নিকুম সাহা

১ বছর আগে লিখেছেন

তাজমহলের কথা

সুবিশাল দক্ষিণ দরওয়াজার আলো-আঁধারি থেকে যখন তাজমহলকে প্রথম দেখা যায়, তখন মনে হয় খিলান পার করলেই তাজকে ছোঁওয়া যাবে। কিন্তু যত এগিয়ে যাওয়া ততই পারস্পেক্টিভ বদলে যায়, তাজ ধীরে ধীরে সরতে থাকে, ক্রমশ নজরে পড়ে উঁচু বিরাট ভিত্তিভূমি (কুর্সি)— যার চার কোণে চারটি মিনার, আর পশ্চিম ও পূর্ব দিকে বড় বড় গাছের আড়ালে অবিকল এক রকম দেখতে লাল পাথরের মসজিদ ও ‘মেহমানখানা’। আরও কিছুটা এগিয়ে গেলে ভাল করে নজরে পড়বে মাঝখানে ফোয়ারার সারি দিয়ে চারটি সমান মাপের ‘চারবাগ’ বাগান, ঠিক মাঝখানে বড় মাপের চৌবাচ্চা, তার জলে তাজের প্রতিবিম্ব। তখন বিস্ময়ে কথা বন্ধ হয়ে যায়, মন হারিয়ে যায় মোহময় জাদুজগতে। নির্মাণ শেষ হয়েছে প্রায় ৩৭০ বছর আগে, লক্ষ লক্ষ মানুষ তাজ দেখতে এসেছেন— সকলেই ফিরেছেন এক অনির্বচনীয় অনুভূতি নিয়ে।
তাজের নির্মাণ শেষ হওয়ার এগারো বছর পরে ফরাসি পর্যটক ফ্রাঁসোয়া বের্নিয়ে লিখেছিলেন, এটি পৃথিবীর অন্যতম আশ্চর্য, মিশরের বিশালকায় পিরামিডের চেয়ে অনেক এগিয়ে। সে যুগে ‘ওয়র্ল্ড হেরিটেজ’ তকমা দেওয়ার ব্যাপার ছিল না, তবু অনায়াসে সাড়ে তিনশো বছর আগেই তাজমহল পৃথিবীর অন্যতম আশ্চর্য হিসাবে গণ্য হয়েছিল। তাজমহল সম্বন্ধে আমরা অনেক কথা জানি, আবার অনেক তথ্যই অজানা। যা জানা আছে তা হল, তাজমহল সম্রাট সাহাবুদ্দিন মুহম্মদ শাহজাহানের প্রিয় বেগম মমতাজ মহলের সমাধিসৌধ (রৌজা-এ-মুনব্বরা), যার পরে নাম হয় তাজমহল। সম্রাট জাহাঙ্গিরের তৃতীয় পুত্র খুররমের জন্ম হয়েছিল ১৫৯২ সালে। পিতামহ আকবর ও পিতা জাহাঙ্গিরের নয়নের মণি হয়ে বড় হয়েছেন। তাও নিজের মা জগৎ গোঁসাই-এর (বিলকিস মকানি) কাছে নয়, সন্তানহীনা বিদুষী পিতামহী রোকেয়া সুলতানা বেগমের কাছে। যুদ্ধবিদ্যায়, লেখাপড়ায় পারদর্শী হলেও তাঁর আরও অনেক বিষয়ে আগ্রহ ছিল, যেমন স্থাপত্যশিল্প, মণিরত্ন ও কারুশিল্প।
১৫ বছর বয়সে তাঁর সঙ্গে দরবারের উচ্চতম পদাধিকারী ওমরাহ... continue reading
Likes Comments
০ Shares

