"স্মৃতিচারণ" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

বাংলাদেশে অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জনক, শহীদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেনের ৮৬তম জন্মবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা

এ দেশের সংবাদপত্র জগতের অন্যতম পুরোধা, মুক্তিযুদ্ধের নির্ভিক সৈনিক শহীদ বুদ্ধিজীবী সিরাজুদ্দীন হোসেন। পাকিস্তান আমলে যে কয়জন সাংবাদিকের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সাংবাদিকরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলেন এবং বাঙালী জাতীয়তাবাদী আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন, সিরাজুদ্দীন হোসেন ছিলেন তাঁদের মধ্যে অন্যতম। ১৯৫২ সালে দৈনিক আজাদের বার্তা সম্পাদক থাকা অবস্থায় মহান ভাষা আন্দোলনের সপক্ষে তার সাংবাদিকতা বাংলাদেশের সাংবাদিকতা জগতে তার অসাধারণ কীর্তি বলে পরিগণিত। সিরাজুদ্দীন হেসেন ছিলেন দৈনিক ইত্তেফাকের কার্যনির্বাহী ও বার্তা সম্পাদক। ব্রিটিশ আমলের শেষভাগ থেকে শুরু করে তার সাংবাদিকতা জীবন স্বাধীনতা যুদ্ধ পর্যন্ত ব্যপ্ত। এই পুরো সময়কালে দেশের সকল আন্দোলনের সঙ্গে তার ছিল সরাসরি যোগাযোগ। তিনি তার ক্ষুরধার... continue reading

৬৩৬

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

নিয়তির নির্মম পরিহাস! বাঙালীদের উপর চাপাতে চাওয়া উর্দু জিন্নার নিজ দেশে নাই

আজ ২৮ ফেব্রুয়ারি। বাঙালীর অহংকার ভাষার মাসের শেষ দিবস। শেষ হয়ে গেলো ভাষার মাস। একুশ আমরা উদযাপন করেছি পরম শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায়। দুনিয়াব্যাপী উদযাপিত হয়েছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। শহীদ মিনার একেবারে প্রথমটাও ভেঙ্গে দিয়েছিল পাকিস্তানীরা। নতুনভাবে তৈরি হয়েছিল পরে। একাত্তরেও মর্টার ও কামান দিয়ে ভেঙ্গে দিয়েছিল। আবার তৈরি হয়েছে নতুনভাবে। তৈরি হয়েছে সারাদেশে। এখন তৈরি হচ্ছে দুনিয়ার নানা দেশে। এ দেশের মানুষ তাদের মাতৃভাষাকে সত্যিকার এবং আক্ষরিক অর্থেই প্রাণ দিয়ে ভালবাসে এবং একই সঙ্গে দুনিয়ার সব জাতির সব মানুষের ভাষার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। কিন্তু পাকিস্তানে?
পাকিস্তানে কি তার প্রতিষ্ঠাতা জিন্নাহ সাহেবের ইচ্ছা অনুযায়ী উর্দু রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে? হয়নি। যদি হতো... continue reading

৬২৮

মুখোশের ফেরীওয়ালা

৪ বছর আগে লিখেছেন

অন্বেষন

লোকটা খুজতেই থাকে। আনাচে কানাচে, অলি-গলি কোন জায়গাই বাদ দেয় না। এমনকি একটা পাতাও যদি পড়ে থাকে সেটাও সে উল্টিয়ে দেখবে। তাকে কেউ চেনে না, তবে সবাই জানে। নিজেরা নিজেরা আলোচনা করে কিন্তু ভুলেও কেউ তাকে জিজ্ঞেস করে না, কি খুজছে সে? সবাই অবাক হয়ে তার খোজা দেখে।
ছোট বাচ্চারাও তার জট পাকানো চুল-দাড়ি, ছেড়া জামা কাপড়, আর কাধে ঝুলানো চটের ঝোলা দেখে পাগল ভাবলেও এড়িয়ে চলে। এমন নয় লোকটা হিংস্র। কেউ তাকে কোন রাগতে দেখেনি, কাউকে অভিষাপ দিতে দেখেনি, কারও দিকে তেড়েও যেতে দেখেনি। সবাই শুধু তাকে খুঁজে যেতেই দেখেছে। তার কোনদিকেই খেয়াল থাকে না। সে শুধু খুজতেই... continue reading

৪৩৪

রাজ্যহীন রাজপুত্র

৪ বছর আগে লিখেছেন

ব্যস্ততা

ব্যস্ততা এমনি এক ক্ষতিকর অভ্যাস, আমার কাছে মনে হয় এটা মাদক জাতীয় দ্রব্যের মত নেশা।। যে এই ব্যস্ততাকে নিজের বন্ধু বানিয়ে নিজের রক্তের সাথে মিশিয়ে ফেলবে, সে ব্যস্ততাকে ছারা নিজেকে টিকিয়ে রাখতে কস্ট হবে।। সর্বদা বিষন্নতার মাঝে বসবাস করতে হয় তখন।। আমার অবস্থাটা কিছুটা এই রকম মনে হচ্ছে।। ব্যস্ততা তা ও আবার নিজস্ব নয় !! কি আর করার এখন মেনে নেই যা হবে মাথার উপরিভাগের অংশখানে লিখা ..................।।
  continue reading

