Site maintenance is running; thus you cannot login or sign up! We'll be back soon.

রাজ্যহীন রাজপুত্র

৪ বছর আগে লিখেছেন

ব্যস্ততা

ব্যস্ততা এমনি এক ক্ষতিকর অভ্যাস, আমার কাছে মনে হয় এটা মাদক জাতীয় দ্রব্যের মত নেশা।। যে এই ব্যস্ততাকে নিজের বন্ধু বানিয়ে নিজের রক্তের সাথে মিশিয়ে ফেলবে, সে ব্যস্ততাকে ছারা নিজেকে টিকিয়ে রাখতে কস্ট হবে।। সর্বদা বিষন্নতার মাঝে বসবাস করতে হয় তখন।। আমার অবস্থাটা কিছুটা এই রকম মনে হচ্ছে।। ব্যস্ততা তা ও আবার নিজস্ব নয় !! কি আর করার এখন মেনে নেই যা হবে মাথার উপরিভাগের অংশখানে লিখা ..................।।
  continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (2)

  • - টোকাই

    ভালো লাগলো ভাই ।

    • - মিশু মিলন

      ধন্যবাদ।

      দেরিতে উত্তর দেবার জন্য দুঃখিত। পোস্টটা দিয়েই ঢাকার বাইরে চলে গিয়েছিলাম।

      ভাল থাকবেন। শুভকামনা নিরন্তর.....

    - সুমন সাহা

    ভালো লাগলো।

    শুভেচ্ছা জানবেন।

    ভোটিং শুরু হয়েছে। তাই ভোট দিতে এলাম।

    শুভকামনা রইলো।

    • - মিশু মিলন

      ধন্যবাদ। আপনিও ভাল থাকবেন। শুভকামনা নিরন্তর......

    - রূম্পা রহমান

    ভালো লিখেছেন।

রাজ্যহীন রাজপুত্র

৫ বছর আগে লিখেছেন

মানবতা_আর_বাস্তবতা

    আজ ধানমন্ডি ল্যাব এইড থেকে বাসায় আসতেছি,  অনেক চেষ্টা করে একটা লেগুনায় ঝুলে উঠে পরলাম, আমার পাশেই লেগুনার হেলপার হিসেবে ছিল ৮ বছরের একটা ছেলে,রাত তখন ৯ টা নাগাত। তার সাথে কথার প্রসঙ্গে জানা গেল তার নাম "অনিক" থাকে কাউরান বাজারের পাশের বস্তিতে, বাবা নাই, মা বাড়ি বাড়ি কাজ করে তার ছোট ২ টা ভাই বোন আছে। সে কোন পড়ালেখার সীমানা ঘেষে নাই, শুধু একটু আকটু অক্ষর চিনে আর কি। সাড়াদিন শেষে তার আয় হয় ৬০০ টাকা যার কছু অংশ সে তার মাকে দেয় আর বাকিটা নিজে রেখে দেয়, তার নিজের কাছে রাখা টাকার ব্যয় এর বর্ননা আমি শুনতে চাই নাই।    এই যে একটা শিশু ছেলে কি বা তার বয়স হয়েছে যে সে তার পরিবারের জন্য রোজগার করার জন্য আজ শ্রম ব্যয় করছে?   আবার প্রতিদিন সন্ধ্যার পর পর ই দেখা যায় বিমানবন্দর এর পাশে ই কিছু টোকাই ছেলে মেয়ে...দিব্যি বসে ড্যান্ডি নামক নেশায় মগ্ন। এই অসহায় বাচ্চা গুলা কি ই বা বুঝে? আর যারা কিছু টাকা পাবে বলে তাদের হাতে তুলে দিচ্ছে ড্যান্ডির মত বিষ! যোগ নিচ্ছে  শিশুশ্রমে। কেনো তাদের কে এই সচেতন সমাজ দেখেও না দেখার ভান করে আগুনে ঠেলে দিচ্ছে? সরকার শিশু শ্রমের বিরুদ্ধে নানা আইন তুলে ধরতে পারে কিন্তু তার কি কোনো কার্যকারিতা আছে? হ্যা অনেক সামাজিক কিছু প্র্তিষ্ঠান রয়েছে যারা এগিয়ে আসে এই শিশুদের জন্য কিন্তু, আমাদের এই বসবাসের অযোগ্য শহরে  লাখ লাখশিশু রয়ছে যারা ঠিক মত একবেলা পেট পুড়েখেতে পায় না। কিছু সমাজ পতি আছে যারা নিজের নামের আগে সমাজসেবক লাগাতে পারলে নিজেকে অনেক বড় মনে করে, কিন্তু তাদের এই অঢেল তাকা পয়সার... continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (1)

