"দিনপঞ্জি" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

কাজলা দিদি কবিতার লেখক বিখ্যাত কবি যতীন্দ্রমোহন বাগচীর ৬৭তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

 
রবীন্দ্র পরবর্তী বাংলা সাহিত্যের একজন প্রধান সাহিত্যিক, কবি ও সাংবাদিক যতীন্দ্রমোহন বাগচী। যিনি কাজলা দিদি লিখে সকল পাঠকের হৃদয় স্পর্শ করেছেন। যতীন্দ্রমোহন বাগচী খুব অল্প বয়স থেকেই কাব্যচর্চা শুরু করেন। যতীন্দ্রমোহন ছিলেন রবীন্দ্রোত্তর যুগের শক্তিমান কবিদের অন্যতম। সেই যুগে রবীন্দ্রনাথের ভক্তের তুলনায় নিন্দুকের সংখ্যা ছিল অনেক বেশী। তখন যতীন্দ্রমোহনের মতো সাহসী তরুন বুদ্ধিজীবিরাই রবীন্দ্রনাথের জয়গান করে প্রকৃত আধুনিকতার পরিচয় দিয়েছিলেন। যতীন্দ্রমোহনের কবিতায় হাতে খড়ি তাঁর স্কুল জীবনে। তখন তিনি পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র। কিশোর বয়সেই বই পড়ার প্রতি তার তুমুল আগ্রহ। বাড়িতে তো পড়েনই স্কুলের গ্রন্থাগারে বসেও্র আপন মনে বই পড়ছেন। ১৮৯১ সালে যতীন্দ্রমোহন শুনতে পেলেন ঈশ্বচন্দ্র বিদ্যাসাগর আর নাই। ঈশ্বরচন্দ্র... continue reading

৯৭২

সুমন সাঈদ

৪ বছর আগে লিখেছেন

প্রথম পোষ্ট

আজ এই ব্লগে আমার প্রথম দিন।
সকল ব্লগার ভাই-বোনদেরকে শুভেচ্ছা জানালাম।
সকলের আজকের দিনটি ভালো কেটে যাক। continue reading

৫১৬

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

প্রতিষেধক বিদ্যার জনক, জীবানু গবেষক এডওয়ার্ড অ্যান্থনি জেনার এর ১৯২তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

ব্রিটিশ জীবাণু গবেষক এডওয়ার্ড অ্যান্থনি জেনার। তাঁকে বলা হয় ‘প্রতিষেধক বিদ্যার জনক’। স্মলপক্সের ভ্যাকসিন উদ্ভাবনের জন্য বিখ্যাত তিনি। আজ থেকে ৬০, ৭০ বছর আগেও বসন্ত ছিলো এক মারাত্বক আতঙ্ক। যখন কোনো গ্রামে বসন্ত দেখা দিতো, তা ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করতো, মহামারী আকারে মৃত্যুর কারণ ঘটাতো হাজার হাজার লোকের। বসন্ত রোগে আক্রান্ত হলে খুব কম লোকই বেঁচে উঠতো। যদিও বা কেউ কেউ প্রাণে বাঁচতো, কিন্তু সারা জীবনের জন্য শরীরে বয়ে বেড়াতে হতো সেই মারাত্বক রোগের বীভৎস ক্ষতচিহ্ন। এই কালব্যাধির হাত থেকে যে মহান ব্যক্তি রক্ষা করেছেন পৃথিবীর মানুষকে, তিনি হলেন বিখ্যাত বিজ্ঞানী এডওয়ার্ড অ্যান্থনি জেনার। তিনি সর্বপ্রথম ১৭৯৬ সালে ভ্যাক্সিন আবিষ্কার করেন। গুটি... continue reading

৫৩০

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

২৪ জানুয়ারি, ৬৯’র গণ-অভ্যুত্থান দিবসঃ ঐতিহাসিক এই দিনটিকে স্মরণ করছি গভীর শ্রদ্ধায়

আজ ২৪ জানুয়ারি, ঐতিহাসিক গণ-অভ্যুত্থান দিবস। বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের এক তাৎপর্যপূর্ণ মাইলফলক। ১৯৬৬ সালে পাকিস্তানের শাসন, শোষণ ও বঞ্চনা থেকে বাঙালি জাতিকে মুক্ত করতে ঐতিহাসিক ছয় দফা ঘোষণা করেন বঙ্গবন্ধু। এতে স্বাধিকার আন্দোলনের গতি তীব্র হলে পাকিস্তানিরা একে নস্যাৎ করতে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা করে। পাকিস্তানী শাসকগোষ্ঠী বাঙ্গালীর স্বাধিকার আন্দোলনকে নস্যাত করার হীন উদ্দেশ্যে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা দায়ের করে বঙ্গবন্ধুকে বন্দি করে। এ মামলার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী ছাত্র-শ্রমিক-জনতা দুর্বার ও স্বতঃস্ফূর্ত আন্দোলন গড়ে তোলে। কিন্তু ভীত সন্ত্রস্ত সরকার এর আগেই সভাস্থলের চারপাশে ১৪৪ ধারা জারি করে। ছাত্ররা ১৪৪ ধারা ভেঙ্গে বিক্ষোভ মিছিল সহ রাজপথে নেমে আসে। পাকিস্তানী সামরিক... continue reading

