"ধর্ম ও দর্শন" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

মোঃ মাতীন পাগলা

৪ বছর আগে লিখেছেন

হযরত শাহ্‌ জালাল ইয়েমেনী রহমতুল্লাহি আলাইহি-এঁর সংক্ষিপ্ত জীবনী

বাংলাদেশ আসাম তথা বৃহত্তর বঙ্গ ইসলামের আলোকে আলোকিত করার  ক্ষেত্রে যাঁর নাম সবচেয়ে উজ্জ্বল এবং এদেশের সূফি, দরবেশ, আউলিয়াগণের মাঝে যাঁর প্রভাব ও মর্যাদা সবচেয়ে বেশী লক্ষ্যকরা যায়  তিনি  সুলতানুল বাংলা , হযরত মাওলানা শাহ্‌জালাল মুজার্‌রদ ইয়েমেনী রহমতুল্লাহি আলাইহি। এতদঞ্চল ধর্ম-বর্ণ,শ্রেণীনির্বিশেষে জন সাধারণের মাঝে তাঁর প্রতি ভালবাসা ও নামের মাহাত্ম ব্যাপক ও অতুলনীয়।
নামঃ হযরত শাহ্‌জালাল মুজার্‌রদ ইয়েমেনী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনার  পূর্ণ নাম জালালুদ্দীন জালালুল্লাহ্‌ রহমতুল্লাহি আলাইহি। আপামর জনসাধারণের মাঝে প্রচলিত নাম হযরত শাহ্‌জালাল রহমতুল্লাহি আলাইহি। ঐতিহাসিক ও জীবনীকারগণের তথ্যগত বিচ্যুতি ও মতভেদের কারনে হযরত শাহ্‌জালাল রহমতুল্লাহি আলাইহি ও শায়খ জালালুদ্দীন তাবরিজী রহমতুল্লাহি আলাইহি উনাদের জীবনেতিহাস নিয়ে দ্বন্ধ সৃষ্টি হলেও উপরোক্ত বিষয়ের আলোকে আমরা বলতে পারি যে হযরত শাহ্‌... continue reading

১০১৩

মোঃ মাতীন পাগলা

৪ বছর আগে লিখেছেন

খাজা মঈনুদ্দিন চিশতী রহঃ

হযরত খাজা মঈনুদ্দিন চিশতী (রঃ) হযরত মুহম্মদ (দঃ)-এর পরবর্তী সময়ে তার প্রচারিত ইসলামকে পৃথিবীতে ছড়িয়ে দেয়ার দায়িত্ব পালন করেন সূফী সাধকরা। তারা নিজেদের জীবনকে সংকটাপন্ন করে সুদূরে পাড়ি জমিয়েছেন এবং ইসলাম প্রতিষ্ঠিত করেছেন যথাযথভাবে। আল্লাহর ইচ্ছাই তাদের ইচ্ছায় পরিণত হয়েছে। তেমনি এক মহান সাধক হলেন হযরত খাজা মঈনুদ্দিন চিশতী (রঃ)। তিনি ধর্মাকাশের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তিনি তার সাধনার মাধ্যমে এই ভারতবর্ষে প্রতিষ্ঠিত করেছেন আল্লাহ ও রাসুলের ধর্মকে। হযরত খাজা মঈনুদ্দিন চিশতী (রঃ )-এর প্রতিষ্ঠিত তরিকাকে বলা হয় চিশতীয়া তরিকা। চিশতীয়া তরিকার আদি মুর্শিদ হলেন হযরত মুহম্মদ (দঃ)। রাসুল (দঃ)-এর আধ্যাত্মিক শিক্ষা হযরত আলী (কঃ) হয়ে হাসান-আল-বসরীর মাধ্যমে অধীনস্ত সিলসিলায়... continue reading

