"জীবনচর্চা" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

রাজীব নূর খান

৩ বছর আগে লিখেছেন

আমরা করব জয়- একদিন

আমার ভাবতে ভালো লাগে, বাংলাদেশ হবে একটি আনন্দময় দেশ। কোনো দুঃখী মানুষ থাকবে। ফুটপাতে কারো ঘর থাকবে না। প্রতিটা শিশু স্কুলে যাবে। সিগনালে গাড়ি থামলে একজনও ভিক্ষুক খুঁজে পাওয়া যাবে না। পত্রিকা খুললেই সব ভালো ভালো খবর থাকবে। কেউ কাউকে কুঁপিয়ে মারবে না। সবার প্রতি সবার থাকবে এক আকাশ ভালোবাসা।
অনেক ভেবেচিন্তে দেখলাম, বাংলাদেশের বেশির ভাগ লোকই ভালো। তারা দেশকে ভালোবাসে, ভালোবাসে দেশের মানুষকে। পৃথিবীর অনেক দেশেই মেয়েরা বাসে ট্রেনে দাঁড়িয়ে তাদের গন্তব্যে যায় কিন্তু আমাদের দেশে কোনো মেয়ে দাঁড়িয়ে তাদের গন্তব্য যায় না, আমরা সিট ছেড়ে দেই। আমি নিজে দেখেছি- আমাদের দেশের ট্রাফিক পুলিশ- রাস্তার সব গাড়ি থামিয়ে... continue reading

৯১০

রাজীব নূর খান

৩ বছর আগে লিখেছেন

হঠাৎ ভয়

রাত এক টা। ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে সিগারেট টানছি।কিচ্ছু ভালো লাগছে না । বারবার হিমির কথা মনে পড়ছে । কতদিন হয়ে গেল তার সাথে দেখা হয় না, কথা হয় না । সময় কত দ্রুত চলে যায়! হিমিকে প্রশ্ন করেছিলাম- আচ্ছা, বলত ভালোবাসা কি ? হিমি বলেছিল- এই যে তোমাকে ভালো লাগে, তোমার হাত ধরে বসে থাকতে ইচ্ছা করে, তোমাকে আদর করতে ইচ্ছা করে, তোমাকে রান্না করে খাওয়াতে ইচ্ছা করে এটাই হচ্ছে ভালোবাসা ।আমি বলেছিলাম- এই ভালোবাসাটা কি চিরদিন থাকবে? তখন হিমি আমার দিকে কঠিন চোখে তাকিয়ে ছিল। মোবাইলটা হাতে ভাবছি হিমিকে একটা ফোন দিবো কিনা ! কেমন একটা দ্বিধা, একটা সংশয়... continue reading

৪৪৮

রাজীব নূর খান

৩ বছর আগে লিখেছেন

কপি পেষ্ট

কপি আর পেস্ট কে না করে?পৃথিবীর আনন্দময় কাজগুলোর মধ্যে এটা একটা ।একটা সফল কপি পেস্টের মধ্যে কি যে আনন্দ সেটা যিনি করেন তিনিই জানেন ।তবে আফসোস এই কাজটি এখনো মর্যাদার আসন পায়নি ।কাজটাকে ছোট গর্হিত কাজ হিসেবেই দেখা হয় ।তাই কপি-পেস্ট মার্কা কোনো কিছুর গায়ে লাগলেই সেটার কদর নাই ।
ওয়েব জগত কপি পেস্টের আঁখড়া ।কপি হয় ফেসবুক স্ট্যাটাস ।ফেসবুকের একটা পেজ নতুন কিছু লিখলেই কপি পেস্ট হতে হতে আমাদের ওয়ালে এসে হাজির হয় ।গুগলে আপনার কোনো লেখার শিরোনাম লেখে সার্চ দিন কত ব্লগসাইটে যে আপনার লেখা কপি পেস্ট হয়ে গেছে নিজেও জানেন না ।
স্কুল কলেজ অফিস... continue reading

৫০৮

আতা স্বপন

৪ বছর আগে লিখেছেন

সকল অাব্বু আম্মুদের বলছি! বয়োস্বন্ধিকালিন সময়ে ছেলেমেয়ের বন্ধু হোন!

