নাস্তিক ধোলাই (পর্ব-১)

১.
আমার অনেক নাস্কিক বন্ধু আছে। এরা মাঝে মাঝে এমন ভাব নেয় যেন মহাজ্ঞানী এরিষ্টেটল। আর এমন সব প্রশ্ন করার চেষ্টা করে -ভাব খানা এমন তোরে আজকা পাইছি টাইপ। এমন একজন আমাকে বলল আচ্ছা তুই ধর্ম কেন মানিস? ধর্ম না মানলেইতো ভাল। স্বাধীন জীবন লিড করা যায়। ধর্ম মানলেই যত গেনজাম। বিশ্ব আজ ধর্মিয় উগ্রতার স্বিকার।
আমি বললাম তোর কথা শেষ? নাকি আরো কিছু বলবি?
না আগে এইটাই বল তুই ধর্ম মানিস কেন?
আমি বললাম, তার আগে তোকে একটা প্রশ্ন করি। তুই জামা কাপর পরিস কেন?
কেন আবার! আমিতো আর জংগলি না। মানুষ। আমার শরম আছে । লজ্জা আছে। তাই পরি।
জামা না পরলেইতো ভাল। জামা পরাতেতো যত গেনজাম। জামা না পরলে এর খচরটা বেচে যেত। স্কুল কলেজ অপিস আদালতে কোন ড্রেস কোড থাকত না। সবাই এক নেংটো বাবা ।

কি সব পাগলের মত কথা বলছিস!
ওমা আমি বললাম বুঝি। তুইতো বললি।
আমিতো বলছি ধর্মের কথা।
এইতো । আমার ধর্ম আমার পোষাক। ধর্ম ছাড়া আমাকে নেংটো লাগে। তাই আমি ধর্ম মানি। ধর্ম মানাতে গেনজাম না। ধর্ম কে ব্যাবহারে গেনজাম।
মানে?
খুবই সহজ। জামা না পড়লে সভ্য মানুষ অস্বস্থিতে পড়ে ঠিকই। তাই বলে এখন যদি কেউ লুংগি পড়ে অফিসে যায় অফিসে ঢুকতে পারবে? পারবে নাতো । কেন ড্রেস কোড মানা হয়নি। কিন্তু সে বলে আমি এটাই পড়ে অফিস করব দেখি কোন মা কা লাল আমারে বাধা দেয়? অফিসের বস তাকে অফিস থেকে বের করে দিল। এখন সে যদি বলে, শালা এই কাপরই পরুম না। নেংটাই ভাল। কোন গেনজাম নাই। কাজটা কি ঠিক হবে? এর জন্য কি জামা দায়ি?
সোজা কথা ! জামা দায়ি হবে কেন? ঐ উল্লুকে পাঠাই দায়ি। যে ড্রেসকোড মানে নি।
আমিওতো তাই বলছি । ধর্ম আমার পোষাক । তাই আমি এটা মানি। তার একটা কোড আছে। এর ব্যবাহার উল্টা পাল্টা করা যাবে না । কোড মেনে করতে হবে। না মানলেই যত গেনজাম। এবার বল এর জন্য দায়ি কে? ধর্ম নিশ্চয় নয়।

