Entertainment Image

আইরিনের প্রিয় বিষয়গুলো



আইরিন সুলতানা মিডিয়ায় পা রাখেন র্যাপম্প মডেলিংয়ের মাধ্যমে। র্যাডম্পে জনপ্রিয়তা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তার ডাক পড়ে চলচ্চিত্রে অভিনয়ের। ২০১৩ সালে মুক্তি পায় আইরিন অভিনীত প্রথম ছবি ‘ভালোবাসা জিন্দাবাদ’। দেবাশিষ বিশ্বাস পরিচালিত এ ছবির মাধ্যমে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেন এই অভিনেত্রী। সম্প্রতি তিনি কাজ করছেন এস এ হক অলিক পরিচালিত ‘এক পৃথিবী প্রেম’ ছবিতে। মুক্তির অপেক্ষায় আছে সাইফ চন্দন পরিচালিত ছেলেটি আবোল তাবোল, মেয়েটি পাগল পাগল’। এ ছাড়া হাতে আছে, আমি দাঁড়ি, তুমি কমা’সহ বেশ কয়েকটি ছবি। এই তারকা জানালেন তার প্রিয় বিষয়গুলো ।
প্রিয় মানুষ
পরিবারের সবাই আমার প্রিয়। আর সবচেয়ে প্রিয় মানুষের কথা বললে মা-বাবার কথায় বলবো।
প্রিয় খাবার
বাঙালি খাবারই আমার বেশি প্রিয়। ভাত, মাছ, ভর্তা ইত্যাদি খেতেই ভাল লাগে আমার। আর নানা ধরনের সবজি তো আছেই।

প্রিয় ট্যুরিস্ট স্পট
সমুদ্র আমার অনেক প্রিয়। সমুদ্রের নীলজল আমাকে সবসময় টানে। সেক্ষেত্রে কক্সবাজার সম্রদ্র সৈকতই আমার প্রিয় স্পট।
প্রিয় সিনেমা (নিজের করা)
আমার ছবি আমার কাছে সন্তানের মতো। আমার সব ছবিই আমার কাছে প্রিয়।
প্রিয় নায়ক
ছোটবেলায় যার ছবি দেখে মুগ্ধ হতাম, কল্পনা করতাম সেই নায়কের নাম সালমান শাহ। এ ছাড়া রাজ্জাক, রিয়াজ, শাকিব খানও আমার প্রিয় নায়ক।
প্রিয় নায়িকা
আমার প্রিয় নায়িকা অনেক। তবুও যদি বলতে হয় ববিতা, কবরী, শাবানা, মৌসুমী আপু’র নামই বলবো।

প্রিয় বই
আমার এত বই প্রিয় যে কোনটা ছেড়ে কোনটার নাম বলবো। আরেকটা ব্যাপার হচ্ছে আমি প্রচুর বই পড়ি তো তাই হুট করে কোন বইয়ের নাম বলতে পারি না। মনেও থাকে না। তবে শরৎচন্দ্রের রচনাসমগ্র আমার অনেক প্রিয় একটি বই। এছাড়া রবীন্দ্রসমগ্র, নজরুল সম্রগ্রসহ অনেক বই আমারপড়া।
প্রিয় লেখক
সমরেশ মজুমদার, হুমায়ূন আহমেদ, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলামসহ অনেকেই।
প্রিয় রেস্টুরেন্ট
স্টার কাবাব, কেএফসি পিৎজা হাট, ডোমিনাস পিৎজা, মিডনাইট সান এসব রেস্টুরেন্টে খেতেই বেশি ভালোবাসি।
প্রিয় পোশাক
যখন যেটা ভালো লাগে সেটাই পরি। আর পরার সময় দেখি কোন পোশাকে আমাকে বেশি সুন্দর লাগে। যেটা বেশি সুন্দর লাগে সে পোশাকটাই বেশি বেশি পড়া হয়। এমনিতে অকেশনালি শাড়ি, নরমালি টপস বা জিন্স, টি শার্টের সঙ্গে জিন্স বা শার্ট-জিন্স পরতেই পছন্দ করি।

প্রিয় বন্ধু
বন্ধু তো অনেক। কাকে ছেড়ে কার কথা বলবো আর কে মাইন্ড করবে। তারপরও যদি বলতে হয় তাহলে বলবো স্কুল ফ্রেন্ড রূপা আর কলিগ জামসেদ আমার খুব কাছের বন্ধু।
প্রিয় খেলা
এখন তো আর মাঠে নামার বয়স নেই । আগের মতো কেউ মাঠে নামেও না। ঘরে বসেই ‌ ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে যেসব গেম খেলা যায় সেগুলোই খেলি। এর মধ্যে প্রিয় হচ্ছে ক্যান্ডি ক্রাশ, টেম্পেল রান, কার্ড ইত্যাদি।
প্রিয় গান
সব ধরনের বাংলা গানই আমার পছন্দের। এর মধ্যে নজরূলসঙ্গীত, রবীন্দ্রসঙ্গীত, হিন্দিগানও শুনি।
প্রিয় গায়ক
অনেকেই আমার প্রিয় গায়ক। রুনা লায়লা, সাবিনা, ইয়াসমীন, তপন চৌধুরী, জেমস, আইয়ুব বাচ্চু, কনকচাঁপা, এন্ড্রু কিশোরসহ অনেকই আছেন।
প্রিয় পরিচালক
বাংলাদেশে এই সময়ের সব পরিচালকই আমার প্রিয়। তাদের নাম বলতে চাই না। তবে কিংবদন্তী পরিচালকদের মধ্যে জেমস ক্যামেরন, সত্যজিৎ রায়-এর মতো পরিচালকরাই আমার প্রিয়।
প্রিয় স্মৃতি যা মনে পড়লে হাসি পায়
এই মুহূর্তে মনে পড়ছে না, মনে পড়লে হেসে ফেলবো। আর তখন আপনাকেও জানাবো।
প্রিয় উক্তি
সৎভাবে থাকো এবং পরিশ্রম করো।


প্রিয় ভুল যা জেনেও বারবার করা হয়
আমার ঘর অগোছালো থাকে। বার বার ভাবি গোছাবো। কিন্তু ভুলে যাই। গোছানো আর হয়ে ওঠে না।
প্রিয় গেজেট
ট্যাব আমার প্রিয়। কারণ এটা দিয়ে সবকিছুই করা যায়। আর স্যামসাং ব্রান্ডের ট্যাবই ইউজ করছি।
প্রিয় মূহুর্ত
যখন কাজ শেষ করে বাসায় ফিরি।