"গল্প" বিভাগের পোস্ট ক্রমানুসারে দেখাচ্ছে

খোরশেদ মাহমুদ

৩ বছর আগে লিখেছেন

বনের রাজা টারজান !

                              বিশ্বব্যাপী এমন অনেক জনপ্রিয় কাল্পনিক কাহিনী রয়েছে যেগুলো পৃথিবীর একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে উদ্ভব হলেও সেটি সমগ্র বিশ্বব্যাপী তুমুল জনপ্রিয়। আর এই কাল্পনিক কাহিনীগুলোকে বিভিন্ন সিনেমা, নাটক, টিভি সিরিয়াল, গল্প, উপন্যাস, কার্টুনের মাধ্যমে সমগ্র বিশ্বে এমনভাবে জনপ্রিয় করা হয়েছে যে ছোট-বড় থেকে শুরু করে বৃদ্ধরাও এই কাহিনী সম্পর্কে অবগত। আর তেমনই একটি কাহিনী হচ্ছে টারজান কাহিনী। অবশ্য বিশ্বব্যাপী সবাই এই কাহিনীকে ‘বনের রাজা টারজান’ বলে বেশী চেনে। টারজান শব্দের অর্থ 'সাদা চামড়া'। টারজান চরিত্রটির রচয়িতা বিশিষ্ট লেখক এডগার রাইজ বারোজ । টারজান চরিত্রটি মূলত রচনা করা হয়েছে পূর্ব আফ্রিকাকে কেন্দ্র করে। ১৯১৪সালে এডগার রাইস বারোজ টারজান সিরিজের প্রথম উপন্যাস 'টারজান অবদ্য এপস' প্রকাশ করেন। এরপর থেকেই বিশ্বজুড়ে তুমুল... continue reading

৪৮৫

সাইয়িদ রফিকুল হক

৩ বছর আগে লিখেছেন

এরই নাম বুঝি প্রেম

এরই নাম বুঝি প্রেম
সাইয়িদ রফিকুল হক
আশফাক ভাবছিলো: এবার ঈদের ছুটিতে সে গ্রামের বাড়িতে যাবে না। আর সে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে চুপচাপ বসে থাকেনি। তাই, ভার্সিটি বন্ধের কয়েকদিন আগেই সে ইশরাতকে তার মনের কথা সব জানিয়ে দিলো। আর ভাবলো: ইশরাত এতে খুব খুশি হবে।
আশফাক খুব হাসিখুশি-ভাব নিয়ে সেদিন বললো, “ভাবছি, এবার ঈদে আর গ্রামের বাড়িতে যাবো না। তোমার সঙ্গে ঢাকায় ঈদ করবো। জীবনে কখনও তো ঢাকায় ঈদ করিনি, তাই!”
কথাটা শুনে ইশরাত কেমন যেন চুপচাপ হয়ে গেল। আর সে ভীষণ মনমরা হয়ে বললো, “না-না, তা কেন করবে তুমি! এটা ঠিক নয়। তুমি গ্রামে যাও। সেখানে তোমার মা-বাবা আছে। তারা কী... continue reading

৪২২

ইফ্ফাত রুপন

৩ বছর আগে লিখেছেন

নবনীতা

খালামণি ও খালামণি, আমাকে কার্টুন এনে দাও না।
কিভাবে এনে দেব মামণি? কারেন্ট তো চলে গেছে। এক ঘণ্টার আগে তো আসবে না।
কিন্তু আমার কার্টুন দেখতে ইচ্ছে করছে। কালও দেখতে পারি নি, আম্মু তার অনুষ্ঠান দেখেছে আমাকে দেখতে দেয় নি। আমি আজো দেখতে পারবো না।
এই বলে নবনীতা কাঁদতে শুরু করলো। কারেন্ট চলে যাওয়াতে নবনীতার যতটা না মন খারাপ হয়েছে তার চেয়েও বেশি মন খারাপ লাগছে স্বর্ণার। নবনীতা স্বর্ণার বড় বোনের মেয়ে। নিজের মেয়ে না হলেও ছোট বেলা থেকে নবনীতাকে কোলে পিঠে করে স্বর্ণাই মানুষ করেছে। তার বোন আর বোনের হাসবেন্ড দুজনেই চাকরিজীবী হওয়াতে ছোটবেলা থেকে নবনীতা... continue reading

