Technology Image

পুরুষদের শুক্রাণু ধ্বংস করে ওয়াই-ফাই ল্যাপটপ

প্রযুক্তির ব্যবহার যদি সঠিক উপায়ে না করা হয় তাহলে কত সমস্যাতেই না হয় পড়তে হয়। প্রযুক্তির ভাল দিক গুলো সব সময় আমাদের জন্য মঙ্গল বয়ে আনে সেই সাথে সাথে প্রযুক্তির খারাপ দিকগুলোর সম্পর্কেও আমাদের ধারণা থাকা প্রয়োজন। তেমন একটি তথ্য সবার জানা রাখা প্রয়োজন ল্যাপটপের ব্যবহার বিধি সম্পর্কে। সামান্য আরামের জন্য আমাদের কত বড়ই না ক্ষতি হয়ে যায়।

ল্যাপটপ কোলের ওপর বা শরীরের কাছাকাছি ব্যবহার করায় পুরুষদের ক্ষতির আশংকা করছেন গবেষকরা। এ বিষয়ে সাম্প্রতিক এক গবেষণার ফলাফল পর্যবেক্ষন করে তারা বলেছেন যে, ওয়াই-ফাই প্রযুক্তির ল্যাপটপ ব্যবহারে শুক্রাণু সংখ্যা কমে যেতে পারে। ল্যাপটপের উৎপন্ন তাপে যে ক্ষতি হয় তার চেয়ে বেশি ক্ষতি করে ওয়াই-ফাই সিগনালযুক্ত ল্যাপটপ । এরকমই মতামত দিলেন বিজ্ঞানীরা।

যুক্তরাষ্ট্র এবং আর্জেন্টিনার করা বিজ্ঞানীদের করা এক গবেষণায় দেখা গেছে, ওয়াই-ফাই সিগনাল শুক্রাণুর ওপর বেশি প্রভাব ফেলে । পুরুষদের জেনেটিক কোডেও পরিবর্তন আনতে পারে।এই গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে ‘ফার্টিলিটি অ্যান্ড স্টেরিলিটি’ সাময়িকীতে। গবেষকদের মতে , ওয়াই-ফাই প্রযুক্তি থেকে যে লেকট্রোম্যাগনেটিক তেজস্ক্রিয়া নির্গত হয় তার প্রভাব পড়ে শুক্রাণুতে।

আশ্চর্য হলেও সত্যি এর ফলে , শতকরা ২৫ ভাগ শুক্রাণু নড়াচড়া করতে পারে না ।এবং ৯ ভাগের ডিএনএ কোড পুরোপুরি পরিবর্তন হয়ে যায়। গবেষকরা আরও জানিয়েছেন যে , মূলত ওয়াই-ফাই ব্যবহার করে দীর্ঘক্ষণ ডাউনলোড করা বা অতিরিক্ত গরম হওয়া ল্যাপটপে এ সমস্যা তৈরি হতে পারে। কিন্তু ঠিক কোন মডেলের ল্যাপটপে বেশি সমস্যা হয় সে বিষয়ে এখন গবেষণা করা প্রয়োজন বলেই মনে করেন গবেষকরা ।

সুত্রঃ টেলিগ্রাফ অনলাইন