  • - রব্বানী চৌধুরী

    কোন লেখায় ইচ্ছেমত দাড়ি চিহ্ন বসালে যে কিছুটা হোঁচট খেতে হয় পড়তে গিয়ে তা আমাদের জানা, কিন্তু ভদ্র লোকের সু-প্রিয় স্ত্রী যে দাড়ি চিহ্নের ব্যবহার ঘটিয়ে চিঠির যে লংঙ্কা কান্ড ঘটিয়েছেন তা পড়ে অবাক হওয়ার পাশাপাশি হাসতে হল বেশ। ( যদিও হাসতে মানা করেছেন, কিন্তু কথা রাখা হলো না)  

     

    চমৎকার রস রচনার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ্।   শুভেচ্ছা জানবেন, ভালো থাকবেন।  

    - মেঘ বলেছে যাব যাব

    হা হা হা হা

    • - নাসরিন ইসলাম

      হি হি হি 

    - এম. এ. এস. মানিক

    বহু পুরাতন একটা লেখা। কৌতুক প্রিয়দের কয়েকবার শোনা হয়েছে। পড়াও হয়েছে। তারপরও নতুন করে আবার পড়লাম। হাসতে মানা তারপরও নিজে হাসলাম........আমার হাসি দেখে পাশের জনও হাসল। তবে এখনকার স্ত্রী’রা কিন্তু পত্র লেখেনা, এসএমএস করে, ফোন দেয়। দাঁড়ি আর কমা’র ধারে কাছেও তারা নেই।

    .................ধন্যবাদ।

    ===============================

    (((আলোতে থাকুন, ভালোতে থাকুন)))

    • - নাসরিন ইসলাম

      :) 

    Load more comments...

রাজ্যহীন রাজপুত্র

৫ বছর আগে লিখেছেন

"এক টুকরো হাসি"

 
রাত তখন ১০ঃ৩০ , চারজন বন্ধু - শুভ, সাদ, আলিফ এবং নাহিন, রেলগেট পাশের মামার দোকানে বসে আড্ডা দিচ্ছে, তারা সকলে ই একই প্রাইভেট ভার্সিটিতে সদ্য ভর্তি হইছে, এক সাথে ই নতুন বাসা নিয়েছে, তাই নতুন বাসার জন্য কিছু টুকিটাকি জিনিস কিনতেছে, একটা ক্রোকারিজ এর দোকানের পাশে গিয়ে তারা এক অন্ধ ব্যক্তি কে দেখতে পেল সে দোকানের বাইরে দারিয়ে আছে, ভেতরে এক ছোট মেয়েকে কিছু কিনতে দেখতে পেল, মেয়েটি একটি বোল কিন্তেছিল, অন্ধ ব্যক্তিটি তার সারাদিনের আয় করা টাকা দিয়ে শুধু একটা বোল কিনতেছে তার পরিবারের জন্যে, মেয়েটি খুব ই আগ্রহের সাথে এটা ওটা দেখছে কিন্তু সে বোল ই কিনবে, কারন তার বাবা সেই অন্ধ ব্যাক্তিটির এত টুকু ই সামর্থ্য ছিল, কিন্তু সে ও তো তার এই ছোট্ট মেয়েটির এক্যাতে খাবারের কস্ট না হয় সেই প্রতীক্ষায় আছে, সাদ আর শুভ লোক্টির সাথে কথা বলতে জানতে পারলো , অন্ধ লোক্টি রেললাইনের পাশের বস্তিতে নতুন এসেছে, যে ৫০০ টাকা মাসে ভাড়া দিয়ে তার পরিবারের জন্য মাথা গোজার যায়গা করছে, কিন্তু তার এই প্রতিদিনের আয় দিয়ে সম্ভব নয়, তার এটি ই বড় মেয়ে, বয়স ৬ কি ৭ হবে, মেয়েটিকে মাদ্রাসায় ভর্তি ও করেছে, তাদের সবার ই লোকটির জন্য একটু সাহায্য করতে এগিয়ে গেলো, তারা সবাই মিলে, লোকটির পরিবারের জন্য কিছু ক্রোকারিজ মালামাল কিনে দিল যতটুকু তারা পেরেছিল, তার বিনিময়ে তারা লোক্টির কাছথেকে প্রান ভরা আর চোখ ভেজানো দোয়া , আর সেই ছোট্ট মেয়েটির মুখে এক টুকুরো হাসি পেয়েছিল, যা তাদের এই অল্প খরচেএর তুলনায় অপরিমেয়।
আসলে আমারা আমদের চারিপাশে অনেকধরনের এমন গরিব নানান পেশার লক দেখতে পাই, যদি নিজের মনে এত... continue reading
Likes Comments
০ Shares

