Site maintenance is running; thus you cannot login or sign up! We'll be back soon.

আবু খায়ের আনিছ

৪ বছর আগে লিখেছেন

লিখা লেখক ও লিখনী শিল্প

কিছু স্বার্থপর মানুষের (লেখক) কথা বলি। পড়ার পর কথার স্বার্থকতা খুজবেন।
 
 
ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, শিক্ষক, বিজ্ঞানী, ডিফেন্স এর চাকুরী এই কাজগুলো যারা করে তাদের বাবাদের গর্ব করার মত কিছু থাকে কিন্তু যাদের সন্তানেরা লেখালেখি করে অথাৎ লেখক তাদের মনে হয় কিছুই থাকে না। আমার সন্তান লেখক এই কথাটা আমি আজ পযন্ত কোন বাবা বা মাকে বলতে শুনিনি। এমনকি কোন ভাই বা বোন ও বলে না আমার ভাই/বোন লেখক।
লেখালেখি কোন পেশা নয়, তাই মনে হয় বলতে চায় না কেউ। তাছাড়া সবার মনেই ধারণা লেখকরা একটু ভবঘুরে, একটু অন্যরকম হয়। এই অন্যরকমটা আবার কি সেটা কেউ জানেনা।
তো স্বার্থপর কেন বললাম জানেন? না জেনে থাকলে আমার মতামতটা শুনুন।
 
পেশা হচ্ছে এমন একটা জায়গা যেখানে আপনাকে বাধ্য করা হয় কাজ করার জন্য অথবা আপনি নিজে থেকেই একটা দ্বায়ীত্ব কর্তব্য কাধে নিয়ে নেন। যেমন ডাক্তার, তার মানবিক কাজ হচ্ছে রোগীর সেবা করা।
 
কিন্তু লেখক, সে লিখে কার জন্য? স্বার্থপরা এখানেই। লেখক লিখে নিজের জন্য, নিজে আনন্দ পাওয়ার জন্য সর্বশক্তি দিয়ে একটার পর একটা পৃষ্ঠা লিখে যায়। তার লেখার জন্য যদি কেউ চাপ প্রয়োগ করে তবে লেখার ব্যালেন্স ঠিক থাকে না, আবার নিজেরও কোন দ্বায়ীত্ব বা কর্তব্য নেই যে তাকে এমন কোন বিষয়ে লিখতেই যা সবার উপকার করবে। শুধু মাত্র আনন্দ দেওয়ার উদ্দেশ্যেই অনেকেই লিখতে পারে, কিন্তু কাউকে আনন্দ দেওয়ার আগে ত নিজে আনন্দ পেতে হবে। তাহলে কি দাড়াল লেখক স্বার্থপর।
না এইটুকু পড়ে যা ভাবছেন তা নয়? লেখক স্বার্থপর নয়, নিজে আনন্দ পাওয়ার জন্য এত কষ্ট করে লিখার কোন প্রয়োজন ছিল না, কিন্তু... continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (1)

  • - আলমগীর সরকার লিটন

    সুন্দর কথা

    অনেক শুভেচ্ছা জানাই

    ছবি আপু--------

    • - এই মেঘ এই রোদ্দুর

      ধন্যবাদ ভাইয়া :)

আবু খায়ের আনিছ

৪ বছর আগে লিখেছেন

শিক্ষা ব্যবস্থা এবং আমি

আজকে ক্লাস করতে গিয়ে একটা কথা বারবার শুনতে হল। এই প্রথম তা নয় এর আগেও বহুবার শুনেছি,জানি এবং আমি নিজেও কথাগুলো বলেছি।
বিশ্বের কয়েকটা উন্নত দেশের নাম বলেন ত দেখি যারা নিজের ভাষা ত্যাগ করে অন্য ভাষায় কথা বলে???
রাশিয়া,জাপান,জার্মানী, ইতালী. চীন, আমেরিকা,ফ্রান্স কোন দেশেই তাদের মাতৃভাষার বাইরে অন্য ভাষায় কথা বলে না।
তাদের লেখাপড়া, কাজ কর্ম থেকে শুরু করে সব তাদের মাতৃভাষায় হয়। এমনকি বাইরের দেশের লোকদেরকেও তাদের সাথে কথা বলতে হলে দো-ভাষী ব্যবহার করতে হয় অথবা সেই দেশের ভাষা শিখে তাদের সাথে কথা বলতে হয়।
তারা যে ইংরেজী পারে না তা নয়। পারে তবে তারা এটার প্রয়োগ করে না।
একজন চীন এর অধ্যাপক বলেছিলেন আমার দেশের লোকসংখ্যা প্রায় পৃথিবীর অর্ধেক তাহলে আমি কেন অন্যের ভাষায় কথা বলতে যাব। বরং যার আমার সাথে কথা বলা দরকার সে আমার ভাষা শিখে আমার সাথে কথা বলূক। উনার এই কথাটায় হয়তবা কিছুটা দাম্ভিকতা প্রকাশ প্রায় কিন্তু উনার পরের কথাটায় বেশ যুক্তি আছে।
ভাষা যাই হোক না কেন শিক্ষাট হচ্ছে মূল কথা। মানুষ যে ভাষায় শিক্ষা গ্রহন করতে বেশি সাচ্ছন্দ্য বোধ করে তাকে সেই ভাষায় শিক্ষা দেওয়া উচিৎ। আর এই কাজটা করা হলে সে তার শিক্ষাটা পূর্ণভাবে গ্রহন করতে পারে।
আমাদের দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বাধ্যতামুলক ইংরেজী শিক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আমি এইটার বিরোধীতা করছি না। বরং আমি বলব ইংরেজী শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করা হলেও বাংলাকে কেন বাধ্যতামুলক করা হচ্ছে না। কথাটা পড়ার পড় অনেকেই হাসতে পারেন। বলে কি?? বাঙালী হয়ে বাংলাকে বাধ্যতামুলক করে শিখাতে হবে।
আরে ভাই একটু লক্ষ করে দেখেন, দেশেল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলগুলোতে বাংলা একদমই পড়ানো হয় না।
কয়েকদিন আগে কোন... continue reading
Likes Comments
০ Shares

