"নারী" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

ম. গ. রেজওয়ান

৪ বছর আগে লিখেছেন

ফেরাউনের এক দাসী ছিল

ফেরাউনের এক দাসী ছিল। সে কালেমা পরে গোপনে মুসলমান হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু মানুষের ঈমান বেশি সময় গোপন থাকে না। দাসীর ঈমান ফাঁস হয়ে যায়। ফেরাউন তাকে দরবারে তলব করে। দাসীর দুইটি কন্যা সন্তান ছিল । একটি দুগ্ধপোষ্য,অপরট ি বড়। ফেরাউন তেল  সংগ্রহ করায়। কড়াই আনায়। তারপর আগুই জালিয়ে কড়াইয়ে তেল ঢেলে গরম করতে থাকে। তেল ফুটতে শুরু করল।
ফেরাউন দরবারে বসিয়ে দাসীকে বলল,''পথ দুটি। মূসার  খোদাকে অস্বীকার কর অন্যথায় এই ফুটন্ত  তেল বরণ করে নাও। আগে তোমার সন্তান  দুটোকে টগবগে তেলে নিক্ষেপ করব,পরে তোমাকেও। মূসার খোদাকে বাদ দিয়ে আমাকে মেনে নেও, আমি তোমার জীবনটা জান্নাতে পরিণত করে দিব। বলো তোমার সিদ্ধান্ত কি?'' দাসী বলল,''এরা তো আমার দুটি সন্তান মাত্র। যদি আরো সন্তান থাকত,তুমি যদি তাদের সব জনকে ফুটন্ত  তেলে নিক্ষেপ করতে,তবুও আমি... continue reading

৫২০

ফাতেমা সুমিন

৪ বছর আগে লিখেছেন

নারীর চাকরি ছাড়ার যত কারণ

চাকরিটা সোনার হরিন। সোনার হরিন হাতে পাওয়ার পর সোনার হরিনের কারণে যদি ব্যক্তিগত জীবন বিষাদে পরিণত হয় তাহলে অনেক নারী চাকরি ছেড়ে দেন।
অধিকাংশ অফিসে মাতৃত্বকালীন ছুটি দেয়া হয় না। দিলেও পুরো ছয় মাস দেয়া হয় না। এসব কারণে অনেক নারী চাকরি ছেড়ে দেন। এছাড়া মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষে সন্তানের দেখভালের কেউ না থাকায় সন্তানের সুস্বাস্থ্য ও ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে অনেক নারী কর্মক্ষেত্রে আর যোগদান করেন না।
বিয়ের পর স্বামীর বাড়ির লোকজন বিশেষ করে শ্বশুড়-শ্বাশুড়ি চায় না ছেলের বউ চাকরি করুক। স্বামীর বাড়ির লোকজনের অসহযোগীতা এবং সংসারের শান্তির কথা ভেবে অধিকাংশ নারী চাকরি ছেড়ে দেন।
চাকরি করে অনেক... continue reading

৫২৬

মেঘলা মেয়ে

৪ বছর আগে লিখেছেন

২০১৪ সালে যারা নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন

১১৩ বছর যাবত প্রদান করা হচ্ছে নোবেল পুরস্কার। প্রতিবছর নির্ধারিত ৬ টি বিষয়ে অসাধারণ অবদানের জন্য প্রদান করা হয় নোবেল পুরস্কার। এসব বিষয়ে একে সর্বোচ্চ সম্মানজনক এ পদক ধরা হয়। 

১. চিকিৎসা বিজ্ঞানে নোবেল 
মস্তিষ্কের জিপিএস পদ্ধতির আবিষ্কারের জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার লাভ করছেন ৩ বিজ্ঞানী। ৬ অক্টোবর এ এ্যাওয়ার্ড ঘোষণা করা হয়।
বৃটেনভিত্তিক গবেষক প্রফেসর জন ওকেফে, মে-ব্রিট মোসার এবং এডভাসী মোসার যৌথভাবে এ পুরস্কারের অধিকারী হন। আমরা কোথায় আছি এবং এক স্থান থেকে অন্যস্থানে অবস্থানের দিকনির্দেশনায় মস্তিষ্ক কীভাবে কাজ চালিয়ে যেতে সক্ষম হয় ওই তিন বিজ্ঞানী তা আবিষ্কার করেন। গবেষণায় প্রাপ্ত এ তথ্য আলঝেইমারের (বয়স্ক... continue reading