৪৩৩

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

লেনিনবাদ তত্ত্বের প্রবক্তা এবং সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা ভ্লাদিমির ইলিচ উলিয়ানভ লেনিনের ৯১তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

বিংশ শতাব্দীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিপ্লবী নেতা ভ্লা­দিমির ইলিচ উলিয়ানভ লেনিন। লেনিন এই বিশ্বের প্রথম স্বার্থক বিপ্লবী যিনি একটি সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র কাঠামোর বাস্তব রূপ দেন। রাশিয়ার শোষিত মানুষকে অত্যাচারী জারের শাসন থেকে তিনি শুধু মুক্তই করেননি, বরং তার আদর্শে অণুপ্রাণিত হয়ে বিশ্বের অগণিত মানুষ শোষণ-নিষ্পেষণের হাত থেকে মুক্তির উপায় খুঁজে পায়। পৃথিবীর বুকে রাশিয়ায় প্রথম শ্রমিক শ্রেণীর রাষ্ট্র পরিচালনার যুগান্তসৃষ্টিকারী নভেম্বর বিপ্লবের নেতা মহামতি ভি আই লেনিন। আত্মত্যাগে অবিস্মরণীয় এই মানুষটি নিজের সুখ স্বাচ্ছন্দের কথা ভাবেননি, চিরকাল কাটিয়েছেন দারিদ্রের মাঝে। জীবনের অনেকটা সময় তার কেটেছে নির্বাসনে। তিনিই বিশ্বের প্রথম সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাতা। লেনিন ১৯১৭ থেকে ১৯২৪ সাল পর্যন্ত রাশিয়ার... continue reading

৫১৯

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

গোয়েন্দা কাহিনীর জনক মার্কিন সাহিত্যিক এডগার এ্যালান পো'র ২০৬তম জন্মবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাহিত্যে রহস্যকাহিনীর বর্তমান যে ধারা প্রচলিত, তার পথিকৃৎ এডগার এ্যালান পো। প্রথম জীবনে তিনি প্রচুর কবিতা লিখেছেন। তবে গদ্য সাহিত্যের জন্যই তিনি বেশি খ্যাতি ও গৌরবের অধিকারী। তিনি অনেক রহস্য ও রোমাঞ্চকর গল্প এবং অনেক হরর গল্পও লিখেছেন। তাঁর পূর্বে এমন হরর গল্প আর কেউ খুব একটা লেখেননি। এজন্যে তাঁকে রোমাঞ্চ জাগানো গল্পের জনকও বলা হয়। তিনি ছিলেন একাধারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রোমান্স আন্দোলনের অন্যতম নেতা, কবি, ছোট গল্পকার, সম্পাদক, সমালোচক এবং গোয়েন্দা কাহিনীর জনক। আজকাল কিশোর-কিশোরী থেকে শুরু করে বয়স্ক ব্যক্তিরাও যে গোয়েন্দা কাহিনী পড়ে সে গোয়েন্দা কাহিনীরও জনক এডগার এ্যালান পো। বৈচিত্র্যময় জীবনের অধিকারী এই... continue reading

৬৩৩

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

ভারতীয় উপমহাদেশে মূকাভিনয় শিল্পে শীর্ষ স্থানীয় ব্যক্তিত্ব পার্থ প্রতীম মজুমদারের ৬১তম জন্মবার্ষিকীতে ফুলেল শুভেচ্ছা

বাংলাদেশের জনপ্রিয় একজন মূকাভিনয় বা মাইম শিল্পী পার্থ প্রতীম মজুমদার।ফ্রান্স প্রবাসী এই মূকানিভয় শিল্পী মাইমের বিচারে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থান দখল করে আছেন। বছরের বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দেশে মাইম প্রদর্শন করে প্রচুর সুনাম অর্জন করেন পদ্মাপাড়ের এই ছেলে। বিশ্বের যেখানে যান সেখানেই উজ্জ্বল করে আসেন বাংলাদেশের মুখ আর পতাকা। সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে মালয়েশিয়ার সাংবাদিকদের কাছ থেকে 'মাস্টার অব দ্য ওয়ার্ল্ড' উপাধি লাভ করা ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা থেকে বহু আন্তর্জাতিক সম্মান ও পুরস্কার লাভ করেছেন। এভাবেই একদিন পার্থ উঠে আসেন ফ্রান্সের সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রের সর্বোচ্চ সম্মাননার তালিকায়। ফ্রান্স সরকারের শেভালিয়র উপাধি পেয়েছেন তিনি। তিনিই প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে এ পদক পেলেন। 
(ফ্রান্স... continue reading

