Site maintenance is running; thus you cannot login or sign up! We'll be back soon.

"বিবিধ" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

নিকুম সাহা

১ বছর আগে লিখেছেন

যে দেশগুলিতে কোনও আয়কর দিতে হয় না

মোনাকো: জিডিপি’র নিরিখে এই দেশ বিশ্বের সবচেয়ে ধনী দেশগুলির মধ্যে একটি। মোনাকোয় বসবাসকারী যে কোনও দেশের নাগরিকের জন্য আয়করে সম্পূর্ণ ছাড় রয়েছে। তবে ১৯৫৭ সালের পর থেকে কোনও ফরাসি নাগরিকদের ক্ষেত্রে এই নিয়মটা ভিন্ন। তাঁদের আয়কর দিতে হয়।
কেম্যান দ্বীপপুঞ্জ: বিশ্বের অন্যতম ধনী সার্বভৌম এই ছোট্ট দেশের নাগরিকদের জন্যও আয়কর ছাড়ের পরিমাণ ১০০ শতাংশ।
সৌদি আরব: এই দেশের অর্থনীতি সম্পূর্ণ তেল ব্যবসার উপর নির্ভরশীল। এ দেশেও নাগরিকদেরও সরকারকে কোনও রকম আয়কর দিতে হয় না।
সংযুক্ত আরব আমিরশাহি: বিশ্বের ধনীতম দেশগুলির মধ্যে অন্যতম হলেও এ দেশের নাগরিকদের কোনও আয়কর দিতে হয় না।
বাহামা দ্বীপপুঞ্জ: এ দেশের ৬০ শতাংশ অর্থনীতি পর্যটনের... continue reading

২৫১

রব্বানী চৌধুরী

১ বছর আগে লিখেছেন

মুঘোল সম্রাট বাবরের সমাধী কাবুলের “বাগ-এ-বাবর”-এর আড়ালের কথা

 
ছবিটি উইকিপিডিয়া থেকে সংগ্রহিত)
সম্রাট বাবরের অন্তিম ইচ্ছা অনুযায়ী তাঁকে কাবুলে সমাহিত করা হয়, আফগানিস্থানের রাজধানী কাবুলের “ বাগ-এ-বাবর” -এ সম্রাট বাবরের সমাধী অবস্থিত।
বর্তমানের উজবিকাস্থানের আনদিযান নামক স্থানে জন্ম গ্রহন কারী চেঙ্গিস খান ও তৈমুর লঙের উত্তরসূরী জহিরুদ্দিন মুহম্মদ বাবর ১৫২৬ সালে দিল্লীর লোদী বংশীয় সর্বশেষ সুলতান ইব্রাহিম লোদীকে প্রথম পানিপথের যুদ্ধে পরাজিত করে মুঘল সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেছিলেন এবং কাবুল আক্রমণ করে কাবুলের শাসন ভার গ্রহন করেন। । এই সময় তিনি ভারত আক্রমণের পরিকল্পনা করেন। ১৫২৬ সালে পাণিপথের প্রথম যুদ্ধে ইব্রাহিম লোদিকে পরাজিত করে মুঘল সাম্রাজ্যের সূচনা করেন।
যদিও সম্রাট বাবার একটি উল্ল্যেখ সময় কাবুল ও দিল্লিতে... continue reading

