রায়হান

৪ বছর আগে লিখেছেন

"রিয়াল মাদ্রিদ ফুটবল ক্লাব এবং অর্জনসমূহ"

রিয়াল মাদ্রিদঃ 
পূর্ণ নামঃ রিয়াল মাদ্রিদ ক্লাব দি ফুটবল
ডাকনামঃ লস ব্লাঙ্কোস (সাদা),লস মেরেঙ্গুইস, লস গ্যালাক্টিকো (সুপার-স্টার),লস ভাইকিংস
প্রতিষ্ঠাঃ ৬ মার্চ ১৯০২ (১১২ বছর আগে)
মাঠঃ সান্তিয়াগো বার্নাব্যু,মাদ্রিদ, স্পেন
ধারণক্ষমতাঃ ৮৫,৪৫৪
প্রেসিডেন্টঃ ফ্লোরিন্তেনো পেরেজ
 
একটি স্পেনীয় পেশাদার ফুটবল ক্লাব, যার অবস্থান স্পেনের মাদ্রিদে। এটি বিংশ শতাব্দীর সফলতম ক্লাব এবং ইউরোপের সবচেয়ে বেশি শিরোপা জেতা দল। ক্লাবের বাস্কেটবল শাখাও অনুরুপ সাফল্য লাভ করেছে। দলের পোশাকের মূল রঙ হচ্ছে সাদা টি-শার্ট ও শর্টস এবং নীল মোজা ক্লাবটি ফিফার অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। 
রিয়াল মাদ্রিদের নিজস্ব মাঠ মাদ্রিদে অবস্থিত সান্তিয়াগো বার্নাব্যু । রিয়াল মাদ্রিদ ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছে রেকর্ড ১০ বার এবং লা লিগা জিতেছে রেকর্ড ৩২ বার। দলটির বিশ্রামে থাকা খেলোয়াড়দের নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ ক্যাস্তিলা নামে একটি ফুটবল দল এবং রিয়াল মাদ্রিদ ব্যালনকেস্তো নামে একটি সফল বাস্কেটবল দল রয়েছে। বর্তমানে ক্লাবটি একটি রাগবি দল ও ফর্মুলা ওয়ান দল প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে। অন্যান্য ফুটবল দলের মত রিয়াল মাদ্রিদের মালিকানা কখনো বদল হয়নি। এটি ১৯০২ সালে প্রতিষ্ঠা লগ্নের সদস্যদের দ্বারাই পরিচালিত হচ্ছে।
 
২০০০ সালের ডিসেম্বর ২৩তারিখে ফিফা রিয়াল মাদ্রিদকে বিংশ শতাব্দীর জন্য শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ দল পুরস্কার দেয়।
ক্লাবের ইতিহাসে এটিকে অনেক ডাকনামে ডাকা হয়েছে। প্রথমটি ছিল লস মেরেঙ্গুয়েস, মেরিঙ্গু নামে একটি সাদা খাবার থেকে যেটির নামকরন করা হয়েছে। পরে আসে লস ব্লাঙ্কোস। দুটি নামই ক্লাবের পুরো সাদা পোশাকের প্রতিনিধিত্ব করে। ১৯৭০ দশকে এটির ডাকনাম লস ভাইকিংস জনপ্রিয়তা পায়, কারণ কিছু উত্তর ইউরোপের কিছু খেলোয়াড়কে দলভুক্ত করা হয়েছিল। সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমে দলটি লস গ্যালাক্টিকোস বা মহাতারকা নামে পরিচিত কেননা বিশ্বের অনেক দামী তারকা এখানে খেলেছেন। 
 