রাজ্যহীন রাজপুত্র

৫ বছর আগে লিখেছেন

আমাদের ‎বাস্তবতা‬


#১# আমরা সবাই অল্প কিছুতে ই বলে ফেলি ভালো নেই অথবা মন ভালো নেই, একটা বিষয় এ হয়তবা মন খারাপ হতে পারে অথবা শারিরীক কোনো কারনে অসুস্থ্য থাকতে পারি, কিন্তু যা বলতে চাচ্ছি তা হল শত দুঃখ আর শত ভালো না লাগার মাঝে ও আমরা আমাদের নিজেকে কিছুটা হলেও আনন্দ, ভালোলাগার মঝে ব্যস্ত রাখতে পারি, কিন্তু এটা আমাদের নিজস্ব ব্যাপার, কে কার নিজকে নিজের মনের মাঝে আনন্দ আর ফুরফুরে রাখতে পারে।
#২# আবার কিছু মানুষ দেখা যায়, যারা নিজেকে এবং নিজের কথাকে প্রধান এবং সঠিক বলে মনে করে, তার কাছে বাকি সবাই নগন্য । আসলে সে যে নিজেকে বাকি সবার কছে তিক্ত, নগন্য বানিয়ে ফেলছে এটা সে বুঝতে নারাজ । হয়তোবা তার ভালো অনেক গুনাবলি থাকে যার কারনে তাকে কেউ কেউ অনেক প্রাধান্য দিয়ে থাকি, কিন্তু তার ঐ সকল ভুল গুলি যদি সে বুঝতে পারে তাহলে অবশ্যই তাকে সেই মর্যাদার স্থানটি দেয়া যায়। কিন্তু সেই যদি অন্য ব্যক্তি সকল্কে হেয় মনে করে তাহলে আগের কথা ই থাকল " তুমি অন্যকে সম্মান দিলে অবশ্যই তুমি সম্মান পাবে" ।
#৩# আমাদের মাঝে কিছু আবাল প্রকৃতির মানুষ থাকে যারা অতি সহজে বাস্তবতা বুঝতে পারে না, অন্যের মারপ্যাচে সর্বদা নিজের অজান্তে জড়িয়ে যায়, সেই সকল মানুষ কে অন্যরা নিজেদের চাল হিসেবে ব্যবহার করে, এই ক্ষেত্রে হয়তোবা সহজ মানুষটিকে বুঝিয়ে বললে সে মারপ্যাচ গুলা বঝে যেত, যদি ও এই কাজটি করার মাধ্যমে আমাদের সমাজে আর বোকা লোক গুলা থাকতাম না, সবাই চালাক হয়ে যেত ।
এটি ই বাস্তবতা, এই ঘটনা গুলো আমাদের জ়ীবনের সাথে ওতপ্রোত ভাবে জড়িত, যা আমরা চাইলে ও... continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (0)

  • - পুলক বিশ্বাস

    শুভকামনা দাদা। আপনার ভ্রমন কথা ইতিহাসনির্ভর। নানা অনিয়মের কথাও ফুটে উঠেছে লেখায়।

    অনেক অনেক ভালো থাকবেন দাদা।