২৯৭২

রাজু আহমেদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

ইংরেজী ভাষা শিক্ষার কোন বিকল্প নাই

একটি মিথ দিয়ে আজকের লেখা শুরু করতে যাচ্ছি । আশা করি উদ্ধৃত মিথ দ্বারা পাঠক যেমন বাস্তবতা উপলব্ধি করবে তেমনি লেখার উদ্দেশ্যও কিছুটা সফল হবে । সময়টা ছিল বৃটিশদের শাসনের সময় । একজন বৃটিশ সাহেব ভারতীয় উপসমহাদেশে তাদের কোন একটি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করার জন্য তদন্তে আসলেন । যে প্রতিষ্ঠানটি বৃটিশরা প্রতিষ্ঠা করতে চাচ্ছে তা জনস্বার্থ বিরোধী তাই মুসলমানরা তার বিরুদ্ধে ব্যাপক আন্দোলনে ও জনমত তৈরি করার চেষ্টাও করেছিল । নির্দিষ্ট তারিখে বৃটিশ সাহেব তার বিশাল বাহিনী নিয়ে গন্তব্যে রওয়ানা হলেন কিন্তু পথিমধ্যে মুসলমানরা তার পথ রোধ করল । ইংরেজ সাহেব মুসলমানদের কাছে তাদের দাবীর কথা জিজ্ঞাসা করল । কিন্তু... continue reading

৪৩৩

মোঃ মাতীন পাগলা

৪ বছর আগে লিখেছেন

" হযরত বড় পীর আব্দুল কাদির জিলানী র: এর সংক্ষিপ্ত জীবনী "

জন্ম ও শৈশব :
ইসলামী জগতের প্রাতঃস্মরনীয় আধ্যাত্নিক ব্যক্তিত্ব,দরবেশকুল শিরোমনি, বড়পীর হযরত আব্দুল কাদির জিলানী র: ১লা রমজান হিজরী ৪৭০ বা ৪৭১ সালে পারস্যের এক বিখ্যাত জনপদ ‘জিলানে’ এ জনপদে জন্মগ্রহন করেন।তার বংশতালিকায় পিতা সাইয়্যিদ শায়খ আবু সালেহ র: এর একাদশতম উর্ধ্বতন পুরুষ হযরত হাসান র: এবং তার মাতা সাইয়েদেনা ফাতেমা র: এর চৌদ্দতম উর্ধ্বতন পুর্বপুরুষ ছিলেন হযরত ইমাম হোসেইন র:। এভাবেই তিনি পিতৃ সুত্রে হাসানী ও মাতৃ সুত্রে হোসাইনী বংশধারার উত্তরসুরী। আব্দুল কাদির জিলানী র: এর পিতা সাইয়্যেদ আবু সালেহ মুসা র: একজন বিশেষ পুন্যবান,কামেল ও বোযর্গ ব্যক্তি ছিলেন। সচ্চরিত্রতা ও আল্লাহ প্রেমের বিবিধ গুন তাহার মধ্যে বিরাজমান ছিল। যৌবন... continue reading

৭৫৭

রাজু আহমেদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

হেরে গেলাম আমরা; জিতে গেল নাস্তিক !

ইসলামের অন্যতম স্তম্ভ পবিত্র হজ্জ্ব এবং তাবলীগ জামাআত নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যকারী সাবেক মন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য লতিফ সিদ্দিকী দীর্ঘ দিন বিদেশে আত্মগোপন করে থাকার পর গত ২৩ নভেম্বর ভারত থেকে গোপনে দেশের মাটিতে পা রেখেছে । ভারতের একটি এয়ারলাইন্সে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পদার্পন করার পরে তিনি আন্ডার গ্রাউন্ডে চলে গেছেন । ডজন খানেক মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি থাকার পরেও আইনি বিধি-নিষেধের কারণে তাকে গ্রেফতার করা যাচ্ছে না বলে প্রশাসন জানিয়েছে । গ্রেফতার হওয়ার পরেও তার বিরুদ্ধে কি পরিমান শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে তা নিয়েও রয়েছে সন্দেহ । ইসলামের মৌলিক ভিত্তির উপর আঘাত করার পরেও তাকে পালানো... continue reading

৪৬২

রাজু আহমেদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

সহশিক্ষার বিরুদ্ধে ভাবার সময় কি এখনো আসেনি ?