৪৫৫

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

৫২' এর ভাষা আন্দোলনের চেতনা ও আমাদের প্রাপ্তি

শোকে বিহবল. গৌরবদীপ্ত বাঙালীর জীবনে অনন্য দিন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ। মায়ের ভাষায় কথা বলার অধিকার আদায়ে বুকের রক্ত ঢেলে গৌরব অর্জনের দিন ২১ ফেব্রুয়ারি। ১৯৫২ সালের রক্তঝরা ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠিত একুশ এখনো সকল গনতান্ত্রিক আন্দোলনে শক্তি ও প্রেরণার উৎস। তবে এটা অত্যন্ত দুঃখের বিষয় যে সঠিক পদক্ষেপ আর যথাযথ উদ্যোগের অভাবে এখনা সর্বস্তরে বাংলা ভাষার সঠিক ব্যবহার ও মর্যদা নিশ্চিত করা যায়নি। তাইতে ভাষা আন্দোলনের ৬২ বছর পরেও আদালতসহ সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলন আইন কার্যকর চেয়ে হাইকোর্টে রিট করতে হয়। গত বছর ১৬ ফেব্রুয়ারি আদালতে রিট আবেদনটি দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এ্যাডভোকেট ড. মোঃ ইউনুছ... continue reading

১১৩৩

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

বিংশ শতাব্দীর অন্যতম আধুনিক বাংলার প্রধান কবি জীবানানন্দ দাশের ১১৬তম জন্মবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা

বিংশ শতাব্দীর আধুনিক বাংলার অন্যতম প্রধান কবি জীবানানন্দ দাশ। তিনি বাংলা কাব্যে আধুনিকতার পথিকৃতদের মধ্যে অগ্রগণ্য এবং রবীন্দ্র-পরবর্তীকালে বাংলা ভাষার প্রধান কবি হিসাবে সর্বসাধারণ্যে স্বীকৃত। জীবদ্দশায় অসাধারণ কবি হিসেবে পরিচিতি থাকলেও তিনি খ্যাতি অর্জন করে উঠতে পারেননি। এর জন্য তার প্রচারবিমুখতাও দায়ী; তিনি ছিলেন বিবরবাসী মানুষ। মর্মগত, সুমিত, নিরাবেগ ও সুস্থির গদ্যরীতির জন্যে তিনি বিশিষ্ট। গ্রামবাংলার ঐতিহ্যময় প্রকৃতি তাঁর কাব্যে রূপময় হয়ে উঠেছে। আধুনিক নাগরিক জীবনের হতাশা, নিঃসঙ্গতা, বিষাদ ও সংশয়ের চিত্র তাঁর কবিতায় দীপ্যমান। স্বচ্ছ, সুন্দর, শান্ত ও স্নিগ্ধ রোমান্টিক কবিতার স্রষ্টা হিসেবে তিনি স্মরণীয় ও বরণীয়। তাঁর নিসর্গ বিষয়ক কবিতা ষাটের দশকে বাঙালির জাতিসত্তা বিকাশের আন্দোলনে ও... continue reading

৬৫১

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

রুশ সাহিত্যের জনক, রাশিয়ার প্রধান জাতীয় কবি আলেক্সান্দর পুশকিনের ১৭৮তম মৃত্যুবার্ষিকীেত শ্রদ্ধাঞ্জলি

আধুনিক রুশ সাহিত্যের স্থপতি কবি আলেকজান্ডার পুশকিন। পুরো নাম আলেক্সজান্ডার সের্গেয়েভিচ পুশকিন। যিনি রাশিয়ার সেক্সপিয়ার নামে খ্যাত। অকালে মারা গেলেও পুশকিন আজো আধুনিক রুশসাহিত্যের জনক বলে স্বীকৃত। ভাষার উপর আশ্চর্য দক্ষতা, প্রাঞ্জলতা ও গভীরতা ছিলো তাঁর সাহিত্যের মূল বৈশিষ্ট্য। পুশকিন রাশিয়ান রোমান্টিজম এর প্রদর্শক হিসাবে স্বীকৃত এবং প্রেম বিষয়ক কবি হিসাবে জগদ্বিখ্যাত। সমসাময়িককালে তিনি শুধু রাশিয়ান হিসাবেই নয়, বরং সমগ্র পৃথিবীতে অত্যন্ত শক্তিমান কবি হিসাবে স্বীকৃত। মূলতঃ কবি হলেও তিনি নাটক, গল্প, মহাকাব্য, উপন্যাসও লিখেছেন। তাঁর বিখ্যাত উপন্যাসের নাম ‘ইয়েভেজেনি ওনেজিন’। পুশকিনের ‘ম্যাসেজ অব ইউরোপ’,‘রুসলাম অ্যান্ড লুদমান’ উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ। আলেকজান্ডার পুশকিনের বড় বৈশিষ্ট্য ছিলো বিশ্বসাহিত্যের উপর তাঁর প্রচন্ড দখল। মাত্র ৩৮ বছর বয়সে... continue reading

