ধ্রুব তারা

৪ বছর আগে লিখেছেন

চিঠি দিও-মহাদেব সাহা

করুণা করে হলেও চিঠি দিও, খামে ভরে তুলে দিও
আঙ্গুলের মিহিন সেলাই
ভুল বানানেও লিখো প্রিয়,
বেশি হলে কেটে ফেলো তাও,
এটুকু সামান্য দাবি, চিঠি দিও, তোমার শাড়ির মতো
অক্ষরের পাড়-বোনা একখানি চিঠি।
চুলের মতন কোনো চিহ্ন দিও বিস্ময়
বোঝাতে যদি চাও …
বর্ণণা আলস্য লাগে তোমার চোখের মতো চিহ্ন কিছু
দিও!
আজো তো অমল আমি চিঠি চাই, পথ চেয়ে আছি,
আসবেন অচেনা রাজার লোক
তার হাতে চিঠি দিও, বাড়ি পৌঁছে দেবে ….
এমন ব্যস্ততা যদি শুদ্ধ করে একটি শব্দই শুধু লিখো,
তোমার কুশল! …
করুণা করে হলেও চিঠি দিও, ভুলে গিয়ে ভুল
করে একখানি চিঠি
দিও খামে
কিছুই লেখার নেই তবু লিখো একটি পাখির শিস
একটি ফুলের ছোট নাম,
টুকিটাকি হয়তো হারিয়ে গেছে কিছু,
হয়তো পাওনি খুঁজে
সেইসব চুপচাপ কোন দুপুরবেলার গল্প
খুব মেঘ করে এলে কখনো কখনো বড় একা লাগে, তাই
লিখো
করুণা করে হলেও চিঠি দিও, মিথ্যা করে হলেও
বোলো, ভালবাসি ! continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (2)

  • - ওয়াহিদ মামুন

    চমৎকার।

    - Sadat Chowdhury

    ভাল লাগা রইল। 

ধ্রুব তারা

৪ বছর আগে লিখেছেন

সাইক্লিং: ফ্যাশনের চেয়ে বেশি কিছু


সাইকেল হাল ফ্যাশনের একটি অনুষঙ্গে পরিণত হয়েছে। সম্ভবত পূর্বের যে কোনো সময়ের তুলনায় বর্তমানে সাইকেল চালানোর প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষত রাজধানী ঢাকায় সাইকেল চালানোর মাত্রা ব্যাপক আশাব্যঞ্জক। সাইকেল শুধু আপনাকে ট্রাফিক জ্যামের শহর ঢাকার রাস্তা তারাতারি অতিবাহিত করতেই সাহায্য করবেনা, বরং আপনার মূল্যবান সময় এবং মহামূল্যবান স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিতা পালন করতে পারে। আসুন জেনে নেই একটি অভ্যাস আপনার স্বাস্থ্যকে কীভাবে পরিপূর্ন রাখতে পারে।
 
১. আর্থ্রাইটিসসহ বিভিন্ন জটিল রোগের ক্ষেত্রে ব্যাপক উপকারী সাইকেল চালানো। এসব রোগের ক্ষেত্রে সাইক্লিং ওষুধের বিকল্প হিসেবে কাজ করে।
 
২. সাইকেল চালানো আপনার বাড়তি ক্যালোরি কমাতে অত্যন্ত সহায়ক। তবে এক্ষত্রে সাধারণ গতির চেয়ে একটু দ্রুত গতিতে সাইকেল চালাতে হবে। ওজন কমাতে চাইলে আর দেরি নয়।  আজই সাইকেল চালানো শুরু করে দিন।
 
৩. নিয়মিত সাইক্লিং করলে আপনার আয়ুস্কাল বাড়বে। তাই অধিক আয়ুস্কাল উপভোগ করার জন্য সাইকেল চালানোর অভ্যাস করতে পারেন।
 
৪. নিয়মিত সাইকেল চালানো কার্ডিয়ভ্যাসকুলার বা সার্কুলেটরি সিস্টেমকে উন্নত করে এবং করনারী হার্ট সংক্রমনের ঝুকি কমায়।
 
৫. সাইক্লিং আপনার মাংসপেশী গঠনের পক্ষে সহায়ক। বিশেষত পা, হাটু, উরু ইত্যাদি গঠনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারে সাইক্লিং।
 
৬. নিয়মিত সাইক্লিং করলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে এবং এটি বেশকয়েক প্রজাতির ক্যানসার সংক্রমনের ঝুকিও কিছুটা কমায়।
 
৭. তাছাড়া, নিয়মিত সাইক্লিং শরীরের পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতির পক্ষে যথেষ্ট সহায়ক।
 
৮. এবং যেহেতু সাইকেল চালানোর সময় আমাদের একই সময়ে হাত, পা এবং সমগ্র শরীর সচল থাকে সুতরাং শরীরের সমগ্র অংশের সামঞ্জস্যতা রক্ষার ক্ষেত্রে এটি সহায়ক ভুমিকা পালন করে। - See more at: http://www.sbd24.com/lifestyle/2015/01/16/18259#sthash.AwGqnTif.dpuf continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (0)

