"রূপচর্চা" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

সাবরিন সামিহা অহনা

৪ বছর আগে লিখেছেন

ব্রণের চিকিৎসায় কাঁচা হলুদের জাদু

ব্রণ সারাতে হলুদের মতন চমৎকার প্রাকৃতিক উপাদান খুব কমই আছে। ব্রণের ইনফেকশন কমানো হতে শুরু করে ব্রণের দাগ দূর করা পর্যন্ত হরেক রকম ব্যবহার আছে এর। নিম্নে রইলো সেগুলোর মাঝে কয়েকটি।   ১)ব্রনের প্রচুর ব্রণ ওঠে তাদের জন্য কাঁচা হলুদ জাদুর মতো কাজ দেয়। ব্রনের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কাঁচা হলুদ বাটা, আঙ্গুরের রস ও গোলাপ জল মিশিয়ে ব্রনের উপরে লাগান। কিছু সময় পর ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ মিলিয়ে যাবে ও ইনফেকশন হবে না।   ২)কাঁচা হলুদ বেটে রস করে নিন। এই হলুদের রসের সাথে মুলতানি মাটি ও নিমপাতার রস এক সঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট করে ফেস প্যাকের মতন মুখে লাগান। প্যাক... continue reading

১৫৫৮

ডাক্তার দ্যা বৈজ্ঞানিক

৪ বছর আগে লিখেছেন

চোখের নিচে পড়া কালো দাগের সমাধান :D

খোসাসহ আলু বেঁটে চোখের নিচে লাগাতে হবে। তিন চার দিন এই পেস্টটি ব্যবহার করুন। চোখের নিচের কালো দাগ দু---র হয়ে যাবে ইনশাল্লাহ।
তবে সাবধান রান্না ঘরের শিলপাটা দিয়ে বাঁটতে হলে দেখে নিন আগে মরিচ বাটা হয়েছে কি না !!!
আর হ্যাঁ দাগ মুক্ত হয়ে যাবার পর আপনার জন্য রাত্রি জাগরন নিষিদ্ধ!!! continue reading

৬৪৭

ডাক্তার দ্যা বৈজ্ঞানিক

৪ বছর আগে লিখেছেন

চুল পড়া রোধের পাঁচটি প্রাকৃতিক উপায় !!!

চুল পড়া বন্ধে বিউটি পার্লারে চিকিৎসা নেয়ার চেয়ে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার বেশি কার্যকর। কেননা পার্লারে নেয়া চিকিৎসা পদ্ধতি দ্বারা চুল পড়া সম্পূর্ণ বন্ধ করা সম্ভব নয়। তবে নিচে দেয়া সহজলভ্য কিছু পরামর্শের মাধ্যমে ঘরে বসে চুল পড়া রোধ করা যায়।
১. হালকা গরম তেল ব্যবহার। যে কোন প্রাকৃতিক তেল যেমন-জলপাই, নারিকেল তেল, কেনোলা তেল (বীজ জাতীয় উপাদান দিয়ে তৈরি) হালকা গরম করে নিন। এরপর তেলের সঙ্গে হালকা পানি মিশিয়ে তালুতে ধীরে ধীরে মেসেজ করুন। একঘণ্টা মাথায় রেখে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।
২. প্রাকৃতিক রস ব্যবহার। চুল পড়া রোধে রসুনের রস, পেয়াজ বা আদার রস মাথার তালুতে মাখুন। রাত্রে তা... continue reading

২০১০

ফারজানা মৌরি

৪ বছর আগে লিখেছেন

কেমন হবে ঈদের সাজ

 ঘোরাঘুরি, ঘরোয়া ব্যস্থতা কিংবা আতিথেয়তার মধ্যেই ঈদের দিনের অধিকাংশ সময় কেটে যায়। এরপর দিন শেষে উৎসবের আমেজে নেমে আসে সন্ধ্যা-রাত।
সন্ধ্যার নিয়ন আলোয় ঈদের আনন্দ আরও একটু প্রগাঢ় হতে থাকে। এসময়ও চলতে থাকে ঘরোয়া ব্যস্ততা, আতিথেয়তা, রেস্টুরেন্টে খাওয়া-দাওয়া বা কোনো পার্টির আমন্ত্রণ। এসবের মাঝে ঈদের সারাদিন আপনার সাজ কেমন হবে তা নিয়ে আজকের এই আয়োজন।
ঈদের সকালের সাজ:
ঈদের সব ব্যস্ততা সকাল থেকেই শুরু হয়। এসব ব্যস্ততার মাঝেও নিজের সাজটা ঠিক রাখা একটু কঠিন হয়ে যায়। ঈদের সকালের সাজটা কি হবে, এ নিয়ে থাকছে হেয়ারব্রিক্স ব্রাইডালের কর্ণধার ও প্রধান ডিজাইনার তানজিমা শারমিন মিউনির বিশেষ কিছু পরামর্শ।
তিনি বলেন, ঈদের... continue reading

