"রাজনীতি" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

আশফাক সফল

৫ বছর আগে লিখেছেন

উন্নয়নের রাখাল ও বাঘ : বিচারকথা

(ইহা একটি কল্পনাপ্রসূত কাহিনী, কোন বাস্তব ঘটনা বা ব্যক্তির সাথে সাদৃশ্য কাকতাল মাত্র)

রাখাল বাহাদুর মনের আনন্দে ঘাস ( থুক্কু পান) চিবাইতেছিলেন । কান চুলকাইতে খায়েছ জাগিলেও কর্ণ ছিদ্রের দুরাবস্থার কথা ভাবিয়া, মস্তিক হইতে সেই চিন্তা ঝাড়িয়া ফেলিলেন। ধীরে ধীরে কেমন যেন নস্টালজিকও হইয়া গেলেন (পানের সাথে কী কাঁচা সুপারি ছিল আজ ?) । আপন মনে গাহিয়া উঠিলেন


"বিচারপতি, তোমার বিচার করবে যারা
আজ জেগেছে সেইত জনতা ....... "

নাহ, এই জনতাকে জাগিতে দেওয়া যাইবে না । বড়ই খাতরনাক জিনিষ এরা। আজ ইহাকে ভাললাগে তো কাল উহাকে । বহু কষ্ট... continue reading

৪৫২

আবিদ রহমান

৫ বছর আগে লিখেছেন

বাংলাদেশের সমসাময়িক স্বাধীন দেশ

দেশ স্বাধিন হয়েছে আজ প্রায় চল্লিশ বছর পেরিয়ে গেছে। আমাদের সমসাময়িক স্বাধিন রাষ্ট্রগুলো আজ আমাদের তুলনায় কতটুকু এগিয়ে গেছে আর আমরা রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধিনতা পেয়েও আজ আমরা কোথায় ?
বাংলাদেশ
========
শোষণ, বৈষম্য ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামের মধ্য দিয়ে ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দে একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়। আয়তন মোট ১৪৭,৫৭০ বর্গকিমি (৯৪তম)
৫৫,৫৯৯ বর্গমাইল
জনসংখ্যা মাথাপিছু আয় - $১,৪৭০.৩৮ (১৫২তম)
বাহারাইন
=======
স্বাধীনতা অর্জন যুক্তরাজ্য থেকে ১৫ই আগষ্ট ১৯৭১ ।
জনসংখ্যা মাথাপিছু আয় - $৩৪,৬৬২[২] (৩২তম) ১৯৩০-এর দশকে বাহরাইন পারস্য উপসাগরের প্রথম দেশ হিসেবে তেল-ভিত্তিক অর্থনীতি গঠন করে, কিন্তু ১৯৮০-র দশকের শুরুর দিকেই এর সমস্ত তেল... continue reading

৪৯৬

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

গণ চীনের অবিসংবাদিত মহান নেতা কমরেড মাও সেতুং এর ৩৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা এবং গণ চীনের বিপ্লবী নেতা, মার্কস্‌বাদী তাত্ত্বিক ও রাজনৈতিক নেতা কমরেড মাও সেতুং। জন্ম নয়, কর্মটাই মুখ্য। কর্মের কারণেই – জন্মের র্সাথকতা, বা তার র্ব্যথতা। কিছু কিছু জন্ম র্সাথক হয়ে গড়ে ওঠে এমন এক সত্তা, যা তার মৃত্যুকেও ছাপিয়ে তার ব্যাপ্তিকে পৌঁছে দেয় এক নতুন উচ্চতায়। যে সত্তা আজীবন বিপ্লবী, মানব মুক্তির সংগ্রামে যে সত্তা সদা জীবন্ত। এমনই এক সত্তা কমরডে মাও সেতুঙ।মার্কসবাদ-লেনিনবাদে তার তাত্ত্বিক অবদান। সমর কৌশল এবং তার কমিউনিজমের নীতি এখন একত্রে মাওবাদ নামে পরিচিত। মাও ছাত্রজীবন থেকেই রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তবে ২৪ বছর বয়সে রাজধানী পিকিংয়ে গমন এবং মার্কস তত্ত্বের আলোকে... continue reading

৪৬৫

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

বাংলাদেশের প্রথম প্রধান সেনাপতি এম, এ, জি ওসমানীর ৯৬তম জন্মবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় মুক্তিবাহিনী ও সেনাবাহিনীর প্রধান সেনাপতি মহম্মদ আতাউল গণি ওসমানী, যিনি জেনারেল এম. এ. জি. ওসমানী নামে অধিক পরিচিত। বঙ্গবন্ধুর ডাকে ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে ওসমানী সীমান্ত পার হয়ে ভারতে প্রবেশ করেন। ১৯৭১ সালের ১১ এপ্রিল বাংলাদেশের অস্থায়ী প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদ স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে ভাষণ দেন৷ ঐ ভাষণে তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবকাঠামো গঠনের কথা উল্লেখ করে এম. এ. জি. ওসমানীকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান সেনাপতি হিসেবে ঘোষণা দেন৷ উল্লেখ্য যে ১০ এপ্রিল স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র জারী ও সরকার গঠন করা হয় এবং পরবর্তীকালে ১৭ এপ্রিল মুজিবনগরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার শপথ গ্রহণ করে। ১৯৭১ সালের... continue reading

