"রাজনীতি" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

মোঃ মাহবুবুল আলম

৪ বছর আগে লিখেছেন

তবুও থামছেনা দানবীয় উন্মত্ততা

গত সোমবার বিএনপি চেয়ারপার্সনের সংবাদ সম্মেলন করে বলেছেন, সারাদেশে সহিংসতা নাকি সরকার করছে। খালেদা জিয়ার একথা শুনে শুধু দেশের মানুষ নয় বিদেশী কূটনীতিকরা মুচকি মুচকি হাসছেন। প্রিন্ট, ইলেকট্রিক মিডিয়া ও ইন্টারনেটের অনলাইন ব্লগিং এর মাধ্যমে প্রতি মুহূর্তেই দেশের মানুষ জানতে পারছে বেগম খালেদা জিয়ার অনির্দিষ্টকালের অবরোধ ঘোষণাকে কেন্দ্র করে কারা নাশকতা করছে, কারা পেট্রোল বোমায় প্রতিনিয়ত পুড়িয়ে মারছে দেশের নিরপরাধ  সাধারণ মানুষকে। আন্দোলনের নামে বিএনপি সারাদেশে অরাজকতা সৃষ্টি করছে। সাধারণ মানুষের চলাফেরার অধিকারও বিঘ্নিত করছে। দেশের অর্থনীতির ক্ষতি করছে । বার্ন ইউনিটে দগ্ধ রোগী ও স্বজনদের কান্না হাহাকার আহাজারি চলছেই।
 
একজন জাতীয় নেত্রী হিসেবেই নয়; দেশের সোয়া... continue reading

৩৪২

রাজু আহমেদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

গণতন্ত্র, রাজনৈতিক আন্দোলন ও বর্তমান বাংলাদেশ

গণতন্ত্রের উদ্ভব ও চর্চা শুরু হয়েছিল প্রাচীন গ্রীসে । খ্রিষ্টপূর্ব ৫’ম শতকে গ্রীসের এথেন্সে গণতন্ত্র বিষয়ক ধারণার উৎপত্তি হয় এবং জনপ্রিয় রাষ্ট্রব্যবস্থা হিসেবে দ্রুত তৎকালীন বিভিন্ন নগররাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়ে । গণতন্ত্র বিষয়ক প্রাথমিক ধারণার সাথে কালের বিবর্তনে কিছু সংযোজন-বিয়োজন হয়ে অধুনা বিশ্বে গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা জনপ্রিয়তা লাভ করে স্থায়ী হয়েছে । যদিও গণতন্ত্রের ওপর বিভিন্ন সময় নানাভাবে আঘাত এসেছে । পুঁজিবাদ, সমাজতন্ত্র, একনায়কতন্ত্র, স্বৈরতন্ত্রসহ কয়েকটি মতবাদ গণতন্ত্রকে নড়বড়ে করার চেষ্টা করেছে । তবে সময়ের পথপরিক্রমায় এগুলো বিদায় নিয়ে গণতন্ত্রকে আরও সুদৃঢ় অবস্থান দিয়েছে । গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা সম্পূর্ণ চর্চার বিষয় । পৃথিবীর অধিকাংশ দেশে গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত থাকলেও... continue reading

৩৩৪

বিন আরফান.

৪ বছর আগে লিখেছেন

রাজনীতি এখন পরম সম্পদের বিষফোঁড়া

৫জানুয়ারির আগের সরকার আর বর্তমান সরকার আমার দৃষ্টিতে দেশ খারাপ চালাচ্ছিল না, চালাচ্ছেও না। এদের আগের সরকারগুলোও দেশ খারাপ চালায়নি। কেননা আমিসহ আমার কাছের জনেরা যেমন ছিল তেমনি আছে। উত্থান-পতন কেবল রাজনীতিবিদদেরই হয়েছে। ওসব তাদের ব্যক্তিগত বদগুণের ফল। বর্তমানে দেশে অশুভ রাজনৈতিক চর্চা চলছে। বিএনপি সমাবেশ ডেকেছে। তাতে সমস্যা কি? এটা রাজনৈতিক কর্মসূচি। সেই সমাবেশকে অগণতান্ত্রিকভাবে বাধা দিয়ে সরকারই তাদেরকে অবরোধের পর্যায়ে যেতে বাধ্য করেছে, বলাযায় সূচনাও করেছে। এরূপ পরিস্থিতিতি নিজেরাও পড়লে ঠিক তাই করতেন। দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ না হলেও রাজনৈতিক কিছু সিদ্ধান্তে সরকার ব্যর্থ।
আমরা বঙ্গবন্ধুকে পছন্দ করি, বিএনপিকে পছন্দ করি, শিবিরের কিছু কর্মির আচার-ব্যবহার, ন¤্রতা পছন্দ করি,... continue reading