৬১৩

এই মেঘ এই রোদ্দুর

৪ বছর আগে লিখেছেন

ফিরে দেখা দিনের কথা (প্রতিযোগিতা ২০১৫, ক্যাটাগরী ৩)

স্মৃতিচারণ:
২০০১ সাল তখনো হাতে মোবাইল আসেনি। একমাত্র ভরসা চিঠি চালাচালি। অপেক্ষা করতে হতো সপ্তাহ মাস। ২০০০ সাল পর্যন্ত কিন্ডার গার্টেন এ শিক্ষিকা হিসাবে নিয়োজিত ছিলাম। পাশাপাশি বন্ধুরা মিলে কম্পিউটার কোর্সের একটা প্রতিষ্ঠান খুলি। স্কুল ছুটি হলেই প্রতিষ্ঠানে এসে বসতাম। প্রতিষ্ঠানটি নাম ছিল এবাকাশ কম্পিউটার্স ওয়ার্ল্ড। সেখানে বেশ খানিকটা সময় কাটাতাম। বসে পত্রিকা পড়তাম আর স্টুডেন্টদের কিছু ইনস্ট্রাকশন দিতাম অথবা কিছু টাইপের কাজ করে দিতাম। এমনি একদিন বাংলাদেশ ব্যাংকের একটা বিজ্ঞাপন দেখে সাথে সাথেই এপ্লাই করার জন্য কাগজপত্র রেডি করলাম এবং কুরিয়ারে পাঠিয়ে দিলাম। অবশেষে পরীক্ষার ডাক পড়লো। আল্লাহর উপর ভরসা করে পরীক্ষা দিতে ঢাকা আসলাম আব্বার সাথে। পরীক্ষা... continue reading

২৮ ৪১৩

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট আন্দোলনের অন্যতম নেতা কমরেড অনিল মুখার্জির ৩৩তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

জাতীয় মুক্তি আন্দোলন তথা মুক্তিযুদ্ধ ও গণতান্ত্রিক সংগ্রামের বিশিষ্ট সংগঠক কমরেড অনিল মুখার্জি। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির অন্যতম স্থপতি, শ্রমিক আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব অ্নিল মুখার্জি ব্রিটিশদের শোষণ ও নির্যাতন থেকে দেশকে মুক্ত করার জন্য একের পর এক আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে ছিনিয়ে আনেন স্বাধীনতার সূর্য। স্কুল জীবনেই তিনি জন রীডের সোভিয়েত সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের উপর রচিত 'দুনিয়া কাঁপানো দশ দিন' পড়ে ব্যাপকভাবে আলোড়িত হন। ১৯৩০ সালে কলেজের ছাত্র থাকাবস্থায় কংগ্রেসের আইন অমান্য আন্দোলনে অংশগ্রহন করেন তিনি। সেই আন্দোলনেই প্রথম গ্রেফতার হন। গ্রেফতারের পর ব্রিটিশ সরকার প্রথমে তাঁকে মেদিনীপুর ও হিজলি জেলে আটক করে রাখে। পরে তাঁকে আন্দামান জেলে নির্বাসিত করা হয়। আন্দামানে থাকাকালীন সময়ে... continue reading

৪২৬

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

কাজলা দিদি কবিতার লেখক বিখ্যাত কবি যতীন্দ্রমোহন বাগচীর ৬৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

 
রবীন্দ্র পরবর্তী বাংলা সাহিত্যের একজন প্রধান সাহিত্যিক, কবি ও সাংবাদিক যতীন্দ্রমোহন বাগচী। যিনি কাজলা দিদি লিখে সকল পাঠকের হৃদয় স্পর্শ করেছেন। যতীন্দ্রমোহন বাগচী খুব অল্প বয়স থেকেই কাব্যচর্চা শুরু করেন। যতীন্দ্রমোহন ছিলেন রবীন্দ্রোত্তর যুগের শক্তিমান কবিদের অন্যতম। সেই যুগে রবীন্দ্রনাথের ভক্তের তুলনায় নিন্দুকের সংখ্যা ছিল অনেক বেশী। তখন যতীন্দ্রমোহনের মতো সাহসী তরুন বুদ্ধিজীবিরাই রবীন্দ্রনাথের জয়গান করে প্রকৃত আধুনিকতার পরিচয় দিয়েছিলেন। যতীন্দ্রমোহনের কবিতায় হাতে খড়ি তাঁর স্কুল জীবনে। তখন তিনি পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। কিশোর বয়সেই বই পড়ার প্রতি তার তুমুল আগ্রহ। বাড়িতে তো পড়েনই স্কুলের গ্রন্থাগারে বসেও্র আপন মনে বই পড়ছেন। ১৮৯১ সালে যতীন্দ্রমোহন শুনতে পেলেন ঈশ্বচন্দ্র বিদ্যাসাগর আর নাই। ঈশ্বরচন্দ্র... continue reading

৯৭২