নিকুম সাহা

১ বছর আগে লিখেছেন

যে দেশগুলিতে কোনও আয়কর দিতে হয় না

মোনাকো: জিডিপি’র নিরিখে এই দেশ বিশ্বের সবচেয়ে ধনী দেশগুলির মধ্যে একটি। মোনাকোয় বসবাসকারী যে কোনও দেশের নাগরিকের জন্য আয়করে সম্পূর্ণ ছাড় রয়েছে। তবে ১৯৫৭ সালের পর থেকে কোনও ফরাসি নাগরিকদের ক্ষেত্রে এই নিয়মটা ভিন্ন। তাঁদের আয়কর দিতে হয়।
কেম্যান দ্বীপপুঞ্জ: বিশ্বের অন্যতম ধনী সার্বভৌম এই ছোট্ট দেশের নাগরিকদের জন্যও আয়কর ছাড়ের পরিমাণ ১০০ শতাংশ।
সৌদি আরব: এই দেশের অর্থনীতি সম্পূর্ণ তেল ব্যবসার উপর নির্ভরশীল। এ দেশেও নাগরিকদেরও সরকারকে কোনও রকম আয়কর দিতে হয় না।
সংযুক্ত আরব আমিরশাহি: বিশ্বের ধনীতম দেশগুলির মধ্যে অন্যতম হলেও এ দেশের নাগরিকদের কোনও আয়কর দিতে হয় না।
বাহামা দ্বীপপুঞ্জ: এ দেশের ৬০ শতাংশ অর্থনীতি পর্যটনের উপর নির্ভরশীল। এই ক্যারিবিয়ান দ্বীপের বাসিন্দাদের দিতে হয় না কোনও আয়কর বা কর্পোরেট কর। এমনকী মূলধনী কর এবং ভ্যাট দেওয়ার কোনও বালাই নেই। দিতে হয় শুধুমাত্র ১ শতাংশ সম্পত্তি কর।  
continue reading
Likes Comments
০ Shares

নিকুম সাহা

৩ বছর আগে লিখেছেন

সরকারি চাকরিতে বয়স বাড়ছে না

সরকারি চাকরিতে প্রবেশ ও অবসর কোনো ক্ষেত্রে বয়স বাড়ছে না। তবে শিগগিরই মূল্যায়নসহ তিন স্তরে পদোন্নতি হচ্ছে। এ ব্যাপারে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না হওয়ায় পদোন্নতির প্রক্রিয়াটিও মাঝ দরিয়ায় পড়ে আছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সূত্র জানায়, বছরের শুরুতে সরকার প্রশাসনের তিন স্তরে পদোন্নতি দিচ্ছে। গত মাস থেকে শুরু হওয়া ৫টি সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ডের (এসএসবি) পদোন্নতি সংক্রান্ত চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। অতিরিক্ত সচিব, যুগ্ম-সচিব ও উপসচিব পদে বঞ্চিতদের পদোন্নতি দেয়ার লক্ষ্যে প্রথমত সভায় মূল্যায়ন কাজ শুরু হয়। এখন শুধু মূল্যায়ন নয়, এখন তিন স্তরে (অতিরিক্ত সচিব, যুগ্ম সচিবও উপ-সচিব) পদোন্নতি প্রক্রিয়া নিয়ে কার্যক্রম চলছে।
রোববার এ প্রসঙ্গে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী বলেন, সরকারি কর্মচারীদের অবসরের ক্ষেত্রে বয়স বাড়ছে না। আর মুক্তিযোদ্ধাদের বয়স বৃদ্ধির বিষয়ে উচ্চআদালতের দেয়া রায়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, পদোন্নতির গোটা প্রক্রিয়া শেষ করতে আরো সময় লাগবে। এরপর কোন স্তরে কতজন কর্মকর্তা পদোন্নতি পাবেন সেই সংখ্যা নির্ধারণ করা হবে।
এদিকে উপসচিব পদোন্নতির জন্য প্রশাসন ক্যাডারে ২১ ব্যাচের কর্মকর্তাদের কাছে তথ্য চাওয়া হয়েছে। মাত্র ৬ মাসের ব্যবধানে যোগ দেয়া ২২তম ব্যাচের কর্মকর্তারা একই সঙ্গে পদোন্নতি চাইছেন। তাদের পদোন্নতি পাওয়ার জন্য যোগ্যতা অর্জন করেছেন। ২২তম ব্যাচের কর্মকর্তারা পদোন্নতির জন্য (২১তম ব্যাচের) সিনিয়র সচিব ও সচিবদের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করছেন।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, মুক্তিযোদ্ধা কর্মকর্তাদের বয়স বৃদ্ধির প্রস্তাবটি সহসা মন্ত্রিসভার বৈঠকে উঠছে না। এ ব্যাপারে উচ্চ আদালতের দেয়া রায় খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দুই মাসের মধ্যে মন্ত্রিসভায় প্রস্তাবটি উত্থাপনের যে বাধ্যবাধকতা বিষয়ে বলা হচ্ছে, তেমনটি রায় পড়ে মনে হয়নি কর্মকর্তাদের। এখানে রায়... continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (0)

