"রিয়াল মাদ্রিদ ফুটবল ক্লাব এবং অর্জনসমূহ"

রিয়াল মাদ্রিদঃ 

পূর্ণ নামঃ রিয়াল মাদ্রিদ ক্লাব দি ফুটবল

ডাকনামঃ লস ব্লাঙ্কোস (সাদা),লস মেরেঙ্গুইস, লস গ্যালাক্টিকো (সুপার-স্টার),লস ভাইকিংস

প্রতিষ্ঠাঃ ৬ মার্চ ১৯০২ (১১২ বছর আগে)

মাঠঃ সান্তিয়াগো বার্নাব্যু,মাদ্রিদ, স্পেন

ধারণক্ষমতাঃ ৮৫,৪৫৪

প্রেসিডেন্টঃ ফ্লোরিন্তেনো পেরেজ

 

একটি স্পেনীয় পেশাদার ফুটবল ক্লাব, যার অবস্থান স্পেনের মাদ্রিদে। এটি বিংশ শতাব্দীর সফলতম ক্লাব এবং ইউরোপের সবচেয়ে বেশি শিরোপা জেতা দল। ক্লাবের বাস্কেটবল শাখাও অনুরুপ সাফল্য লাভ করেছে। দলের পোশাকের মূল রঙ হচ্ছে সাদা টি-শার্ট ও শর্টস এবং নীল মোজা ক্লাবটি ফিফার অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। 

রিয়াল মাদ্রিদের নিজস্ব মাঠ মাদ্রিদে অবস্থিত সান্তিয়াগো বার্নাব্যু । রিয়াল মাদ্রিদ ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছে রেকর্ড ১০ বার এবং লা লিগা জিতেছে রেকর্ড ৩২ বার। দলটির বিশ্রামে থাকা খেলোয়াড়দের নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ ক্যাস্তিলা নামে একটি ফুটবল দল এবং রিয়াল মাদ্রিদ ব্যালনকেস্তো নামে একটি সফল বাস্কেটবল দল রয়েছে। বর্তমানে ক্লাবটি একটি রাগবি দল ও ফর্মুলা ওয়ান দল প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছে। অন্যান্য ফুটবল দলের মত রিয়াল মাদ্রিদের মালিকানা কখনো বদল হয়নি। এটি ১৯০২ সালে প্রতিষ্ঠা লগ্নের সদস্যদের দ্বারাই পরিচালিত হচ্ছে।

 

২০০০ সালের ডিসেম্বর ২৩তারিখে ফিফা রিয়াল মাদ্রিদকে বিংশ শতাব্দীর জন্য শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ দল পুরস্কার দেয়।

ক্লাবের ইতিহাসে এটিকে অনেক ডাকনামে ডাকা হয়েছে। প্রথমটি ছিল লস মেরেঙ্গুয়েস, মেরিঙ্গু নামে একটি সাদা খাবার থেকে যেটির নামকরন করা হয়েছে। পরে আসে লস ব্লাঙ্কোস। দুটি নামই ক্লাবের পুরো সাদা পোশাকের প্রতিনিধিত্ব করে। ১৯৭০ দশকে এটির ডাকনাম লস ভাইকিংস জনপ্রিয়তা পায়, কারণ কিছু উত্তর ইউরোপের কিছু খেলোয়াড়কে দলভুক্ত করা হয়েছিল। সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমে দলটি লস গ্যালাক্টিকোস বা মহাতারকা নামে পরিচিত কেননা বিশ্বের অনেক দামী তারকা এখানে খেলেছেন। 

 

 

 অর্জনসমূহঃ

 

