Sports Image

ইউনুসের হঠাৎ অবসরের সিদ্ধান্তের সমালোচনায় পিসিবি


২০১৫ বিশ্বকাপের দলেও জায়গা পেয়েছিলেন ইউনুস খান। কিন্তু তিন ম্যাচ মিলে মাত্র ৪৩ রান করার পর ওয়ানডে দল থেকে তাকে ছেঁটে ফেলা হয়। সর্বশেষ ছয় ম্যাচে মাত্র ৭৭ রান করতে সক্ষম হন ইউনিস। এরপর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চার ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ফের দলে ডাক পান তিনি।

কিন্তু ঘোষণা দিয়ে দিলেন অবসরের। জানিয়ে দেন প্রথম ম্যাচের পর ক্রিকেট বিশ্ব এই অভিজ্ঞ পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানকে আর রঙ্গিন জার্সিতে দেখবে না।

ওয়ানডে থেকে হঠাৎ অবসরের ঘোষণা দেওয়ার পর ইউনুসের তীব্র সমালোচনা করেছেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেয়ারম্যান শাহরিয়ার খান।


নিজের শেষ ওয়ানডে ম্যাচ খেলার পর ইউনুস খান।

ইউনুসের এই হঠাৎ সিদ্ধান্তে পিসিবি চেয়ারম্যান শাহরিয়ার বিস্ময় প্রকাশ করে বলেছেন, ‘তার ওয়ানডে থেকে অবসরের কারণে নয় বরং অবসরের টাইমিংয়ের কারনে আমি হতাশ। ইউনুস ভালো করছিল। এই কারণে নির্বাচকরা ভাবলেন, আবার তার ওয়ানডেতে খেলা দরকার। তার অবসরের ঘোষণা আমার জন্য বিস্ময়কর।’

বিস্ময় আছে পিসিবির প্রধান নির্বাচক হারুন রশিদেরও। তিনি বলেন, ‘শারজায় গিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টের সাথে দেখা করলাম। তখন ইউনুসের সাথেও কথা বলেছি। সিরিজের প্রথম ম্যাচের পরই অবসরে যাওয়ার কোনো ইঙ্গিতই তখন আমাকে দেয়নি সে। মিডল অর্ডারের ব্যাটিং ঠিক করতে তার মতো অভিজ্ঞ একজন ব্যাটসম্যানকে দরকার ছিল বলেই তাকে দলে নিয়েছিলাম। আমাদের ভবিষ্যতে অ্যাসাইনমেন্টের কথা ভেবেই তাকে দলে নেয়া হয়। অবসরের ব্যাপারে আমাদের সাথে কোনো আলাপই করেনি সে।’

ইউনুস খান পাকিস্তানের হয়ে খেলেছেন ১০৪টি টেস্ট, ২৬৪টি ওয়ানডে আর ২৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। সাদা পোশাকে ৫৩.৯৪ ব্যাটিং গড়ে রয়েছে ৯১১৬ রান। যেখানে ৩১টি শতকের পাশাপাশি ৩০টি অর্ধশতক। ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ ইনিংসটি ৩১৩ রানের। ওয়ানডেতে ৩১.৩৪ ব্যাটিং গড়ে তিনি রান করেছেন ৭২৪০। যেখানে ৭টি শতক এবং ৪৮টি অর্ধশতক রয়েছে ইউনুস খানের।