২.
নাস্তিক বন্ধুটি এবার বলল আচ্ছা ভাল কথা তুই ধর্ম মানিস । কিন্তু ইসলামই কেন? আরোত ধর্ম আছে?
এইতো তুই আস্তে আস্তে আস্তিক হইবার ছবক নিচ্ছিস। শুন তুই মাছ বাজরে গেলি। বাজারেতো অনেক মাছ তুই কোন মাছটা কিনবি?
কেন ভাল আর তরতাজা মাছটা।
আমিও তাই করেছি ধর্মের ক্ষেত্রে শ্রেষ্ঠ ধর্মটা গ্রহন করেছি।
তোর ধর্মই যে শ্রেষ্ঠ বুঝলি কি করে?
গুড বয়! ভাল কথা। তা তুই ভাল মাছ চিনবি কি কইরা?
যাচাই বাছাই করতে হবে। টিপে টুপে দেখতে হবে।
আমিও তাই করেছি। মাছ যদি যাচই কইরা কিনা লাগে ধর্ম গ্রহান করব যাচই করব না। এখন বলতে পারিস কিভাবে যাচাই করলাম? তুই বলেছিস মাছ টিপে টুপে দেখে ভাল মাছ নির্বাচন করবি। আমাকেও তাই সকল ধর্মের মুল জিনিসগুলো দেখতে হবে। তা নিযে একটু জানাতে হবে।
তুই কি জানিস?
তেমন না। তবে কিছু ধারনা আছে। দেখ আমাদের ধর্মে মহান আল্লাহ বলেছেন, এসো সেই কথায় যা আমাদের আর তোমাদের মধ্যে এক। এর প্রধান হল আল্লাহ ছারা কোন মাবুদ নাই। তুই যদি এখন অন্য প্রধানধর্ম গুলাতে এই জিনিসি খুজিস। তা পাবি। খ্রিষ্টান ধর্মে আছে, হিন্দু ধর্মে আছে। যে মহান ইশ্বর এক। কিন্তু ঐ ধর্মের অনুসারীরা কি এটা মানছে? কেউ মানছে তিনজন স্রষ্টা । কেউ মানছে একাধিক স্রষ্টা। সৃষ্টিও তাদের স্রষ্টা। অথচ ইসলাম ধর্মের অনুসারিরা মহান আল্লাহর ঐ কথা মেনে একস্রষ্টার ইবাদত করে। এখন বল যে সঠিক জিনিস মানে যা সকল ধর্মেরই জিস্ট। সে কি ভুল হতে পারে। এই কথা স্বীকার করলেই একজন মুসলিম হওয়া যাবে। এখন মুসলিম যদি এক আল্লাহ স্বীকার করে তবেতো প্রকারান্তরে সেতো খ্রিষ্টান আর হিন্দু ধর্ম দুটোর ধর্মীয় আইনি মানছে। যা ঐ ধর্মের অনুসারির দাবিদাররাও মানে না। কাজেই আমার ধর্ম নির্বাচন ১০০% সঠিক ৯৯% ও নয়। পুরোটা। তাই আমি মুসলিম। আমার ধর্ম ইসলাম।
আচ্ছা বুঝলাম কিন্তু আল্লাহ যে এক এইটা তোর ধর্ম বিশ্বাস আছে তুই মানছিস। কিন্তু আমরাতো মানব না। তুই প্রমান করতে পারবি আল্লাহ এক?
আচ্ছা বলতো তোর বাপ কয় জন?
এইটা কোন ধরনের প্রশ্ন? ফাইজলামি করস।
আরে না! বল না!
কেন একজন। আমর ও তোরও সবার বাপই একজন।
ভাল কথা! কি কইরা বুঝলি?
এটাতো সাধারণ কথা। শালা খালি ফাউল কথা। আচ্ছা আমি যদি বিয়ে করি আমার সন্তানের পিতা আমি না হয়ে আর কে হবে?
আরে এতো চটছিস কেন? তুই বিয়ে করলে তোর সন্তানের পিতা কে এটা বলতে পারে তোর বউ। সে সর্বশেষ কার সাথে ছিল সেইতো জানে।
না আমি আমার বউকে বিশ্বাস করি। সে এমন ধারার নয়। আর যদি এমন হতো একদিন না একদিন আমি ধরতে পারতাম। আমার চোখে ধরা পরত।
এইতো লাইনে আইছো চান্দু। এতো সিরিয়াস ভাবে নিস না । বুঝানোর জন্য বলছি। মহান আল্লাহ এক । এক যদি না হতো এক দিন না একদিন কেউ না কেউ এতে অসংগতি ধরতে পারতো। এর দাবিদার থাকতো অনেক। কেউ বলত এখন দিন । কেউ বলত এখন রাত। মহা গেনজাম লেগে যেত। কোন কোন গেনজাম কি দেখা গেছে? আসল হল বিশ্বাস পরে হল যু্ক্তি। তুই তোর বউকে আগে বিশ্বাস করেছিস। যেহেতু তুই কোন অসংগতি দেখিসনি তাই তোর বিশ্বাস ঠিক ধরে নিয়েছিস। কিন্তু যদি দেখতি তখন আসতো যুক্তি দিয়ে তা প্রমান করার কথা। আল্লাহ এক এটা সর্বপ্রথম আমার বিশ্বাস। মুসলমানের বিশ্বাস ই সব যুক্তি প্রমান দরকার হয় না। হ্যা শুধুমাত্র নাস্তিককে টাইট দিতে একটু যুক্তি প্রয়োগ করতে হয় মাঝে মাঝে । এই আরকি।

১ Likes ০ Comments ০ Share ৮৭১ Views

Comments (0)

  • - মুহম্মদ ফরহাদ ইমরান

    ভেবেছ গাছটাও তোমার আপন
    উঠোন-বাড়ি ভুলবে না তোমায়emoticons

    - মাসুম বাদল

    emoticonsemoticonsemoticons

    - সুমন সাহা

    বেড়েছে বয়স
    সময়ের দোষ
    কিন্তু তুমি আজো অবুঝ

    ঘুমিয়ে ছিলে সংসার ধর্মে
    অসার তুমি
    আর তোমার পরিবার

    emoticonsemoticons

    Load more comments...