লুৎফুর রহমান পাশা

২ বছর আগে লিখেছেন

এ ভোগান্তির শেষ কোথায়!!

চারিদিকে রাস্তা ঘাটের বেহাল দশা। যেমন ভাঙ্গা তেমনি অনিরাপদ। এরপরও ভাবতেই ভালো লাগে আমরা পৃথিবীর সবচেয়ে দামী রাস্তায় চলি। সারাবছর কাজ চলে। ধুলা বালিতে, কাদা বৃষ্টি হলে পানিতে সয়লাব। বারোমাসি সাইনবোর্ড লাগানোই থাকে রাস্তার উন্নয়ন কাজ চলছে সাময়িক অসুবিধার জন্য আমরা দুঃখিত।

রাস্তা গাড়ীর চলাচলের জন্য নহে। কারো পকেট উন্নয়নের জন্যই। তারপরও দয়া করে দুঃখ প্রকাশের জন্য কৃতজ্ঞতা জানানো উচিত।

গত ১৪৬ দিনে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ১৩২৩ জন। এই মৃত্যুর মিছিল থামছেনা। এই নিয়ে সড়ক বিভাগ রাস্ট্রের কারো কোন মাথাব্যথা নেই।

দুর্ঘটনার লোকজনকে সহযোগিতার পরিবর্তে লুটপাট করছে একদল লোক। আমরা গেলো গেলো বলে চিতকার করছি। অথচ রাস্তার হরহামেশা ছিনতাই হচ্ছে, মেয়েদের ব্যগ, গলার চেইন টেনে নিয়ে যাচ্ছে। কেউ কেউ মারা পড়ছে।

ইদানিং আবার আস্ত মেয়েকেই দিন দুপুরে তুলে নিয়ে যাচ্ছে। সেদিন যাত্রবাড়ীতে এই কারণে এক ছেলেকে ধরে এক বছরের জেল দিয়েছে রেব(য ফলা আসেনা)। যাদেরকে তুলি নিয়ে যেতে পেরেছে তাদের অবস্থা নিত্য পত্রিকায় দেখছি।

খাদ্য ভেজাল পাগল বানিয়ে ছাড়ছে। দেখার মত কেউ নেই। এই রকম অভিবাবকহীন আমরা বেঁচে আছি এটা ভাগ্য বলা যেতে পারে।

এতকিছুর মাঝেও কারো কোন বিকার দেখছিনা। ভাবতে ভালই লাগে সম্ভবত এত সুখী মানুষ পৃথিবীর কোথাও নেই। সবাই এই সবে অভ্যস্থ হয়ে যাচ্ছে।

চাইলে যা কিছু ইচ্ছা করা যায়। প্রতিবাদ প্রতিরোধ প্রতিশোধ নেয়ার কেউ নেই। এর চাইতে স্বাধীন কোন রাস্ট্র পৃথিবীর কোথাও আছে কিনা জানা নেই। ভাবতেই ভাল লাগে আমরা পৃথিবীর সবচেয়ে স্বাধীন রাস্ট্রে বসবাস করি।

Likes Comments
০ Share