Lifestyle Image

অফিসে নিজের ডেস্কে অবশ্যই রাখবেন যে ব্যক্তিগত জিনিসগুলো



খাতা, কলম, পিসি, ডায়েরি কিংবা একটা চা খাওয়ার মগ- এসবটাই তো অফিসের দরকারী জিনিসের তালিকায় যথেষ্ট, তাই নয় কি? কিন্তু আপনি কি জানেন, এর বাইরেও আরো কিছু জিনিস আছে যেগুলো আপনার অফিসের ডেস্কে রাখা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়? আসুন জেনে নিই এই অতি প্রয়োনীয় জিনিসগুলোর নাম।

১. বাড়তি পোশাক
ভাবছেন অফিসে তো ফরমাল পোশাক পরেই যেতে হয়। কিন্তু একটা দরকারী মিটিং কিংবা হঠাৎ করে অফিসে আসা পরিদর্শনকারীর সামনেও কি ঠিক একই পোশাকে থাকতে পছন্দ করবেন আপনি? নিশ্চয়ই না। বরং আরো একটু অফিসিয়াল লুক আনতে চাইবেন নিজের ভেতরে। আবার এমনও হতে পারে কোন কারণে আপনার পরনের পোশাকটি নোংরা হয়ে গেলো বা ছিঁড়ে গেলো। এমন বিব্রতকর অবস্থা এড়াতে তাই হাতের কাছেই রাখুন বাড়তি কাপড়। হয়তো সেটা একটা ব্লেজার, শার্ট, প্যান্ট বা অন্যকিছু। তবে যেটাই হোকনা কেন, দরকারের সময় অবশ্যই কাজে আসবে সেটি আপনার।

২. বাড়তি জুতো
কখন কী হয়ে যায় কে বলতে পারে? হয়তো কোনো দরকারই পড়বে না আপনার। তবুও অফিসে ডেস্কে রাখুন নিজের একজোড়া বাড়তি জুতোও। অতিরিক্ত বৃষ্টি বা যেকোন রকমের জুতো সংক্রান্ত সমস্যায় এটি যখন-তখন দরকার লেগে যেতে পারে।

৩. অন্তর্বাস ও মোজা
নিজের ডেস্কে প্রয়োজনীয় অন্তর্বাস আর মোজাও রেখে দিতে পারেন। ঘামে ভেজা কিংবা দূর্গন্ধময় মোজার সমস্যা থেকে তাহলে বাঁচবেন আপনি। আর অন্তর্বাস? হয়তো কোন কাজে লাগবে না। তবুও, অহেতুক ঝামেলা তো বলে কয়ে আসে না। সুতরাং, সেগুলোর জন্যে প্রস্তুত থাকাটাই ভালো।

৪. হেডফোন
কাজের সময় গান শুনতে কে না ভালোবাসে? এচাড়া গান কর্মদক্ষতাকেও বাড়িয়ে দেয় অনেকগুন। আর তাই নিজের ডেস্কে রাখুন একটি হেডফোনও। এতে করে সহকর্মীদের ভেতরে কোনরকম বিরক্তির জন্ম না দিয়েই নিজের মতন আলাদা জগতে থাকতে পারবেন আপনি।

৫. ডিওডোরেন্ট
হতেই তো পারে যে সকাল সকাল অফিসে আসবার তাড়হুড়োয় ডিওডোরেন্ট কিংবা কোনরকমের সুগন্ধী লাগাতে ভুলে গিয়েছেন আপনি। আর তাই ডেস্কে রাখুন একটি ডিওডোরেন্টও। এতে করে ঘামের দুর্গন্ধের কারণে কোন রকম অহেতুক অস্বস্তিতে পড়তে হবে না আপনাকে।

৬. ছাতা
সকালের আবহাওয়া চমত্কার ছিল তারমানে এই নয় যে পুরোটা দিনই এরকম মন ভালো থাকবে আকাশের। যে কোন সময় বৃষ্টি শুরু হয়ে যেতে পারে। বিশেষ করে এখনকার মৌসুমেতো অবশ্যই। আর তাই ডেস্কে আর সব জিনিসের সাথে রাখুন একটি ছাতাও।

৭. ফোনের চার্জার
অনেক বেশি সতর্কতার পরেও মোবাইলে চার্জ দেওয়ার কথা ভুলে যেতেই পারেন আপনি। সেক্ষেত্রে মোবাইল বন্ধ হয়ে অনেকের চিন্তার উদ্রেক করবে। সবাইকে আর নিজেকে এসব ঝামেলার হাত থেকে বাঁচাতে ডেস্কে রাখুন একটি বাড়তি চার্জার। যাতে করে অফিসে এসেও মোবাইলে চার্জ দিতে পারেন আপনি।

৮. শুকনো খাবার
সারাদিনের কাজের চাপে খাবার সময় হয়তো নাও পেতে পারেন আপনি। কিংবা বাড়ি থেকে খাবার আনতে, কিংবা সকালবেলা নাশতা করতে হয়তো ভুলে গিয়েছেন। আর এসব সমস্যা আর সমাধানের জন্যে ডেস্কে রাখুন কিছু শুকনো খাবার। কাজ করতে করতেই যেটা খেয়ে নেওয়া যায়।

৯. মিনি টুথব্রাশ
তাড়াহুড়োয় যদি সকালে ব্রাশ করতে মনে না থাকে, কিংবা দুপুরের খাবারের পর মুখের ভেতরটা ঠিক স্বস্তিকর না ঠেকলে যাতে ব্যাপারটা ঠিকঠাক করে নেওয়া যায় তারজন্যে ব্যবহার করুন মিনি টুথব্রাশ। এছাড়া সারাদিন অফিসের পর কারো সাথে দেখা করতে যাওয়ার সময় এটা তো দরকার হতেই পারে। আর তাই প্রস্তুত থাকুন।

১০. চুইংগাম
ব্রাশ করবার সময় নেই? তাহলে ডেস্কে রাখুন মিন্ট ফ্রেভারের চকোলেট কিংবা চুইংগাম। খানিক সময়েই আপনার মুখের ভেতরটা একেবারে স্বস্তিদায়ক করে তুলবে এটি।

১১. ভিটামিন সি, স্যালাইন কিংবা অষুধ
শরীরের কথা কে বলতে পারে? এই ভালো তো এই খারাপ। আর তাই টুকটাক সাধারন সব সমস্যাগুলোকে দূর করতে ভিটামিন সি, স্যালাইন কিংবা প্যারাসিটামল, ফ্লাজিল বা অ্যান্টাসিডের মতন অসুধগুলো সাথে রাখুন।

১২. বাড়তি টাকা
কখন কোন দরকারে কাজে লেগে যাবে সেটা হয়তো আগে থেকেই জানবেন না আপনি। কিন্তু তাও বাড়ি একটু নিরাপত্তার জন্যে কিছু টাকা অফিসের ডেস্কে রেখে দিন। হয়তো মানিব্যাগ আনতে ভুলে গিয়েছেন বা হঠাত্ কোন দুর্ঘটনা ঘটলো, তবে সব সমস্যার বাড়তি সমাধান হিসেবে এটি আপনি করতেই পারেন।