Site maintenance is running; thus you cannot login or sign up! We'll be back soon.

"রসরচনা" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

লুৎফুর রহমান পাশা

৫ বছর আগে লিখেছেন

নক্ষত্রের জন্য ব্যনার আহবান

গ্রাফিক্স ডিজাইনার সহ সকল ব্লগাদের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। নক্ষত্র এর জন্য বর্ষার ব্যনার তৈরী করে দিন। সেই সাথে নিজের নাম সংযুক্ত করে দিবেন। মনোনিত হলে আমরা ব্যনারে সেট করে দেবো। সুতরাং আজই শুরু করুন। এই বর্ষার জন্য মনমাতানো সুন্দর ব্যনার করে পাঠান। পিএসডি আকারে অথবা সম্পুর্ণ ব্যনারটি ইমেজ আকারে পাঠাতে পারেন।
ব্যনার পাঠাবেন pasha0191@yahoo.com  এই মেইলে। continue reading

৪৩৪

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

সর্দারজির গল্প

চার সর্দারজি মিলে একটা পেট্রল পাম্প খুলল ।
কিন্ত একটাও গাড়ি তেল নিতে এল না ।
কেন ?
পেট্রল-পাম্প দোতলার ওপর ছিল ।
এরপর তারা সেখানেই রেস্তোরাঁ খুলল ।
কিন্ত এবারো কোন খদ্দের এল না ।
কেন ?
কেননা তারা পেট্রল-পাম্পের সাইনবোর্ড খুলে রেস্তোরাঁর সাইনবোর্ড লাগায়নি ।
এরপর চারজন মিলে একটা ট্যাক্সি কিনল । কিন্ত একটাও প্যাসেঞ্জার আসলো না ।
কেন ?
গাড়ির সামনের সিটে দুজন আগে আর দুজন পেছনের সিটে বসে প্যাসেঞ্জার খুঁজছিল ।
এবার ট্যাক্সি গেল খারাপ হয়ে । চারজন মিলে খুব ধাক্কা দিল । কিন্ত ট্যাক্সি একটুও সরল না ।
কেন ?
দুজন আগে থেকে দুজন পেছন... continue reading

৫১৫

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

নাসিরুদ্দিন হোজ্জার গল্প

১)
কে বেশি পেটুক
নাসিরুদ্দিন হোজ্জার বাড়িতে তাঁর কিছু বন্ধু এসেছেন। অতিথিদের তরমুজ দিয়ে আপ্যায়ন করলেন হোজ্জা। বন্ধুদের সঙ্গে খেতে বসলেন হোজ্জা নিজেও।
হোজ্জার পাশেই বসেছিলেন তাঁর এক দুষ্টু বন্ধু। তরমুজ খেয়ে খেয়ে বন্ধুটি হোজ্জার সামনে তরমুজের খোসা রাখছিলেন। খাওয়া শেষে দেখা গেল, হোজ্জার সামনে তরমুজের খোসার স্তূপ।
দুষ্টু বন্ধুটি অন্যদের বললেন, ‘দেখেছেন কাণ্ড? হোজ্জা কেমন পেটুক? তার সামনে তরমুজের খোসার স্তূপ হয়ে গেছে’!
হোজ্জা হেসে বললেন, ‘আর আমার বন্ধুটির সামনে দেখছি একটা খোসাও নেই! উনি খোসাশুদ্ধ খেয়েছেন! এখন আপনারাই বলুন, কে বেশি পেটুক!’
২)
স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর জন্য ওষুধ
হোজ্জা একবার স্মৃতিশক্তি বাড়ানোর জন্য এক হেকিমের... continue reading

১২২৫

মেঘ আবির

৫ বছর আগে লিখেছেন

বিশ্বর এক নম্বর চলচিএ

বাংলাদেশ আর কয়দিন পর বিশ্বর এক নম্বর চলচিএ নির্মাতা হবে ৷ সাবানার চলচিএগুলো দেখে আগে বালিশের নিচে মাথা ডুকায়ে কাদতাম ৷ আর আজ অনেকদিন পর বাংলার অনন্ত জলিলের অসম্ভবকে সম্ভব করা নিঃস্বার্থ ভালোবাসা দেখে মনে হলো মিঃ বিন এর মারকেট মনে শেষ হয়ে যাবে এভাবে কয়দিন চললে ৷ continue reading

