Beauty Image

ঘাড় ও গলার কাল দাগ দূর করুন



ঘাড়ে বা গলায় কালো দাগ বিভিন্ন কারণেই হতে পারে। যে কারণেই হোক, তা যথেষ্ট বিব্রতকর। তাই মুখের পাশাপাশি অনেকে হাত ও পায়ের যত্নও নিয়ে থাকে। কিন্তু আমাদের শরীরের একটা অংশ প্রায় সময়ই অবহেলায় পড়ে থাকে। সেটা হল আমাদের ঘাড় ও পিঠ। আমরা যখন বাইরে বের হই আমাদের মুখ ও হাতের সাথে সাথে ঘাড়েও রোদ ও দূষণের ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বাড়ি ফিরে আমরা যখন আয়না দেখি, আমরা শুধু মুখের ক্ষতিটাই দেখতে পাই এবং সেটারই যত্ন নেই। ফলে ঘাড় ও পিঠের খোলা অংশ আস্তে আস্তে মুখের তুলনায় কালো হয়ে যেতে থাকে এবং একসময় এই রঙের পার্থক্য খুব বেশি চোখে পড়ে। ঘাড়ের কালো দাগ প্রথমত ওজন বেশি হলে হয়। অতিরিক্ত ওজনের কারণে ঘাড়ের চামড়ায় ভাঁজ পড়ে দাগ হয়। এ ছাড়া অ্যালার্জির সমস্যা থাকলেও হতে পারে। আবার বডি স্প্রে ঘন ঘন ব্যবহার করার ফলেও চামড়ায় কালো দাগ হয়। এছাড়াও সানবার্ন এর কারনেও হতে পারে। গলায় বা ঘাড়ে কালো দাগ যদি ছোপ ছোপ না হয়ে পুরো ঘাড় ও গলা জুড়ে হয় তবে এই সমস্যা সমাধানে কিছু ঘরোয়া উপায় দেওয়া হল-

• কয়েকটা বাদাম পানিতে ভিজিয়ে কিছুক্ষন রেখে দিন। এরপর ভেজানো বাদাম বেটে এর সঙ্গে মধু মিশিয়ে গোছলের আগে ঘাড় ও গলায় লাগান। ১৫ থেকে ২০ মিনিট পরে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিন দিন ব্যবহার করুণ।
• পাকা পেঁপে, তরমুজের রস, শশার রস একত্রে মিশিয়ে ঘাড়ে ও গলায় লাগিয়ে রাখুন আধা ঘণ্টা। এরপর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে দাগ থাকবে না।
• দাগ যদি ছোপ ছোপ হয় তবে ছাকা ময়দা আর মধু পানি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে লাগান। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ভিজিয়ে কিছুক্ষন হালকা ম্যাসেজ করুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। এক দিন পর পর করুন।
• এছাড়াও দাগের জন্য টক দই, চিনি, লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে ঘাড়ে নিয়মিত লাগালে দাগ আস্তে আস্তে চলে যাবে।
• চন্দন, মুলতানি মাটি ও গোলাপজল একসঙ্গে মিশিয়েও প্যাক তৈরি করে গলায় ও ঘাড়ে লাগান। কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন। সাপ্তাহে তিন দিন ব্যবহার করুন। দাগ চলে যাবে।
• বেসন, টকদই আর সামান্য মধু মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরী করুন। এটি ঘাড়ে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর হাত দিয়ে ঘষে ঘষে তুলে ফেলুন। এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
• ত্বকের কালো ভাব দূর করতে অ্যালোভেরার জুরি নেই। আপনি এটা সরাসরি লাগাতে পারেন। অ্যালোভেরার নির্যাস বের করে নিন এবং এটি সরাসরি আপনার ঘাড়ের ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং ধুয়ে ফেলুন। ভাল ফল পেতে হলে রোজ একবার ব্যবহার করুন।
• ঘাড়ে নিয়মিত স্ক্রাবিং করাটা খুবই জরুরী। আর স্ক্রাবার হিসেবে ওটস এর তুলনা হয় না। দুই চা চামচ ওটস গুড়োর সাথে পরিমাণমত টমেটো পিউরি মেশান। এবার এই মিশ্রণ আপনার ঘাড়ে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। এরপর হালকা হাতে ঘাড়ে স্ক্রাব করুন। দেখবেন আস্তে আস্তে সব ময়লা উঠে আসছে। এই স্ক্রাব আপনার ঘাড়ের ত্বকের মৃত কোষ ঝরিয়ে ফেলবে এবং টমেটোর ব্লিচিং উপাদান ত্বকের রঙ হালকা করবে।

>>> সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকুন। পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন পোশাক পরুন। অনেকের সিনথেটিক পোশাকে অ্যালার্জি সমস্যা হয়। তাঁরা এ ধরনের পোশাক পরা থেকে বিরত থাকুন। রোদে গেলে ছাতা ব্যাবহার করুন। সরাসরি রোদে বের হলে সানব্লক ব্যবহার করুন। অ্যালকোহলজাতীয় বডি স্প্রে কম ব্যবহার করাই ভালো। দীর্ঘক্ষণ ঘাড় কুঁজো করে বসে কাজ করবেন না।