Sports Image

ফুটবল খেলোয়াড় কাজী সালাউদ্দিন



কাজী সালাউদ্দিন স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সদস্য ছিলেন। দলটি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তহবিল সংগ্রহের জন্য ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে প্রীতি ম্যাচ খেলেছে। সালাউদ্দিনই প্রথম খেলোয়াড় যিনি হংকং প্রফেশনাল লীগে অংশ নিয়েছেন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি।

জন্ম

২৩ সেপ্টেম্বর ১৯৫৩ সালে জন্ম গ্রহণ করেন কাজী সালাউদ্দিন।

পারিবারিক জীবন

• কাজী সালাউদ্দিনের পিতা কে এম শফি ব্যবসায়ী ছিলেন। মাতা সিমকী শফি গৃহিনী। ২ ভাই ১ বোন।
• ১৯৭২ সালে বিয়ে করেন ইমা সালাউদ্দিনকে।
• ১ ছেলে ১ মেয়ের জনক কাজী সালাউদ্দিন।

পড়াশোনা

• বিএএফ শাহীন স্কুল থেকে এসএসসি, ঢাকা কলেজ থেকে এইচএসসি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে উচ্চতর ডিগ্রী অর্জন করেন।
খেলোয়াড় জীবন
• ১৯৬৯ সালে ওয়ারি ক্লাবে খেলার মধ্যে দিয়ে কাজী সালাউদ্দিনের ফুটবল ক্যারিয়ার শুরু।
• ফুটবলের আগেই তাঁর ক্রিকেটের প্রথম বিভাগ অভিষেক হয় ১৯৬৮ সালেই আজাদ বয়েজের হয়ে।
• ৭০ সালের শুরুর দিকে দুইবার জাতীয় ক্রিকেট দলে খেলার জন্য ডাক পান।
• ১৯৭০সালে মোহামেডানে যোগ দেন। ৭১ এ স্বাধীন বাংলা ফুটবল দল এ যোগ দেন।
• ১৯৭২ থেকে ১৯৮৪ আবাহনী ক্রীড়া চক্রের খেলোয়াড় ছিলেন।
• ১৯৭১ থেকে ১৯৮৩ পর্যন্ত জাতীয় দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন।
• ১৯৭৫ আর ১৯৭৯ এ জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়কত্ব করেন।
• ১৯৭৫ সালে জাতীয় দলের হয়ে প্রথম আর্ন্তজাতিক ম্যাচ খেলতে যান মালয়েশিয়ায় মারদেকা কাপ এ।
• ১৯৭৫-৭৬ মৌসুমে হংকং এর পেশাদার লীগের দল ক্যারোলিন হিল এফ সি তে খেলেন।
• ১৯৮৪ সালে ফুটবল ছাড়লেন। লীগের শেষ ২টি ম্যাচ ছিল তাঁর ভাগ্য নির্ধারণী ম্যাচ। শেষ ম্যাচের আগের ম্যাচে করলেন হ্যাটট্রিক।
• ১৯৮৫ তে আবাহনীর কোচ হন এবং ঐ বছর সবকটি টুর্নামেন্ট জিতেন।
• ৮৫-৮৮ জাতীয় দলের কোচ ছিলেন।
• ১৯৮৮ তে কোচিং একবার ছড়ে দিলেও ১৯৯২ তে আবার ফিরে আসেন আবাহনীর কোচ হয়ে। আবাহনী ওই বছর লীগে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়।
• ১৯৯৪ সালে মুক্তিযোদ্ধা ফুটবল ক্লাবের কোচের দায়িত্ব নেন। মুক্তিযোদ্ধা ঐ বছর ফেডারেশন কাপ জিতে।
• ২০০৬ এ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশান এর সহসভাপতি হন।
• বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি।

মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা ফুটবল দল

• ২৬মার্চের পর তিন বন্ধু মিলে রওনা দেন আগরতলার উদ্দেশ্যে। সেখানে গিয়ে যুদ্ধের ট্রেনিং এর জন্য অপেক্ষা করছেন।
• এক সাংবাদিকের অনুরোধে মালবাহী বিমানে করে কলকাতায় গিয়ে স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলে যোগ দেন।
• ঢাকায় বাবা-মার নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সালাউদ্দিন তাঁর নিজের নাম ব্যবহার না করে তূর্য হাজরা নাম ব্যবহার করে খেলেন।
• প্রথম ম্যাচ খেলেছিলেন কলকাতা মোহনবাগানের বিপক্ষে।