১০১৬

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

ডায়ানাঃ প্রিন্সেস অফ ওয়েলস এর ১৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

নান্দনিক সৌন্দর্য আর এক চিলতে লাজুক হাসি দিয়ে যিনি পৃথিবীর সব প্রান্তের মানুষের নজর কেড়েছিলেন তিনি প্রিন্সেস ডায়ানা। পুরো নাম লেডি ডায়ানা ফ্রান্সেস স্পেন্সার। যুবরাজ চার্লসের প্রথম স্ত্রী এবং ১৯৮১ হতে ১৯৯৭ পর্যন্ত যুক্তরাজ্যের যুবরাজ্ঞী। ব্রিটিশ যুবরাজ চার্লসের সাথে বিয়ের পরে তার নাম দেয়া হয় ডায়ানা ফ্রান্সেস মাউন্টব্যাটেন-উইন্ডসর।

১৯৮১ খ্রীস্টাব্দে যুবরাজ চার্লসের বিবাহের পর থেকে ১৯৯৬ খ্রীস্টাব্দে বিবাহ বিচ্ছেদ পর্যন্ত তাঁকে হার রয়াল হাইনেস দি প্রিন্সেস অফ ওয়েল্‌স বলে সম্বোধন করা হত। এর পরে রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথের আদেশক্রমে তাঁকে শুধু ডায়ানা, প্রিন্সেস অফ ওয়েল্‌স বলে সম্বোধনের অনুমতি দেয়া হয়। বিংশ শতাব্দীর অন্যতম বিখ্যাত সেলিব্রেটি প্রিন্সেস অফ ওয়েলস... continue reading

৬৬১

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

গান্ধী পরিবারের উজ্জল নক্ষত্র, ভারতের সপ্তম প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর ৭০তমজন্ম বার্ষিকীতে শুভেচ্ছা

ইন্দিরা নেহেরু ও ফিরোজ গান্ধীর জ্যৈষ্ঠ পুত্র ভারতীয় কংগ্রেস পার্টির সাবেক সভাপতি এবং ভারতের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী। ভারতের রাজনৈতিক ইতিহাসের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে কংগ্রেস আর গান্ধী পরিবারের নাম। জওহরলাল নেহরু, ইন্দিরা গান্ধী, রাজীব গান্ধী, সোনিয়া গান্ধী প্রত্যেকেই ভারতের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে রেখেছেন অবিস্মরণীয় ভূমিকা। গান্ধী পরিবারের উজ্জল নক্ষত্র রাজীব গান্ধী তাদের অন্যতম। ১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর মায়ের মৃত্যুর দিন তিনি মাত্র চল্লিশ বছর বয়সে ভারতের কনিষ্ঠতম প্রধানমন্ত্রীরূপে কার্যভার গ্রহণ করেন এবং ১৯৮৯ সালের ২রা ডিসেম্বর সাধারণ নির্বাচনে পরাজয়ের পর পদত্যাগ করার আগে পর্যন্ত তিনি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া ১৯৯১ সাল পর্যন্ত রাজীব গান্ধী ছিলেন ভারতের জাতীয়... continue reading

৫৪৬

রাজু আহমেদ

৫ বছর আগে লিখেছেন

সমাজে কল্যান সাধনের মন্ত্রীর কথাবর্তার এ কোন শ্রী

যুগে যুগে বাংলাদেশের বিভিন্ন অঙ্গনে অনেক বিস্ময়কর প্রতিভাবান মানুষের আগমন ঘটেছে ।  তারা তাদের প্রতিভার দ্যুতিতে সমাজ সংসারকে আলোকিত করেছেন । এ সকল প্রতিভাবানরা আপন কর্মের মাধ্যমে নিজেদেরকে যেভাবে অমর করে রেখেছেন তেমনি সমাজ কিংবা রাষ্ট্রকে দিয়েছেন সঠিক গন্তব্যের দিশা । তবে সব ক্ষেত্রে কিছু কিছু ব্যতিক্রম নিয়ে সমাজ ব্যবস্থা গড়ে ওঠে । এটা শ্বাশ্বত । সমাজে মানুষ বিভিন্নভাবে প্রতিষ্ঠা পেতে পারে । মানুষের সে প্রতিষ্ঠার মাধ্যম যেমন ইতিবাচক হতে পারে তেমনি নৈতিবাচকও হতে পারে । শুধু রাজনৈতিক অঙ্গন ব্যতীত অন্য সকল ক্ষেত্রে মানুষকে প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে প্রতিষ্ঠিত হতে হয় । তবে রাজনৈতিক অঙ্গনেও দু’ভাবেই মানুষ প্রতিষ্ঠা পেয়ে যায় ।... continue reading

