প্রবাসী একজন

৩ বছর আগে লিখেছেন

জিকা ভাইরাস ! বাংলাদেশ ও সমসাময়িক বিশ্ব

মশার হুল বেয়ে এ বার হানা দিচ্ছে নতুন বিপদ জিকা। একেবারেই অচেনা রোগ। রোগের উপসর্গও খুব অস্পষ্ট। ফলে এই রোগে আক্রান্ত হলে বোঝা যাচ্ছে না সহজে। নিঃশব্দে মস্তিষ্ক শেষ করে দিচ্ছে জিকা ভাইরাস। এমনভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মস্তিষ্ক বা ব্রেন, যা আর কিছুতেই স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরা সম্ভব নয়।
ক্রান্তীয় এবং উপক্রান্তীয় অঞ্চলের দেশগুলিতে জিকা ভাইরাসের প্রকোপ দেখা দিতে শুরু করেছে। বাংলাদেশও এই ক্রান্তীয় অঞ্চলেই পড়ে।
জিকা ভাইরাসের প্রভাব সবচেয়ে বেশি দেখা যাচ্ছে গর্ভবতী মহিলাদের উপর। অন্তঃসত্ত্বা মায়ের গর্ভে থাকা অবস্থাতেই আক্রান্ত হচ্ছে সন্তানও। সেই সন্তান জন্ম নিচ্ছে মাইক্রোসেফ্যালিতে আক্রান্ত হয়ে। অর্থাৎ ওই নবজাতকদের মাথা শরীরের তুলনায় অস্বাভাবিক রকম ছোট আকারের হচ্ছে। চিকিৎসকরা বলছেন অসম্পূর্ণ মস্তিষ্ক নিয়ে জন্মানো এই শিশুদের জীবনভর সেই অস্বাভাবিকতা নিয়েই বাঁচতে হবে। জিকায় আক্রান্ত হলে ঘুসঘুসে জ্বর হয়। সঙ্গে গায়ে সামান্য র্যাশ বেরোতে পারে। কিন্তু এই লক্ষণগুলি এতই মৃদু যে রোগী জিকা আক্রান্ত না সাদারণ জ্বরে আক্রান্ত, তা বোঝা খুব কঠিন। চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের কাছেও রোগটি অচেনা। ফলে জিকাকে চিনে নেওয়ার উপায় এখনও খুঁজে বার করা যায়নি। এই রোগের জন্য নির্দিষ্ট কোনও ওষুধও বাজারে নেই। জিকাকে চিনে নেওয়ার উপায় এবং তার নিরাময়ের ওষুধ খুঁজতে মার্কিন চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা জোরকদমে কাজ শুরু করেছেন। তবে এখনও কোনও সুখবর মেলেনি।
ব্রাজিল ইতিমধ্যেই জিকার সবচেয়ে ভয়ঙ্কর শিকারে পরিণত হয়েছে। সে দেশে অন্তত ৪০০০ নবজাতক মাইক্রোসেফ্যালি অর্থাৎ অস্বাভাবিক ছোট মাথা নিয়ে জন্মেছে। ইউরোপেও জিকার প্রকোপ বাড়তে শুরু করেছে। ডেনমার্কে প্রথম জিকা আক্রান্ত ব্যক্তিকে চিহ্নিত করা গিয়েছে বলে ফরাসি সংবাদ সংস্থা সূত্রের খবর। কানাডা এবং চিলি ছাড়া দুই আমেরিকা মহাদেশের প্রায় সব দেশেই জিকা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে ওয়ার্ল্ড হেল্থ অর্গানাইজেশনের (হু) বিশেষজ্ঞরা সতর্কবার্তা শুনিয়েছেন।
continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (0)