  • - এই মেঘ এই রোদ্দুর

    নক্ষত্রের অবস্থা খারাপ হয়ে যাচ্ছে দিন দিন

    • - টোকাই

      হুম

    - টোকাই

    বাহ বাহ

ধ্রুব তারা

৪ বছর আগে লিখেছেন

লাবণ্যর চিঠি

  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শেষের কবিতা উপন্যাসে অমিত কে লেখা লাবণ্যর শেষ চিঠি। 
--
কালের যাত্রার ধ্বনি শুনিতে কি পাও?
তারি রথ নিত্য উধাও।
জাগিছে অন্তরীক্ষে হৃদয়স্পন্দন
চক্রে পিষ্ট আধারের বক্ষ-ফাটা তারার ক্রন্দন।
ওগো বন্ধু,
সেই ধাবমান কাল
জড়ায়ে ধরিল মোরে ফেলি তার জাল
তুলে নিল দ্রুতরথে
দু'সাহসী ভ্রমনের পথে
তোমা হতে বহু দূরে।
মনে হয় অজস্র মৃত্যুরে
পার হয়ে আসিলাম
আজি নব প্রভাতের শিখর চুড়ায়;
রথের চঞ্চল বেগ হাওয়ায় উড়ায়
আমার পুরানো নাম।
ফিরিবার পথ নাহি;
দূর হতে যদি দেখ চাহি
পারিবে না চিনিতে আমায়।
হে বন্ধু বিদায়।
কোনদিন কর্মহীন পূর্ণো অবকাশে
বসন্তবাতাসে
অতীতের তীর হতে যে রাত্রে বহিবে দীর্ঘশ্বাস,
ঝরা বকুলের কান্না ব্যাথিবে আকাশ,
সেইক্ষণে খুজে দেখো, কিছু মোর পিছে রহিল সে
তোমার প্রাণের প্রানে, বিস্মৃতি প্রাদোষে
হয়তো দিবে সে জ্যোতি,
হয়তো ধরিবে কভু নামহারা স্বপ্নে মুরতি।
তবু সে তো স্বপ্ন নয়,
সব চেয়ে সত্য মোর সেই মৃত্যুঞ্জয় -
সে আমার প্রেম।
তারে আমি রাখিয়া এলাম
অপরিবর্তন অর্ঘ্য তোমার উদ্দেশ্যে।
পরিবর্তনের স্রোতে আমি যাই ভেসে
কালের যাত্রায়।
হে বন্ধু বিদায়।
তোমায় হয় নি কোন ক্ষতি।
মর্তের মৃত্তিকা মোর, তাই দিয়ে অমৃতমুরতি
যদি সৃষ্টি করে থাক তাহারি আরতি
হোক তবে সন্ধ্যা বেলা-
পূজার সে খেলা
ব্যাঘাত পাবে না মোর প্রত্যহের ম্লান স্পর্শ লেগে;
তৃষার্ত আবেগবেগে
ভ্রষ্ট্র নাহি হবে তার কোন ফুল নৈবদ্যের থালে।
তোমার মানস ভোজে সযত্নে সাজালে
যে ভাবরসের পাত্র বাণীর ত'ষায়
তার সাথে দিব না মিশায়ে
যা মোর ধূলির ধন, যা মোর চক্ষের জলে ভিজে।
আজও তুমি নিজে
হয়তো বা করিবে বচন
মোর স্মৃতিটুকু দিয়ে স্বপ্নবিষ্ট তোমার বচন
ভার তার না রহিবে, না রহিবে দায়।
হে বন্ধু বিদায়।
মোর লাগি করিয় না শোক-
আমার রয়েছে কর্ম রয়েছে বিশ্বলোক।
মোর পাত্র রিক্ত হয় নাই,
শুন্যেরে করিব পূর্ণো, এই ব্রত বহিব সদাই।
উ'কন্ঠ... continue reading
Likes Comments
০ Shares

