"জীবনচর্চা" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

নূর মোহাম্মদ নূরু

৫ বছর আগে লিখেছেন

২৮ সেপ্টেম্বরঃ বিশ্ব জলাতঙ্ক ( World Rabies Day) আজ, প্রতিরোধে চাই সচেতনতা

হাইড্রোফোবিয়া বা জলাতঙ্ক একটি প্রাণঘাতী রোগ। এখন অবশ্য ‘হাইড্রোফোবিয়া’ না বলে ‘Rabies’ বলা হয়। মূলত জলাতঙ্ক র্যাবিস-এর অনেকগুলো লক্ষণের একটি। বাতাসভীতিও এ রোগের একটি লক্ষণ। গ্রীক পুরাণে চার হাজার বছর আগেও জলাতঙ্ক রোগের উল্লেখ পাওয়া যায়। আজ ২৮ সেপ্টেম্বর, বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবস ( World Rabies Day)। বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবসে এবারের প্রতিপাদ্য থাকছে Together Against Rabies। রেবিস বা জলাতঙ্ক হচ্ছে ভাইরাস গঠিত একটি রোগ যা সাধারণত কুকুর, শেয়াল, বাদুর প্রভৃতি উষ্ণ রক্তের প্রাণীদের মধ্যে দেখা যায়। এটি এক প্রাণী থেকে আরেক প্রাণীতে পরিবাহিত হতে পারে তার লালা বা রক্তের দ্বারা। জলাতংক রোগ আন্টারটিকা ছাড়াবিশ্বের সব মহাদেশের প্রায় সকল দেশের প্রাণীর মধ্যেই এই... continue reading

৪৫৪

প্রবাসী একজন

৫ বছর আগে লিখেছেন

আমার আমি

বেশিদিন হয়নি আমার ব্লগে লেখালিখি। তবে একটা জিনিস খুব খেয়াল করি। সবাই কেন জানি গল্প কবিতা লিখতেই ব্যস্ত। কিন্তু দেশের কত কথা বলার আছে। দেশের কত সমস্যা এগুলা কেউ ভাবে না। আমিও ভাবতাম না। দেশ থেকে বাইরে আসার পর ভাবি। কারণ হয়ত দেশটাকে খুব বেশি মিস করি। 
হ্যাঁ আমি গ্রামের ছেলে। গ্রামেই স্কুল কলেজ। শহরে যখন প্রথম আসি তখন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়। আমি কোনদিনই শহরের সাথে মানিয়ে নিতে পারিনি। তবু পড়াশোনার পাঠ চুকিয়ে কিভাবে কিভাবে দেশের বাইরে পড়তে চলে আসলাম ব্যাপারটা আমি এখনো ভাবি। দুই বছর হল দেশে যায়না। মাঝে মাঝে ফোন দিয়ে কথা বলি। তাও ক্ষনিকের জন্যে। গ্রামে তো আর... continue reading

৩৮২

দিলারা জামান

৫ বছর আগে লিখেছেন

নাকফুলে ফ্যাশন – ফ্যাশনে নাকফুল

বাইবেলে লেখা আছে, ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলে ছেলের বউ রেবেকাকে স্নেহ এবং ভালবাসার চিহ্নস্বরূপ নাকফুল উপহার দেন আব্রাহাম। এ ঘটনা প্রায় ৯ হাজার বছর আগের। কিছুদিন পর থেকেই বেদুইন এবং যাযাবরদের মাধ্যমে চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে নাকে গয়না পরার রীতি। আর ষোড়শ শতকে ভারতীয় উপমহাদেশে মুঘলদের আগমনের পরই এ অঞ্চলে শুরু হয় মেয়েদের নাক ফোঁড়ানোর রেওয়াজ।
আমাদের দেশে প্রচলিত ধারণা হলো- নাকফুল কেবল বিবাহিত নারীর জন্যই। অর্থাৎ শুধু তারাই নাকফুল পরবেন, যাদের বিয়ে হয়েছে। কিন্তু সময়ের পরিবর্তনে এ ধারণা আজ দূর হতে চলেছে।
হালে কিশোরী থেকে তরুণী শাড়ি তো বটেই, সালোয়ার-কামিজ, স্কার্ট-টপস, এমনকি জিন্স-ফতুয়ার সঙ্গে নাকে ঝিলিক দেওয়া একটা পাথর নিয়ে দেদার... continue reading