২৭৮

রব্বানী চৌধুরী

১ বছর আগে লিখেছেন

সমাধি রেখায় মুঘল সম্রাজ্য

Timurid dynasty নামে খ্যাত মুঘল সম্রাজ্যের প্রথম সম্রাট বাবরের আমল থেকে শুরু করে শেষ মুঘল সম্রাট বাহাদুর শাহ্ পর্যন্ত মুঘল সম্রাজ্যের সীমানা কতটুকু ছিল তা নিঁখুত ভাবে বলা মুশকিল তবে মোটামুটি ভাবে বলায় সম্রাট বাবর থেকে সম্রাট বাহাদুর শাহ্ এর মুঘল সম্রাজ্যের বিস্তৃতি ছিল আফগানিস্থানের কাবুল থেকে শুরু করে মূলতঃ বর্তমান ভারেতের উত্তর অংশ, পাকিস্থান ও বাংলাদেশ। মুঘল সম্রাটগন ভারতের কাবেরী নদীর দক্ষিন পাশে বর্তমান ভারেতের কেরালা ও তামিল নাডু প্রদেশ ও বাংলাদেশের বর্তমানের তিন পার্বত্য জেলা মুঘল সম্রাজ্যের বা মুঘল ঝান্ডার আওতার বাইরে ছিল।
সমাধি রেখায় মুঘল সম্রাজ্য নামে পোষ্টটিতে মুঘল সম্রাজ্যে তাঁদের সমাধি স্থল দিয়ে মুঘল সম্রাজ্যের... continue reading

৩৮৪

রব্বানী চৌধুরী

১ বছর আগে লিখেছেন

শুভ হোক মধ্য শরৎ........................................।

আজ পহেলা আশ্বিন, আশ্বিনের প্রথম দিন, আমাদের প্রাণের ঋতু শরৎ- এর মধ্য কাল, বাংলা মাসের ভাদ্র ও আশ্বিন মিলে আমাদের শরৎ কাল, গতকাল বিদায় নিয়েছে শরৎ এর সঙ্গী ভাদ্র মাস।
ষড় ঋতুর এই দেশে এবার ঋতুতে বেশ বৈচিত্রতা ছিল, চিরাচরিত বিশাল খোলা আকাশের মাঝে খন্ড খন্ড সাদা মেঘের যেমন ভেলা ছিল আবার ছিল শ্রাবণের দিনের মত ঘন কালো মেঘ, অনেক সময় ছিল কড়া রৌদ্র ও ছায়ার খেলা, ছিল এই বৃষ্টি এই রোদ।
শরৎ এর প্রথম ভাগে বর্ষার অনেক বৈশিষ্ট ছিল- কখনও আকাশ ঢেকে ছিল কালো মেঘে, অ-ঝরে বৃষ্টি ধারা, শ্রাবণের দিনের মত, এর পরে ছিল প্রকৃতির নিয়মে মেঘেরা... continue reading

৩৪২

শাহআজিজ

১ বছর আগে লিখেছেন

টিপু সুলতান: ইতিহাসের নায়ক নাকি খলনায়ক

“ভদ্রমহিলা ও ভদ্রমহোদয়গণ, ভারতবর্ষের মৃত আত্মাকে স্মরণ করে আমি পান করছি”
১৭৯৯ সালের ৪ মে। ভারতে ক্রমসম্প্রসারণশীল বৃটিশ সাম্রাজ্যের পরিচালক ব্যক্তি রিচার্ড ওয়েলেসলি যখন ‘মহীশূরের বাঘ’ টিপু সুলতানের মৃত্যু সংবাদ শুনতে পান তখন এমনই একটি মন্তব্য করেন। অন্তত ভগবান এস গিদোয়ানীর তার ‘দ্য সোর্ড অব টিপু সুলতান’ বইতে এমনটাই উল্লেখ করেছেন। শুধু তাই নয়, টিপুর মৃত্যুর পর “গোটা ভারতবর্ষই এখন আমাদের” এমন একটি মন্তব্যও ওয়েলেসলি করেন বলে জানা যায়।
টিপুর মৃত্যুসংবাদ শুনে ওয়েলেসলির করা দুটি মন্তব্য শুনেই বোঝা যায়, ভারতে বৃটিশ সাম্রাজ্যের সম্প্রসারণে সবচেয়ে বড় বাধাগুলোর একটি ছিলেন টিপু সুলতান। ভারতের বেশিরভাগ অংশেই আজও তাকে সেভাবেই দেখা হয়।
অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষ... continue reading

