Site maintenance is running; thus you cannot login or sign up! We'll be back soon.

"রসরচনা" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

দেওয়ান কামরুল হাসান রথি

৫ বছর আগে লিখেছেন

নিখোঁজ বিমানের ধ্বংসাবশেষ অন্ধ্র উপকূলে

হারিয়ে যাওয়া মালয়েশিয়ার প্লেন নিয়া যা খেলা শুরু হইলো তা বাংলা সিনেমা কেও হার মানায়। প্রথম কইলো এটা দুর্ঘটনা পাওয়া যাইতে পারে ভিয়েতনাম সাগরে এ তারপর কইলো চায়নাতে তারপর শুনলাম বাংলাদেশ এ। আবার কইলো এটা নাকি পাকিস্তানে নামানো হইছে। আবার শুনলাম পাইলটরা নাকি আত্মহত্যা করছে। আবার শুনলাম আকাশে নাকি এটা ধ্বংস হয়ে গেছে। আবার প্লেনের অনেক যাত্রীর আত্মীয়রা দাবী করছে তারা নাকি প্লেন থেকে কল ও পেয়েছে।

এই মাত্র দেশী একটি অনলাইন নিউজ থেকে জানলাম " নিখোঁজ বিমানের ধ্বংসাবশেষ নাকি অন্ধ্র উপকূলে পাওয়া গিয়েছে "

আবারো পত্রিকা বিক্রির প্রোপ্যাগান্ডা। ডক্টর জোসেফ গোয়েবলস বেঁচে থাকলে আজকে... continue reading

৩৮৪

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

হোজ্জার গল্প

১।
বিবির পিড়াপিড়িতে নাসিরুদ্দিন একটা গরু কিনল। কিন্তু গরু ও গাধার জন্য গোয়াল ঘরে পর্যাপ্ত যায়গা না থাকায়, একটা ঘুমালে আরেকটাকে দাড়িয়ে থাকতে হতো।
প্রিয় গাধার এই দুরবস্থা দেখে হোজ্জা একদিন খোদার কাছে প্রার্থনা করছে, "হে আল্লাহ, দয়া করে গরুটাকে মেরে ফেল যাতে আমার গাধাটা একটু আরাম করে ঘুমাইতে পারে" ।
পরদিন সকালে সে গোয়াল ঘরে গিয়ে দেখে যে গাধাটা মরে পরে আছে।
প্রানপ্রিয় গাধার মৃত্যতুতে হতাশ হয়ে হোজ্জা বিরস বদনে আকাশের দিকে তাকায়ে বলল, "কোন অভিযোগ করবনা, খোদা, কিন্তু তুমি এতদিন ধরে সারা দুনিয়ার মালিক হয়েও, কোনটা গরু কোনটা গাধা এইটা চিনলানা!"
 
২।

নাসিরুদ্দিন... continue reading

৪৬৬

মাহবুবুন নূর মেহেদী

৫ বছর আগে লিখেছেন

টি২০ টিকেট রস

আসছে টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপে আমার মত অনেকেই টিকেট পাননি। তাই যারা টি টুয়েন্টি স্টেডিয়ামে বসে দেখতে চান কিন্তু টিকেট কাটতে পারেন নি তাদের জন্য কিছু টিপস-

১. বিশাল বড় দুটি বাঁশ নিজের পায়ের সাথে বাঁধুন এরপর স্টেডিয়ামের পাশে কাউকে বলুন বাঁশ দুটি পুতে দিতে; ব্যস খেলা দেখতে থাকুন।

২. কয়েকজন মিলে একটা হেলিকপ্টার ভাড়া নিয়ে খেলা দেখতে পারেন।

৩. পুলিশের ড্রেস বানিয়ে নিজে পুলিশ হয়ে ঢুকে পড়ুন।

৪. আপনার বয়ফ্রেন্ডকে টিকেট যোগাড় করতে বলুন।

৫. খবর ছড়ান চিড়িয়াখানা থেকে বাঘ পালিয়েছে। দেখবেন স্টেডিয়ামে আপনি ছাড়া আর কেউ নেই।