৬৮২

আবিদ রহমান

৫ বছর আগে লিখেছেন

নুপুর থাকলে, পা সুন্দর; চুড়ি থাকলে, হাত…

নুপুর থাকলে, পা সুন্দর; চুড়ি থাকলে, হাত…। আজ নুপুর নিয়ে নয়, শুধু ললনাদের ঝনঝনানির গোপন রহস্য চুড়ি নিয়ে কথা বলবো।
কিনে দে রেশমি চুড়ি
নইলে যাবো বাপের বাড়ি
দিবি বলে কাল কাটালি
জানি তোর জারিজুরি।’
হ্যাঁ, বাংলার নারীদের কাছে চুড়ির কদর সেই প্রাচীনকাল থেকেই,সাজগোজের সময় দুহাত ভরতি করে চুড়ি না পরতে পারলে সাজটাই যেন অসম্পূর্ণ রয়ে যেত।চুড়ি যে নারীর সৌন্দর্য অনেকগুণ বাড়িয়ে দেয় এতে কোনও সন্দেহ নেই। আর বিশেষ করে যেকোন উৎসব আয়োজনের দিন জমকালো সাজের সঙ্গে একগুচ্ছ চুড়ি যেন না পড়লেই নয়!একটা সময় ছিল যখন যুবকের মনে কাঁপন তুলতো চুড়ির রিনিঝিনি রিনিঝিনি শব্দ। আর সেই সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়েই তো বিদ্রোহী কবি... continue reading

৫৯২৬

ধ্রুব তারা

৫ বছর আগে লিখেছেন

জিম এর জন্য খাবারের কিছু গুরুত্বপূর্ন নিয়মাবলী

· নরমাল খাবার আগে যা খেতেন তাই খাবেন,কিন্তু পরিমানে একটু বেশি করে।সাস্থ্য বাড়ানোর জন্য জিম করলে তা বিকালে করা ভালো(দুপুরের খাবার খাওয়ার ২/৩ ঘন্টা পর)।কারন তখন খাবার গুলো গ্লুকোজ হয়ে যায়,ফলে জিম এর সময় এনার্জি বডি থেকে না টেনে খাবার থেকে টানে।বডি থেকে এনার্জি গেলে কিন্তু ওই পরিমার খাবার বডি না পেলে উলটা সাস্থ্য কমে অসুস্থ্য হয়ে যেতে পারেন।
· রোজ দুইটা ডিম খাবেন(জিম শেষ করার এক ঘন্টার ভিতরে),কারন ওই টাইমএ বডি খাবার চায়।
· পানি খাওয়া বাড়ায় দিবেন,নাহলে অতিরিক্ত ঘাম ঝরার কারনে জন্ডিস হয়ে যাবে।
· নতুন কেউ জিম এ ভর্তি হলে একটা বেপার ঘটে,অনেক উপদেষ্টা আসে,তারা সাপ্লিমেন্ট(হাই প্রটিন) নিতে বলে তাড়াতাড়ি বডি বাড়াইতে।ওদের প্রধান কাজ... continue reading

১৬৮৪

প্রবাসী একজন

৫ বছর আগে লিখেছেন

সাম্যবাদ

সাম্যবাদ বা কমিউনিজম (ইংরেজি: Communism) হল শ্রেণিহীন, শোষণহীন, ব্যক্তিমুনাফাহীন এমন একটি রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক ভাবাদর্শ যেখানে ব্যক্তিগত মালিকানার স্থলে উৎপাদনের সকল মাধ্যম এবং প্রাকৃতিক সম্পদ (ভূমি, খনি, কারখানা) রাষ্ট্রের মালিকানাধীন এবং নিয়ন্ত্রণাধীন থাকে। সাম্যবাদ হল সমাজতন্ত্রের একটি উন্নত এবং অগ্রসর রূপ, তবে এদের মধ্যেকার পার্থক্য নিয়ে বহুকাল ধরে বিতর্ক চলে আসছে।[১] তবে উভয়েরই মূল লক্ষ্য হল ব্যক্তিমালিকানা এবং শ্রমিক শ্রেণির উপর শোষণের হাতিয়ার পুঁজিবাদী অর্থ ব্যবস্থার অবসান ঘটানো।[২] কার্ল মার্ক্স যে মতাদর্শ উপস্থাপন করেছিলেন সেই মতে সাম্যবাদ হল সমাজের সেই চূড়ান্ত শিখর, যেখানে পৌঁছাতে হলে বিপ্লবের মাধ্যমে সমাজে আর্থনৈতিক সাম্য স্থাপন করতে হবে এবং সেই ক্রান্তিকালে উত্পাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি... continue reading