আবু খায়ের আনিছ

৪ বছর আগে লিখেছেন

ভালাবাসা তোমার জন্য

রাতের আকাশে তারা দেখেছ জান
তারার কাছে জিজ্ঞাসা কর সে
আকাশ কে কেন এত ভালবাসে
আকাশ ছাড়া তারার কোন অস্থিত্ব নাই
জিজ্ঞাসা কর তারার কাছে
আমি তোমায় এত ভালবাসি কেন?
তারা তোমায় উত্তর দিয়ে দিবে।
চাঁদ দেখেছ জান রাতের আকাশে
জিজ্ঞাসা কর চাঁদ কেন রাতকে এত ভালবাসে
চাঁদ তোমায় উত্তর দিবে
রাতের আধারেই মানুষ তাকে ভালবাসে
জিজ্ঞাসা কর চাঁদকে আমি তোমাকে কতটা ভালবাসি
চাঁদ তোমায় উত্তর দিবে,
চাঁদ ছাড়া কি জোছনার কথা ভাবা যায়।
আকাশ দেখেছ জান, মুক্ত আকাশ
কত বড়, কত বিশাল তার বুক
আকাশকে জিজ্ঞাসা কর তার চেয়ে বড় কেউ কি আছে
আকাশ তোমায় উত্তর দিবে,
আছে, ভালবাসা আমার চেয়ে বিশাল
জিজ্ঞাসা কর এত ভালবাসা কোথায় আছে
আকাশ বলবে, হৃদয় চক্ষু মেলে দেখ তাকিয়ে
তোমার আর সুইটুর ভালবাসাই আছে
দিগন্ত দেখেছ জান,পশ্চিম আকাশে সূর্য্য ডোবে যাচ্ছে
বলত তাকে কেন এত সুন্দর দেখায় তাকে
দিগন্ত বলবে ভালবাসতে জানলে সবকিছুই সুন্দর লাগে
যেমন সুন্দর লাগে তোমার ভালাবাসাকে। continue reading
Likes Comments
০ Shares

আবু খায়ের আনিছ

৪ বছর আগে লিখেছেন

মসজিদ এবং আমার কিছু কথা।

কিছু কিছু লেখা লিখার আগে হাজার বার ভাবতে হয়, এই লেখাটার প্রতিক্রিয়া কি হতে পারে।
এই কথাটা যেহেতু র্ধম নিয়ে আর কথাটা কিছু কিছু মুসলমান এর গায়ে লাগতে পারে তাই আগেই বলে রাখি,আমি নিজে একজন মুসলিম আর আমার জন্মও একটা মুসলিম পরিবারে।
যারা ধর্ম নিয়ে মুটামুটি জানেন তার নিশ্চয় এটাও জানেন, বাড়ী বাড়ী মসজিদ হওয়াটা কেয়ামতের লক্ষণ।
গতকাল রাতে এক বড় ভাই এর সাথে কথা হচ্ছিল এই মসজিদ নিয়ে। ৪৮ ফুট আয়তনের একা মসজিদে ৮টা এসি,২০টার উপরে ফ্যান। রাজকীয় বিষয়, অথচ ইসলাম বলে অপচয় কারী শয়তানের বন্ধু।
আমার বন্ধুর ভাষ্য মতে এখানে আট রকমের মানুুষ আসে নামাজ পড়তে যার মধ্যে ভালো মানুষের চেয়ে খারাপ মানুষের সংখ্যাই বেশি। এই আট রকমের মানুষের মাথা ঠান্ডা রাখার জন্য আটটা এসি। তারউপরে আবার ফ্যান। মসজিদ যেন নয় এন্টার্কটিকা মহাদেশ।
ঠিক তার পাশেই আরেকটা মসজিদ,নন এসি। এখানেও মানুষ নামাজ পড়ে আবার এসির মধ্যে মানুষ নামাজ পড়ে। উনার ভাষ্য মতে এই এসি মধ্যে মানুষগুলো জমে গেলেও এসির পাওয়ার কমে না,কিভাবে উনারা থাকেন এখানে। তারপরেও মানুষগুলো নামাজ পড়ে এটাই বড় কথা।
একটু পিছনের দিকে যাই, এই মসজিদে এত সুবিধা আসার কারণ তারাবির নামাজ। কিছু মানুষের গরম সহ্য হয় না তাই এই ব্যবস্থা।
উনি যখন ঠিক ঐ মসজিদের আশে পাশেও যান তখন অপচয়কারী শয়তানের ভাই দেয়াল লেখন দেখে উনার হাসি পায়। কারণটা যথেষ্ট শক্তিশালী।
এবার আমার কথায় আসি, আমি দেখেছি অর্থের অভাবে অনেক মসজিদের টিনের চালে ফুটো,আর এই বর্ষায় ঠিক মত নামাজ পড়া যায় না সামান্য একটু বৃষ্টি হলেই। আবার কিছু কিছু মসজিদের এত বেহাল দশা যে তার... continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (2)