  • - নাসরিন ইসলাম

    আছিস বলেই কখনো আবার
    ধুত্তুরি ছাই ভাললাগেনা
    পান থেকে চুন খসলেই মনোমালিন্য
    খানিক পরেই রঙ্গে ঢঙ্গে মান ভাঙ্গানো
    দেরি করে আসলি কেন
    আজই শেষ, আর কথা নেই
    তারপরে ঘুম পলাতক
    চোখ ছলছল
    আরেকবার সাধলে ফেরার আশা।

    • - মাসুম বাদল

      খুব খুব ভাললাগা জানালাম... emoticons

    • Load more relies...
    - তামান্না তাবাসসুম

    emoticons

       

নিকুম সাহা

৩ বছর আগে লিখেছেন

ঘেটু পুত্র কমলা

ঘেটু পুত্র কমলা ২০১২ খ্রিস্টাব্দে মুক্তিপ্রাপ্ত একটি বাংলাদেশী চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি পরিকল্পনা ও নির্মাণ করেছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক-চলচ্চিত্রকার হুমায়ূন আহমেদ। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম এই চলচ্চিত্রটি প্রযোজনা করেছে। ছবির কাহিনি ও, চিত্রনাট্য করেছেন হুমায়ূন আহমেদ। এটি ২০১০-২০১১ খ্রিস্টাব্দে নির্মিত হয় এবং কোনোরূপ কর্তন ছাড়াই ২০১২ খ্রিস্টাব্দে মুক্তির জন্য সরকারী অনুমোদন লাভ করে। এই চলচ্চিত্রের কেন্দ্রীয় প্রসঙ্গ সমকামী পুরুষমানুষের বালকপ্রীতি । চলচ্চিত্রের ঘেটুপুত্র কমলা চরিত্রে অভিনয় করেছেন শিশুশিল্পী মামুন।   এটি হুমায়ূন আহমেদ নির্মিত সর্বশেষ চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি আনুষ্ঠানিকভাবে মুক্তির আগেই ১৯শে জুলাই, ২০১২ যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক শহরের একটি হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তবে একমাসের জন্যে দেশে ফিরে পুনরায় নিউ ইয়র্ক যাওয়ার আগে ৩০ মে ২০১২ তারিখে তিনি ছবিটি দেখে যেতে পেরেছিলেন। এ সময় তিনি এ চলচ্চিত্রটি টেলিভিশনে মুক্তি না দিয়ে প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শনের কড়া নির্দেশ দিয়ে যান।   ৮৫তম অস্কার প্রতিযোগিতায় ‘সেরা বিদেশী ভাষার চলচ্চিত্র ’ বিভাগের জন্য বাংলাদেশ থেকে মনোনয়ন পেয়েছে ‘ঘেটুপুত্র কমলা’। ৮৫তম অস্কার বাংলাদেশ কমিটি চলচ্চিত্রটিকে মনোনয়ন দিয়েছে। এছাড়া চলচ্চিত্রটি ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, সুইডেন, কানাডা ও সিঙ্গাপুরের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উত্সবের আয়োজক কমিটির কাছ থেকে আমন্ত্রণ পেয়েছে।
পরিচালকঃ হুমায়ূন আহমেদ
প্রযোজকঃ ফরিদুর রেজা সাগর
ইবনে হাসান খান (ইমপ্রেস টেলিফিল্ম)
রচয়িতাঃ হুমায়ূন আহমেদ
অভিনেতাঃ তারিক আনাম খান মুনমুন আহমেদ মামুন প্রাণ রায় জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় আইনুন নাহার পুতুল শামিমা নাজনিন মাসুদ আখন্দ তমালিকা কর্মকার কুদ্দুস বয়াতি জুয়েল রানা রহমত আলী আগুন
সুরকারঃ মকসুদ জামিল মিন্টু এস আই টুটুল
চিত্রগ্রাহকঃ মাহফুজুর রহমান খান
সম্পাদকঃ লীলাচিত্র
বণ্টনকারীঃ ইমপ্রেস টেলিফিল্ম
মুক্তিঃ ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১২ (ঢাকা) continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (0)