৪২৫

নীল সামু

৫ বছর আগে লিখেছেন

কেন মানুষ আত্নহত্যার পথ বেছে নেয়

(১)একটি ঝুঁকিপূর্ণ মৃত্যুর ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ, প্রতিরোধব্যবস্থা এবং আত্মহত্যার পূর্বে সতর্কতামূলক চিহ্নসমূহ।
(২) রোগীর আত্মহত্যা বিষয়ক চিন্তা-চেতনা, পরিকল্পনা, ব্যবহার, আকাঙক্ষা এবং ইচ্ছা।
(৩) উপরোল্লিখিত দুটি বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে চিকিৎসকের বিজ্ঞান বা চিকিৎসাশাস্ত্রমতে ব্যাখ্যা প্রদান।
প্রাপ্তবয়স্ক এবং কিশোর- কিশোরীদের ইচ্ছামৃত্যু এই তিনটি বিষয়ের সমন্বয়ের ওপরভিত্তি করে গড়ে ওঠে। আত্মহত্যার পরিকল্পনা যেমন বিসতৃত, সুচিন্তিত এবং ব্যবস্থাকৃত আত্মহত্যা বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই অনেক প্রমাণের ওপর ভিত্তি করে নির্ণীত হয়। সামপ্রতিক সময়ে জয়নার এবং তার সহকর্মীরা আত্মহত্যার ব্যাপারে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে যা উল্লিখিত ৩টি বিষয়ের ওপর আলোকপাত করে।
চিকিৎসাশাস্ত্র এবং তদন্ত প্রতিবেদনে প্রথম এবং তৃতীয় বিষয়ের ওপর সর্বাপেক্ষা গুরুত্বারোপ করা হচ্ছে। দ্বিতীয় বিষয়েরওপর... continue reading

৪৩০

ফারজানা মৌরি

৫ বছর আগে লিখেছেন

ঘর সাজানো

সুন্দর সাজানো ঘর সবার পছন্দ। সবাই নিজের ঘর নান্দনিক ভাবে সাজাতে চায়। ঘর দেখে বাসিন্দাদের রুচির পরিচয়ও পাওয়া যায়। 
ঘর সাজানোর আগে ভাবতে হবে ঘরটি কী জন্য ব্যবহার করা হবে এবং এটি কত বড়। আকৃতি অনুযায়ী রঙ নির্বাচন করতে হবে। ছোট ঘরে এমন রঙ ব্যবহার করতে হবে যাতে আলোর খেলাটা খুব স্পষ্ট হয়। আবার বড় ঘরে গাঢ় রঙ ব্যবহার করা যেতে পারে। 
ঘরের ফার্নিচার ঐতিহ্যবাহী, দেশী বা আধুনিক যেকোন রকমই হতে পারে। ঘরের আকার আয়তন অনুযায়ী ফার্নিচার ব্যবহার করতে হবে। তবে অপ্রয়োজনে বেশি ফার্ণিচারে ঘর ভর্তি না করাই ভালো। সবসময় একই আঙ্গিকে ঘর দেখতে বিরক্ত লাগে। ঘরের ফার্ণিচারের অবস্থান পরিবর্তন করে ঘর... continue reading

১১২৫

ফারজানা মৌরি

৫ বছর আগে লিখেছেন

রান্না ঘরের যত্ন

প্রতিদিন ঘরের কাজে কত ব্যস্ত থাকতে হয় গিন্নীদের। এসময় নানাবিধ সমস্যায়ও পড়তে হয়। অথচ একটু মাথা খাটালেই এসব সমস্যা সমাধান হবে খুব সহজে। এমনই দশ টিপস দেওয়া হল :
১. অনেকদিন বন্ধ থাকা বা অব্যবহৃত ঘর খুললে একটা ভ্যাপসা গন্ধ বের হয়। দু-তিনটে দেশলাই কাঠি জ্বালালে দু-তিন মিনিটের মধ্যে ঘর থেকে গন্ধ চলে যাবে।
২. পোড়ামাটির জিনিসপত্র পরিষ্কার রাখতে হলে ওগুলোর ওপর ন্যাচারাল রঙের নেল পালিশ লাগিয়ে দিন। রং অক্ষত থাকবে আর নোংরা হবে না।
৩. চশমা ঝকঝকে পরিষ্কার রাখতে হলে এক ফোঁটা ভিনিগার দিয়ে কাঁচ পালিশ করুন।
৪. কাঠের আসবাবপত্র ঠাণ্ডা চা-পাতা ফোটানো জল দিয়ে পালিশ করুন। ঝকঝকে হয়ে উঠবে।
৫.... continue reading

৭০৭

মেঘলা মেয়ে

৫ বছর আগে লিখেছেন

ঘরে বসে তৈরী করুন নেইলপলিশ

বর্তমানে পোশাকের রং এর সাথে মিলিয়ে নেইল পলিশ লাগাতে তরুণীরা বেশ পছন্দ করে। একেবারে ঠিক পোশাকের রঙটাই খুঁজে নেয়ার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা মার্কেটে ঘুরেও ক্লান্ত হোন না অধিকাংশ নারী। কখনো কখনো পাওয়া গেলেও অধিকাংশ সময়েই পাওয়া যায়না মনের মতো নেইলপলিশের শেডটি।
এখন ইচ্ছে করলে নিজেই তৈরি করে নিতে পারবেন নিজের পছন্দের রং এর নেইল পলিশ। আর তার জন্য তেমন কোনো ঝামেলাই করতে হবেনা। নিজে তৈরি করতে পারলে পছন্দের যেকোনো রং এর নেইলপলিশ লাগাতে পারবেন নখে।
নিজের পছন্দের রং এর নেইল পলিশ তৈরি করে নিতে আপনার প্রয়োজন কেবল মাত্র দুটি উপকরণের। একটি স্বচ্ছ নেইল পলিশ আর যেই রং এর নেইল... continue reading

৬৩৯