Lifestyle Image

বর্ষায় যত্নে থাকুক আপনার ঘরবাড়ি



আকাশে মেঘের আনাগোনা। কখনো অঝোর ধারায় চিরচেনা ঝরঝর শব্দে রিনিঝিনি বর্ষণ। এসবই বর্ষার চিরচেনা দৃশ্য। আর বর্ষাকালে সাধারণত বৃষ্টির কারণে ঘরবাড়ি স্যাঁতস্যাঁতে হয়ে থাকে। পোকা মাকড়ের উপদ্রবও হয় বেশি। এসবও পরিচিত দৃশ্য। বর্ষায় এসব থেকে মুক্তি পেতে চাই একটু বাড়তি সতর্কতা। নিয়ম মেনে ঘরের সৌন্দর্যের জন্য মেনে চলতে পারেন কিছু নিয়মাবলী-

১. বর্ষায় ঘরবাড়ির মেঝে স্যাঁতস্যাঁতে হয়ে থাকে। তাই এ ঝামেলা এড়াতে ঘরের মেঝেতে বিছিয়ে রাখতে পারেন ম্যাট বা কার্পেট।

২. ঘর মোছার সময় ক্লিনার বা ফিনাইল ব্যবহার করুন। এতে ঘরের মেঝে জীবাণুমুক্ত থাকবে।

৩. দরজার মুখে পাপোশ ব্যবহার করুন।

৪. বর্ষাকালে জানালায় পাতলা ফেব্রিকের পর্দা ব্যবহার করতে পারেন। ফলে বৃষ্টিতে পর্দা ভিজলেও তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যাবে। উজ্জ্বল রঙের পর্দা ব্যবহার করাই ভাল।

৫. বর্ষাকালে সবকিছুতেই একটু ভেজা ভেজা ভাব থাকে। ভেজা পা মোছার ক্ষেত্রে সাধারণ পাপোশের পরিবর্তে প্লাস্টিকের পাপোশ ব্যবহার করতে পারেন।

৬. এ সময় আসবাবপত্র পরিষ্কারে শুকনা কাপড় ব্যবহার করা উচিত। তবে খেয়াল রাখতে হবে ভেজা কাপড় আসবাবপত্রের উপর না রাখা হয়।

৭. ঘরে পর্যাপ্ত ভেন্টিলেশন বা বাতাস চলাচলের সুবিধা থাকা জরুরি। এতে করে ঘরের ভেজা ভাব কম মনে হবে।

৮. বর্ষার সময় বাতাসে অতিরিক্ত আর্দ্রতার কারণে কাপড়ে ভ্যাপসা গন্ধ হয়ে থাকে। তাই এই সমস্যা এড়াতে কাপড়ের ভাঁজে ন্যাপথলিন ব্যবহার করুন।

৯. বর্ষায় বিছানা ও সোফায় অনেক সময় পিঁপড়ার উপদ্রব দেখা যায়। এসব থেকে মুক্তি পেতে বিছানা ও সোফা সবসময় ঝেড়ে রাখুন।

১০. কাঠের আসবাবপত্র নিয়মিত শুকনো ও নরম কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন।

১১. এ সময় ময়লার গন্ধে ঘরের পরিবেশ নষ্ট হয়, তাই ময়লার ঝুড়ি নিয়মিত পরিষ্কার রাখুন। এতে ঘরের স্যাঁতস্যাঁতে ভাবও দূর হবে।