৫২০

রাজু আহমেদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

অর্থমন্ত্রীর পুরো পরিকল্পনা জানালে জাতি কৃতার্থ হত

৪ হাজার কোটি টাকা টাকার অঙ্কে কোন টাকাই নয় ! ঘুষ গ্রহন অবৈধ নয় ! পাঁচ টাকার নিম্ন মানের কোন মুদ্রার প্রয়োজন নাই ! রাবিশ ! বোঘাস ! একজন মানুষকে অমর করে রাখা জন্য এর চেয়ে বেশি কি আর কিছুর প্রয়োজন আছে ? বাংলাদেশের মানুষ সত্যিই ভাগ্যবান কেননা তারা এমন একজন সুযোগ্য অর্থমন্ত্রী পেয়েছেন ! বিশ্বের সম্পদশালী রাষ্ট্রগুলো কোথাও এক ডলার ব্যয় করলে যেখানে কয়েকবার ভাবে সেখানে বাংলাদেশের মত একটি তৃতীয় বিশ্বের উন্নয়ণশীল দেশের দায়িত্বশীল অর্থমন্ত্রী নির্দ্বিধায় ঘোষণা দিলেন ৪ হাজার কোটি টাকা কোন টাকাই নয় । ভাবতেই ভালো লাগছে বাংলাদেশ বোধহয় বিশ্বের প্রধান ধণী রাষ্ট্রে উন্নীত হয়েছে !... continue reading

৫০৬

রাজু আহমেদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

নিরাপরাধ মানুষ হত্যা ও গণতন্ত্রের চর্চায় কার্যকারণ নীতি

দর্শনের ইতিহাসে মহামতি এরিস্টটলের কার্যকারণ তত্ত্ব বহুল আলোচিত একটি অধ্যায় । এরিস্টটল তার জগৎ সৃষ্টি বিষয়ক আলোচনা থেকে শুরু করে পৃথিবীর সকল ঘটনা-দূর্ঘটনার পিছনে কার্যকারণ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেছেন । বহুধা গুনান্বিত রাষ্ট্রবিজ্ঞানের জনক ও দার্শনিক এরিস্টটলের মতে, প্রতিটি কার্য সংঘটিত হওয়ার অন্তরালে একটি কারণ থাকে । সে কারণটি কাজের অদূরে কিংবা দূরেও থাকতে পারে । তবে একথা অস্বীকার করার উপায় নাই যে, কার্যকারণ নীতি অনুসরণ করা ব্যতীত কোন ঘটনা কিংবা দূর্ঘটনা সংঘটিত হতে পারে । যদিও আধুনিক যুগের সংশয়বাদী দার্শনিক ডেভিড হিউম এরিস্টটলের কার্যকারণ নীতির সাথে ভিন্নমত পোষণ করেছেন তবুও এরিস্টটলের কার্যকারণ বিষয়ক আলোচনা উপেক্ষা করা যায়নি বরং... continue reading

৩৫১

দিলারা জামান

৪ বছর আগে লিখেছেন

চরম উদ্বেগ প্রকাশ করে জাতিসংঘ- এর মানবাধিকার বিষয়ক কমিশন


দেশের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতা বন্ধে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে সকল রাজনৈতিক দলের প্রতি আহবান জানিয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কমিশন ইউএনএইচআর। 
 
পাশাপাশি সকল হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ তদন্তের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে। 
 
জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র রাভিনা সামদাছানি এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন। 
 
বিবৃতিতে তিনি বলেন, বিরোধীদলীয় নেতাদের গ্রেফতার ও আটকের বিষয়টি যে স্বৈরাচারী নয় তা সরকারকে নিশ্চিত করতে হবে। 
 
আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের আলোকে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি পুন:প্রতিষ্ঠাসহ শান্তিপূর্ণ সভা-সমাবেশ ও বাকস্বাধীনতা নিশ্চিত করণে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়। 
 
বাংলাদেশের রাজনৈতিক সহিংসতা আরো ঘণীভূত হচ্ছে উল্লেখ করে বিবৃতিতে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করে জাতিসংঘ- এর... continue reading

৫১১

মোঃ মাহবুবুল আলম

৪ বছর আগে লিখেছেন

বিএনপি’র ভারতবিরোধিতা এবং বর্তমান ভারত তোষণনীতি

 
আমাদের রাজনীতিবিদরা জনগণের নামে নিজেদের সকল অপকর্ম চালিয়ে দিয়ে দীর্ঘদিন থেকেই এক ধরনের ধোঁকাবাজি ও ঠকবাজি করে আসছে। ‘রাজনীতিতে শেষ কথা বলতে কিছু নেই’ এই আপ্তবাক্য প্রয়োগ করে তারা সব সময়ই ধোঁকাবাজির সুযোগটি গ্রহণ করে। কিন্তু তাঁরা একবারও ভেবে দেখে না ধোঁকাবাজির খেলায় সব সময় জেতা যায় না। জনগণ এখন রাজনীতি বিষয়ে এতটাই সচেতন হয়ে ওঠেছে যে, আগে বার বার ধোঁকাবাজি বা পল্টি খেলেও এখন তাদের মধ্যে অনেক রাজনৈতিক পরিপক্কতা এসেছে। গ্রামে-গঞ্জে চায়ের দোকানে একটু ধৈর্য ধরে বসে কান খাড়া করলেই তাদের রাজনীতি বিষয়ে আলাপ আলোচনা শুনলে মনে হবে যে, তারা রাজনীতিবিদদের চেয়ে কম জানে না। এদের কাউকে কাউকে... continue reading