৬.... continue reading

৪৩৭

দেওয়ান কামরুল হাসান রথি

৫ বছর আগে লিখেছেন

ফেসবুক করলো আমার সর্বনাশ

ঘুমে চোখখান ভাইঙ্গা আইবার লাগতাছে , মাগার ইন্টারনেটের নেশা এমন নেশা ল্যাপটপ থেইক্কা মনখানা উঠবারি চায়না । মন কয় আর একটু বহি, ঘুমাইয়া বা কি কাম করুম ? কালকা দেরি কইরা উঠলে কোন হালায় আবার কি কইবো । কালকে না বন্ধ ,তার চেয়ে বইয়া বইয়া বেবাক রকম সাইটে একটু যাই । দেহি দুই একখান মাইয়াগো লগে কথা কউন যায় নাকি। মাগার যে মাইয়াগুলারে পছন্দ কইরা ফেইসবুকে অ্যাড মারছি , মনে হয় বেবাক মাইয়া ফেক আইডি । আবার দুই একখান যদি আসল পাই , একবারে বাইংমাছের মতন খালি পিছলায় যাইবার চায় । খালি কয় ভাইয়া চলেন না একদিন নান্দস অথবা... continue reading

৪৬০

রাজু আহমেদ

৫ বছর আগে লিখেছেন

শেখ হাসিনা ও খালেদা জিয়ার কথার খুঁনসুঁটি

 
  ইসলামী শরীয়তে কথা বলার ব্যাপারে কতগুলো মানদন্ড স্বয়ং আল্লাহ তা‘য়ালা এবং তার প্রিয় বন্ধু মানবতার মুক্তির দিশারী নির্ধারণ করে দিয়েছেন । কথা বলার মাপকাঠি কেমন হবে সে ব্যাপারে পবিত্র কুরআন মাজীদে আল্লাহ তা‘য়ালা অনেকগুলো আয়াত এবং আল্লাহর রাসুল (সাঃ) হাদীসে নববীতে অনেকগুলো হাদীস বর্ননা করেছেন । কুরআন মাজীদে সূরা আন-নজমের ৪নং আয়াতে স্বয়ং সৃষ্টিকর্তা বলেন,“(হযরত মুহাম্মদ সাঃ) নিজ প্রবৃত্তি থেকে কোন কথা বলেন না । তিনি যা কিছু বলেন তার সবটাই ঐশী প্রত্যাদেশ” । মানবতার মুক্তির দুত সর্বশেষ এবং সর্বশ্রেষ্ঠ রাসূল (সাঃ) তার পবিত্র জবানে ঘোষণা করেছেন, “যে চুপ থাকে সে মুক্তি পায়”। এছাড়াও প্রবাদ আছে, “ব্যক্তির কথা তার জ্ঞানের... continue reading

৪৩১

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

নাসিরুদ্দিন হোজ্জার গল্প

এক লোকের বউয়ের সাথে খুব ঝগড়াঝাটি হতো। বঊটি ছিলো ভীষণ ঝগড়াটে।কোনদিন সে তার স্বামীকে সুখে থাকতে দিতো না।
একদিন সেই ভদ্রলোক কোন উপায় না দেখে কিছু পয়সা ও জামাকাপড় পোঁটলায় বেঁধে কোথাও চলে যাওয়ার জন্য মনস্থ করে রাস্তায় বেরিয়ে পড়লো।
নাসিরুদ্দিন সেই লোকটিকে মুখ ভার করে রাস্তার ধারে এমনভাবে বসে থাকতে দেখে প্রশ্ন করলেন, ' তোমার কী হয়েছে? কেন তুমি এমনভাবে রাস্তার ধারে বসে আছো?'
লোকটি বললো, 'জীবন একেবারে বিষের মত হয়ে গেছে আমার স্ত্রীর জন্য মোল্লা সাহেব! হাতে কিছু পয়সা আছে বটে কিন্তু মনে সুখ নেই। তাই দেশে দেশে ঘুরতে বেরিয়েছি। যেখানে কোন সুখের সন্ধান পাব,... continue reading

৪৭৫

ইসমাইল হোসেন

৫ বছর আগে লিখেছেন

হাসির কৌতুক

।।১।।

লিটল জনি পাহাড়ের সর্বোচ্চ চুড়ায় উঠে ইশ্বরকে ডাকাডাকি শুরু করলো।
ইশ্বর ও ইশ্বর!!! শুনছো!
কি হয়েছে আমার প্রিয় জনি?
তোমার কাছে ১ কোটি বছর মানে কতক্ষন?
আমার কাছে ১ কোটি বছর হলো ১ মিনিট।
ও, আচ্ছা তোমার কাছে ১০০০ কোটি টাকা মানে কত পয়সা?
১০০০ কোটি টাকা আমার কাছে তো ১ পয়সারও কম।
তাইলে তুমি আমাকে ১টা পয়সা দাওনা। প্লিইইজ।
মাত্র ১ পয়সা!! ঠিক আছে বাছা। জাস্ট ১ মিনিট ওয়েট করো।
-এই বলে ইশ্বর অদৃশ্য হলেন।
 