৩৩২

শাহআজিজ

২ বছর আগে লিখেছেন

যে জাদুর কাঠির ছোঁয়ায় বদলে গেল প্রযুক্তি জগত

১৪ই ফেব্রুয়ারি ১৯৪৬ সাল, পুরো প্রযুক্তি জগত অধীর উত্তেজনায় অপেক্ষা করছে সর্বপ্রথম ডিজিটাল কম্পিউটারটি দেখার জন্য। সকল অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে সামনে আসলো ENIAC (Electronic Numerical Integrator And Computer)। যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর অর্থায়নে এ যন্ত্রটি নির্মিত হয়েছিল অস্ত্র প্রযুক্তিতে প্রয়োজনীয় গাণিতিক হিসাব নিকাশের জন্য। এটি ছিল রীতিমতো দৈত্যাকার একটি যন্ত্র।
এক লাখেরও বেশী যন্ত্রপাতির দ্বারা গঠিত এই মেশিনটির ওজন ছিল তিরিশ টনেরও বেশী। আর আয়তনের কথা শুনলে তো রীতিমতো ভিরমি খেতে হয়, এটি প্রায় ১০০ ফুট লম্বা, ৩ ফুট চওড়া আর ১০ ফুট উচ্চতার একটি বস্তু ছিল। ইনিয়াক যখন প্রথম চালানো হয়, গোটা পশ্চিম ফিলাডেলফিয়ার বাতিগুলা তখন টিমটিমে হয়ে গিয়েছিলো।... continue reading

২২০

শাহআজিজ

২ বছর আগে লিখেছেন

ঠগী: উপমহাদেশের এক ভয়ঙ্কর খুনী সম্প্রদায়

ঠগীরা ছিল ভারতবর্ষের এক নিষ্ঠুর খুনী সম্প্রদায়
ঠগ একটি সংস্কৃত শব্দ যা থেকে ঠগী শব্দটি উদ্ভূত। শাব্দিকভাবে এর অর্থ ধোঁকাবাজ, প্রতারক। বাংলা অভিধানে ঠগী বলতে বিশেষ শ্রেণীর এক দস্যু দলকে বোঝায় যারা পথিকের গলায় রুমাল বা কাপড় জড়িয়ে হত্যা করে। ঠগীরা ছিল ভারতবর্ষের একটি বিশেষ শ্রেণীর খুনী সম্প্রদায়। এদের মতন নিষ্ঠুর আর নিপুণ খুনীর দল পৃথিবীতে শুধু নয়, ইতিহাসেই বিরল।
ঠগীরা ১৩ থেকে ১৯ শতকে বাংলাসহ উত্তর ভারতে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। তারা যত মানুষ হত্যা করেছে, পৃথিবীর ইতিহাসে তা নজিরবিহীন। কেবল ১৮৩০ সালেই ঠগীরা প্রায় ৩০,০০০ মানুষ হত্যা করেছে।
১৩৫৬ সালে ঐতিহাসিক জিয়াউদ্দীন বারানি লিখিত ‘ফিরোজ শাহর ইতিহাস’ গ্রন্থে... continue reading