  • - মাসুম বাদল

    স্যালুট... emoticons

     

    অনেক অনেক শুভকামনা... ! 

    - মুহম্মদ ফরহাদ ইমরান

    এই উৎসাহের জন্য

    আমার লেখা ধন্য 

    কৃতজ্ঞ emoticonsআপনার প্রতি

    - মোঃ মাতীন পাগলা

    http://mohammadin.blogspot.com/2015/05/blog-post_26.html

    Load more comments...

নিকুম সাহা

৪ বছর আগে লিখেছেন

এবার চলচ্চিত্রের পর্দায় শাহ আব্দুল করিম

বাংলা বাউল গানের কিংবদন্তী শিল্পী শাহ আব্দুল করিম। এবার তার জীবন ও কর্ম নিয়ে নির্মিত হচ্ছে চলচ্চিত্র। আর এটি নির্মাণ করবেন তরুণ পরিচালক মোক্তাদির ইবনে সালাম। চলচ্চিত্রটির নামও ইতিমধ্যে ঠিক করে ফেলেছেন। নাম ‘রঙের দুনিয়া’।   এ বিষয়ে পরিচালক জানান,‘আমি শাহ আব্দুল করিমের পরিবারের সঙ্গে চলচ্চিত্র নির্মাণ নিয়ে কথা বলেছি।তিন বছর ধরে ছবিটির চিত্রনাট্যের কাজ চলছে। এটি তৈরি করছেন শাহ আবদুল করিম গবেষক সিদ্দিকী হারুন।তার ছেলে শাহ জালাল চিত্রনাট্য পড়েছেন। এ ছবিটিতে মূল চরিত্রে অভিনয়ের জন্য গাজী রাকায়েত ও কণ্ঠশিল্পী আগুনের প্রাথমিক কথা হয়েছে পরিচালকের। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ডিসেম্বরে শুটিং শুরু হবে’।   কালনীর তীরে বেড়ে উঠা শাহ আব্দুল করিমের গান ভাটি অঞ্চলে জনপ্রিয় হলেও শহরের মানুষের কাছে সমানভাবে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। তিনি প্রায় দেড় সহস্রাধিক গান লিখেছেন। ভাটি অঞ্চলের মানুষের জীবনের সুখ প্রেম-ভালোবাসার পাশাপাশি তার গান কথা বলে সকল অন্যায়,অবিচার,কুসংস্কার আর সাম্প্রদায়িকতার বিরূদ্ধে। ২০০৯ সালের ১২ই সেপ্টেম্বর বাউল সম্রাট শাহ আবদুল করিম মৃত্যুবরণ করেন। continue reading
Likes Comments
০ Shares
Load more writings...