পিতামাতারা তাদের বয়ঃসন্ধি বা টিনেজার সন্তাদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে অনেক সময় চিন্তায় পড়ে যান। আসলে বয়ঃসন্ধি সময় টা খুবই ক্রিটিকাল একটি সময়। এই সময় টিনেজার ছেলেমেয়েরা অধিকাংশ সময় বিভিন্ন ভুল করে থাকে এমনকি এই সময়ে তারা এমন কিছু কার্যকলাপ করে যা তাদেরকে আজীবন ভুগতে হয়। সাধারণত ১৩-১৯ বছরের সন্তানদের কে টিনেজার হিসাবে ধরা হয়।
এই বয়সের সন্তানদের বাবা মায়ের উচিত আলাদা যত্ন নেওয়া। সাধারণত আমাদের সমাজে বাবা মায়ের এই বিষয়টা তেমন খেয়াল করেনা। অনেকে বাবা মায়ের কাছে মনে হয় সন্তান বড় হচ্ছে তারা তাদের ভালো তারা বুঝে নিতে পারবে। কিন্তু এই সময়ে একটু আলাদা যত্ন নেওয়া উচিত।
বয়ঃসন্ধিকাল... continue reading

৫৭৩

রাজীব নূর খান

৪ বছর আগে লিখেছেন

দু'টা কথা বলতে চাই

বই পড়াটা আপনার উন্নতির জন্য সবচেয়ে শর্টকাট রাস্তা। একটা টাই, একটা স্যুট, একটা ব্র্যান্ডেড শার্টের চেয়ে একটা ভাল বই আপনাকে বেশি স্মার্ট করবে। বই পড়া স্বাভাবিকভাবেই মানুষকে স্মার্ট করে, বয়স কমিয়ে দেয়। বই পড়া আপনার দুঃশ্চিন্তাকেও কমিয়ে দেয়।
বিভূতিভূষণের চাঁদের পাহাড় কিংবা হেমিংওয়ের ওল্ড ম্যান এ- দ্য সী পড়তে বসুন। দেখুন, আপনার দুশ্চিন্তা-দূর্ভাবনা কখন কোথা দিয়ে পালিয়ে গেছে আপনি টেরও পাবেন না।
বিশ্বের মাদক ব্যবসায়ী ও নারী পাচারকারীর হাতে বই তুলে দিতে পারলে হয়তো পুরো চিত্রটাই পাল্টে যেতো। অনেকে বলেন, পড়ব কিভাবে, সময় পাই না! আরে ভাই, টিভি দেখার সময় থাকলে বই পড়ার সময় থাকবে না! মোবাইলে গেমস... continue reading

৩৮৮

রাজীব নূর খান

৪ বছর আগে লিখেছেন

'দ্যা ওল্ড ম্যান এন্ড দ্যা সি'

আজ অফিস থেকে বাসায় ফিরতে অনেক দেরী হয়ে গেল। ক্লান্ত বিধ্বস্ত অবস্থায় ঘরে ঢুকে দেখি সুরভি নেই। মনে পড়ল, সুরভি গিয়েছে তার বাবার বাড়ি। মনটা খুব খারাপ হয়ে গেল। মন ভাল করতে গেলাম মাছের বাজারে। মাছের বাজারে ঘোরাঘুরি করতে আমার খুব ভালো লাগে। একসময় প্রতিদিন কোন না কোনো মাছের বাজারে না গেলে ভাল লাগত না।
সন্ধ্যার পর রেললাইনের পাশে বিশাল মাছের বাজার বসে। সেখানে কত্ত রকমের যে মাছ !! বাজারে কোনো মাছের অভাব নেই। মাছ দেখেই মনটা খুশিতে ভরে উঠল। সুরভির কথা একেবারেই ভুলে গেলাম। কুচি কুচি করে কাটা বরফের উপরে কি সুন্দর করেই না ইলিশ মাছ গুলো সাজিয়ে... continue reading

৪৫৬

রাজীব নূর খান

৪ বছর আগে লিখেছেন

ছাত্রলীগের কাজ টা কি?

আমি শুধু জানতে চাই- বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কাজটা কি? অনেকের কাছেই জানতে চাইলাম- তারা নানান রকম কথা বললেন। একজন বললেন, সময়ের মেধাবী ও সাহসী সন্তানেরা ছাত্রলীগ করে। নেট ঘাটাঘাটি করে জানতে পারলাম- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শিক্ষাপ্রাতিষ্ঠানিক অঙ্গ সংগঠন হিসেবে পরিচিত। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৬২ এর শিক্ষা কমিশন আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থান এবং ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধের উদ্দেশ্যে ছাত্রলীগ মুজিব বাহিনী গঠন করে, যুদ্ধে অংশগ্রহন করে এবং বাংলাদেশ বিজয় লাভে ভূমিকা পালন করে। কিন্তু এগুলোতো অতীত ইতিহাস, বর্তমানে তারা কি করছে অথবা গত দশ বছরে তারা কি কি কাজ করেছে?
পত্রিকা... continue reading