৪৫০

তাহমিদুর রহমান

২ বছর আগে লিখেছেন

যে বইগুলো পড়ে চেঞ্জ করতে পারেন নিজের জীবন

মানব জীবনে বই অনেক মূল্যবান সম্পদ। এর গুরুত্ব উপেক্ষা করতে পারবে না কেউই। এই বই আমাদের হাসায়, এই বই আমাদের কাঁদায় আবার এই বই আমাদের নতুন করে বহুকিছুই ভাবতে শিখায়। এই বই পারে আমাদের জীবনের অনেক হতাশাকে দূর করতে, আমাদের জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিতে, আমাদের জীবনকে আরও সুন্দর ও অর্থবহ করতে।
০০। দ্য পাওযার অব ইউর সাবকনশাস মাইন্ড - জোসেফ মারফি
০১। দ্য পাওয়ার অব্‌ পজিটিভ থিংকিং- নরম্যান ভিনসেন্ট পিল
০২। দ্য স্যাভেন হ্যাবিটস অফ হাইলি এফেক্টিভ পিপল- স্টিফেন আর. কোভি
০৩। দ্য এলকেমিষ্ট- পাওলো কোৱেলহো
০৪। তুমিও জিতবে - শিব খেরা
০৫। লা-তাহযানঃ হতাশ হবেন না- ড. আইদ আল কারণী
০৬।... continue reading

১৭৭৩

ওয়াসীম সোবাহান চৌধুরী

২ বছর আগে লিখেছেন

সম্রাট আকবরের বশ্যতা অস্বীকার করা ঈসা খাঁ

পরাক্রমশালী সম্রাট আকবরের বশ্যতা অস্বীকার করে বীরদপে সোনারগাঁও থেকে জঙ্গলবাড়ী, সরাইল থেকে রংপুর এলাকায় বিরাজ করা বীরের নাম ঈসা খাঁ। তিনি মোগলদের আক্রমণকে বারবার প্রতিহত করেছেন এবং আকবরের কাছ থেকে সম্মান অর্জন করে নিয়েছেন নিজ স্বকীয়তায়। আকবরের শাসনামলে ভারতের প্রায় সকল এলাকা মোগল কর্তৃত্বে এলেও বাংলাকে পুরোপুরি কব্জা করা যায়নি তেজস্বী ঈসা খাঁর সাহসীকতায়।
ঈসা খাঁর পিতা ছিলেন কালিদাস গজদানী। তিনি ষোড়শ শতাব্দীতে বাংলাদেশে ব্যবসা বানিজ্য করতে আসেন। এক সময় তিনি মুসলমান হন এবং নাম পরিবর্তন করে সোলায়মান খাঁ রাখেন। মূলত ব্যবসা করে সোলায়মান খাঁ প্রচুর টাকা পয়সা, বিত্ত বৈভব অর্জন করেন। পরে তিনি সুলতান গিয়াসউদ্দিন মাহমুদ শাহের মেয়েকে বিয়ে... continue reading

৩২৬

ওয়াসীম সোবাহান চৌধুরী

২ বছর আগে লিখেছেন

সুলতান গিয়াসউদ্দিন আজম শাহ

সময় ১৩৮৯ সাল। বাংলার ক্ষমতায় তখন ইলিয়াস শাহী রাজবংশ। সুলতান সিকান্দার শাহ দ্বিধাদন্ধে আছেন কাকে মনোনীত করবেন পরবর্তী সুলতান হিসাবে। এই সময় গিয়াসউদ্দিন আজমের আবির্ভাব। তিনি সুলতান সিকান্দার শাহ এর প্রথম পুত্র। গিয়াস উদ্দিন আজমের সৎ মা কৌশলে ক্ষমতা নিতে চাইছিলেন। সৎ মা ও সৎ ভাইদের দ্বারা চুড়ান্ত প্রাসাদ ষড়যন্ত্রের স্বীকার হন গিয়াসউদ্দিন আজম। এক পর্যায়ে বাবা সুলতান সিকান্দার শাহ কে জানান হয় যে গিয়াস উদ্দিন আজম  বিষ প্রয়োগে তাকে হত্যা করে সিংহাসন লাভের চেষ্টা করছেন। সুলতান সিকান্দার শাহ আর গিয়াসউদ্দিন আজমের দূরত্ব বাড়তে থাকে। 
সংঘাত আসন্ন কিন্তু দুইপক্ষ শেষ চাল দেবার আগে কালক্ষেপণের সিধান্ত নেয়। এক সময় গিয়াসউদ্দিন আজম খবর... continue reading

৩১২