Beauty Image

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য কয়েকটি ঘরোয়া ফেস প্যাক



অনেকের ত্বকে ছোপ ছোপ কালচে বা লালচে দাগ থাকে। এই ট্যানের কারণে সাজগোজ করলেও দেখতে খারাপ লাগে। কিন্তু একটু সচেতন হয়ে ঘরোয়া উপাদান ব্যবহারে ট্যান দূর করা যায় খুব সহজেই। চলুন জেনে নেই কয়েকটি ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফেস প্যাক-

*লেবুর রস, গোলাপ জল এবং শসার রসের মিশ্রণ ব্যবহার করতে পারেন ফেস প্যাক হিসেবে। শশার রস এবং গোলাপ জল ত্বককে ঠাণ্ডা করে, লেবুর রস প্রাকৃতিকভাবে ত্বককে উজ্জ্বল করে।

*কাঁচা দুধ, হলুদ এবং লেবুর রসের মিশ্রণ তৈরি করে নিন। ত্বকে লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

*ওট এবং বাটারমিল্ক দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। ত্বকের রোদে পোড়া অংশে ব্যবহার করুন। বাটারমিল্ক ত্বককে আরাম দেয়, আর ওট এক্সফলিয়েটর হিসেবে কাজ করে।

*বেসন, লেবুর রস, আর দই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন এবং তা রোদে পোড়া ত্বকে নিয়মিত ব্যবহার করুন।

*তাজা লেবু চিপে রস বের করে নিন। এরপর রোদে পোড়া কনুই, হাঁটু বা ছোপ ছোপ দাগের ওপর দিয়ে রাখুন কমপক্ষে ১৫ মিনিট। দাগ চলে গিয়ে ত্বক উজ্জ্বল হয়ে উঠবে।

*নিয়মিত মুখ এবং হাতের ত্বক ডাবের পানি দিয়ে ধুলে রোদে পোড়া দাগ চলে যায়, সেই সাথে ত্বক হয়ে ওঠে কোমল ও সজীব।

*পাকা পেঁপে বেটে এই পেস্ট দিয়ে রোদে পোড়া ত্বক ম্যাসাজ করুন। এতে ট্যান তো যাবেই, সাথে সাথে অ্যান্টি এজিং উপাদান হিসেবে কাজ করবে পেঁপে।

*সমপরিমান গুঁড়ো দুধ, লেবুর রস, মধু এবং আমন্ড তেল দিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এটা ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। দিনে তিন বার ব্যবহারে সবচাইতে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে। আর তৈরি করার পর এক সপ্তাহের মতো রেখে দিতে পারবেন এই প্যাকটি।

*হলুদের গুঁড়ো এবং লেবুর রসের পেস্ট সপ্তাহে তিন দিন ব্যবহার করুন। এতে ট্যান কমে যাবে।

*কাঠবাদাম সারারাত ভিজিয়ে রেখে সকালে বেটে ফেলুন। এর সাথে সমপরিমান দুধের সর নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। রোদে পোড়া ত্বকে ব্যবহারে বেশ ভালো ফল পাওয়া যায়।

*ওটমিল, টক দই, কয়েক ফোঁটা লেবুর রস এবং টমেটোর রস মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এটা ত্বকে দিয়ে রেখে দিন আধা ঘণ্টা। এরপর ধুয়ে ফেলুন ঠাণ্ডা পানি দিয়ে। হাতেনাতেই উপকার পেয়ে যাবেন।

*চালকুমড়ার রস এবং মুলতানি মাটি দিয়ে ফেস প্যাক তৈরি করে ত্বকে লাগান। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। ট্যান কমাতে কাজে লাগে এই প্যাকটি।

…ফেস প্যাক লাগানো অবস্থায় চোখে শশা বা আলু দিতে পারেন। তাতে চোখের নিজের কালো দাগ চলে যাবে। আর প্যাক লাগানো অবস্থায় যতটা সম্ভব কথা না বলার চেষ্টা করবেন তাতে স্কিনে ভাঁজ পরার ভয় থাকবে না। নিজের ত্বক এবং সুবিধা অনুযায়ী ব্যবহার করে ফেলুন যে কোনো একটি।