"বিবিধ" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

বাংলা ভাষার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কথাসাহিত্যিক, ঔপন্যাসিক ও গল্পলেখক তারাশংকর বন্দোপাধ্যায়ের ৪৪তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি


বাংলা ভাষার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কথাসাহিত্যিক, ঔপন্যাসিক ও গল্পলেখক তারাশংকর বন্দোপাধ্যায়। ছোট বা বড় যে ধরনের মানুষই হোক না কেন, তারাশঙ্কর তাঁর সব লেখায় মানুষের মহত্ত্ব ফুটিয়ে তুলেছেন, যা তাঁর লেখার সবচেয়ে বড় গুন। সামাজিক পরিবর্তনের বিভিন্ন চিত্র তাঁর অনেক গল্প ও উপন্যাসের বিষয়। তাঁর লেখায় বিশেষ ভাবে বীরভূম-বর্ধমান অঞ্চলের সাঁওতাল, বাগদি, বোষ্টম, বাউরি, ডোম, গ্রাম্য কবিয়াল সম্প্রদায়ের কথা পাওয়া যায়। সেখানে আরও আছে গ্রাম জীবনের ভাঙনের কথা, নগর জীবনের বিকাশের কথা। আজ এই ঔপন্যাসিক ও গল্পলেখকের ৪৪তম মৃত্যুবার্ষিকী। ১৯৭১ সালের আজকের দিনে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক তারাশংকর বন্দোপাধ্যায়ের মৃত্যুদিনে আমাদের শ্রদ্ধাঞ্জলি।


তারাশংকর বন্দোপাধ্যায় ১৮৯৮ সালের... continue reading

৭০৪

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

গণ চীনের অবিসংবাদিত মহান নেতা কমরেড মাও সেতুং এর ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি


সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা এবং গণ চীনের বিপ্লবী নেতা, মার্কস্‌বাদী তাত্ত্বিক ও রাজনৈতিক নেতা কমরেড মাও সেতুং। জন্ম নয়, কর্মটাই মুখ্য। কর্মের কারণেই – জন্মের র্সাথকতা, বা তার র্ব্যথতা। কিছু কিছু জন্ম র্সাথক হয়ে গড়ে ওঠে এমন এক সত্তা, যা তার মৃত্যুকেও ছাপিয়ে তার ব্যাপ্তিকে পৌঁছে দেয় এক নতুন উচ্চতায়। যে সত্তা আজীবন বিপ্লবী, মানব মুক্তির সংগ্রামে যে সত্তা সদা জীবন্ত। এমনই এক সত্তা কমরডে মাও সেতুঙ।মার্কসবাদ-লেনিনবাদে তার তাত্ত্বিক অবদান। সমর কৌশল এবং তার কমিউনিজমের নীতি এখন একত্রে মাওবাদ নামে পরিচিত। মাও ছাত্রজীবন থেকেই রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তবে ২৪ বছর বয়সে রাজধানী পিকিংয়ে গমন এবং মার্কস তত্ত্বের... continue reading

৬৮৯

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

ত্রিকালদর্শী-বিরল ব্যক্তিত্ব প্রগতিবাদী কথাসাহিত্যিক, সাংবাদিক আবু জাফর শামসুদ্দীনের ২৬তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি


ভাষা সংগ্রামী, প্রগতিবাদী কথাসাহিত্যিক, বহুকাল দর্শী-বিরল ব্যক্তিত্ব সাংবাদিক আবু জাফর শামসুদ্দীন। ধর্ম নিরপেক্ষ, বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও সমাজতান্ত্রিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থায় বিশ্বাসী একজন প্রগতিশীল লেখক। সাহিত্যচর্চার পাশাপাশি তিনি কর্মজীবনে ছিলেন প্রতিষ্টিত সাংবাদিক। উপন্যাস, ছোট গল্প ও মননশীল প্রবন্ধ লিখে তিনি খ্যাতি অর্জন করেন। ১৯৫২ সালে তিনি ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। সাহিত্য ও সাংবাদিকতায় অবদানের জন্য তিনি বহু পুরস্কার পেয়েছেন। এরমধ্যে সাহিত্যে বাংলা একাডেমী পুরস্কার ও সাংবাদিকতায় অবদান রাখায় ১৯৮৩ সালে একুশে পদক উল্লেখযোগ্য। কীর্তিমান এই গুণী মানুষ ১৯৮৯ সালের আজকের দিনে তি্নি মৃত্যুবরন করেন। আজ তার ২৫তম মৃত্যুবার্ষিকী। প্রগতিবাদী কথাসাহিত্যিক আবু জাফর শামসুদ্দীনের মৃত্যুবার্ষিকীতে গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি।


