ঈদের ছুটিতে ঘুরে আসুন সবুজঘেরা রিসোর্টে Nokkhotro Desk

feature-image

ব্যস্ত এই নগর জীবন থেকে ছুটি নিয়ে কয়েকটি দিন দূরে কোথাও ঘুরতে গেলে কেমন হয়? আর ঘুরতে যাওয়ার সবচেয়ে মোক্ষম সময় হল ঈদের ছুটি। এই ছুটিকে কাজে লাগিয়ে ঘুরে আসতে পারেন কোনো রিসোর্টে। খুব বেশী দূরে যেতে না চাইলে ঘুরে আসতে পারেন ঢাকার আশেপাশের কোন রিসোর্টে। ঈদের সময় ভিড় থাকায় এখনই বুকিং দিয়ে দিতে পারেন আপনার পছন্দের রিসোর্টে। চাইলে একদিনের জন্যও বেরিয়ে আসতে পারেন এই রিসোর্টেগুলো থেকে। ঢাকার আশেপাশে কিছু রিসোর্টের খোঁজ জেনে নিন।

১। পদ্মা রিসোর্ট
বর্তমান সময়ে ছুটি কাটানোর অনত্যম জনপ্রিয় একটি রিসোর্ট হল পদ্মা রিসোর্ট। প্রমত্তা পদ্মা নদীর বুকে এই রিসোর্টটি অবস্থিত। মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং নামক স্থানে রয়েছে এই রিসোর্টটি। পর্যটকদের নিরিবিলি অবকাশ যাপনের জন্য এখানে রয়েছে কাঠের তৈরি ১৬টি ডু-প্লেক্স কটেজ। প্রতিটি কটেজে রয়েছে একটি বড় বেডরুম, দুটি সিঙ্গেল বেডরুম ও একটি ড্রইংরুম। আছে দুটি ব্যলকনি এবং একটি বাথরুম। যারা চাঁদ দেখতে ভালবাসেন তাদের জন্য পদ্মা রিসোর্ট একটি আদর্শ স্থান। খাবার হিসাবে পাবেন পদ্মা নদীর টাটকা ইলিশ মাছ আর ইলিশের তৈরি নানা মজাদার খাবার।
যোগাযোগ-
রোড-১৯/বি, হাউজ – ২৮৯ (নিচতলা), মহাখালী নিউ ডিওএইচএস, ঢাকা।
মোবাইল: ০১৭১২ ১৭০৩৩০, ০১৭৫২ ৯৮৭৬৮৮,৮৬২৮৮৭৮
www.padmaresort.net

২। ছুটি রিসোর্ট
খুব বেশী দূরে যেতে না চাইলে ঘুরে আসতে পারেন ঢাকার খুব কাছে গাজীপুরের অবস্থিত ছুটি রিসোর্ট। গাজীপুরে সুকুন্দি গ্রামে গড়ে উঠেছে গাছপালায় ঘেরা নয়নাভিরাম ছুটি রিসোর্ট। প্রায় ৫০ বিঘা উপর গড়ে উঠেছে ভাওয়াল বনের এই সবুজ দ্বীপ। রিসোর্টটির গা ঘেঁষে আছে গভীর জঙ্গল, আছে দুটো বড় মাঠ,অসংখ্য গাছ আর আছে বিশাল একটা দিঘী। সবচেয়ে মজার যে ব্যপারটা আছে তা হল আপনি চাইলে সম্পূর্ণ গ্রামীণ আমেজে থাকতে পারবেন।আবার যদি চান তবে পাবেন ইট কাঠ বালুর কটেজ।
যোগাযোগ-
রুপসা টাওয়ার বাড়ি নং;০৭,ফ্ল্যাট নং;১৩এ,ব্লক সি,রোড নং ১৭,বনানী
০১৭৭৭১১৪৪৮৮
০১৭৭৭১১৪৪৯৯
http://www.chutibd.com/

