Site maintenance is running; thus you cannot login or sign up! We'll be back soon.

"রান্না" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

শাহআজিজ

২ বছর আগে লিখেছেন

ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য সুগার মুক্ত রসগোল্লা

ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য সুগার মুক্ত রসগোল্লা  রেসিপি
ইদানিং মানুষের মাঝে ডায়াবেটিস রোগ এবং রোগের সচেতনতা যতই বাড়ছে, তার সাথে সাথে বাড়ছে চিনি বাদ দেওয়ার প্রবণতা। চিনি খাওয়া বাদ দেওয়া মানেই আবার মিষ্টি জাতীয় খাবার বাদ দেওয়া। কিন্তু তাই বলে কি রসগোল্লাও খাওয়া বাদ থাকবে? মোটেই না!
আপনি যে আর্টিফিশিয়াল সুইটনার ব্যবহার করেন সেটা দিয়েই বাড়িতে তৈরি করে নিন চমৎকার সুগার ফ্রি রসগোল্লা। স্বাদ নেওয়াটাও হলো, স্বাস্থ্য রক্ষাটাও হলো। সময় লাগবে মাত্র এক ঘণ্টা।
উপকরণ :
– দেড় লিটার টাটকা গরুর দুধ
– ১৯ গ্রাম আর্টিফিশিয়াল সুইটনার
– লেবুর রস ২ টেবিল চামচ (দুই টেবিল চামচ পানির সাথে... continue reading

২৬৫

shammul islam shoikot

৩ বছর আগে লিখেছেন

ডিম ভাজা

ডিম ভাজাঃডিম ভাজা সকালের নাস্তা কিংবা রাতের খাবার—নানা বেলাতে একটা সহজ উপকরণ হিসেবে গণ্য হয়। অথচ পৃথিবীর অনেক দেশেই এই ডিম ভাজা অথবা ওমলেট নিয়ে আছে নানা পদের রেসিপি। সেসব দেশের ওমলেট একেবারে দামি খাবারের তালিকায় থাকে। নানা দেশের নানা স্টাইলের ডিমভাজা নিয়েই এ কড়চা রেসিপি।
ডিম ভাজাঃ(অমলেলেট)
উপকরণ :ডিম ৩টি, চিনি ১ টেবিল চামচ, সয়াসস ১ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, স্টক ৪ টেবিল চামচ। 
প্রণালি :ডিম ও বাকি সবকিছু একসাথে বিট করে নিন। ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে নিন। চুলায় একটি ননস্টিক প্যান বসান। মোছা তেল দিন। ডিমটাকে ছয় ভাগে করে এক ভাগ প্যানে ছড়িয়ে দিন। চুলার আঁচ অল্প থাকবে। ডিমটাকে বাম পাশ থেকে ভাঁজ... continue reading

১০২৯

শাহআজিজ

৩ বছর আগে লিখেছেন

তউফু রান্না ।। কিচেন কর্নার

তউফু বা তফু অথবা বিন কার্ড একটি অসাধারন গুন সম্পন্ন ভেজিটেরিয়ান খাবার। এটা সাদা সয়াবিন বিচিকে প্রেস করে এর রস নিংড়ে যে সাদা রঙের শুকনো সন্দেশ সদৃশ পদার্থ বের হয় তাকে চীনা ভাষায় doufu তউফু উচ্চারন হবে, বলা হয়। প্রতিদিন চীন,তাইওয়ান,কোরিয়া, জাপান, থাইল্যান্ড এবং ভারতের অংশবিশেষে কত মিলিয়ন টন ব্যাবহার হয় তার কোন হিসাব নেই। এটি প্রোটিন সমৃদ্ধ এবং চর্বিহীন খাবার যা এখন চিকিৎসকরা ক্যান্সার রোগীদের খেতে বলছেন। এর নিংড়ানো রস সকালের নাস্তায় ব্যাবহার হয় পূর্ব এশিয়ায়।আমার চৈনিক জীবনে মা লা তউফু খুব প্রিয় ছিল। মা লা একপ্রকার ঝালযুক্ত শুকনো ফুল যা এর স্বাদকে অসাধারন করে তোলে। বাংলাদেশে মা... continue reading

৪১৩

জাকিয়া জেসমিন যূথী

৫ বছর আগে লিখেছেন

আসুন খেতে বসি

আজ কি যে হয়েছে কে জানে! সকাল থেকেই খুব ক্ষুধা পাচ্ছে। আর অফিস ৯টা -৫টা হয়ে এই হয়েছে নতুন জ্বালা। সকালে ভালোভাবে নাশতা করে আসা হয়না। আর দুপুর আসতে না আসতেই ক্ষুধায় পেটে যেন সুচোর নাচন শুরু হয়ে যায়। 
এই মুহুর্তে আমি খেতে বসে যাচ্ছি। কে কে আমার সাথে এক পাতে বসবেন চলে আসুন জলদি। 
continue reading

১১ ৭১৪

ডাক্তার দ্যা বৈজ্ঞানিক

৫ বছর আগে লিখেছেন

নবীজির প্রিয় খাবারগুলোর দৃশ্যমান বাহ্যিক উপকারিতা...

