জাকিয়া জেসমিন যূথী

৩ বছর আগে লিখেছেন

গল্প শিরোনামঃ “বিষাদ কাহন” (সৃজনশীল ব্লগিং প্রতিযোগিতা-২০১৬/ ৩য় পর্বঃ ক্যাটাগরী-২)

জানালার পর্দা গলে দিনের আলো উঁকিঝুকি দিচ্ছে। গায়ের ওপর থেকে লেপ সরিয়ে দেয় নিশি। মাথার নিচের বালিশটাও সরিয়ে একপাশে রেখে দু পায়ের পাতা সোজা টান টান করে দুই হাত শরীরের দু পাশে আড়াআড়ি করে রাখে। একটু পরে উপুড় হয়ে শোয়। দুই পা টান টান। হাত দুটো ভাঁজ করে কপালের নিচে রাখা। ঘুম থেকে জেগে ইয়োগার আসনের মাধ্যমে একটু একটু করে আড়মোড়া ভাঙ্গে ওর। তিন চারটা ইয়োগা-আসন হালকাভাবে নেয়ার পরে বক্স খাটের ড্রয়ার থেকে ট্যাব টা নিয়ে সুইচ অন করে। নোটিফিকেশনে ইমেইল আর ফেসবুক বার্তা আসে। ট্যাব ওপেন হতেই একটি বার্তা ছুটে আসে__
কিশোর: আপি, কেমন আছো? শুভ সকাল।
নিশি চোখ রগড়ায়। পাশের ঘর থেকে মায়ের কথা ভেসে আসছে, “মেয়েটার এই বেলা করে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস আর গেলো না!”
কয়েক মিনিট পেরোয়। কিশোরের দ্বিতীয় বার্তা ছুটে আসে___
“আপি, এইটা কিন্তু ঠিক না! মেসেজটা দেইখ্যাও তুমি শুভ সকাল কইবা না? এত কিপটা ক্যা তুমি?”
“হুঁ, শুভ সকাল। কাল রাত থেকে মেজাজ গরম!”
“ক্যান, কী হইছে?”
“কি হয় নাই?
রাইত বিরাইতে মাইয়াগো সেলফি চাইয়া বেড়াস!
এসব করার জন্যেই তোরা ইন্টারনেট ব্যবহার করিস?
এই তোদের আসল রূপ?
এই তোরা লেখক?
সৃজনশীল মানুষ বলে পবিত্র মনের হয়!
এই তোদের পবিত্রতা!”
“আপি, এইসব তুমি কি কইতাছো? আমি কবে তোমার সেলফি চাইলাম?”
“তুই চাস নাই অন্য কেউ চাইছে! তুইও লেখক, সেও লেখক!”
“আপি, কি হইছে খুইলা কও তো!”
“অপরিচিত মেয়ে মানুষ দেখলেই তোদের আপনি থেকে তুমি তে নামতে দেরী হয় না!”
“কে এইটা? কার রাগ তুমি আমার উপরে দেখাইতেছো, বু?”
.
নিশি রাগে ক্ষোভে অবিশ্বাসে ফোঁস ফোঁস করতে... continue reading
Likes ২০ Comments
০ Shares

Comments (20)

  • - মাসুম বাদল

    emoticonsemoticonsemoticons

    - চারু মান্নান

    বাহ এ ভাবে গপ্পে হয়

জাকিয়া জেসমিন যূথী

৪ বছর আগে লিখেছেন

আসছে- সংকাশ ছোট কাগজ (লিটল ম্যাগ) এর ৬ষ্ঠ ইস্যু!

!!! লেখা আহ্বান!!!

সুধী,
আসছে- সংকাশ ছোট কাগজ (লিটল ম্যাগ) এর ৬ষ্ঠ ইস্যু!
লেখা পাঠানোর নির্দেশনা-
·         লেখার বিষয়- উন্মুক্ত। আগ্রহী লেখক / কবিগণকে যেকোন বিষয়ের উপরে কবিতা, মুক্তগদ্য, রম্য রচনা, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী কিংবা অন্য যেকোন বিষয়ের উপরে ছোট গল্প পাঠানোর অনুরোধ জানানো যাচ্ছে। গল্পের ক্ষেত্রে শব্দ সংখ্যা ১৫০০ শব্দের উর্ধে নয়।
 
·         কাগজে (দৈনিক/ত্রৈমাসিক/ষান্মাসিক পত্রিকা, বই, লিটল ম্যাগ) অপ্রকাশিত হতে হবে, তবে- ব্লগ বা ফেসবুক পাতায় প্রকাশিত লেখা হলে সমস্যা নেই।
 