৫২০

ফারজানা মৌরি

৪ বছর আগে লিখেছেন

ঘরেই সাজুন ঈদের সাজ

ঈদেরকেনেকাটা শেষ ,বাড়ি পথটাও ছুঁই ছুঁই করছে । এতো আয়োজন করে ঈদের কেনাকাটা করেছেন, নিজেকে সবার থেকে আলাদা লাগবে ভেবেই যে পোশাক গুলো কিনেছেন সেটা আপনাকে কতোটা ফুটিয়ে তুলবে সেটা অনেকটাই নির্ভর করে পোশাকের সাথে সেই সময়ে মানানসই গয়না আর মেকআপের উপর। কিন্তু মাত্রই আগের দিন বাড়ি এলেন ; দীর্ঘ পথের ক্লান্তি মুহূর্তেই প্রিয়মুখের হাসিতে ধুয়ে যাবে জানি ।তবু মুখে তখনও সারা পথের ক্লান্তির ছাপ না চাইতেও লেগে আছে ।ঈদের সকালে নিজেকে স্নিগ্ধ একটা সাজে দেখতে হলে প্রথমেই মুখের ক্লান্ত ভাবটার বদলে সতেজতা ফিরিয়ে আনতে হবে।


 
শরীরের ক্লান্তি দূর করতে ঠাণ্ডা এবং গরম জল দিয়ে... continue reading

৭৮৬

ফারজানা মৌরি

৪ বছর আগে লিখেছেন

উৎসবের দিন গুলোতে কিভাবে ত্বক উজ্জ্বল আর সতেজ রাখবেন

আসছি আসছি করে পূজো চলেই এলো। সেই সাথে ঈদ। শরৎকালের এই সময়টাতে এমনিতে প্রচন্ড গরম থাকে। পূজাতে যারা সারাদিন মণ্ডপে ঘুরে পূজা দেখবেন । তারা এখন থেকেই গরমের কথাটা মাথায় রাখুন। গরমে ঘেমে মেক আপ নষ্ট হয়ে প্রায়ই অস্বস্তিতে পড়তে হয়।সেজন্য বিউটিশিয়ানদের পরামর্শ হলো গরমে যথা সম্ভব হালকা মেক আপ করা। সেক্ষেত্রে আপনার ত্বক উজ্জ্বল ও সতেজ থাকা আবশ্যক। ত্বককে উজ্জ্বল ও সতেজ রাখতে আমরা সাধারণত বাজারের বিভিন্ন ধরনের ফেয়ারনেস ক্রীম ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু একটি গবেষণায় দেখা যায় ফেয়ারনেস ক্রীম নিয়মিত ব্যবহার করলে একটি নির্দিষ্ট সময়ের পর সূর্যের অতি বেগুনী রশ্মির সাথে বিক্রিয়া করে ত্বকের স্বাভাবিক রঙহারাতে শুরু... continue reading

৪৩৪

দিলারা জামান

৪ বছর আগে লিখেছেন

পাঁচটি খাবারে বাড়বে আপনার স্মার্টনেস

কিছু খাবার আছে যা আপনার মস্তিষ্কের কার্যকারিতা ও স্মৃতিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। এ ধরনের খাবার সঠিকভাবে গ্রহণ করতে পারলে তা আদতে আপনার স্মার্টনেস বাড়াতেও সহায়তা করবে। এমন ধরনের পাঁচটি খাবার নিয়েই এ লেখা। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

১. তৈলাক্ত মাছ

এখন অনেকেই খাবার-দাবারে শর্টকাট করতে চান। এ কারণে মাছের মতো কাটাযুক্ত খাবার, যা কিছুটা সময় ও মনযোগের সঙ্গে খেতে হয়, এগুলো খাদ্যতালিকা থেকে চলে যাচ্ছে। কিন্তু প্রাকৃতিকভাবে তেল আছে এমন মাছ কোনোভাবেই খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দেওয়া উচিত নয়। বিশেষ করে আপনার যদি স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর ইচ্ছে থাকে তাহলে তৈলাক্ত বা চর্বিযুক্ত মাছই হওয়া উচিত আপনার... continue reading