নবীজী (সা.) এর প্রিয় খাবারের মধ্যে রয়েছে-
বার্লি, খেজুর, ডুমুর, আঙ্গুর, মধু, তরমুজ, দুধ, মাশরুম, অলিভ অয়েল, ডালিম-বেদানা, ভিনেগার ও পানি। এসব খাবারের গুণাবলী এখানে উল্লেখ করা হলো---
১. বার্লি (জাউ): এটা জ্বরের জন্য এবং পেটের পীড়ায় উপকারী।
২. খেজুর: খেজুরের গুণাগুণ ও খাদ্যশক্তি অপরিসীম। খেজুরের খাদ্যশক্তি ও খনিজ লবণের উপাদান শরীল সতেজ রাখে। প্রিয়নবী (সা.) বলতেন, যে বাড়িতে খেজুর নেই সে বাড়িতে কোনো খাবার নেই। এমনকি প্রিয়নবী (সা.) সন্তান প্রসবের পর প্রসূতি মাকে খেজুর খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।
৩. ডুমুর: ডুমুর অত্যন্ত পুষ্টিকর ও ভেষজ গুণসম্পন্ন, যাদের পাইলস ও কোষ্ঠকাঠিন্য আছে তাদের জন্য
অত্যন্ত উপযোগী খাবার। 
৪. আঙ্গুর: প্রিয়নবী (সা.) আঙ্গুর খেতে অত্যন্ত ভালো বাসতেন। আঙ্গুরের পুষ্টিগুণ ও খাদ্যগুণ অপরিসীম। এই খাবারের উচ্চ খাদ্য শক্তির কারণে এটা থেকে আমরা তাৎক্ষণিক এনার্জি পাই এবং এটা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। আঙ্গুর কিডনির জন্য... continue reading

১৬৬৪

প্রবাসী একজন

৫ বছর আগে লিখেছেন

রেসিপিঃ টোনাফিস এন্ড এগ (প্রবাসী ভাইবোনদের জন্য)

প্রবাসে একা থাকেন। নিজের রান্না নিজে করেন তাদের জন্যই আমার আজকেই এই রেসিপি। তবে মুল রেসিপিটা নেয়া হয়েছে ফক্স ট্যাভেলারের একটা রান্না অনুষ্ঠান থেকে। উক্ত অনুষ্ঠানে আরো একটা ভিন্ন সসের কথা বলা হয়েছিল যা সম্ভবত আমাদের দেশে আমি দেখি নাই। আমি উক্ত সসের বদলে টবাস্কো চিলি সস ব্যবহার করেছি।  খেতে বেশ আরাম পেয়েছিলাম। এদিকে বাসায় আর কেহ না থাকাতে কাউকে কেমন হয়েছে তাও দেখাতে পারি নাই। একদিনের প্রবাসী বলা যেতে পারে! হা হা হা।।
চলুন কথা বাড়িয়ে আর কি হবে। নদীর জল কালি হলেও লেখা শেষ হবে না। গল্প তো গল্পই! যদি আপনারা দুইজন প্রবাসী থাকেন তবে এই রেসিপিতে... continue reading

৬৩৩

ডাক্তার দ্যা বৈজ্ঞানিক

৫ বছর আগে লিখেছেন

অ্যাসিডিটি (গ্যাস্ট্রিক) তাড়ান, সুস্থ বোধ করুন।

  গ্যাস্ট্রিক বা এসিডিটির সমস্যা আমাদের দেশে খুবই স্বাভাবিক ব্যপার। অনেককে বছরের প্রায় সময়ই ভূগতে হয় এ সমস্যায়। আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানে এর প্রতিকার হিসাবে পাওয়া যায় অনেক নামি দামি ওষুধ। কিন্তু আমাদের হাতের কাছের বিভিন্ন প্রকৃতিক জিনিস দিয়ে যদি করা যায় এর নিরাময়, তাহলে বাড়তি টাকা খরচ করার কি দরকার। আসুন এরকম কিছু উপাদানের কথা জেনে নিইঃ-     # লং   যদি আপনি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় জর্জরিত হয়ে থাকেন, তবে লং হতে পারে আপনার সঠিক পথ্য। দুইটি লং মুখে নিয়ে চিবাতে থাকুন, যেন রসটা আপনার ভেতরে যায়। দেখবেন এসিডিটি দূর হয়ে গেছে।
  # জিরা   এক চা চামচ জিরা নিয়ে... continue reading

৩১৩৬

ডাক্তার দ্যা বৈজ্ঞানিক

৫ বছর আগে লিখেছেন

কাটা-ছেড়ায় টক ফল খাওয়া যায় কি ?

