Entertainment Image

যেভাবে প্রেমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন তারা



ভালোবাসার টানে নগর পাড়ি জমানো নতুন কোন ঘটনা নয়। প্রিয়তমাকে হাঁটু ভাজে প্রেম নিবেদন যেন চিরাচরিত বিষয়। তবে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে প্রেমিকাকে অবাক করে দেওয়া, ভেতরে জমে থাকা প্রেমকে যেন আরো উসকে দেয়।

যেমন ধরুন, অঝোরে কাঁদতে কাঁদতে যদি কোন প্রেমিক বলে- চলো বিয়ে করে ফেলি। প্রস্তাবটি বোধয় বেশি আবেগী। কিন্তু বলিউডের অনেক তারকা অভিনেতা রয়েছেন যারা তার প্রিয়তমাকে বাস্তব জীবনে এভাবেই প্রেম নিবেদন করেছেন। বলিউড তারকাদের এমনই কিছু প্রেম নিবেদনের ঘটনা নিয়ে সাজানো হয়েছে এ প্রতিবেদন।

শাহরুখ খান-গৌরী খান

শাহরুখের সঙ্গে যখন ডেট করতেন গৌরী তখন তিনি নিতান্তই কিশোরী। সম্পর্ক ভালোই চলছিল। কিন্তু শাহরুখ ধীরে ধীরে গৌরীর উপর পজ়েসিভ হয়ে পড়েন। গৌরী সে সব সহ্য করেননি। ব্রেক আপ হয় তাদের। একটি জন্মদিনের পার্টির পর মুম্বাই চলে আসেন গৌরী। শাহরুখও তাকে খুঁজতে মুম্বাই আসেন।

একদিন সি বিচে দেখা হয় তাদের। দু’জন দু’জনকে দেখে অঝোরে কাঁদতে থাকেন। বুঝতে পারেন, একে অপরকে ছাড়া থাকতে পারবেন না তারা। শাহরুখ তখন কাঁদতে কাঁদতেই গৌরীকে প্রপোজ় করেন। গৌরীও মানা করতে পারেননি। তারপর ১৯৯১ সালে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

আরবাজ খান-মালাইকা আরোরা খান

আরবাজের সঙ্গে মালাইকার দেখা হয় একটি কফির বিজ্ঞাপনে। সেখান থেকেই বন্ধুত্ব, প্রেম। মালাইকা যখন বুঝেছেন- তিনি তার মিস্টার রাইটকে খুঁজে পেয়েছেন, তখন এক মুহূর্ত অপেক্ষা করেননি। পাঁচ বছর ডেট করেন তারা। তারপর এক নিউ ইয়ারের রাতে মালাইকা আরবাজ়কে বলেন, ‘আমার মনে হয় সম্পর্কটাকে এবার পরবর্তী ধাপে নিয়ে যাওয়া উচিত। তুমি কি আমার সঙ্গে সেই রাস্তায় চলবে?’ আরবাজ়ের উত্তর ছিল, ‘সময় আর জায়গা ঠিক কর।’ আর তারপর ১৯৯৮ সালে বিয়ে করেনেএ জুটি।

অভিষেক বচ্চন-ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন

কুছ না কহোর সেটে ঐশ্বরিয়ার প্রেমে পড়েন অভিষেক। গুরুর সেটে দু’জনেই অনুভব করেন, তারা প্রেমে পড়েছেন। নিউ ইয়র্কে তখন শুটিং চলছে- একদিন হোটেলের ব্যালকনিতে দাঁড়িয়েছিলেন অভিষেক। সেখানে দাঁড়িয়েই তিনি ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন, যদি আমি ওর সঙ্গে থাকতে পারতাম, যদি বিয়ে করতে পারতাম!’ গুরুর প্রিমিয়ারে আবার তারা নিউ ইয়র্কে যান। সেই একই ব্যালকনিতে ঐশ্বরিয়াকে নিয়ে যান তিনি। তখন অভিষেক জিজ্ঞাসা করেন, ‘আমাকে বিয়ে করবে?’ তার পরের বছরই (২০০৭ সালে) বিয়ে করেন এ জুটি।

হৃতিক রোশান-সুজান খান

যখন তার ১২ বছর। তখন থেকেই সুজানের উপর ক্রাশ ছিল হৃতিকের। তার কয়েক বছর পর ডেটিং করতে শুরু করেন তারা। তবে বিয়ের প্রপোজ়াল হৃতিক দিয়েছিলেন একেবারে ফিল্মি কায়দায়। একদিন তারা কফি খেতে গিয়েছিলেন। সেখানে সুজান যে কাপে কফি খাচ্ছিলেন, তার মধ্যে আংটি ফেলে দেন হৃতিক। আর তারপর ২০০০ সালে বিয়ে করেন তারা।

ফারদিন খান-নাতাশা মাধবনি

ছোটবেলা থেকে একে অপরকে পছন্দ করতেন ফারদিন খান আর নাতাশা মাধবনি। তারা ডেট করতেন। কিন্তু যখন বিয়ের প্রসঙ্গ আসে তখন ফারদিন খান ইউনিক পথ বেছে নিয়েছিলেন। হাঁটু গেড়ে বসে, আংটি দিয়ে নয়। ফারদিন নাতাশাকে প্রপোজ করেছিলেন আকাশ পথে। বিমানে তারা লন্ডন থেকে আমেরিকা যাচ্ছিলেন। সেই বিমানেই তিনি প্রপোজ করেন। ২০০৫ সালে তারা বিয়ে করেন।