৩৭৬

দিলারা জামান

৪ বছর আগে লিখেছেন

স্মার্টনেস সম্পর্কে তরুণদের মাঝে ভুল ধারণা গুলো

একটা সময় ছিল যখন পোশাক দিয়ে মাপা হত স্মার্টনেস। কেউ স্যুট বা নিদেন পক্ষে একটা একটা কোট গায়ে দিলেই মানুষ তার দিকে তাকাতো সম্মানের সাথে।মানুষটিও নিজেকে মনে করত, ‘আহা!আমি কতই না স্মার্ট।’ নারীদের ক্ষেত্রেও পোশাক আর দামী গহনা ছিল স্মার্টনেস মাপার মানদণ্ড।
তবে সেই যুগ পার হয়ে এসেছি আমরা অনেক আগেই। এখন গরমের দিনে কেউ কোট পরে রাস্তায় বের হলে তার হাসির পাত্র হবার সম্ভাবনাই প্রবল।সেই সাথে নিত্যদিনের কাজকর্মে নারী পুরুষ পোশাক দিয়ে স্মার্টনেস মাপার ধ্যান ধারনা থেকে বেরিয়ে এসেছেন অনেক আগেই।তাহলে প্রশ্ন থাকতে পারে, স্মার্টনেস কি?
স্মার্টনেস আসলে একটি আলাদা বিষয় নয়।অনেকগুলো ভাল আচরণ ও সুঅভ্যাসের মেল বন্ধন।তবে সু অভ্যাস... continue reading

৬০৫

দিলারা জামান

৪ বছর আগে লিখেছেন

ছেলেরা কখন স্মার্ট হয়

ছেলেরা বরাবরই সাজ গোজের দিকে উদাসীন। তবে এই শৈথিল্যতা, টি-শার্টটি কোথা থেকে কেনা সে ব্যাপারে মানা গেলেও, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বা পরিপাটির দিক দিয়ে একেবারেই ছাড় দেয়া চলবেনা।
স্মার্টনেস, অনেক ক্ষেত্রেই খুব দামী পোশাক নির্বাচনের ওপর তেমন না হলেও, পুরোদস্তর পরিপাটির ওপর নির্ভরশীল। আমাদের আশেপাশে যতই স্মার্ট ছেলেদের দেখা যায়, তারা কিন্তু সবাই যথেষ্ট সচেতন। কারণ অবশ্যই মনে রাখতে হবে, একজন অসচেতন মানুষের কাছ থেকে রুচিশীলতা বা নান্দনিকতা কিছুই আশা করা যায়না।
আসুন এবার পুরুষের স্মার্টনেস নিয়ে, কয়েকটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আলোচনা করি।
শার্ট/টি-শার্ট প্যান্ট:
আগেই বলা হয়েছে শার্ট/টি-শার্ট প্যান্ট এর ব্র্যান্ড বা দাম নিয়ে খুব একটা চিন্তা না করলেও... continue reading

৯৬৯

দিলারা জামান

৪ বছর আগে লিখেছেন

কিভাবে ছেলেদের ত্বক সজীব থাকবে?

ত্বক সুন্দর রাখতে কে না চাই? নিজের ত্বককে সুস্থ ও সুন্দর রাখতে আপনার একটু সচেতনতা বৃদ্ধিই যথেষ্ট। জন্মগত কারণেই অনেকের ত্বক ফর্সা আবার অনেকের শ্যামলা, তবে নিজের স্বভাবের কারণেই অনেক সময় ফর্সা বা শ্যামলা যে কোন প্রকারের ত্বক হোক না কেন তা অনুজ্জ্বল হয়ে যায়।
ত্বক সুন্দর রাখতে কেমিক্যালের চেয়ে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করা ভালো। কেননা, কেমিক্যাল ব্যবহারে ত্বকের কোমলতা ও উজ্জ্বলতা কমে যেতে পারে। মুখ ও গলায় আলু, পাতিলেবুর রস, কচি শসার রস ব্যবহারে ভালো ফল পাওয়া যায়।
আলু পানিতে ধুয়ে পাতলা করে কেটে মুখমণ্ডল ও গলা ১০ মিনিট ঘষতে হবে। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে... continue reading

৪৩১