  • - মামুন

    পৃথিবীর সকল সত্যের পরে
    যখন তুমি আমার অভাব বোধ করবে
    তখন তোমার কোমল হাতে
    আমার শক্ত মুঠির দূর্বার গতি দিয়ে ছোঁব emoticonsemoticons

    • - আবু সাঈদ চৌধুরী

      অনেক ধন্যবাদ মূল্যবান মন্তব্যের জন্য ।

    - সোহেল আহমেদ পরান

    খুব ভালো লাগলো সাঈদ ভাই 

    • - আবু সাঈদ চৌধুরী

      ধন্যবাদ সোহেল ভাই সুন্দর করে বলার জন্য । ভালো তাকুন সবসময় ।

    - আলমগীর সরকার লিটন

    সুন্দর লাগল--

    • - আবু সাঈদ চৌধুরী

      ভালো লাগার জন্য কৃতজ্ঞতা জানবেন ।

    Load more comments...

আবু খায়ের আনিছ

৪ বছর আগে লিখেছেন

আমি পারবনা এই ছাপ্পান হাজার বর্গ মাইল ছেড়ে যেতে

অজস্র সম্ভবনার দুয়ার তুমি খুলে দিয়েছ আমায়
দিয়েছ অনেক রঙিন দুনিয়ার সোনালী স্বপ্ন
সুন্দর ভবিষ্যত আমায় হাত ছানী দিয়ে ডাকে
হাজার সহস্র মাইল দূরে, সুন্দর পৃথিবীর তরে
আমার কাছে আছে উন্মুক্ত দোয়ার বিশ্বের প্রান্তরে তবু
আমি পারবনা এই ছাপ্পান্ন হাজার বর্গ মাইল ছেড়ে যেতে
হাজার লক্ষ কোটি সম্পদ তুমি এনে দিতে পারবে
সুন্দর সোভামন্ডিত শান্তির জীবন হয়ত আসতে পারে
কিন্তু ভোরের মিষ্টি দোয়েলে ডাক আমি শুনব কি করে
প্রভাতের সূয্য আমার চোখ রাঙাবে কি এমনি করে
আমি সব সহ্য করতে পারব এই বাঙলার বুকে শুয়ে তবু
আমি পারবনা এই ছাপ্পান্ন হাজার বর্গ মাইল ছেড়ে যেতে।
আহা! এই খানে, আমার চোখ জুড়ায় সবুজের ঘাসে
ফসলের রাঙা মাঠে এমন করে কোথাও কি কৃষক হাসে
বিকেলের মাঠে এমন করে কোথায় যুবারা খেলা করে
তারুণ্যের জয় গানে কোথায় এমন প্রাণ নেচে উঠে
কোথায় এমন দিগন্ত লাল করে সূয্য যায় ঘুম ঘরে
আমি সব ছেড়ে দিতে পারব এই বাঙলার তরে তবু
আমি পারবনা এই ছাপ্পান হাজার বর্গ মাইল ছেড়ে যেতে continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (0)

  • - লাবিবা রাইহান

    মেঘ কেটেছে আঁধার হয়েছ দূর,গগনে চাঁদের হাসি 

    ও আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি । অনেক সুন্দর লিখেছেন।

    • - মো: মালেক জোমাদ্দার

      অনেক ধন্যবাদ লাবিবা রিহান , শুভেচ্ছা রইল । 

    - অর্বাচীন পথিক

    "মেঘ কেটেছে আঁধার হয়েছ দূর,গগনে চাঁদের হাসি 

    ও আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি "

    --- নতুন আর একটা আলোর দেখা পেলাম।

     ভাল লাগলো

    • - মো: মালেক জোমাদ্দার

      অর্বাচীন পথিক আপু অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল । কবিতাটি পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ ।

    - মামুন

    ভালো লিখেছেন মালেক ভাই। শুভেচ্ছা জানবেন।

    আমার গল্পটি পড়বার আমন্ত্রণ রইলো।emoticons

    • - মো: মালেক জোমাদ্দার

      মামুন ভাই ধন্যবাদ অবশ্যই পড়বো । শুভেচ্ছা 

    Load more comments...
Load more writings...