১৪১৭

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

সর্দারজির কৌতুক

সর্দারজি হেলিকপ্টার নিয়ে আকাশে উড়েছেন। চালক তিনি নিজেই। কিছুক্ষণ ওড়ার পর হেলিকপ্টারটি ধপাস করে নিচে পড়ে গেল। ভাগ্যক্রমে প্রাণে বেঁচে গেলেন সর্দারজি। হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার খবর পেয়ে সাংবাদিকেরা ছুটে এলেন। সর্দারজিকে জিজ্ঞেস করলেন, আচ্ছা, কী ঘটেছিল বলুন তো? ঘটনা তেমন কিছু নয়। ওপরে খুব ঠান্ডা লাগছিল, তাই হেলিকপ্টারের ফ্যানের সুইচটি বন্ধ করে দিয়েছিলাম। সর্দারজির জবাব।


সর্দারজি ও বান্তার মধ্যে ইভ টিজিং নিয়ে কথা হচ্ছে—
বান্তা: জানিস, ইভ টিজিং যে হারে বেড়ে গেছে, তাতে মেয়েদের বাইরে বের হওয়া দায় হয়ে গেছে।
সর্দারজি: হুম্ম, ঠিকই বলেছিস।
বান্তা: এটা রোধ করার উপায় কী বল তো?
সর্দারজি: আমি... continue reading

৪৮২

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

গোপাল ভাড়-৪

ঘাড়ে-চড়া জাঁত   একদিন গোপাল রাজবাড়িতে ঢুকতে যাচ্ছে এমন সময় দেখল একজন ভিখারি ভিক্ষার আশায় ঢুকছে । গোপাল দেখল যে সে কোন নিচু জাঁত । আর একে মহারাজ দেখলে ভিক্ষা দিবেন না। গোপাল বলল -, তোর জাঁত কিরে ?          বলল- ' বাবু, চণ্ডাল ।'   গোপাল তাকে বলল- 'মহারাজের কাছে এই পরিচয় দিলে তোকে ভিক্ষা দেবেনই না বরং লোক দিয়ে তোকে বের করে দেবে । শোন -তোর জাঁত জানতে চাইলে তুই বলবি আমি ঘাড়ে চড়া জাঁত।          ভিখারি দরবারে উপস্থিত হতেই মহারাজ তাকে তার জাঁত জিজ্ঞাসা করল ।            গোপালের শিখানো কথাই লোকটি নির্ভয়ে বলল। 
মহারাজ এই উত্তর শুনে ভীষণ চটে গেলেন। তিনি বললেন তোর সাহস তো কম নয় । তুই... continue reading

৫৬৮

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

প্রখ্যাত বাঙালি ঐতিহাসিক স্যার যদুনাথ সরকার ৫৬তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

স্বনামধন্য বাঙালি ইতিহাসবিদ স্যার যদুনাথ সরকার। ভারতবর্ষের ইতিহাস রচনায় বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে গবেষণার ক্ষেত্রে স্যার যদুনাথ সরকার ছিলেন পথিকৃৎ। এ কারণে দেশবাসী তাকে আচার্য হিসাবে সহজেই বরণ করে নিয়েছিলেন। বেশ কয়েকটি ভাষার ওপর তার ছিল অগাধ পাণ্ডিত্য। সত্যনিষ্ঠ, তথ্যসমৃদ্ধ ও প্রামাণিক ইতিহাস রচনার জন্যই মূলত তিনি উর্দু, ফারসি, মারাঠি ও সংস্কৃত ভাষা শিক্ষা লাভ করেন। তিনিই প্রথম ফ্রান্সের প্যারিসে অবস্থিত জাতীয় গ্রন্থাগারে মীর্জা নাথান রচিত বাহরিস্তান-ই-গায়বী- এর পাণ্ডুলিপি খুঁজে পান। পরবর্তীতে তিনি এ বিষয়ে বিভিন্ন জার্নালে বাংলা এবং ইংরেজিতে প্রবন্ধ রচনা করেন। ১৯২৬ সালে বৃটিশ সরকার তাঁকে সি আই ই এবং ১৯২৯ সালে ‘নাইটগুড’ (স্যার) খোতাবে সম্মানিত করেন। দীর্ঘ কর্মময় জীবন... continue reading