১৯১১... continue reading

৫৭০

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪০তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে আমাদের শ্রদ্ধাঞ্জলি


আজ শোকাবহ ১৫ আগস্ট। সপরিবারে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার কলঙ্কিত দিন। জাতীয় শোক দিবস। বাঙালির ইতিহাসে কালিমালিপ্ত ১৯৭৫ সালের এই দিনে স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি ও স্বাধীনতা-সংগ্রামের মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কয়েকজন চক্রান্তকারী সেনা সদস্যের হাতে সপরিবারে নিহত হন। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সময় তাঁর কন্যাদ্বয় বিদেশে অবস্থান করার কারণে বেঁচে গেলেও বঙ্গবন্ধুর তিনজন পুত্রই ঐ রাতে বিপদগামী সামরিক কর্তকর্তাদের হাতে নিহত হন। তাঁর জ্যেষ্ঠ কন্যা বর্তমানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দ্বায়িত্ব পালন করছেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহা নায়ক হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪০তম শাহাদাৎ বার্ষিকী আজ। আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী... continue reading

১০৪৪

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতা জগতের এক উজ্জল নক্ষত্র নির্মল কুমার সেন গুপ্তের ৮৫তম জন্মবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা


সূর্য সেনের সহযোগী, আপসহীন সাংবাদিক, মুক্তিযোদ্ধা, সারা জীবন মানুষের জন্য কাজ করে যাওয়া বাম রাজনীতিবিদ নির্মল কুমার সেন গুপ্ত। যিনি নির্মল সেন নামে সমাধিক পরিচিত। একজন সুসাহিত্যিক ও ক্ষুরধার কলামিস্ট হিসেবে নির্মল সেনের ছিল বিপুল জনপ্রিয়তা। সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতা জগতের এক উজ্জল নত্র নির্মল সেনের শৈশবকাল থেকেই লেখালেখির হাত ছিল। নির্মল সেন সাংবাদিক ছিলেন। হ’তে চান নি। হ’য়ে গেছেন। আসলে ছিলেন রাজনীতিক। ছিলেন ছাত্র আন্দোলনে, পরে শ্রমিক আন্দোলনে সক্রিয়। তার চেয়েও বেশি ছিলেন রূপান্তরের রূপকার – সমাজের, দেশের। অষ্টম শ্রেণীতে পড়ার সময় হাতে লেখা ‘কমরেড’ পত্রিকায় তিনি লিখতেন। ১৯৭২-৭৩ সালে নির্মল সেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও ১৯৭৩-৭৮ সাল পর্যন্ত... continue reading

৬২৫

রুদ্র আমিন

৪ বছর আগে লিখেছেন

বন্ধুর বন্ধন টিকে থাক চাঁদ সুরুজের মতো অটুট

বন্ধুত্বের গাঢ়তা হয়তো আজও জন্মায়নি কারন বন্ধুত্ব কি, বন্ধুত্বের সাথে বন্ধুর কি কি সম্পর্কের মিশ্রণ থাকতে হয় সেই জ্ঞান আমার নেই। অকপটে এতোটুকুই বলতে পারি কারো থেকে আমার মুখ লুকাতে পারিনি। কথায় বলে থালা বাসন পাশাপাশি থাকলে ঝংকারের শব্দ কর্ণ স্পর্শ করবেই। তাই বলেই যে থালা বাসুন তার স্বস্ব অবস্থানে থাকবে না সেটা ভাবাটাই ভুল।
আসলে এই জীবনে কেউ বন্ধুত্বের সংজ্ঞা দিতে পারবে কী না জানা নেই। বন্ধুত্বের খাঁটি সংজ্ঞা কেউ দিতে পারবেনা। ছোটবেলা থেকে শুনে এসেছি এক জীবনের চেয়েও বড় নাকি বন্ধু! কিন্তু আজ নতুন করে ভাবতে হচ্ছে বন্ধুত্ব বলতে সত্যি কি কিছু আছে? একটা সময় ছিল বন্ধুর... continue reading

৩৩২৪

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

বাংলা গদ্য সাহিত্যের জনক, সমাজ সংস্কারক ও গদ্যকার ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের ১২৪তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি


উনিশ শতকের বিশিষ্ট বাঙালি শিক্ষাবিদ, সমাজ সংস্কারক ও গদ্যকার ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর। যাঁরা অতীতের জড় বাধা লঙ্ঘন করে দেশের চিত্তকে ভবিষ্যতের পরম সার্থকতার দিকে বহন করে নিয়ে যাবার সারথি স্বরূপ, বিদ্যাসাগর সেই মহারথীগণের একজন অগ্রগণ্য ছিলেন। বিবিধ বিষয়ে অগাধ পাণ্ডিত্যের জন্য তিনি প্রথম জীবনেই লাভ করেন বিদ্যাসাগর উপাধি। সংস্কৃত ছাড়াও বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় বিশেষ ব্যুৎপত্তি ছিল তাঁর। ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর সনাতন বিশ্বাসের সমাজ ব্যবস্থায় প্রচলিত বর্ণপ্রথার বিরুদ্ধেও অবস্থান গ্রহণ করেছিলেন। তিনি কুসংস্কার রোধে শুধু জনসচেতনতা তৈরি করেননি, উদাহরণও তৈরি করেছেন। বিধবা নারীর সঙ্গে তিনি ছেলের বিয়ে দিয়েছিলেন। একইসঙ্গে তিনি বাল্যবিবাহের বিপক্ষেও প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। নারী মুক্তির লক্ষ্যে তিনি নারীদের শিক্ষার প্রতি... continue reading

১১২৯

হামি্দ

৪ বছর আগে লিখেছেন

বিভ্রম বিলাস

অবশ চেতনায় বিভ্রম বিলাস!
বিষণ্ন দৃষ্টি বহুরঙ্গা বুদবুদে!
জ্বলে জ্বলে উড়ে চলা রঙিন ফানুস!
হুঁশ তার ফিরবে কি, নি:শেষ হওয়ার অাগে? continue reading

৫৫৯

সোহেল আহমেদ পরান

৪ বছর আগে লিখেছেন

আবেগীয় বুদ্ধিমত্তাঃ কর্মক্ষেত্রে এর ভূমিকা

আবেগীয় বুদ্ধিমত্তা (Emotional Intelligence ) এর জনক হিসেবে ধরা হয় ড্যানিয়েল গোলম্যানকে। ১৯৯৫ সালে গোলম্যান কর্তৃক পরিচিতি লাভ করার পর সংশ্লিষ্ট মহলে এটি একটি জনপ্রিয় ও বহুল ব্যবহৃত শব্দ হিসেবে বিবেচ্য হয়ে ওঠে। তুলনামূলকভাবে ইমোশনাল ইন্টেলিজেন্স এর ধারণাটি নূতন; কিন্তু তা শক্ত বৈজ্ঞানিক ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত। আবেগীয় বুদ্ধিমত্তা হলো নিজের আবেগকে বুদ্ধিমত্তার সাথে ব্যবহার করা।
একেবারে সংক্ষেপে, একলাইনে বলতে গেলে- আবেগীয় বুদ্ধিমত্তা বলতে নিজের ও অন্যদের আবেগকে বুঝা এবং তা ম্যানেজ করার ক্ষমতাকে বুঝায়। অন্যকথায় বলা যায়, আবেগীয় বুদ্ধিমত্তা হচ্ছে একজন ব্যক্তির সেই মানসিক সামর্থ্য, যার মাধ্যমে সেই ব্যক্তি নিজেকে সুন্দরভাবে ম্যানেজ করতে পারে, আশপাশের অন্যান্যদের সাথে সলফলতার সাথে আচরণ... continue reading

৩৬৫

শামিম রহমান আবির

৪ বছর আগে লিখেছেন

ব্লগের এডমিন ও ব্লগারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি!!!

 

 
 
আমার ব্লগিং জীবনের শুরু প্রথম আলো ব্লগের হাত ধরে । সেই প্রথম থেকেই আমার নিকট প্রথম আলো ব্লগ যে অসাধারণ ভালো লাগা নিয়ে এসেছিলো তা দিনকে দিন বেড়েই চলছিলো। চলছিলো বলছি কারণ- প্রথম আলো ব্লগ বন্ধ হয়ে গেছে। নানামুখী টানাপোড়েনের মধ্য দিয়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতে ব্লগ বিতর্কিত হয়ে উঠেছে তা বুঝি। আমি আমার সাথের বেশ কয়েকজন শক্ত লেখককে ব্লগ মডেরেটেশনের গাফেলতির কারণে (যদিও ব্যাপারটির সাথে জাতীয় স্বার্থ জড়িত বলে আমি মডারেটরদের কাঠগড়ায় দাঁড় করাবো না) ব্লগ ছেড়ে চলে গেছেন কিংবা ব্লগ বিমুখ হয়ে গিয়েছেন। রয়ে গেছে কিছু আগাছা। অবশ্য এর মধ্যেও যে কিছু মানিক-রতন... continue reading

৫৭৬