৩। এলেঙ্গা রিসোর্ট
টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতি উপজেলার এলেঙ্গা এলাকায় এলেঙ্গা রিসোর্ট অবস্থিত। ঢাকা থেকে গাড়িযোগে রিসোর্টটিতে যেতে সময় লাগে মাত্র ২ ঘন্টা।আধুনিকতা আর গ্রামীণ পরিবশের চমৎকার মেলবন্ধন দেখতে পাওয়া যায় এই রিসোর্টে। একদিকে আছে বিভিন্ন গাছের সারি অন্যদিকে রয়েছে ইন্টারনেট ও টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা। বিভিন্ন ধরনের দেশী খাবারের পাশাপাশি রয়েছে চীনা, ভারতীয় ও কন্টিনেন্টাল খাবার। নৌ-ভ্রমণের পাশাপাশি আছে ঘোড়ায় চড়ার ব্যবস্থা।
যোগাযোগ-
বাসা নং;০৪ , রোড নংনঃ১২, ব্লক জে, বারিধারা, ঢাকা।
ফোনঃ +৮৮ ০২ ৯৮৮৪৩২২, ৯৮৮০৬৪২, ৮৮১৩২৪২
মোবাইলঃ ০১৮১৯ ৪১০০৬২, ০১৭১৩৩৮১০৩৩
http://www.elengaresort.com/

৪। নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় রাজবাড়ি এলকায় শিল্পীদম্পতি তৌকির-বিপাশা গড়ে তুলেছেন নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্টটি। প্রায় ২৫ বিঘার জমির ওপর তৈরি এই রিসোর্টটি। শালবনের পাশে আধুনিক এ রিসোর্টে বেশ কয়েকটি কটেজ ছাড়াও আছে দিঘি, কৃত্রিম ঝরনা, সভাকক্ষ, সুইমিংপুলসহ নানান সুবিধা।এখনে বাচ্চাদের ছবি আকাঁর ব্যবস্থা রয়েছে। আছে ছবি প্রদশনীর ব্যবস্থা।
যোগাযোগ-
৯৮৩৫১৭৩
০১১৯২১৫০৫৬৩, ০১৭৭১৭৯৯৪১০
http://nokkhottrobari.com/

৫। উৎসব রিসোর্ট
গাজীপুর জেলার হোতাপাড়া এলাকায় এই রিসোর্ট প্রতিষ্ঠিত। ঢাকা থেকে মাত্র ৫২ কিলোমিটার দূরে এই রিসোর্টটি অবস্থিত। গ্রামীণ পরিবেশে ফুল ও ফল গাছে সাজানো উৎসব পিকনিক স্পটটি পিকনিক কিংবা পারিবারিক ভ্রমণে সবারই ভাল লাগবে। ১২ বিঘা জমির উপর অবস্থিত এ স্পটের ৪টি কটেজের মধ্যে ৩টি কটেজই পিকনিক পার্টির জন্য উন্মুক্ত।
যোগাযোগ-
২৭৮/এ, এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা- ১২০৫
০১৭১৩-০১৪৪৫৯১
০২- ৮৬২৬৩৭৬, ৯৬৬৩৬৭

৬। যমুনা রিসোর্ট
যমুনা নদীর কোল ঘেঁষে পূর্ব পাশে এই রিসোর্ট প্রতিষ্ঠিত।ব্যক্তি মালিকানায় ২০০২ সাল যাত্রা শুরু করে এই রিসোর্টটি। রিসোর্টের ভেতরে সুইমিংপুল, জিম, হেলথ ক্লাব, বেকারী, সুভ্যেনির শপ, ফরেন মানি এক্সচেঞ্জ এবং ইনডোর আউটডোর গেমসের ব্যবস্থা রয়েছে।আউটডোরে ফুটবল, ক্রিকেট এবং ইনডোরে ব্যাডমিন্টন, হকি, দাবা খেলার সুবিধা রয়েছে।
যোগাযোগ-
যমুনা রিসোর্ট লি:
প্রগতি সেন্টার, ৭ম তলা
২০-২১ কারওয়ান বাজার।
ফোন: ৮১৪২৯৭১-৩, ০১৭১৪-৪০৪৯০২
www.jamunaresortbd.com

৭। রয়েল রিসোর্ট
টাঙ্গাইলের ধনবাড়িতে আবস্থিত জমিদার নওয়াব আলী চৌধুরীরর প্রায় ৩শ’ বছরের পুরনো বাড়িটি রিসোর্টে রূপ দেওয়া হয়েছে। জমিদারি আমলের আলিশান সব আসবাবপত্রে সাজানো আছে এ বাড়ির কক্ষগুলো।
যোগাযোগ-
৯১৩০৯০০,
০১৯১১৯৫৬৩৫৭, ১৭৪৯৪১৯৯৪০
A A