৪১৪

ম. গ. রেজওয়ান

৫ বছর আগে লিখেছেন

কেন ইসলামের পথে এসেছি

ইমরান খান তার নিজের মতামতে লিখেছেন-জেনারেশন এমন এক সময়ে বড় হয়েছে, যখন উপনিবেশ যুগের জের ছিল তীব্র। আমাদের আগের বযস্ক জেনারেশনটা ক্রীতদাসের মতো আচরণ পেয়েছিল এবং ব্রিটিশদের ব্যাপারে ভুগত হীনম্মন্যতায়। যে স্কুলে পড়তাম, তা পাকিস্তানের অন্য সব এলিট স্কুলের মতোই ছিল। স্বাধীনতা অর্জনের পরও এসব প্রতিষ্ঠান ‘পাকিস্তানি’ নয়, ‘পাবলিক স্কুল বয়’ তৈরি করছে।

আমি স্কুলে শেক্সপিয়রের সাহিত্য পড়েছি, যা চমৎকার। কিন্তু জাতীয় কবি আল্লামা ইকবালের লেখা তো পড়িনি। ইসলামিয়াতের ক্লাসকে তেমন গুরুত্ব দেয়া হতো না। যখন স্কুলজীবন শেষ হলো, আমাকে দেশের এলিটদের একজন বলে গণ্য করা হতো। এর কারণ আমি ইংরেজি বলতে পারতাম আর পাশ্চাত্যের পোশাক পরতাম। আমার নিজস্ব... continue reading

৪২৫

গোলাম মাওলা আকাশ

৫ বছর আগে লিখেছেন

জাতীয় শোক দিবস ও প্রকাশ ভঙ্গি

জাতীয় শোক দিবস ও প্রকাশ ভঙ্গি
------------------------------ ------
বর্তমান ঢাকা শহর শোকের নগরী। তাই শহরের  রাস্তায় বের হলেই এখন  ওয়ালে, মোড়ের বিদ্যুৎ খাম্বায়  জাতীয় শোক দিবসের ব্যানার,ফেস্টুন বা ওয়ালে ওয়ালে চটকদার সব কাগজে ছাপা রঙ্গিন পোস্টার/ ফেস্টুন খুব চোখে লাগছে। কোন কোন এলাকার নেতা নেত্রীরা তাদের হাসিমুখে তোলা বিশাল বিশাল ছবি সহ তাদের গডফাদার নেতা( স্থানীয় মন্ত্রী বা এমপি)র হাসিমুখে তোলা ছবি সঙ্গে বঙ্গবন্ধু (সাদাকালো /রঙ্গিন) ও প্রধানমন্ত্রীর এক খানা ছবি সহ  তাদের ডিজিটাল ব্যানার রাস্তার মোড়ে মোড়ে সভা বর্দ্ধন করে চলেছে। এই সব পোস্টার এর শিল্প মান তো বাঁধই দিলাম শোকের ছায়াও খোঁজা অবান্তর। হাসিমুখে এ সব... continue reading

৪৫৯

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

কিউবান রাজনৈতিক নেতা ও সমাজতন্ত্রী বিপ্লবী, লৌহ মানব ফিদেল কাস্ত্রোর ৮৮তম জন্মবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা

বিংশ শতাব্দির মহানায়ক, সমাজতন্ত্রী বিপ্লবী কিউবান রাজনৈতিক নেতা ফিদেল কাস্ত্রো। স্নায়ুযুদ্ধ এবং বিশ্বব্যাপী মার্কিন নেতৃত্বাধীন পুঁজিবাজদের জয়জয়কারের মধ্যেও সমাজতান্ত্রিক কিউবাকে টিকিয়ে রেখে সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের প্রবাদ পুরুষ হিসেবে পরিচিতি পান তিনি। ১৯৫৩ সালে সশস্ত্র দল নিয়ে মনকাডা আর্মি ব্যারাকে হামলা করেন কাস্ত্রো। মনকাডা হামলায় অভিযুক্ত হিসেবে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে ফিদেল যে জবানবন্দি দিয়েছিলেন তার মধ্য দিয়ে কিউবার রাজনৈতিক সংকট এবং তার সমাধানের পথ-নির্দেশ করেন তিনি। তার এ বক্তৃতা আলোড়ন তোলে গোটা কিউবায়, জননায়কে পরিণত হন ফিদেল। বিচারে তার ১৫ বছরের কারাদণ্ড হলেও প্রবল জনমতের কাছে মাথা নত করে দুই বছরের মাথায় তাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হন বাতিস্তা। ১৯৫৯ সালে সশস্ত্র বিপ্লবের... continue reading

৬৩২