লেখার শুরুতে সহশিক্ষা সম্পর্কে সাধারণ একটা ধারণা দেওয়া আবশ্যক মনে করছি । সহশিক্ষার প্রাথমিক সংজ্ঞায় বলা যায়, যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নারী-পুরুষ একত্রিত হয়ে একই ক্লাশরুমে পাশাপাশি বসে শিক্ষা অর্জন করে । প্রগতিশীলদের মতে সহশিক্ষা শিক্ষার্থীর মানসিক বিকাশে অনেক সহায়ক এবং এর বিরুদ্ধে যারা প্রচার চালায় তারা ধর্মান্ধ ও মধ্যযুগে বাস করে বলে মনে করা হয় । তাদের দাবী, আধুনিক যুগে সহশিক্ষার বিপক্ষে কোন মত গ্রহনযোগ্য নয় । লেখার শুরুতেই পাঠকদের জ্ঞাতার্থে নিশ্চয়তা দিচ্ছি ধর্মীয় কোন উদ্ধৃতি টেনে সহশিক্ষার বিরুদ্ধে কোন যুক্তি উপস্থাপন করা হবেনা । যদিও শুধু ইসলাম ধর্মেই নয় বরং অনেকগুলো ধর্মে সহশিক্ষার ব্যাপারে ভিন্নমত রয়েছে তবুও ধর্মের... continue reading

৩৯০

মোঃ মাতীন পাগলা

৪ বছর আগে লিখেছেন

ইহুদী জাতির পরিচয় :

ইহুদীজাতিরপরিচয় :
ইহুদীদেরপ্রধাননবীহলেনমূসা (আঃ),যারকিতাবহলতাওরাত।ইহুদীরাআল্লাহকেবিশ্বাসকরে, যারনামতাদেরকাছেজেহোভা।এখানথেকেইইহুদীনামেরউৎপত্তি।কারোমতে, ইহুদীদেরঅপরনামবনীইসরাঈল।ইসরাঈলমূলতইয়াকুব(আঃ)-এরঅপরনাম।তাঁরছিলোমোট১২জনসন্তান।১২ভাইয়েরবড়ইয়াহুদারনামানুসারেইবনীইসরাঈলকে ‘ইহুদী’বলাহয়।বনুইসরাঈলরাপথভ্রষ্টহয়েগেলেআল্লাহতাদেরহেদায়াতেরজন্যমূসা (আঃ)-কেতাওরাতসহপ্রেরণকরেন।বনীইসরাঈলেরউপরআল্লাহরছিলঅগণিতনিয়ামত, অফুরন্তঅনুগ্রহ।পবিত্রকুরআনে continue reading

৮৮০

ম. গ. রেজওয়ান

৪ বছর আগে লিখেছেন

ফেরাউনের এক দাসী ছিল

ফেরাউনের এক দাসী ছিল। সে কালেমা পরে গোপনে মুসলমান হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু মানুষের ঈমান বেশি সময় গোপন থাকে না। দাসীর ঈমান ফাঁস হয়ে যায়। ফেরাউন তাকে দরবারে তলব করে। দাসীর দুইটি কন্যা সন্তান ছিল । একটি দুগ্ধপোষ্য,অপরট ি বড়। ফেরাউন তেল  সংগ্রহ করায়। কড়াই আনায়। তারপর আগুই জালিয়ে কড়াইয়ে তেল ঢেলে গরম করতে থাকে। তেল ফুটতে শুরু করল।
ফেরাউন দরবারে বসিয়ে দাসীকে বলল,''পথ দুটি। মূসার  খোদাকে অস্বীকার কর অন্যথায় এই ফুটন্ত  তেল বরণ করে নাও। আগে তোমার সন্তান  দুটোকে টগবগে তেলে নিক্ষেপ করব,পরে তোমাকেও। মূসার খোদাকে বাদ দিয়ে আমাকে মেনে নেও, আমি তোমার জীবনটা জান্নাতে পরিণত করে দিব। বলো তোমার সিদ্ধান্ত কি?'' দাসী বলল,''এরা তো আমার দুটি সন্তান মাত্র। যদি আরো সন্তান থাকত,তুমি যদি তাদের সব জনকে ফুটন্ত  তেলে নিক্ষেপ করতে,তবুও আমি... continue reading