৪৯১

ডাস্টবিনে কাক

৪ বছর আগে লিখেছেন

লিখেন বা যারা লিখেন না

সবাই লেখালেখি করতে পারে না, যারা লেখালেখি করেন, তারা সৌভাগ্যবান/সৌভাগ্যবতী। আমি বাড়িয়ে বলছি না, যারা নিয়মিতি লেখেন তারা আসে পাশের জগতটাকে যেভাবে দেখেন, সাধারণ মানুষ সেভাবে দেখেনা। সেই অদেখা ভুবন অনেক সুন্দর আর আনন্দময়, সেই ভুবন অনেক সুখের, দুঃখও আছে সেই দুঃখটাও সুখের। যারা লেখেন তারা বিষয়টা জানেন। আবার লেখার কাজটা যে অনেক কঠিন, যারা লেখেন তারা সেই বিষয়টাও জানেন, কখনো কখনো যন্ত্রণারও।
লেখতে চাইছেন লেখতে পারছেন, এই ব্যাপারটা অনেক কষ্টের, অনেক যন্ত্রণার। অনেকেই এই যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে লেখালেখি ছেড়ে দেন। আমার এই লেখার প্রথম প্রাপক তারা।
কোন কাজই রাতারাতি সম্ভব না। লেখক হয়ে উঠাও তার ব্যতিক্রম না। অনেকের... continue reading

৪৮২

নূর মোহাম্মদ নূরু

৪ বছর আগে লিখেছেন

বাংলাদেশের প্রখ্যাত নাট্যকার ও বাংলা নাটকের শিকড় সন্ধানী গবেষক সেলিম আল দীন এর ৭ম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি

বাংলাদেশের প্রখ্যাত নাট্যকার ও বাংলা নাটকের শিকড় সন্ধানী গবেষক নাট্যাচার্য সেলিম আল দীন। শিল্প বিষয়ে জ্ঞান অর্জন, নিজের শিল্পবিশ্বাস নির্মাণ করে তা অনুশীলন ও পরবর্তী প্রজন্মকে সেই শিল্প ধারণায় অবগাহনের প্রেরণা আমৃত্যু সঞ্চার করেন যিনি তিনিই তো একজন আচার্য হয়ে ওঠেন। সেই অর্থে সেলিম আল দীনের অবস্থান আমাদের সাহিত্যক্ষেত্রে একজন আচার্যের মতোই। স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশের নাট্য আন্দোলনে পুরোধা নাট্যকার সেলিম আল দীন ২০০৮ সালের আজকের দিনে মৃত্যুবরণ করেন। আজ তাঁর ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী। বাংলা নাটকের প্রবাদ পুরুষ, রবীন্দ্রোত্তর শ্রেষ্ঠ নাট্যকার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নাট্যাচার্য সেলিম আল দীনের মৃত্যু দিনে আমাদের শ্রদ্ধাঞ্জলি। 
১৯৪৯ সালের ১৮ই আগস্ট ফেনীর সোনাগাজী থানার... continue reading

৬৩৭

নীল সামু

৪ বছর আগে লিখেছেন

একজন চাষীর জীবনের গল্প

 
একুশে পদক পাওয়া প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা চাষী নজরুল ইসলাম পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে চলচ্চিত্র নির্মাণ করে আসছেন। কিন্তু লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রাণবন্ত এই গুণী মানুষটি। গতকাল রোববার ভোর পাঁচটা ৫৫ মিনিটে এই চলচ্চিত্র নির্মাতা মৃত্যুবরণ করেন।
১. চাষী নজরুল ইসলাম বিক্রমপুর শ্রীনগর থানার সমষপুর গ্রামে ১৯৪১ সালের ২৩ অক্টোবর জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি ছিলেন মা-বাবার জ্যেষ্ঠপুত্র। বাবা মোসলেহ উদ্দিন আহম্মদ ছিলেন ভারতের বিহারে টাটা আয়রন অ্যান্ড স্টিল কোম্পানির ইঞ্জিনিয়ার। চাষীর পূর্বপুরুষরা ছিলেন লস্কর বংশের।
২. শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের সঙ্গে রাজনীতি করতেন চাষীর মামা চাষী ইমাম উদ্দিন। সেই সূত্রেই একদিন ফজলুল হককে একটা... continue reading

৬১২