 
 অর্জনসমূহঃ
 
ঘরোয়াঃ
লা লিগা- বিজয়ী (৩২):১৯৩১-৩২, ১৯৩২-৩৩, ১৯৫৩-৫৪, ১৯৫৪-৫৫, ১৯৫৬-৫৭, ১৯৫৭-৫৮, ১৯৬০-৬১, ১৯৬১-৬২, ১৯৬২-৬৩, ১৯৬৩-৬৪, ১৯৬৪-৬৫,১৯৬৬-৬৭, ১৯৬৭-৬৮,১৯৬৮-৬৯,১৯৭১-৭২, ১৯৭৪-৭৫, ১৯৭৫-৭৬, ১৯৭৭-৭৮, ১৯৭৮-৭৯, ১৯৭৯-৮০, ১৯৮৫-৮৬, ১৯৮৬-৮৭, ১৯৮৭-৮৮, ১৯৮৮-৮৯, ১৯৮৯-৯০, ১৯৯৪-৯৫, ১৯৯৬-৯৭, ২০০০-০১, ২০০২-০৩, ২০০৬-০৭, ২০০৭-০৮, ২০১১-১২
রানার্স আপ (২১): ১৯২৯,১৯৩৩-৩৪, ১৯৩৪-৩৫, ১৯৩৫-৩৬, ১৯৪১-৪২, ১৯৪৪-৪৫, ১৯৫৮-৫৯,... continue reading
Likes Comments
০ Shares

রায়হান

৪ বছর আগে লিখেছেন

Gareth Bale-জন্মও পরিচয়

কেউ বলে গ্যারেথ বোল্ট,কেউ ওয়েলস প্রিন্স,কেউ আবার বলে হ্যান্ড্রেড মিলিয়ন ম্যান।
১৬জুলাই ১৯৮৯ সালে কার্ডিফে জন্ম গ্রহণ করে বেল।বেল ছিল কার্ডিফ সিটির ফুটবলার ক্রিস এর ভাগ্নে।
স্কুল জীবন
শৈশব কালের শুরুতে বেল হুইটচার্চের ঈগলস নিউওয়েড প্রাইমারি স্কুলে পড়াশুনা করে।
এরপর বেল হুইটচার্চ হাই স্কুলে ভর্তি হয় 
এই স্কুলে থাকা কালেই মাত্র ১৪বছর বয়সে সে ১০০মিটার দৌড় মাত্র ১১.৪ সেকেন্ডে কমপ্লিট করে।তার অসাধারণ স্কিলে মুগ্ধ হয়ে সেই স্কুলের PE শিক্ষক স্পেশাল রুল করতে বাধ্য হয়েছিল।তবে সেখানে কিছু সীমাবদ্ধতাও ছিল।সেই রুলে তাকে ওয়ান টাচ ফুটবল খেলার জন্য বলা হয়েছিল।সে ফুটবলে এতোই পারদর্শী ছিল যে সে ১৬বছর বয়সী হওয়া সত্ত্বেও স্কুলের অনুর্ধ্ব১৮ এর হয়ে খেলতো।
স্কুলের শেষ বর্ষে সে স্পোর্টসের জন্য PE ডিপার্টমেন্ট হতে পুরস্কার পায়।
ফুটবল জীবন
ফুটবল জীবনের শুরুতে বেল কার্ডিফ সিভিল সার্ভিস দলের হয়ে খেলা শুরু করে।
সাউথহ্যাম্পটন ১৯৯৭-২০০৬
১৯৯৭-২০০৬ পর্যন্ত গ্যারেথ বেল সাউথহ্যাম্পটনের যুব দলে এ একজন লেফট ব্যাক হিসেবে খেলত।ফ্রিক কিকের ক্ষেেত্র তার অসাধারণ দক্ষতা ছিল।এপ্রিল১৬,২০০৬ সালে Millwall বিপক্ষে সাউথহ্যাম্পটনের জার্সিতে তার অভিষেক হয়।উক্ত ম্যাচটি সাউথহ্যাম্পটন ২-০তে জিতে।সাউথহ্যাম্পটনের জার্সিতে তার প্রথম গোল হয় ডার্বি কান্ট্রির সাথে।উক্ত ম্যাচে ডার্বি কান্ট্রি ১-০তে এগিয়ে থাকলেও বেলের ফ্রিকের মাধ্যমে ১-১ হয়।পরে সেই ম্যাচ ২-২ ড্র হয়।
সাউথহ্যাম্পটনের জার্সিতে সে ৪৫ম্যাচে ৫গোল করে।
জাতীয় দল
২০০৫-২০০৬ এর শুরু পর্যন্ত বেল ওয়েলস এর অনুর্ধ্ব ১৭ তে খেলতো।এরপর ২০০৬ এর মাঝের দিকে বেল অনুর্ধ্ব১৯ এ খেলত।
এরপর সে ২০০৮ এর শেষের দিকে তার অসাধারণ প্রতিভায় ওয়েলসের জাতীয় দলে চান্স পায়।
টটেনহাম ২০০৭-২০১৩ 
২৫মে,২০০৭ এর শুরুতে বেল ৭মিলিয়নের বিনিময়ে বেল টটেনহামে পাড়ি জমায়।টনেনহামে থাকা অবস্থায় তার অসাধারণ প্রতিভা আর পরিশ্রমে মুগ্ধ হয়ে কোচ তাকে... continue reading
Likes Comments
০ Shares