  • - ওয়াহিদ মামুন

    emoticons

    • - মাসুম বাদল

      শুভকামনা... emoticons

    - আমির ইশতিয়াক

    চমৎকার

    • - মাসুম বাদল

      সালাম ও শুভকামনা... emoticons

প্রবাসী একজন

৩ বছর আগে লিখেছেন

তুষার ঝরে ভয়ংকর সুন্দর নিউইয়র্ক

গতকাল থেকেপ্রবল তুষার ঝড়ে ঢেকে গেছে যুক্তরাষ্ট্রেরনিউইয়র্ক সহ ১৫টি প্রদেশ। বিপর্যস্ত পরিবহণ ব্যবস্থা, বেহাল জন-জীবন। ইস্ট-কোস্টে যে পরিমাণতুষারপাত হয়েছে তা সরাতে প্রায় এক সপ্তাহ লেগে যাবে।তুষার ঝড়ে বিপর্যস্ত শহরের কিছু ভয়ংকর সুন্দর ছবি রইল আপনাদের জন্য। ছবি নেট থেকে নেয়া।
continue reading
Likes Comments
০ Shares

Comments (1)

  • - মাসুম বাদল

    অনেক অনেক ভাললাগা জানালাম... emoticons

প্রবাসী একজন

৪ বছর আগে লিখেছেন

স্টিভ জবসের ১০টি উক্তি

অ্যাপলের প্রতিষ্ঠাতা স্টিভ জবসের সাফল্যের কথা কার না জানা। অ্যাপলের মতো একটি সফল প্রতিষ্ঠান দাঁড় করানো খুব একটি সহজ ব্যাপার নয়। কিন্তু স্টিভ জবস তার জীবদ্দশায় এই কাজটিকেই সম্ভব করে গিয়েছেন। আর এ কারণেই তার মৃত্যুর পরও এখনও প্রযুক্তি বিশ্ব তাকে আগের মতোই স্মরণ করে। প্রায় সব বিষয়ই তিনি দেখতেন গভীরভাবে। আর এই গভীর পর্যবেক্ষণ থেকে তিনি বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মন্তব্য করেছেন যা সবাইকেই যুগিয়েছে উৎসাহ এবং তার মৃত্যুর পরও তার এই উক্তিগুলো সমানভাবে সবাইকে উৎসাহ জুগিয়ে আসছে। আজ স্টিভ জবসের এমনই কয়েকটি উক্তি প্রিয়.কমের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো: ১. সৃজনশীলতা হলো একটা কিছুর সাথে অন্য কিছুর সংযোগ দেওয়ার সক্ষমতা। আপনি যদি সৃজনশীল কাউকে জিজ্ঞাসা করেন কিভাবে তারা কোন কাজ করে, তাহলে তারা নিজেকে কিছুটা অপরাধী মনে করে। কারণ প্রকৃতপক্ষে তারা নিজেরা সেটি করেনি, তারা কেবলমাত্র সেটি গভীরভাবে দেখেছে। আর কিছু সময় পর সেই কাজটি করা তাদের জন্য অবধারিত হয়ে গেছে। ২. একটি নির্দিষ্ট ব্যবহারকারী গোষ্ঠীকে ফোকাস করে পণ্যের ডিজাইন করা সত্যিই কঠিন। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অনেকেই বুঝে উঠতে পারেন না তারা কী চান যতক্ষণ না তাদের সামনে একটি পণ্য হাজির করা হয়।
৩. আপনাকেও পৃথিবী ছেড়ে যেতে হবে, এমন চিন্তাই কেবল পারে কোন কিছু হারানোর দুশ্চিন্তা থেকে আপনাকে রক্ষা করতে পারে বলে আমার কাছে মনে হয়। ৪. আপনার জীবনের একটি বড় অংশ জুড়েই থাকবে আপনার কর্ম এবং যে কাজটি নিজের কাছে সেরা বলে মনে হয়, সেই কাজটি করতে পারাই হলো আত্মতুষ্টির একমাত্র উপায়। ৫. গোরস্থানে সবচেয়ে ধনী হয়ে থাকার ব্যাপারটি আমার কাছে তেমন কিছুই মনে হয় না...রাতে ঘুমাতে যাওয়ার সময় এটা ভেবে ঘুমানো উচিত যে আমরা দারুণ... continue reading
Likes Comments
০ Shares