৪৭৩

সোহেল আহমেদ পরান

৪ বছর আগে লিখেছেন

ঈদুল ফিতরঃ প্রেক্ষাপট ও তাৎপর্য

ঈদুল ফিতরঃ ঈদুল ফিতর ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের দুটো সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের একটি। ঈদ ও ফিত্‌র দুটিই আরবী শব্দ। ঈদ এর অর্থ উৎসব বা আনন্দ। ফিত্‌র এর অর্থ বিদীর্ণ করা, উপবাস ভঙ্গকরণ, স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যাওয়া। পবিত্র রমযান মাসে সিয়াম সাধনা ও সংযম পালনের পর শাওয়াল মাসের ১লা তারিখে সিয়াম ভঙ্গ করে স্বাভাবিক কর্মজীবনে ফিরে যাওয়ার আনন্দময় দিবসটি ঈদুল ফিত্‌র নামে অভিহিত। ধর্মীয় পরিভাষায় একে ‍ইয়াউমুল জাএজ‍ (অর্থঃ পুরস্কারের দিবস) হিসেবেও বর্ণনা করা হয়েছে। দীর্ঘ এক মাস রোজা রাখা বা সিয়াম সাধনার পর মুসলমানেরা এই দিনটি ধর্মীয় কর্তব্যপালনসহ খুব আনন্দের সাথে পালন করে থাকে। তারিখ ও ইতিহাসঃ হিজরি বর্ষপঞ্জী অনুসারে রমজান মাসের... continue reading

৪৬১

রাজীব নূর খান

৪ বছর আগে লিখেছেন

শেষ বিকেলে মৃত্যু (বুল ফাইট)

কী অদ্ভুত, 'মৃত্যু' খেলাকে কেন্দ্র করে! অসম্ভব রকমের ভয়ংকর এক খেলা, একপক্ষের মৃত্যুতেই কেবল যার ইতি! স্পেনের জাতীয় খেলা বুল ফাইট। গ্রীকরা বুল ফাইটিং এর উদ্ভাবক। স্প্যানিশ'রা বুল ফাইটিং খেলাকে পরিনত করেছে শিল্পে। পশু প্রেমীদের হাজারো আপত্তি উপেক্ষা করেই যুগ যুগ ধরে চলে আসছে বুলফাইট। খুনের উৎসব । সাধারনত শেষ বিকেলেই আয়োজন করা হয়ে থাকে ফাইটের। খেলা শুরুর আগে প্রতিটা পশুকে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে রাগিয়ে দেয়া হয় এবং কোনো খাবার খেতে দেয়া হয় না। খেলা শেষে পশুটিকে হত্যা করা হয়। হত্যার মধ্যে দিয়ে খেলা শেষ হয়। 
মানুষ সেই প্রাচীনকাল থেকে মারামারি দেখতে বড্ড পছন্দ করে। কেন, কে জানে? গত বছর এক... continue reading

৩৭১

সোহেল আহমেদ পরান

৪ বছর আগে লিখেছেন

আন্তর্জাতিক পরিবার দিবসঃ প্রাসঙ্গিকতা ও প্রত্যাশা

পরিবার ও পরিবার দিবসঃ আন্তর্জাতিক পরিবার দিবস আজ। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ কর্তৃক ১৯৯৩ সালে গৃহীত এক প্রস্তাব অনুযায়ী ১৫ মে কে আন্তর্জাতিক পরিবার দিবস ঘোষণা করা হয়। ১৯৯৪ সালকে আন্তর্জাতিক পরিবার বর্ষও ঘোষণা করেছিল জাতিসংঘগ এবং পরবর্তীতে ১৯৯৫ সাল থেকে সমগ্র বিশ্বে প্রতি বছর এ দিনটি আন্তর্জাতিক পরিবার দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। পারিবারিক বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে পরিবারের সদস্যদের মধ্যে বন্ধন দৃঢ়ীকরণ ও সৌহার্দ্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে মূলত এ দিবস পালনের প্রয়াস নেয়া হয়। ছোটবেলায় পরিবারের সংজ্ঞা শেখা আছে সবারই। মা-বাবা,ভাই-বোন, দাদা-দাদী – সবাইকে নিয়েই গঠন হয় পরিবারের।
সমাজের মৌলিক ভিত্তি হলো পরিবার। একটি পরিবার একটি প্রতিষ্ঠান। পরিবারেই মানুষ... continue reading

৪৮০