রায়হান

৪ বছর আগে লিখেছেন

ফুটবল প্লেয়ার কাকার বিষয়ে কিছু বিশিষ্টজনদের কথা ।

"আমার কাছে বিশ্বের সেরা প্লেয়ার?সে ইয়ং, কিন্তু হ্যা সে কিছুটা আমার মত খেলে।সে হল কাকা" - পেলে
"আমি এখানে[মিলান] লিজেন্ড হতে আসিনি।কারন সেটা আগে থেকে এখানেই আছে।আমি তার শুধু খেলতে চাই।" - বেক'হাম
"যদি আমার কেউ যোগ্য উত্তরসুরী হতে পারে তবে সে হল কাকা।সে পারবে মিলান কে লিড দিতে।" - আন্দ্রে শেভচেঙ্কো
"কাকাই একমাত্র প্লেয়ার যার জন্য আমি পকেটের টাকা খরচ করে খেলা দেখতে রাজি আছি।" - ফ্রয়াঙ্ক ল্যাম্পার্ড
"আমার ফুটবল ক্যারিয়ারে যাদের বিপক্ষে খেলেছি তাদের মাঝে কাকাকে মার্ক করে রাখাটাই সবচেয়ে কঠিন কাজ ছিল।সে আমাকে অনেক ভুগিয়েছে।" - হাভিয়ের জানেত্তি
"একটা প্লেয়ার কে চিনতে তার সাথে বেশিদিন খেলা লাগেনা। তবে আমার দুঃখ যে কাকা সাথে আমি মাত্র ২ টি মৌসুম ই খেলতে পেরেছি।" - হার্নান ক্রেসপো।
"আমি মনে করি না কোন প্লেয়ার বাহির থেকে এসে ইতালীতে এত সম্মান পেয়েছে। আর কেউ পাবে কিনা তাতে আমার সন্দেহ আছে। আমাকে মনে রাখুক আর না রাখুক মিলান বাসী রিকিকে ভুলবে না।আমার ছেলে ক্রিসচিয়ান কাকা চলে যাবে শুনে টেবিলের খাবার ছেড়ে রাগ করে চলে গিয়েছিল।সে এতটাই প্রিয়।" - পাওলো মালদিনি।
"অতীত বরতমান যাদের খেলাই দেখেছি তাদের মাঝে কাকাই সেরা।" -রুই কস্টা।
"একটা প্লেয়ার কিভাবে তার দায়িত্ব পালন করবে তা কাকার কাছ থেকে শেখা উচিত". - নুনো গোমেজ
"কাকার মত অসাধারন ট্যালেন্ট আর ব্যাক্তিত্ব সম্পন্ন প্লেয়ার খুব কম আছে।সে ট্রু ফুটবল প্লেয়ার।"-লুইস ফিগো
"কাকা আমার ছোট ভাইয়ের মত।ব্রাজিল+মিলানে অনেকে সপ্ন দেখে তার মত হবার"-কাফু
"কাকা আমার আইডল।আর্জেন্টিনার অনেক যুবক ফুটবলারের আইডল তিনি। তাই আমার আইডল ও তিনি।"-হাভিয়ের পাস্তোরে
"আমি কাকার কাছ থেকে অনেক কিছু সিখেছি। তিনি মাঠের ভিতরে ও বাহিরে পার্সনালিটি সম্পন্ন মানুষ।"-মেসুত ওজিল।
"কাকা পাশে থাকলে ফুটবল... continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (1)

  • - আলমগীর সরকার লিটন

    আজকে পরিচিয় হয়েছে ভাল লাগল সুমন দা যদি

    সাথে কোন কবিতা গল্প থাকতো আরো ভাল হত

    ঠিক আছে আশা করি তা সামনে পাবো --

    অনেক অনেক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাই

    - রুদ্র আমিন

    অভিনন্দন ভাইয়া।