ধ্রুব তারা

৪ বছর আগে লিখেছেন

সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্যে ভয়াবহ বিপর্যয়

সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্যের জন্য এক ভয়াবহ বিপর্যয় নেমে এসেছে। তেলবাহী একটি ট্যাঙ্কার থেকে তেল ছড়িয়ে পড়ে হুমকির মুখে ফেলেছে বিরল ইরাবতী ও গাঙ্গেয় ডলফিনকে। একই সঙ্গে হুমকিতে রয়েছে বাংলাদেশের ঐতিহ্য রয়েল বেঙ্গল টাইগার। শুধু তা-ই নয়, ওই তেল ছড়িয়ে পড়ায় সুন্দরবনের পুরো জীববৈচিত্র্য এখন হুমকির মুখে। এতে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হবে ম্যানগ্রোভ উদ্ভিদ। সুন্দরবনের ভিতর দিয়ে প্রবাহিত শ্যালা নদীতে প্রায় ৩ লাখ ৫০ হাজার লিটার তেল নিয়ে একটি ট্যাঙ্কারের অর্ধেকটা ডুবে যায় কয়েকদিন আগে। সে বিষয়ে গতকাল বার্তা সংস্থা এএফপি’র এক রিপোর্টে এসব কথা বলা হয়েছে। এতে বলা হয়, মঙ্গলবার ওই তেলবাহী ট্যাঙ্কারের সঙ্গে আরেকটি নৌযানের ধাক্কা লাগে। এতে ট্যাঙ্কারের সামনের দিকের অর্ধাংশ পানিতে ডুবে যায়। এটি যেখানে ডুবেছে তা বিরল ইরাবতী ও গাঙ্গেয় ডলফিনের বিচরণ ক্ষেত্র। ট্যাঙ্কারটি ডুবে যাওয়ার পর তা থেকে ছড়িয়ে পড়তে থাকে তেল। সেই তেল ছড়িয়ে পড়ছে চারদিকে। জোয়ারের সময় এই তেল পানিতে ভেসে ছড়িয়ে পড়ছে সুন্দরবনে। চারদিকে তেলের এক আস্তরণ পড়ে রয়েছে। এই তেল ছড়িয়ে পড়েছে অন্য নদীতে। সুন্দরবনের প্রধান বন কর্মকর্তা আমির হোসেন বলেন, শেলা ও পশুর নদীতে ৬০ কিলোমিটার এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে এই তেল। সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য এমনিতেই সঙ্কটে। তার ওপর এ ঘটনা তা আরও বিপর্যয়ে ফেলেছে। ছড়িয়ে পড়া তেল পাড়ে কালো আস্তরণ তৈরি করেছে। এর কুপ্রভাব খুব শিগগিরই দেখা যাবে। এরই মধ্যে পানির মান মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়, কর্তৃপক্ষ এরই মধ্যে ছোটখাটো পরিসরে পরিষ্কার অভিযান শুরু করেছে। আমির হোসেন বলেন, আমরা এখনও বড় আকারে পরিষ্কার অভিযান শুরু করি নি। এমন বিপর্যয়ে যে প্রযুক্তি দরকার তা বন বিভাগের হাতে নেই। তেল যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে জন্য বাংলাদেশের রাষ্ট্র পরিচালিত পেট্রোলিয়াম করপোরেশন ভাসমান... continue reading
Likes Comments
০ Shares

ধ্রুব তারা

৪ বছর আগে লিখেছেন

নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে।

ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান। এবার দিলেন আনুষ্ঠানিক ঘোষনা; বিদেশের ঘরোয়া টুর্নামেন্টগুলোতে সাকিব আল হাসানের খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে।
বৃহস্পতিবার রাতে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান সাকিবের ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন।
বিসিবি সভাপতি জানান, পরিচালনা পর্ষদের সবার সম্মতিতে এই মুহূর্ত থেকেই সাকিবের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে।
নাজমুল জানান, সাকিবের শাস্তি হয়েছিল আচরণগত সমস্যার কারণে। তার আচরণের উল্লেখযোগ্য উন্নতি ঘটায় একটি শাস্তি কমিয়ে আনা হয়। এবার শেষ নিষেধাজ্ঞাটিও উঠিয়ে নেওয়া হলো।
অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিগ ব্যাশকে সামনে রেখে বাইরে খেলার নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে আবেদন করেছিলেন সাকিব। আগামী ১৮ ডিসেম্বর থেকে পরের বছরের ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার আয়োজনে হবে বিগ ব্যাশ। এই টুর্নামেন্টে গতবার অ্যাডিলেড স্ট্রাইকার্সের হয়ে খেলেছিলেন সাকিব।
শৃঙ্খলাভঙ্গের ঘটনায় গত ৭ জুলাই সাকিবকে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করে বিসিবি। এ সময় আগামী বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশের বাইরে কোনো টুর্নামেন্টে খেলার জন্য তাকে অনাপত্তিপত্র (এনওসি) না দেয়ারও ঘোষণা দেয় তারা। পরে বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডারের শাস্তির মেয়াদ কমায় বিসিবি। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় তারা। তবে দেশের বাইরের টুর্নামেন্টে খেলার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা থেকেই যায়।
গত মঙ্গলবার নাজামুল হাসান জানান, বোর্ড সভা হতে দেরি হবে, তাই মৌখিক এবং লিখিত সম্মতিতে সাকিবের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার আবেদনে সাড়া দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা।
নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেন সাকিব। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩-০ ব্যবধানে জেতা টেস্ট সিরিজের সেরা খেলোয়াড় ছিলেন তিনি। ৫-০ ব্যবধানে জেতা ওয়ানডে সিরিজের সেরা বোলার ছিলেন তিনি।
বিগ ব্যাশ ছাড়াও ভারতের আইপিএল,... continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (1)

  • - মাইদুল আলম সিদ্দিকী

    শাবাশ!! শেষ চরণটায় আমি অনেক কিছুই পেলাম শ্রদ্ধাভাজন।

    • - মোহাম্মদ মুশফিকুর রহমান মুশফিক

      অসংখ্য  ধন্যবাদ ।।  ভালো  থাকবেন ।। :)

Load more writings...