নিজের পারসনালিটি ফুটিয়ে তুলতে মেনে চলুন কয়েকটি নিয়ম। Nokkhotro Desk






আমাদের প্রত্যেকেরই একজন করে আইডল পারসন আছে । যার লাইফস্টাইল আমরা ফলো করি। সে হয়তো অনেক পারসনালিটি সমৃদ্ধ ব্যাক্তি । তার আচার আচরণ কথাবার্তা, চাল-চলন সবার থেকে ভিন্ন। সবার প্রিয় পাত্র। খেয়াল করে দেখুন তারা কেউ কিন্তু তার সুন্দর চেহারার জন্য সবার প্রিয় নন। তার পারসোনালিটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ তার পারসনালিটির কারণে তাকে অনেকে আইডল মেনে চলে।চাইলে আপনিও পারেন নিজের পারসনালিটি কে ফুটিয়ে তুলতে । আর হতে পারেন অনেকের আইডল বা সবার প্রিয় পাত্র। তবে সবার আকাক্সিক্ষত পাএ হতে হলে সবার আগে আপনাকে একজন ভাল মানুষ হতে হবে। এরপরে আপনাকে সহজ কয়েকটি ু নিয়ম মেনে চলতে হবে। আসুন নিজের পারসনালিটি ফুটিয়ে তুলতে কি কি করতে হবে তা জেনে নেয়ার চেষ্টা করি।
১ম: সবার সাথে চলার সময় নিজের পারসনালিটি, চাল-চলন, কথা বার্তা সব মিলিয়ে ভিন্নভাবে তুলে ধরুন। কারো অনুকরণ না করার চেষ্টা করুন। বরং এমন ভাবে চলুন যাতে আপনাকে অন্যরা আপনাকে ফলো করে। আপনি ন্যাচারাল থাকার চেষ্টা করুন। জোর করে কিছু করতে যাবেন না। সবকিছু সাবলিলবাবে গ্রহণ করুন।
২য়: সবার দিকে কনসানট্রেশন দিন তবে অবশ্যই পৃথক ভাবে, যেমন: যখন যেইটা করবেন সেইটাকেই প্রাধান্য দিন। কোন কিছু নিষ্পত্তি না করে অন্য কাজে হাত দিবেন না। সবাইকে সুনির্দিষ্টভাবে সময় দিবেন। এতে করে সবার মন কেড়ে নিতে পারবেন সবার সাথে কমিউনিকেশনস ও রক্ষা করতে পারবেন। সুতরাং সবাই আপনার পারসনালিটি নিয়ে হ্যাপি থাকবে এবং আলাদা সম্মান পাবেন।
৩য়: নিজে সম্মান পেতে হলে আগে আপনাকে সম্মান দিতে হবে। বড়দেরকে শ্রদ্ধা আর ছোটদের ¯েœহ করবেন। যতাটা সম্ভব সবার সাথে হেলফফুল থাকার চেষ্টা করবেন। সব ভেদাভেদ ভুলে সবাইকে সম্মান দেয়া অনেক গুরত্বপূর্ণ । রিকশাওয়াল, বুয়া, পিয়ন ইত্যাদি শেণীর মানুষকে একবার সম্মান দিয়ে দেখুন তারা কিভাবে আপানাকে সম্মানের চূড়ায় বসায়। এত করে আপনার পারসনালিটি অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে।
৪র্থ: অন্যলোকের ব্যাক্তিগত বিষয় নিয়ে আলোচনা না করাই ভালো। কেননা আপনার নিজেরও পারসনাল লাইফ আছে। আপনার পারসনাল লাইফ নিয়ে কেউ সমালোচনা করুক আপনি কখনও চাইবেন না।
৫ম: দামি ফরমাল জামা কাপড় পড়লেই যে আপনি স্মাট পারসালিটির অধিকারী এইডা ভুল ধারণা। তবে অপরিষ্কার, অগুছালো হলেও কিন্তু চলবে না। সাধ্যের ভিতর গুছিয়ে চলতে হবে। সাবলিলভাবে সবার সাথে কথা বলতে হবে।
৬ষ্ঠ: অপ্রয়োজনীয় কথাবার্তা এড়িয়ে চলাই ভালো অন্যেদের কেউ উৎসাহিত করা উচিৎ নয়। বেশি কথা বলা নয় বরং পরিস্থিতি অনুযায়ী জোরালো কথা বলাই পারসনালিটির অংশ।
৭ম: সব নিয়ম কানুন মানলেন তারপরও আনস্মার্ট হতে পারেন যদি আপনি আত্ম বিশ্বাসী না হন । আত্মবিশ্বাস হল পারসনালিটির সবচেয়ে বড় বিষয়।
৮ম: অতিরিক্ত ভাব বা মুড নিয়ে চলা স্মার্ট পারসনালিটির অংশ নয়। বরং সবার সাথে মেশা সাবলিল চলা ফেরা স্মার্ট পারসনালিটির অংশ।
৯ম: গুছিয়ে শুদ্ধ ভাষায় কথা বলার চেষ্টা করুন। আঞ্চলিকতা পরিহার করাই ভালো। কথা বলার সময় সহজ সরল শব্দ ব্যবহার করাই শ্রেয়।
১০ম: অন্যের কাজের ভালো সমালোচনা করতে শিখুন । হিংসা করবেন না কখনও। বিপদে পড়লে সাহয্য করার চেষ্টা করবেন। আর যদি কোন বিষয়ে না জানেন তাহলে সেই ব্যাপারে কিছু না বলাই ভালো।এতে সবার ভিতরে কিউরেসিটি কাজ করবে আপনাকে উদাহরণ স্বরুপ মনে করবে কেউ কেউ ফলো করবে। যখন দেখবেন এই সহজ নিয়ম গুলো মানলে মানুষ আপনাকে আস্থাশীল মনে করবে। সম্মান দিবে। কথার দাম দিবে। তখন আপনি মনে করতে পারেন যে আপনি একজন স্মার্ট পারসালিটির অধিকারী।
A A