।।২।।

খালেদা জিয়া, শেখ হাসিনা, এরশাদ ও একজন নাগরিক প্লেনে করে... continue reading

১২২৮

শাহআজিজ

৫ বছর আগে লিখেছেন

উদ্ধার অভিযান

ছ্যাকা খাওয়া প্রেমিকা
বইমেলায় পেয়ে একা
জুৎসই ধরে আমার কলার
ঝড়ের বেগে বলে গেল যা ছিল বলার ।
এর পরে দাতে দাত রেখে বলল
ক’খানা বই এ বেলায় বেরুলো
ভণ্ডামি আর জোচ্চুরিতে থাকবে ভরা
অথবা ডাইরেক্ট কপি পেস্ট করা !
তারপরে কাঁদো কাঁদো স্বরে
‘বলো ছাড়লে আমায় কি অপরাধে’
বিব্রত ভীষণ আমি , বিস্মিত
চারিদিকে দেখছি তড়িৎ দৃষ্টিতে
আবার দেখে না ফেলে ভক্তকুল
যাবেনা বোঝানো ওদের প্রেমে ছিল ভুল!
করেছিলাম ডিলিট এক্কেবারে ট্রাশ বীণে
কন্ট্রোল জেডে আবারো এসেছে ফিরে
ভাগ্যিস তুলেছি রিকশায় চলতি প্রেমিকাকে
নাহলে আম ও ছালা যেত দুটোই এই দিবালোকে ।
... continue reading

৩৫৪

মোঃ ফাহাদ খন্দকার

৫ বছর আগে লিখেছেন

কেবলি তাহারে বলি...

 
 পথের মধ্যে কুকুর দের হাতের বিস্কুট আছে এমন ভঙ্গিমা ধরলে তারাও পিছু পিছু আসে। যতক্ষণ তাদের খালি হাত না দেখানো হয় ঠিক ততক্ষণই তারা ঘুরে। এক সময় তারা চলে ও যায় নিরাস হয়ে।
 
“এ ডাইমন্ড রিং ক্যান ইন্সপাইয়ার এ ব্রেক থ্রু”। এই কথার সারমর্ম উপরে সুন্দরভাবে পরিস্ফুটন করা হয়েছে। একটা স্থল-জ্যান্ত উদাহরন দিতে মন চাইছে না কিন্তু দিতেই হচ্ছে কারন আমি এখন কারো বাপের ব্যটির সাথে বর্তমান নই।
 
উদাঃ ধরেন, আমার জিএফ(গ্রেট ফ্রেন্ড)-কে যদি কোন এক স্থানীয় বিল গেট্‌স এর ছেলে সেই বিস্কুট তত্ত্ব শিখিয়ে পড়িয়ে নিয়ে যায়। সেখানে আমার মত উদীয়মান ফকিরের কিছুই করার নাই।... continue reading

৬২৭

বাসুদেব খাস্তগীর

৫ বছর আগে লিখেছেন

আমার বন্ধু নরেন

 
আমার বন্ধু নরেন ,
যেদিক বৃষ্টি সেদিক ছাতা ধরেন।
‘যখন যাহার জোর চলে
থাকবে তাহার গলে গলে
চলো যদি উল্টো পথে
সুখ পাবে না কোন মতে’
এই হলো তার পরামর্শ,
ভেবেই কাটান সারাবর্ষ।
নাই সুবিধা যেথা,
নরেন নাইরে সেথা।
পাল্লা যেদিক ভারী হয়
নরেন সেদিক বসে রয়,
হঠাৎ হঠাৎ সরেন,
আমার বন্ধু নরেন,
যেদিক বৃষ্টি সেদিক ছাতা ধরেন।
দল বদলের খেলাটাতে
কেউ পারে না তার সাথে
বলো যদি ‘মন্দ লোক’
সে বলে তোর ‘অন্ধচোখ’।
চলছে রে যুগ এই ভাবে
এখন ব্যবসা শুধু লাভে।
লাভ ছাড়া সে কারও
ধারবে নাতো ধারও।
সূত্রটি তার লাভেতে
আর কিছু নাই ভাবেতে,
‘যা বলি তা করেন’
বলেন বন্ধু নরেন
যেদিক বৃষ্টি সেদিক ছাতা ধরেন।
continue reading

৪১৮