প্রবাসী একজন

৪ বছর আগে লিখেছেন

বারমুডা ট্রায়াঙ্গল

বারমুডা ট্রায়াঙ্গল হচ্ছে পৃথিবীর অন্যতম রহস্যময় একটি জায়গা। এটি দূর থেকে দেখতে অন্যান্য জায়গার মতোই স্বাভাবিক বলে মনে হবে। এলাকার নাম ট্রায়াঙ্গল হবার কারন হচ্ছে এটি ত্রিভুজ আকৃতির আর বর্তমানে এটি পৃথিবীর অন্যতম অভিশপ্ত এলাকা বলে খ্যাতি লাভ করেছে। বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের অবস্থান আটলান্টিক মহাসাগরে। এর একপাশে অবস্থিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা, আরেক প্রান্তে পুয়ের্টো রিকো এবং ওপর প্রান্তে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বারমুডা দীপ অবস্থিত। বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের মোট আয়তন ১১৪ লক্ষ বর্গ কিলোমিটার অর্থাৎ ৪৪ লক্ষ বর্গ মাইল। এটি পৃথিবীর ২৫-৪০ ডিগ্রি উত্তর অংশ এবং ৫৫০-৫৮ ডিগ্রি পশ্চিম দ্রাঘিমার মধ্যে অবস্থিত।
কি এমন আছে এখানে? কেন এই স্থানটিকে এতো অভিশপ্ত বলা হয়? এর কোন সঠিক ব্যাখ্যা এখনো বিজ্ঞান দিতে পারেনি। কিন্তু কেন? এর পেছনে বিভিন্ন কারন আর ঘটনা আছে যা বিজ্ঞানকে কে হতবাক করে দেয়। আজকে আপনাদের সাথে শেয়ার করবো বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের কিছু অবাক করা ঘটনা।
ঘটনা ১। সালটা ছিল ১৯৪৫ সালের ডিসেম্বর মাস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৫টি যুদ্ধ বিমান প্রশিক্ষণ নেবার জন্য উদ্দয়ন করে। কিছুক্ষণ পরেই তারা সেই ভয়ংকর বারমুডা ট্রায়াঙ্গলের কাছে চলে যায় এবং কেন্দ্রে ম্যাসেজ দেয় যে তারা সামনে আর কিছুই দেখতে পারছে না যতদূর চোখ যাচ্ছে শুধু কুয়াশা আর কুয়াশা। অদৃশ্য হবার শেষ মুহূর্তে তাদের শেষ কথা ছিল “আমাদের বাঁচাও উদ্ধার কর এখান থেকে আকাশের কুয়াশা আমাদের কোথায় জানি নিয়ে যাচ্ছে” এর পর আর তাদের কাছ কোন ধরনের ম্যাসেজ পাওয়া সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে তাদের উদ্ধার করার জন্য একটি উদ্ধারকারী দল সেদিকে পাঠানো হয় কিন্তু তাদেরকেও আর খুজে পাওয়া যায় নি। এর পরপরই বারমুডা ট্রায়াঙ্গল আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়।
bermuda triangle
ঘটনা ২। এটি ১৯৬৭ সালের মে মাসের দিকের ঘটনা। কোনকিছু... continue reading
Likes Comments
০ Shares

প্রবাসী একজন

৪ বছর আগে লিখেছেন

রামপালের কথা মনে পড়ে

সুন্দরবন তেলে ভেসে যাচ্ছে। কারো কি করার কিছু নেই? এভাবেই নষ্ট হচ্ছে বনভূমি। যেটা কিনা বাংলাদেশের জন্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এমনিতেই বাংলাদেশের বনভূমি আয়তনের ২৫ শতাংশের অনেক কম এবং দিন দিন আরো কমে যাচ্ছে। নাকি এটি চক্রান্ত। একটা শব্দ মাথার ভেতর ঘুরপাক খাচ্ছে। "রামপাল"। 
continue reading
Likes Comments
০ Shares
Load more writings...