৩৬৭

রাজীব নূর খান

৩ বছর আগে লিখেছেন

ফাইটার

আমার হাতে খুব বেশি সময় নেই। আর কয়েক ঘন্টা পর পোকা গুলো আমার উপর ঝাঁপিয়ে পড়বে। আমার সমস্ত রক্ত খেয়ে ফেলবে। আমার মৃত্যুর আগে বর্তমান পরিস্থিতিটা লিখে রেখে যেতে চাই। যদি আবার কখনও পৃথিবী মানুষ পরিচালনা করতে পারে। তখন আমাদের বর্তমান অবস্থা জানতে পারবে। যদিও অনেক আগেই বিজ্ঞানীরা জানতে পেরেছিল এই পোকা সম্পর্কে। মানুষ জানতে পেরেছে- মানুষের চোখে রয়েছে যখন একক লেন্স তখন পোকামাকড়ের চোখ অথ্যাৎ যৌগ চোখে রয়েছে অনেক ছোট চাক্ষুষ ইউনিট। 
৫০১৫ সাল। সারা পৃথিবীতে মানুষের সংখ্যা ৭'শ কোটি। এই ৭'শ কোটি মানুষ এখন ছারপোকাদের হাতে বন্দী। ৫০০ সালে পৃথিবী দখল করে নিয়েছে ছারপোকা। এইসব ক্ষুদ্র পোকাদের কাছে... continue reading

২৭৭

নদী

৩ বছর আগে লিখেছেন

নিম পাখি ডাকে


সোহাগী বোকা লাজুক, মুখচোরা মেয়ে মিয়া বাড়ির একমাত্র ছেলে মানিকের বউ।

বিয়ের ২ দিন পরই মানিক ঢাকায় কাজে চলে গেল। যাবার আগে এত চেষ্টা করল নতুন বউয়ের মুখটা ভালো করে দেখতেই পেল না।

সেই সোহাগী একদিন শাশুড়ির পাকা চুল বেছে দিচ্ছে, তখনই নিম পাখি ডেকে উঠল, শাশুড়ি বলে উঠলেন, বউ আজ বোধহয় মানিক বাড়ি আইব। সোহাগী শুনে ,কিছু বলে না। আঁচল দিয়ে মুখ ঢাকে আর মুচকি হাসি দেয়!

কিছুক্ষন পর পাখিটা আবার ডেকে উঠলে, শাশুড়ি আবার বললেন, এবার জোর দিয়ে, ও বউ মানিক মনে হয় সত্যি আজ বাড়ি আইয়া পড়ব।... continue reading

৪২৮

নিঃসঙ্গ মেষপালক

৩ বছর আগে লিখেছেন

ছাতা

আজকাল আকাশের মনের ভাব বোঝা বেশ মুশকিল। এই মাথার পোকা নাড়িয়ে দেয়া রোদ তো এই প্যাচপ্যাচে বৃষ্টি। অবশ্য তাতে গরমের কমতি নেই। বৃষ্টি ভেজা শরীরে প্রাগৈতিহাসিক ঘামের গন্ধ এপাশ ওপাশ নাড়িয়ে চলে যায়। কার শরীর থেকে গন্ধ আসে সেটা বোঝা যায়না। অপেক্ষাকৃত আধুনিক তরুণী পার্স থেকে বের করে পারফিউমটা একটু লাগিয়ে নেয়। কিন্তু তাতে হাজার বছরের পচে যাওয়া গন্ধ থেকে মুক্তি মেলেনা। বাসের হাতলে বাঁদরের মতো ঝুলতে ঝুলতে এইসবই ভাবে শফিকুর। যদিও শফিকুলের বৃষ্টিতে ভিজতে হয়না। বহুকাল আগে প্রেমিকার কিনে দেয়া ছাতাটা সে প্রায় সবসময়ই সাথে রাখে। একটা ডাঁট ভেঙ্গে গেছে তবু প্রেমিকার মায়া ছাপিয়ে ছাতার মায়া বড় হয়ে... continue reading

৩৫২

কল্পদেহী সুমন

৩ বছর আগে লিখেছেন

প্লাস-মাইনাস

সেদিন খুশবু কারো সাথেই আর কথা বলেনি। বিকেল গড়িয়ে রাত হয়ে গেছিলো তবুও সে বিছানা ছেড়ে উঠেনি। তার মা-বাবা অনেক ডাকাডাকির পরও সে কোন সাড়া দেয়নি। চুপ হয়ে শুয়ে ছিলো। মাঝেমধ্যে দুই/এক ফোটা জল গাল বেয়ে পড়ছিলো। খুশবুর মা-বাবা খুব চিন্তিত হয়ে গেল, তাদের এতো ভালো একটা মেয়ের হঠাৎ কি হয়ে গেল আজ।
কাউকে মনে-প্রাণে ভালোবাসা কি কোন অপরাধ? হয়তো না, কিন্তু এই নিস্পাপ মেয়েটা তবুও কেন অর্ককে সেই প্রথম থেকেই ভালোবেসে এসে শেষ পর্যন্ত কষ্ট পেল। যখন সে ভালোবাসা কি তাই বুঝতোনা তখন থেকেই তো সে অর্ককে আজীবনের জন্য পাশে চাইতো। সে কখনোই ভাবেনি অর্ক আর তার মাঝে... continue reading

