ায় ডিভাইসটিতে এস পেনের ব্যবহার করা যায় চমৎকার ভাবে।
আপনি যদি একজন ডিজিটাল আর্টিস্ট হয়ে থাকেন তবে ডিভাইসটি আপনার জন্য একটি পারফেক্ট ডিভাইস হবে বলেই আমি মনে করি কেননা আপনার ডিজাইং কাজের পাশাপাশি বড় আকারের স্ক্রিনে গেম খেলা এবং মুভি দেখেও আপনি আনন্দ পাবেন।
মূল্য: ৬৪৭.৯৯ ডলার।