·         লেখা বিজয়-৫২ ফন্ট অথবা অভ্র/ইউনিকোড ফন্টে পাঠাতে পারেন।
 
·         লেখাইমেইল টেক্সট বডি’তে না পাঠানোর জন্য বিনীত অনুরোধ জ্ঞাপন করছি। মাইক্রোসফট ওয়ার্ড ফাইলে আপনার লেখা টাইপ করবেন; তাতে আপনার লেখার শিরোনাম, নিজের নাম, ইমেইল ঠিকানা, যোগাযোগের ঠিকানা এবং মুঠোফোন নাম্বার যুক্ত করুন। লেখক জীবনের ছোট প্রোফাইলও যোগ করতে পারেন। (লেখা ছদ্ম নামে প্রকাশ করতে চাইলে সেটি উল্লেখ করুন, কিন্তু ইমেইলে প্রকৃত নাম যুক্ত করুন।)
 
·         ইমেইলের বিষয়ের ঘরে ‘সংকাশ ছোট কাগজের ৬ষ্ঠ সংখ্যার জন্য’ কথাটি উল্লেখ করুন।
 
·         লেখা পাঠানোর ই-মেইল: songkash@gmail.com
 
·         শেষ সময়ঃ আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ইং, রাত ১২টার মধ্যে লেখা পাঠাতে হবে।
 
প্রচারে-
জাকিয়া জেসমিন যূথী
সহযোগী সম্পাদক
সংকাশ,
ছোট কাগজ  
 
continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (7)

  • - শ্রী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

    মন্দ না.........কবিতা ভাল , তবে ও যেন ভাল থাকে সেই প্রার্থনা কর......

    • - বিদ্যুৎ তরফদার

      thanks

    - আলমগীর সরকার লিটন

    বেশ সুন্দর লাগল কবিতা

    • - বিদ্যুৎ তরফদার

      thanks

    - রাশেদ আহমেদ শাওন

    ভাল লাগল 

     

জাকিয়া জেসমিন যূথী

৪ বছর আগে লিখেছেন

বই আলোচনাঃ প্রেতসাধক নিশি মিয়া

বইমেলা মানেই নতুনদের বই।
নিজের বই।
বন্ধুর বই।
প্রিয়জনের বই।
 
এবারে বইমেলায় প্রথম দিন না গিয়ে প্রথম শুক্রবার যাওয়ার ইচ্ছে জমিয়ে রেখেছিলাম। তবু তৃতীয় সন্ধ্যায় উদ্দেশ্য না থাকলেও অন্য একটা কাজে বইমেলায় যাওয়া হয়েছিলো। বাসা থেকে বের হবার আগেই তা জানা হয়েছিলো বলেই ক্যামেরাটাও ব্যাগে পুরে নিয়েছি। যেহেতু প্রথম আগমন তাই সেদিন শুধু ঘুরে ঘুরে স্টল পরিদর্শন করাই মূখ্য। এভাবে অন্যপ্রকাশ, ভাষাচিত্র, জ্যোতিপ্রকাশ, গাজী প্রকাশনী, জাগৃতি, শ্রাবণ স্টলকে সরিয়ে প্রিয়মুখ প্রকাশনী খুঁজছিলাম। কারণ ওখানে ‘ প্রেতসাধক নিশিমিয়া’ নামের একটা বই বেরুচ্ছে। এর প্রচ্ছদ ও প্রকাশ কাহিনী অনেকবার ফেসবুকে চোখে পরেছে। যদিও ভৌতিক কোন গল্প পাঠে আমি সেরকম আগ্রহী না, ভৌতিক গল্প আমাকে ভালোই ভয় দেখায় বলে। তবু এই বইটা নিয়ে কৌতূহল জেগেছিলো। কেন জেগেছিলো? এই নিশিমিয়া বিষয়ক একটা গল্প আমি ফেসবুকে রাজীব চৌধুরীর কোন একটা লিংকে পড়েছিলাম। আর লেখক রাজীব চৌধুরীর ফেসবুক স্ট্যাটাসে দেয়া যাবতীয় লেখাই ভালো লাগে। চেহারা ও গড়নে এতটুকু একটা মানুষ সে নাকি স্থপতি, সেটা ভাবলেও আমার সবসময়েই বিস্ময় লেগেছে। আমার কাছে বোধহয় স্থপতিকে দেখতে হবে বিশালকায় এবং দীর্ঘ কোন মানুষ। তাই সে তুলনায় রাজীব চৌধুরীকে একটা পুচকে জিনিয়াস বলেই মনে হয়। যে একাধারে কবিতা লিখে। মজার মজার সব স্ট্যাটাস দেয়। মাঝেমাঝে দারুন সব স্কেচও করে। আর আমার-তার তুলনায় কিছুটা আলাদা ধাঁচের বক্তব্য নিয়ে গল্প লিখে। তো, এই পুচকে ছেলেটা একটা আস্ত বই প্রকাশ করে ফেলেছে আর তা নিয়ে বেশ উদ্দীপনাও চলছে সবার... সে বইটা তো হাতে নিয়ে দেখতেই হয়।
প্রকাশনীতে গিয়ে সামনেই ডিসপ্লে করে রাখা একটা ‘নিশিমিয়া’ হাতে নিয়ে আমি ভেতরের পাতাগুলো উলটে পালটে দেখছি। দোকানের বিক্রেতা আপুটি আমার হাতে আরেকটি কালো... continue reading
Likes ১৬ Comments
০ Shares