৪০৭

বেঙ্গল রিপন

৪ বছর আগে লিখেছেন

পরিবর্তন চাই

আমরা “পরিবর্তন” চাই। পতাকার রঙের নয়, মুখোশের ঢঙের নয়।
মেহনতী মানুষের স্বার্থে সমাজের সার্বিক পরিবর্তন।
“একটা পৃথিবী চাই মায়ের আঁচলের মতো...
শুকনো কাঠের মতো মায়েদের শরীরের কান্না নিয়ে নয়,
বুকভর্তি অফুরন্ত ভালোবাসার শস্য নিয়ে”।
আসুন, দলতান্ত্রিক সংকীর্ণ রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে খোলা মনে ভাবি।
সাধারণ মানুষের ভাষায়, মানুষের রাজনীতির কথা বলি।
প্রতিবাদ করি অন্যায় অবিচার ও অনাচারের বিরুদ্ধে।
ঘৃণা করি, ক্রোধে জ্বলে উঠি continue reading

৫১৯

বেঙ্গল রিপন

৪ বছর আগে লিখেছেন

নীতিহীন সংবাদপত্রঃ দেশ জাতি রাষ্ট্রের স্বার্থ উপেক্ষিত যেখানে

নীতিহীন সংবাদপত্রঃ দেশ জাতি রাষ্ট্রের স্বার্থ উপেক্ষিত যেখানে
__________________________________________
‘সংবাদপত্র রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ’, ‘সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ’, ‘সংবাদপত্র গণতন্ত্রের অন্যতম হাতিয়ার’ এরকম অনেক কথাই দেশে দেশে প্রচলিত। এ কথাগুলি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে দেশ, জাতি, রাষ্ট্র ও গণতন্ত্রের কল্যাণে সংবাদপত্রের অনবদ্য ভূমিকার কারণে। সংবাদপত্রের কল্যাণে অনেক রাষ্ট্রের আমূল পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। স্বৈরতন্ত্র বিদায় করে পেয়েছে গণতন্ত্রের স্বাদ। জালিম সরকারের মসনদ প্রকম্পিত হয়েছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষিসহ সমাজের প্রায় প্রত্যেকটি খাতের উন্নয়নে অবদান রেখেছে এই সংবাদপত্র।
কিন্তু সময়ের আবর্তে সংবাদপত্রের ঐসব সোনালী ইতিহাস মুছে যেতে বসেছে এক শ্রেণীর নীতি বিবর্জিত, স্বার্থান্বেষী, নষ্ট সংবাদপত্রের কারণে। যাদের কাছে নীতি নৈতিকতার কোন মূল্য নেই। নেই দেশীয় স্বার্থের কোন মূল্য। ব্যক্তি, দল... continue reading

৫১৭

মোঃ মাহবুবুল আলম

৪ বছর আগে লিখেছেন

কত রঙ্গ জানরে বন্ধু কত রঙ্গ জান

৫ জানুয়ারি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও সাবেক বিরোধী দল বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের মুখোমুখি অবস্থান নিয়ে দেশেবাসী যে অজনা আতঙ্কের মধ্যে ছিল তা অনেকটাই কেটে গেছে। সেদিন সারা দেশে বিচ্ছিন্ন দু’একটি ঘটনা ছাড়া বড় তেমন কোন নাশকতা বা অরাজগতার ঘটনা ঘটেনি। তবে বিএনপি-জামায়াতের বিশেষ করে শিবিরের নৃশংসতায় হামলায় প্রাণ গেল চারজন  সাধারণ নাগরিকের। আমরা সাধারণ পাবলিক নিহত চারজনকে সাধারণ নাগরিক বললেও নিহতদের দুইজনকে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নিজেদের কর্মী বলে দাবী করে নতুন মাত্রা যোগ করতে চেয়েছে কিন্তু আপাতঃ দৃষ্টিতে কোন মাত্রা যোগ হয়নি। কিন্তু এ কর্মসূচিকে ঘিরে চারজন নিহত হওয়ার ঘটনা সত্যি দুঃখজনক।
 
বিএনপি নেতৃত্বাধীন বিশ দল (যদিও... continue reading

৩৪৮