৯০৬

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

জিপিএ ভাবনা (কবিতা)

জিপিএ ভাবনা
নূর মোহাম্মদ নূরু

হাজার লাখো ছাত্র-ছাত্রী পরীক্ষাতে পাস,
জিপিএর ছড়া ছড়ি ব্যাপক উল্লাস।
হাজার স্কুল পাশ করেছে নিয়ে শত ভাগ,
প্রশ্নবিদ্ধ জিপিএতে বাড়ছে শুধু রাগ।

পিতা মাতা প্রশ্ন খুঁজে পরীক্ষার আগে,
জিপিএটা যদি জোটে ছেলে মেয়ের ভাগে।
জিপিএর মর্যাদা তাই গেছে ক্ষুন্ন হয়ে,
ফাঁস করা প্রশ্নপত্রে পরীক্ষাটা দিয়ে।

আগে ছিলো বিভাগ শ্রেনী এখন তা জিপিএ,
সোনা রূপা মিলে মিশে এক হয়েছে গিয়ে।
তাইতো এখন সোনা রূপা রাংতা দিয়ে মোড়া,
বাজারেতে বিকাচ্ছে তা গাধার দামে ঘোড়া।

এমনি করে দিনে দিনে কমছে শিক্ষার মান,
জিপিএতে... continue reading

৪৭২

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

সর্দারজির কৌতুক

।।১।। মাঝরাতে সরদারজির ফোন এল ডাক্তারের কাছে।
সরদারজি: ডাক্তার সাহেব, আমার স্ত্রীর অ্যাপেন্ডিক্সে প্রচণ্ড ব্যথা হচ্ছে।
ডাক্তার: উফ্, মাঝরাতে উল্টাপাল্টা কথা বলে বিরক্ত করবেন না। ঘুমান।
একটু পর আবার সরদারজির ফোন।
সরদারজি: ডাক্তার সাহেব, অ্যাপেন্ডিক্সের ব্যথায় আমার স্ত্রী ঘুমাতে পারছে না।
ডাক্তার: আরে বোকা, গত বছর যখন ব্যথা হলো, আমি নিজে অপারেশন করে আপনার স্ত্রীর অ্যাপেন্ডিক্স ফেলে দিয়েছি। একজন মানুষের দুটা অ্যাপেন্ডিক্স হয়, কখনো শুনিনি।
সরদারজি: কিন্তু একজন মানুষের দুটো স্ত্রীর কথা নিশ্চয় শুনেছেন।  
।।২।। ছুটি কাটাতে হ্রদের ধারে বেড়াতে গেছেন সরদারজি। হ্রদের টলমলে পানি দেখে খুব লোভ হচ্ছিল তাঁর, কিন্তু কুমিরের ভয়ে পানিতে... continue reading

৫৬৫

মুন জারিন আলম

৫ বছর আগে লিখেছেন

বউ কথা কও পাখির ডাকে কয়না কথা বউ(রসরচনা)

একটা হালকা লেখা হোক আজকে।মনটা হয়ে  আছে ভারী আমার  বোনগুলির  দূঃখে।
মেয়েরা এ মেসেজ তোমাদের জন্য  না। এ মেসেজ তোমাদের স্বামী, হবু স্বামী, বয় ফ্রেন্ড এর জন্য। যাদের নিস্পৃহ, নির্জীব বাবহার দেখে মাঝে মাঝে মেয়েরা মনক্ষুন্ন হও আর আল্লাহ এর কাছে বল দুঃখ করে আমার স্বামী এত কম রোমান্টিক কেন? সেই সব কম রোমান্টিক স্বামী, প্রেমিক তাদের জন্য।
আমি পারসন হিসাবে অনেক রোমান্টিক মনের ।তো আজকে আমার বোনদের দুঃখ দেখে আমি একটা স্টেপ নিতে বাধ্য হলাম আল্লাহ এর কাছে বলছি পৃথিবীর সব ছেলেদের extra curricular একটিভিটিস এর মধ্যে তারা যেন romance আর প্যাশন এর অ্যাড করে দেয়। আমি আমার কাছে থেকে সব রোমান্টিকতা ফু দিয়ে পৃথিবীর সব কম রোমান্টিক ছেলেদের দিকে ছড়িয়ে দিলাম।যাতে... continue reading

১৫ ১০৮৯