জাকিয়া জেসমিন যূথী

৪ বছর আগে লিখেছেন

ছোটগল্পঃ “ভাগ্য রেখা” (প্রতিযোগিতা-২০১৫, ৩য় পর্ব, ক্যাটাগরী -২ )

এত বড় মাঠ অথচ বসার জায়গা নেই!
-    আছে তো! একটু পর পরই এবার বসার জন্য ছাওনি করা হয়েছে।
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পাশাপাশি হাঁটছিলো আরিফ ও ঈশিতা। অনন্যা স্টলকে পাশ কাটিয়ে পেছনের দিকে যেতেই ছাওনি চোখে পরলো। তাতে কয়েকটা বাঁশের বেঞ্চি পাতা। অনেক লোক আগেই জায়গা দখল করে রেখেছে সেখানে। মাত্র একটা আসনের কিছুটা ফাঁকা রয়েছে। কেউ গিয়ে সেখানে বসতে পারে কিন্তু আরিফ ও ঈশিতার দুজনের জন্য জায়গা প্রয়োজন। ওরা আরেকটু এগিয়ে বাম পাশে পাম গাছের নিচে নিচে একটি দুটি পাঁচ ফুট আকারের কয়েকটা বেঞ্চ দেখতে পেলো। কিন্তু এখানেও সেই একই অবস্থা। কোন বেঞ্চ খালি নেই। ওরা হেঁটে এগুতে এগুতে একটা বেঞ্চ খালি হতেই আরিফ প্রায় ছুটে এগিয়ে গেলো ওটা দখল করতে। কাছাকাছি গিয়ে দেখলো বেঞ্চগুলোর উপরে ছাওনি না থাকলেও সবগুলো বেঞ্চকে অনেকটা গোলাকার আকৃতিতে বসানো হয়েছে। আরিফ ওই বৃত্তাকার অবস্থানকে পেছনে ফেলে সুচীপত্র প্রকাশনীর মুখোমুখী বসলো। পাশে আধ হাত দূরত্বে বসলো ঈশিতা।
-   এখানে বিয়ে করার জন্যে কোন মেয়ে পাচ্ছি না! মনে হয় বিদেশে গিয়েই বিয়ে করতে হবে আমাকে, বুঝছো?
-   কেন?
-   হ্যাঁ! এখানে সবাই যেন অভিনেতা। ভাব দেখায় যেন কিচ্ছু বুঝে না! সেদিন একটা মেয়ে দেখতে গেলাম। সে তার দুলাভাইকে তো এনেছেই। এক কলীগকেও টেনে এনেছে। কর্মজীবী মেয়ে! একাই আসতে পারতো। কিন্তু কিছু তো বললোই না। এক পাশে চুপ করে বসে ছিলো। সব কথা কলীগই বললো।(চরম বিরক্তির সুরে বলে চললো আরিফ)
-   হ্যাঁ! আমাদের দেশে এটা হয়। ছেলেরা প্রেমের ক্ষেত্রে এগ্রেসিভ ছটফটে দূরন্ত মেয়ে পছন্দ করলেও বিয়ের ক্ষেত্রে শালীন ও চুপচাপ মেয়েদেরই বেছে নেয় তো! তাই মেয়েরা ওরকম হতে বাধ্য হয়! নিজের ক্ষেত্রেই তো... continue reading
Likes ৫১ Comments
০ Shares

Comments (51)

  • - আলমগীর সরকার লিটন

    অসাধারণ কবিতা

    শাুভ কামনা

    - সমুদ্র মিত্র

    ধন্যবাদ :)

জাকিয়া জেসমিন যূথী

৪ বছর আগে লিখেছেন

শীতের সকালে চোখের পাতায় কুয়াশা দেখি। রিকশা করে আসতে গিয়ে কুয়াশা অবলোকন করতে করতে কর্মক্ষেত্রে এলাম।

Likes Comments
Load more writings...