৩৮৫

নদী

৩ বছর আগে লিখেছেন

প্রজাপতি প্রেম.....

হাজেরা বেগম সেই সকাল থেকে অস্থির হয়ে আছেন, কি রান্না করবেন না করবেন, মানুষটা আবার এই গনগনে রোদ্দুরের মধ্যে কই গেল।
ঘরে তেমন কিছু নেইও, সকাল বেলা পাশের বাসার ছেলেটা দিয়ে একটা মোরগ আনিয়েছেন। মোরগ পোলাও রান্না করবেন। মানুষটা খেতে খুব পছন্দ করত, বিশেষ করে হাজেরা বেগমের হাতের মোরগ পোলাও। আগের অবস্থা থাকলে এই দিনটাতে একটু পায়েসও রান্না করতেন। কিন্তু মাসের শেষ এই সামান্য খরচটুকুও তাদের জন্য এখন অনেক। আয় বলতে এখন শুধু বুড়ো মানুষটার পেনশনের টাকা
রান্না প্রায় শেষ মানুষটা গেল কই? সেই যে বলে গেল একটু বাইরে থেকে ঘুরে আসি, আর কোন খবর নাই। ৫০ বছর আগে এদিনে... continue reading

৫৩৪

কল্পদেহী সুমন

৩ বছর আগে লিখেছেন

প্লাস-মাইনাস

ভালোবাসা বুঝেনা এমন কোন প্রাণি এ পৃথিবীতে নেই। জন্মের পর থেকেই তারা ভালোবাসার সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে পরে। সদ্য জন্মপ্রাপ্ত শিশুটিও ভালোবাসা বুঝে। হয়তো সে তখনো ভালোবাসা কি তা জানেনা। তবে সে ভালোবাসার অনুভূতিগুলো বুঝতে পারে। সেই অনুভূতিগুলোর সামান্য অনুপস্থিতি তাকে কষ্ট দেয়। একটা ছোট্ট শিশুকে দেখবেন তার বাবা অফিসে যাওয়ার সময় কেমন কান্না করে। তার মা যদি একটু আড়াল হয় তাহলে পাগল হয়ে যায়। এমন করে সংসারের প্রতিটি মানুষের জন্য শিশুটি এমন করে। সে কিন্তু কিছু না বুঝেও ভালোবাসতে শিখে যায়। কিছু না জেনেও ভালোবাসার মানুষগুলোকে তার চারপাশে সব সময় দেখতে চায়।
অর্ক আর খুশবু খুব ছোটবেলা থেকেই পাশাপাশি... continue reading

৪২৮

কল্পদেহী সুমন

৩ বছর আগে লিখেছেন

অশরীরি

গভীর রাত। অমাবস্যা আজ। তাই গভীর রাতের গভীরতাটাও খানিকটা বেশি। আজ রাতটা আশ্চর্যজনক কারণ প্রতি রাতেই গভীর রাতে শিয়ালের ডাক শোনা যায় কিন্তু আজ পুরো রাত পাড় হয়ে যাচ্ছে শিয়ালের কোন ডাকই শোনা যাচ্ছেনা। চারিদিক একদম নিরব হয়ে গেছে আজ। ঝিঝি পোকার আওয়াজও নেই আজ। যেন পুরো শহরটা একটা বদ্ধ গুহায় পরে আছে। কেউ সেই বদ্ধ গুহার মুখে পথ আগলে দাঁড়িয়ে আছে। শহরের সব মানুষকে এক এক করে যেন সে চিবিয়ে খাবে।
এই ঘুটঘুটে অন্ধকারে যদি হঠাৎই কেউ শুনতে পায় হাড়, মাংস চিবিয়ে খাওয়ার আওয়াজ। ফিনকি দিয়ে রক্ত বের হওয়ার আওয়াজ তখন তাদের অবস্থা কেমন হবে? হয়তো প্রথম প্রথম... continue reading

৫২৩