কাটা-ছেঁড়ায় টক খাওয়া যাবে না! এ কেমন কথা??? দেহের কোন অংশ কেটে বা ছিঁড়ে গেলে অথবা কারও কোন অপারেশন হলে বলা হয়ে থাকে টক খাওয়া যাবে না।
আসলে টক খাবার বলতে আমরা বুঝি বিভিন্ন ধরনের ফল যেমন- লেবু, কমলা, জাম্বুরা, আম, আমড়া, চালতা, তেঁতুল, কামরাঙা, আমলকী ইত্যাদি। সাইট্রাস ফলসহ সব ধরনের টক ফলেই প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ আছে। আর ক্ষত সারার জন্য প্রয়োজন এই ভিটামিন ‘সি’। ভিটামিন ‘সি’ ঘা শুকানোর জন্য প্রয়োজনীয় কোলাজেন টিস্যু তৈরিতে সাহায্য করে। এজন্য এ ধরনের রোগীকে ভিটামিন ‘সি’ ট্যাবলেট খেতে দেয়া হয়। কাজেই আঘাতে কেটে গেলে বা কোন অপারেশন হলে রোগীকে অবশ্যই স্বাভাবিক খাবারের পাশাপাশি ভিটামিন ‘সি’ যুক্ত ফল খেতে... continue reading

১৩৯৮

ডাক্তার দ্যা বৈজ্ঞানিক

৫ বছর আগে লিখেছেন

গরুর গোশত সম্বন্ধে জরুরি কিছু তথ্য

আমরা মোটামোটি সবাই জানি যে গরুর মাংস একটি ক্ষতিকর খাবার যা এড়িয়ে চলা উচিত। কারণ এটি কোলেস্টেরল বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। কিন্তু সত্যি কথা হলো যে, গরুর মাংসের অনেক উপকারী দিকও আছে। পরিমিত পরিমাণে সঠিক ভাবে খেলে এর থেকে যেই পরিমাণ পুষ্টি পাওয়া যায় তা সমপরিমাণ অন্য কিছু থেকে পাওয়া কঠিন। তাহলে কেন আমরা সঠিক উপায়ে খাওয়ার কথা চিন্তা না করে একে সম্পূর্ণ বর্জন করে এর খাদ্যগুন থেকে নিজেদের বঞ্চিত করবো?
>কি পরিমাণ খাওয়া উচিতঃ
দৈনিক গরুর মাংস খাওয়ার নিরাপদ মাত্রা হলো, ৩ আউন্স বা ৮৫ গ্রাম। আনুমানিক একটা কম্পিউটারের মাউস বা একটি তাসের বান্ডিলের সমান টুকরাতে এই পরিমাণ মাংস পাবেন।
>চর্বি ছাড়া... continue reading

১১১৯

জাকিয়া জেসমিন যূথী

৫ বছর আগে লিখেছেন

গল্পে গল্পে রান্না

দিন কয়েক আগে এক বাসায় বেড়াতে গিয়েছি। মায়ের বান্ধবীর বাসা। মা সেখানে প্রায়ই যায় কিন্তু নানান ব্যস্ততায় আমার যাওয়া হয় না। এবার তাই দাওয়াত সহ জরুরী তলব। গেলাম। এই কথা সেই কথার পরে খাওয়ার সময় হয়ে এলো। টেবিলে খাবার বিছিয়ে দেয়া হলো। তিনটি ডিশে তিন আইটেম। একটা পাতিলে ইলিশ পোলাও। ইলিশ আমি খাইনা। এলার্জীর প্রবলেম। তাছাড়া অন্যের বাসায় যেয়ে মাছ খেতে ইচ্ছে করছিলো না। যাহোক, আরেক ডিশে সালাদ। এবং ৩য় ডিশে একটা আইটেম। কিন্তু বোঝা যাচ্ছেনা সেটা কি! মাছের ভাজা ও হতে পারে, আবার বেগুন ভাজা বলেও মনে হচ্ছে। টুকরোগুলোকে কাচা ধনিয়া পাতা দিয়ে ঢেকে রাখা। যাহোক-
প্লেটে... continue reading

৫৭৬