Lifestyle Image

রোজার ৩ টি সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যার কার্যকরী ঘরোয়া সমাধান



আমরা অনেকেই রোজা রাখার স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে জানি। রোজা রাখার ফলে ওজন কমা, পরিকাপতন্ত্রের সুস্থতা, দেহের টক্সিন দূর হওয়া, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা দূর হওয়া সহ নানা খারাপ অভ্যাস দূর হওয়ার মতো উপকারিতা পাওয়া যায়। তবে স্বাভাবিক নিয়মের ব্যতিক্রম হয় বলে রোজা রাখার বিষয়টি দেহের সাথে না মানিয়ে নেয়ার কারণে অনেক শারীরিক সমস্যাও দেখা দিতে পারে রোজার সময়। খাবারে পরিবর্তন, খাবার সময়ে পরিবর্তন, প্রায় ১৫ ঘণ্টার মতো না খেয়ে থাকা ইত্যাদি কারণে একটু স্বাস্থ্য সমস্যা দেখা দিতে পারে রোজার মাসে। তবে এই সাধারণ সমস্যাগুলোরও বেশ সহজ সমাধান রয়েছে। আজকে জেনে নিন রোজার এমনই কিছু সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যার কার্যকরী সমাধান।

১) বদহজম
রোজার মাসের অন্যতম প্রধান সমস্যা দেখা দেয় বদহজম হওয়া। সারাদিন না খাওয়ার পর ইফতারে অতিরিক্ত তৈলাক্ত খাবার খাওয়ার কারণে হজম সংক্রান্ত সমস্যা দেখা দেয় অনেকেরই। এই সমস্যা সমাধান করতে অতিরিক্ত তেল মসলাযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলাই ভালো। এছাড়াও খাবার ভালো করে চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করা উচিত। যদি বদহজম অতিরিক্ত বেড়ে যায় তাহলে আদা চিবিয়ে খেয়ে নিন। এছাড়াও আদা চা পান করলে সমস্যা অনেকটাই উপশম হবে।

২) অ্যাসিডিটি ও বুক জ্বালাপোড়া
খাবারের সময়সূচীর পরিবর্তন এবং ভাজাপোড়া বেশি খাবার কারণে পাকস্থলীতে অ্যাসিডের তারতম্য হয়। যার ফলেই অ্যাসিডিটি এবং বুক জ্বালাপোড়ার সমস্যা বেশি দেখা দেয়। এই সমস্যার সমাধান করতে ইফতারের প্লেটে রাখুন কলা। কলার পটাশিয়াম অ্যাসিডিটি সমাধানে কাজ করে। এছাড়াও আদা চা, পুদিনা চা, ঠাণ্ডা দুধ পান করলেও সমাধান পাবেন। সেই সাথে ভাজাপোড়া একটু কম খান।

৩) পানিশূন্যতা ও কোষ্ঠকাঠিন্য
দিনের দীর্ঘসময় ধরে পানি পান না করার কারণে দেহে পানিশূন্যতার সমস্যা দেখা দেয়া খুব স্বাভাবিক এবং একই সাথে পানিশূন্যতার কারণে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাতেও পড়েন অনেকে। এই সমস্যা সমাধানে ইফতার এবং সেহরিতে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন এবং সাথে রাখুন পানি সমৃদ্ধ নানা ফলমূল ও খাবার। ফলের জুস, অন্যান্য পানীয়, শসা, ক্ষীরা, পাকা কলা ইত্যাদি ধরণের খাবার রাখুন ইফতারে। চা কফি দূরে রাখুন। রাতে ঘুমুতে যাওয়ার আগে গরম দুধ পান করুন। পানিশূন্যতা ও কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা অনেকটাই দূরে রাখতে পারবেন।