৫৬৯

রাজু আহমেদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

আজ কোথাও নারী পূর্ণ নিরাপদ নয়

রাষ্ট্রযন্ত্রের উন্নতি-অ্গ্রগতিতে পুরুষের সমতুল্য অবদান রেখে চলেছে বর্তমান সময়ের সাহসী নারীরা । প্রাচীন যুগে নারীদের উপর বিভিন্ন বিধি-নিষেধ আরোপ করে তাদেরকে চার দেয়ালে বন্দি করে রাখা হলেও আজ নারীরা সে অবস্থায় নেই । নারী শিক্ষার অগ্রসরতার কারনে সৃষ্ট সচেতনতা তাদেরকে আলোর পথে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছে । বিশ্বের অন্যান্য দেশের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশের নারীরাও প্রতিনিয়ত পুরুষের অনুরূপ কাজ করে চলছে । বিশ্বের যে জাতি যত বেশি উন্নতি করেছে সে জাতির উন্নতির অন্তরালে নারীদের প্রেরণা থেকে শুরু করে বিভিন্ন ক্ষেত্রে নারীর সামগ্রিক অবদান অনস্বীকার‌্য । সংকীর্ণ মানসিকতা, কুসংস্কার এবং কিছু ক্ষেত্রে ধর্মের অপব্যাখ্যার কারনে নারীরা একটা সময় পুরুষের তুলনায় অনেক... continue reading

৪৪৬

ম. গ. রেজওয়ান

৪ বছর আগে লিখেছেন

ফাঁসির মঞ্চ থেকে মাকে রেহানার শেষ চিঠি:পৃথিবী আমাদের চায় না

রেহানা জাব্বারি। ইরানের এই নারীকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছে। বয়স হয়েছিল ২৬ বছর। ধর্ষণ এড়াতে আততায়ীর বুকে ছুরি বসানোর অপরাধে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয় ইরানের সুপ্রিম কোর্ট। রেহানার ফাঁসির আদেশের বিরোধিতা করে গোটা বিশ্বের অজস্র মানবাধিকার সংগঠন। প্রাণভিক্ষার আবেদন জানায় দুনিয়ার অনেক মানুষ। আর মেয়ের বদলে তাকেই ফাঁসিতে ঝোলানোর মিনতি করেছিলেন রেহানার মা শোলেহ। কিন্তু কোনো কিছুতেই কান দেয়নি সরকার। ভোরের আলো ফুটতে না ফুটতেই নিভিয়ে দেওয়া হয় ছাব্বিশের তরতাজা জীবনদীপ। মৃত্যুর আগে মাকে শেষ চিঠি লিখে গেছেন রেহানা। হৃদয় নিংড়ানো সেই চিঠিতে মাকে শোকগ্রস্ত হতে বার বার বারণ করেছেন রেহানা। মৃত্যুকে তিনি অভিহিত করেছেন নিয়তির বিধান হিসেবে, তবে সে জন্য... continue reading

৫৯১

সাবরিন সামিহা অহনা

৪ বছর আগে লিখেছেন

ব্রণের চিকিৎসায় কাঁচা হলুদের জাদু

ব্রণ সারাতে হলুদের মতন চমৎকার প্রাকৃতিক উপাদান খুব কমই আছে। ব্রণের ইনফেকশন কমানো হতে শুরু করে ব্রণের দাগ দূর করা পর্যন্ত হরেক রকম ব্যবহার আছে এর। নিম্নে রইলো সেগুলোর মাঝে কয়েকটি।   ১)ব্রনের প্রচুর ব্রণ ওঠে তাদের জন্য কাঁচা হলুদ জাদুর মতো কাজ দেয়। ব্রনের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে কাঁচা হলুদ বাটা, আঙ্গুরের রস ও গোলাপ জল মিশিয়ে ব্রনের উপরে লাগান। কিছু সময় পর ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ মিলিয়ে যাবে ও ইনফেকশন হবে না।   ২)কাঁচা হলুদ বেটে রস করে নিন। এই হলুদের রসের সাথে মুলতানি মাটি ও নিমপাতার রস এক সঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট করে ফেস প্যাকের মতন মুখে লাগান। প্যাক... continue reading

১৫৫৮

ডাক্তার দ্যা বৈজ্ঞানিক

৫ বছর আগে লিখেছেন

চুল পড়া রোধের পাঁচটি প্রাকৃতিক উপায় !!!