ঘরোয়াঃ

লা লিগা-

বিজয়ী (৩২):১৯৩১-৩২, ১৯৩২-৩৩, ১৯৫৩-৫৪, ১৯৫৪-৫৫, ১৯৫৬-৫৭, ১৯৫৭-৫৮, ১৯৬০-৬১, ১৯৬১-৬২, ১৯৬২-৬৩, ১৯৬৩-৬৪, ১৯৬৪-৬৫,১৯৬৬-৬৭, ১৯৬৭-৬৮,১৯৬৮-৬৯,১৯৭১-৭২, ১৯৭৪-৭৫, ১৯৭৫-৭৬, ১৯৭৭-৭৮, ১৯৭৮-৭৯, ১৯৭৯-৮০, ১৯৮৫-৮৬, ১৯৮৬-৮৭, ১৯৮৭-৮৮, ১৯৮৮-৮৯, ১৯৮৯-৯০, ১৯৯৪-৯৫, ১৯৯৬-৯৭, ২০০০-০১, ২০০২-০৩, ২০০৬-০৭, ২০০৭-০৮, ২০১১-১২

রানার্স আপ (২১): ১৯২৯,১৯৩৩-৩৪, ১৯৩৪-৩৫, ১৯৩৫-৩৬, ১৯৪১-৪২, ১৯৪৪-৪৫, ১৯৫৮-৫৯, ১৯৫৯-৬০, ১৯৬৫-৬৬, ১৯৮০-৮১, ১৯৮২-৮৩, ১৯৮৩-৮৪, ১৯৯১-৯২, ১৯৯২-৯৩, ১৯৯৮-৯৯, ২০০৪-০৫, ২০০৫-০৬, ২০০৮-০৯, ২০০৯-১০, ২০১০-১১, ২০১২-১৩

 

কোপা দেল রে-

বিজয়ী (১৯): ১৯০৫, ১৯০৬, ১৯০৭, ১৯০৮,১৯১৭,১৯৩৪, ১৯৩৬, ১৯৪৬, ১৯৪৭, ১৯৬১-৬২, ১৯৬৯-৭০, ১৯৭৩-৭৪, ১৯৭৪-৭৫, ১৯৭৯-৮০, ১৯৮১-৮২,১৯৮৮-৮৯, ১৯৯২-৯৩, ২০১০-১১, ২০১৩-১৪

রানার্স আপ (২০):১৯০৩, ১৯১৬, ১৯১৮, ১৯২৪,১৯২৯, ১৯৩০, ১৯৩৩, ১৯৪০,১৯৪৩, ১৯৫৮, ১৯৫৯-৬০, ১৯৬০-৬১, ১৯৬৭-৬৮, ১৯৭৮-৭৯, ১৯৮২-৮৩, ১৯৮৯-৯০, ১৯৯১-৯২, ২০০১-০২, ২০০৩-০৪, ২০১২-১৩

 

সুপারকোপা ডি এসপানা-

বিজয়ী (৯): ১৯৮৮, ১৯৮৯, ১৯৯০, ১৯৯৩, ১৯৯৭, ২০০১, ২০০৩, ২০০৮, ২০১২

রানার্স আপ (৫): ১৯৮২,১৯৯৫, ২০০৭, ২০১১, ২০১৪

 

কোপা এভা দুয়ার্তে-

বিজয়ী (১): ১৯৪৭

কোপা ডি লা লিগা-

বিজয়ী (১): ১৯৮৪-৮৫

রানার্স আপ (১): ১৯৮২-৮৩

 

 

ইউরপিয়ঃ

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ-

বিজয়ী (১০): ১৯৫৫-৫৬, ১৯৫৬-৫৭, ১৯৫৭-৫৮, ১৯৫৮-৫৯, ১৯৫৯-৬০, ১৯৬৫-৬৬, ১৯৯৭-৯৮, ১৯৯৯-০০, ২০০১-০২, ২০১৩-১৪

রানার্স আপ (৩): ১৯৬১-৬২, ১৯৬৩-৬৪,১৯৮০-৮১

 

উয়েফা কাপ-

বিজয়ী (২): ১৯৮৪-৮৫, ১৯৮৫-৮৬

 

উয়েফা কাপ উইনারস কাপ-

রানার্স আপ (২): ১৯৭০-৭১, ১৯৮২-৮৩

 

উয়েফা সুপার কাপ-

বিজয়ী (২): ২০০২, ২০১৪

রানার্স আপ (২): ১৯৯৮, ২০০০

 

 

বিশ্বঃ

ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপ-

বিজয়ী (১): ২০১৪

০ Likes ০ Comments ০ Share ৬৪০ Views