৫২০

মেঘ বলেছে যাব যাব

৪ বছর আগে লিখেছেন

পাঁচ ওয়াক্ত সালাতের সময়সূচী

প্রশ্ন: আসরের ওয়াক্ত কখন শেষ হয়? বিশেষ করে ঘড়ির কাঁটার হিসেবে?
মহান আল্লাহ্‌ রাব্বুল আলামীন তাঁর বান্দাদের উপর দিবানিশি মোট ৫ ওয়াক্ত সালাত ফরজ করেছেন। সাথে সাথে এগুলো আদায়ের জন্য তাঁর সুসামঞ্জস্যপূর্ণ হেকমত অনুযায়ী পাঁচটি সময়ও নির্ধারণ করে দিয়েছেন, যাতে করে বান্দাহ্‌ এ সময়ানুবর্তিতার মাধ্যমে তার প্রতিপালকের সাথে অবিচ্ছিন্ন সম্পর্ক বজায় রাখতে পারে। এটা মানব অন্তরের জন্য অনেকটা বৃক্ষের গোড়ায় পানি সিঞ্চনের মত বিষয়। বৃক্ষকে যেমন বেড়ে উঠার জন্য নিয়মিত পানি দিতে হয়; মানব অন্তরকেও স্রষ্টার ভালোবাসায় স্থিতিশীল থাকার জন্য নিয়মিত সালাতের আশ্রয় নিতে হয়। একবারে সব পানি ঢেলে দিয়ে যেমন বৃক্ষের সঠিক প্রবৃদ্ধি আশা করা যায় না, মানব... continue reading

৪২৫

মেঘ বলেছে যাব যাব

৪ বছর আগে লিখেছেন

দশটি হাদিস

১.
অনুবাদঃ
হযরত সাওবান (রাঃ) হতে বর্ণিত।তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (স) বলেছেন,দোয়া ব্যতীত কোনো কিছুই ভাগ্যকে পরিবর্তন করতে পারে না।আর পুণ্য ব্যতীত কোনো কিছুই আয়ুকে বৃদ্ধি করতে পারে না এবং কৃত পাপ ব্যতীত কোনো কিছুই ব্যক্তিকে জীবিকা থেকে বঞ্চিত করে না।(ইবনে মাজাহ)
_____
২.
অনুবাদঃ
হযরত আয়েশা (রাঃ) হতে বর্ণিত।তিনি বলেন,রাসূলুল্লাহ (স) বলেছেন,আমি জান্নাতে প্রবেশ করলাম অতঃপর সেখানে কুরআন পাঠ করতে শুনলাম।আমি জিজ্ঞেস করলাম,এ ব্যক্তি কে?ফেরেশতাগণ বললেন,হারেসা ইবনে নোমান (রাঃ)।তাই রাসূলুল্লাহ (স) বললেন,পুণ্যের প্রতিফল এরূপই,নেক কাজের বিনিময় এমনই।সে তার মায়ের সাথে সকল মানুষের তুলনায় সর্বোত্তম আচরণ করত।(শরহে সুন্নাহ ও বায়হাকী শোয়াবুল ঈমান গ্রন্থে বর্ণনা করেছেন)।অপর এক বর্ণনায় আছে,আমি জান্নাতে প্রবেশ করলাম-এর স্থলে,আমি... continue reading

৫২১