চুল পড়া বন্ধে বিউটি পার্লারে চিকিৎসা নেয়ার চেয়ে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার বেশি কার্যকর। কেননা পার্লারে নেয়া চিকিৎসা পদ্ধতি দ্বারা চুল পড়া সম্পূর্ণ বন্ধ করা সম্ভব নয়। তবে নিচে দেয়া সহজলভ্য কিছু পরামর্শের মাধ্যমে ঘরে বসে চুল পড়া রোধ করা যায়।
১. হালকা গরম তেল ব্যবহার। যে কোন প্রাকৃতিক তেল যেমন-জলপাই, নারিকেল তেল, কেনোলা তেল (বীজ জাতীয় উপাদান দিয়ে তৈরি) হালকা গরম করে নিন। এরপর তেলের সঙ্গে হালকা পানি মিশিয়ে তালুতে ধীরে ধীরে মেসেজ করুন। একঘণ্টা মাথায় রেখে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।
২. প্রাকৃতিক রস ব্যবহার। চুল পড়া রোধে রসুনের রস, পেয়াজ বা আদার রস মাথার তালুতে মাখুন। রাত্রে তা... continue reading

২০১০

এস আহমেদ লিটন

৫ বছর আগে লিখেছেন

নতুনের আগমন

নক্ষত্র ব্লাগে রেজিস্টার হলাম। পাক্কা দেড়টা বছর পর এলাম। হাতে তো বেশ জড়তা লাগছে আর মাথাই কিছুই আসছে না।কাস্তেই যেমন মরিচা পরে  তেমন-ই মরিচা পরে আছে মগজে। অথচ প্রতিদিন হাজার হাজার লেখার বিষয় মাথাই আস্ত।আসলে চর্চা না থাকলে এমনি হই। নিয়মিত চর্চায় সফলতার চাবিকাঠি। নিয়মিত চর্চা ছাড়া জীবনে যেমন সফলতা অর্জন করা যায় না, অনিমিত চর্চায় কিছুটা ধারনা থাকে কিভাবে কাজটি সমাধান করতে হবে। আচ্ছা বলুন তো কোন প্রকার ধারনা ছাড়া যদি কোন ব্যক্তিকে কোন প্রতিষ্ঠানের শী্‌র্ষে বসিয়ে দেয়া যায় কেমন হয়? একটি দেশের সবচে গুরুত্বপু্র্ণ প্রতিষ্ঠান হচ্ছে রাষ্ট্র আর এই রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব থাকে রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের উপর। অত্যান্ত দু:খ্যের... continue reading

৭০০

মেহেদি হাসান রাজু

৫ বছর আগে লিখেছেন

আমাদের আধুনিকতা এবং কয়েকজন নায়লা নাঈম

আমরা এক সৃষ্টিশীল জাতি। যত রকমের উল্টো-পাল্টা জিনিস আছে সেগুলোকে অনুকরণের অনেক রকম বাহানা আমরা সৃষ্টি করতে পারি। যত যা-ই হোক , আধুনিক হত হবে। আর আধুনিক হতে হলে আমাদের অন্তত সেই পথে অগ্রুদের পদাঙ্ক ( নাকি পদ-কলঙ্ক!! ) অনুসরণ করতেই হবে। এজন্যে আমরা বেছে নিতে পারি সুদূর হলিউডের সালমা হায়েক কিংবা মাইলি সাইরাসকে। অথবা কিম কারদেসিয়ানকে। তারা যে এক এক জন মস্ত বড় আইকন !  সেই লেভেলের নারী-স্বাধীনতার প্রতীক!
অথবা কেউ যদি তাদের অনুকরণ করতে ভয় পান এই ভেবে যে, এত্তো দূরের মানুষকে ফলো করব ? সব সময় তো খোঁজ রাখা সম্ভবও হবে না! তাহলে এখন কি... continue reading

৬৬১

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের অগ্নিকন্যা বিপ্লবী লীলা নাগের ১১৪তম জন্মবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা

লীলাবতী নাগ, লীলা নাগ বা লীলা রায় তিন নামেই তিনি পরিচিত। তিনি কে ছিলেন তা বর্তমান প্রজন্মের অনেকেই জানেন না। বিশ শতকের প্রথমার্ধে শুধু ঢাকা শহরেই নয়, পুরো বাংলায় অসামান্য মহিলা, রাজনিতীবিদ, সংগঠক হিসাবে যিনি খ্যাতি অর্জন করেছিলেন তিনি ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের অগ্নিকন্যা বিপ্লবী লীলা নাগ। তিনি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রথম ছাত্রী, সাংবাদিক এবং নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর সহকারী। উপমহাদেশের স্বাধীনতা ও নারী জাগরণের পথিকৃত, ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের বিপ্লবী নারী লীলা নাগ। তার পৈত্রিক বাড়ি মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের পাঁচগাঁও গ্রামে। লীলা রায় মহিলা সমাজে মুখপাত্র হিসেবে “জয়শ্রী” নামে একটি পত্রিকা প্রকাশ করে ছিলেন। লীলা রায় ছবি আঁকতেন... continue reading

৭৯৭